বিজ্ঞানে আমার জিজ্ঞাসাঃ দুটি প্রশ্ন

অনেক ব্লগেই দেখি ব্লগারগন বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর নেন ব্লগ থেকেই। তাই আমিও আমার ব্যক্তিগত কয়েকটা প্রশ্নের উত্তর চাচ্ছি।

অনেকই বলে যে কোয়ান্টাম ফ্ল্যাক্সুয়েশন এর মাধ্যমে মহাবিশ্বের এই রহস্য ওই রহস্যের সমাধান পাওয়া যাবে। কিন্তু কেউই বলে না কোয়ান্টাম ফ্ল্যাক্সুয়েশনটা আসলে কি? প্রশ্ন হলঃ

কোয়ান্টাম ফ্ল্যাক্সুয়েশন কি?

২ বিভিন্ন সময় অনেককেই বলতে শুনেছি সমান্তরাল বা একাধীক মহাবিশ্বের অস্তিত্বের কথা। কিন্তু কেউই মহাবিশ্বের সঙ্গা দিতে চায় না 🙁

আচ্ছা মহাবিশ্বের সঙ্গা কি?

আপাতত এই দুইটাই প্রশ্ন রাখলাম। উত্তর পেলে ধন্য হব।

৮ thoughts on “বিজ্ঞানে আমার জিজ্ঞাসাঃ দুটি প্রশ্ন

  1. ১)
    কঠিন প্রশ্ন করেছেন। বিষয়টা

    ১)
    কঠিন প্রশ্ন করেছেন। বিষয়টা আমারও জানার ইচ্ছা। এখানে কেউ এই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবে কিনা আমি জানি না।
    কোয়ান্টাম ফ্লাকচুয়েসন জিনিষটা জানতে হলে হাইজেনবার্গ আনসার্টেনিটি প্রিন্সিপ্যাল সম্পর্কেও একটু জেনে নিতে হবে।
    আমি যেটা জানি একটি নির্দিষ্ট সময়ে কোন কণার অবস্থান জানা গেলে তার ভরবেগ সম্পর্কে কিছুই জানা যাবে না। আবার ভরবেগ জানা গেলে তার অবস্থান অনিশ্চিত হয়ে পড়বে। এটা কণাটির শক্তি আর সময়ের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে। এটা হল হাইজেনবার্গ আনসার্টেনিটি প্রিন্সিপ্যাল।
    আবার ফিজিক্স বলে যে, কোন স্থানে শক্তির পরিমান সব সময় সমান। অর্থাৎ শক্তির কোন ক্ষয় নাই, তবে শক্তির অবস্থার পরিবর্তন হতে পারে। শক্তির নিত্যতা সুত্র বলে একে সম্ভবত।
    এখন কোয়ান্টাম ফ্লাকচুয়েশন অনুযায়ী, একটা খালি জায়গায় অতি ক্ষুদ্র সময়ের জন্য শক্তির নিত্যতা সুত্র লঙ্ঘন হতে পারে। কিভাবে?
    অতি ক্ষুদ্র সময়ের জন্য পার্টিকেল আর অ্যান্টিপার্টিকেল তৈরি হলে।
    অতি ক্ষুদ্র সময়ের জন্য এই পার্টিকেল আর অ্যান্টিপার্টিকেল স্পেস থেকে এনার্জি ধার করে আবার পর মুহূর্তে কিছু বোঝার আগেই তা ফিরিয়ে দেয়।
    যেহেতু হাইজেনবার্গ আনসার্টেনিটি প্রিন্সিপ্যাল অনুযায়ী একটি নির্দিষ্ট “সময়ে” একটি কণার ভরবেগ বা শক্তি জানা সম্ভব না।
    বুঝাইতে না পারলে কিছু করার নাই।

    ভালো হয় কোন বিজ্ঞান ব্লগে গিয়ে এই প্রশ্ন করলে।

    ২)

    মহাবিশ্ব হল সমস্ত গ্রহ, নক্ষত্র, গ্যালাক্সি , ডার্ক ম্যাটার আর ডার্ক এনার্জি নিয়ে গঠিত একটা সিস্টেম।

    1. ধন্যবাদ! ভাই। অন্য কোন ব্লগে
      ধন্যবাদ! ভাই। অন্য কোন ব্লগে নিজের আইডি নাই। আর অতিথি লেখক হয়ে কিভাবে লেখা যায় তা জানি না।

      অন্যান্য ব্লগের ব্লগাররা অনেক ধরনের ট্যাগ দিয়ে পোষ্ট করতে পারে। এমনকি বিজ্ঞানের শাখা গুলোর নামেও ট্যাগ দেয়। কিন্তু আমরা এখানে তা পারি না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *