২০১৪ সনের বিশ্বে বাঙালির অবস্থান পরিমাপ করেছেন কি? [ পর্ব – ৪ ]

প্রাচিন বিশ্বসাহিত্য, পুরাণ, উপপুরাণ, রামায়ণ, মহাভারত, কালিদাস, ইলিয়াড, অডিসি, ফেরদৌসি কোথায় আছে বাঙালি? চর্যাপদ কি বিশ্বের অন্যতম কোন উল্লেখযোগ্য গুরুত্বপূর্ণ সাহিত্য কর্ম? আবার সেটিও দাবি করছে নেপালিরা তাদের আদিভাষা বলে! পাওয়াও গেল নেপালে! তাহলে বাঙালি কি কিছুই সংরক্ষণ করেনি তার ঘরে? অবাক কান্ড! প্রাচিন আর মধ্যযুগে বাঙালির কোন গদ্য সাহিত্যও নেই! আরবি, ইরানি, ঈশপের গল্প, মহাকাব্য, গ্রীক নাটক, মিশরীয় সাহিত্য, রোমান সাহিত্য, হিব্রু সাহিত্য তথা তালমুদ, আরবী সাহিত্য, এ্যাংলো স্যাকসন থকে এ্যাংলো নর্মান ইংরেজি সাহিত্য, চসার তথা ইংরেজি রেনেসা যুগ, সেক্সপিয়র, মার্লো, বেন জনসন, বেকন, মিলটন, ড্রাইডেন, পোপ, সুইফট্, অলিভার, গোল্ডস্মিথ, গিবন, ওয়ার্সওয়ার্থ, টেলার, কোলরিজ, ওয়াল্টার স্কট, শেলি, জন কিটস, বায়রন, জেন স্টেন, টেনিসন, ব্রাউনিং, হার্ডি, স্টিভেনসন, এইচ.জি ওয়েলস, ফরাসী সাহিত্যে শার্লেমেন, ফ্রয়সার্ট, কমিন্স, দেকার্ত, প্যাসকেল, মলিয়ের, রাসিন, কর্নে, ডিডেরো, মনটেসকিউ, সেভিনে, ফঁতেন, ভলতেয়ার, রুশো, মারশে, কোঁতে, ভিক্টর হুগো, অন্যান্য বিশ্ব সাহিত্যে লুথার, ক্লপস্টক, লেসিন, গ্যেটে, মমসেন, ফন শিলার, হাইনরিখ হাইনে, টমাস মান, জ্যাকব গ্রিম, সুইডেনবার্গ, লিনিয়াস, এ্যানডারসন, ব্রান্ডেস, নাট্যকার ইবসেন, বিয়ারস্টারস, সি উন্ডুসেট, সেলমা লাগেরলব, ফ্রাঙ্কলিন, কুপার, এ্যালান পো, এমারসন, থোরো, মিলভিল, হুইটম্যান, লংফেলো, লোয়েল, হোমস, প্রেসকট, আর্ভিং, হথর্ন, মার্ক টোয়েন, ও’হেনরী, ডিকেনসন, সিনক্লেয়ার, পার্লবাক, হেমিংওয়ে, পুশকিন, নিকোলাই গোগোল, টলস্টয়, দস্তকয়েভস্কি, আন্তন চেখভ, ম্যাক্সিম গোর্কি, মিখাইল সলোকভ, প্যাস্তারনাক, মায়াকোভস্কি, চিনা ও প্রাচ্য সাহিত্যিক ও দার্শনিকদের মধ্যে কনফুসিয়াস, ফোবুকি, তুফু, পোচিনই, সুমাকুয়াং, কোজিকি, কিনো সুতরাই, ওকুনি-দের যখন জয়জয়কার, তখন বাঙালি কই? বাঙালির একমাত্র মহাকাব্য ‘মেঘবাদবধ’ কি প্রকৃত অর্থে একটি পূর্ণাঙ্গ মহাকাব্য? (হায়, যদি আমাদের রবীন্দ্রনাথ জন্ম না হতো, তবে কোথায় থাকতাম আমরা!) ৩ হাজার বছর আগে নাটক মঞ্চস্থ হতো এথেন্সের এ্যাক্রোপলিসে, তখনই নাট্যালয় স্থাপন ও অভিনয় শুরু গ্রিসে। ভারতে সংস্কৃত নাটক হতো আজ থেকে ২-হাজার বছর আগেও। ১৪০০ সনে ইতালীয় ও রোমানরা নাটক মঞ্চস্থ করে তাদের দেশে। তারা মাস্ক, অপেরা, ব্যালের প্রবর্তন করে ঐ সময়। সতেরো শতকে ফ্রান্সে মলিয়ের প্রহসন-নাটকের সয়লাব সৃষ্টি হয় সর্বত্র। আর বাঙালি! ১৮৫৮ সনে কোলকাতায় বৃটিশদের উৎসাহে বেলগাছিয়ায় প্রথম থিয়েটার প্রদর্শিত হয়। হায় !

এবার বিদ্যালয় তথা স্কুল। প্রাচিন সুমেরুতে বহু স্কুল ছিল। গ্রিসে প্লেটো, সক্রেটিস, এরিস্টটল আমলে বহু স্কুল ছিল প্রকৃতির মধ্যে। মিশরে ফারাওদের আমলে পুরোহিতরা শিশুদের শিক্ষা দিত ‘পবিত্র স্কুলে’, বৌদ্ধযুগে ঋষিরা বিক্রমশিলা, তক্ষশিলা ও নালন্দায় শিশুদের শিক্ষা দিতেন। ইতালি ও জার্মানিতে মধ্যযুগে আবাসিক গ্রামার স্কুল প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রথম শতাব্দিতে রোমে ‘কুইনটিলিয়াম’ নামে ‘বক্তৃতার স্কুল’ চালু হয়। জার্মান ফ্রবেল কিন্ডারগার্টেন স্কুল, এ্যান্ডু বেল মন্টিরিয়াল পদ্ধতি, ড. মারিয়া মন্তেসরি পদ্ধতি, বৃটেনের কেন্টে বোরস্টাল স্কুল, ফ্রান্সে ব্রেইল স্কুল, হেলেন কেলার মূক-বধির স্কুল প্রতিষ্ঠা বা প্রবর্তন করেন ধাপে ধাপে। কিন্তু বাঙালির স্কুল তথা শিক্ষা পদ্ধতি কি ছিল? জানেন কি কেউ? টোল বা পাঠশালার প্রাচিন ঐতিহ্য কি? গভির চিন্তার বিষয় বটে!

এর আগের পর্বগুলোর লিংক :
http://istishon.blog/node/6424#sthash.rJzly0MB.dpbs (Part 3)
http://istishon.blog/node/6419#sthash.hifdww9V.dpbs (Part 2)
http://istishon.blog/node/6406#sthash.uw6Zsfge.dpbs (Part 1)

[আগামিকাল পর্ব-৫ তথা শেষ পর্ব]

লেখকের ফেসবুক ঠিকানা [ধর্মান্ধতামুক্ত যুক্তিবাদিদের ফ্রেন্ডভুক্ত হওয়ার আমন্ত্রণ জানাই ] : https://www.facebook.com/logicalbengali

১২ thoughts on “২০১৪ সনের বিশ্বে বাঙালির অবস্থান পরিমাপ করেছেন কি? [ পর্ব – ৪ ]

  1. ড. লজিক্যাল বাঙালি-আপনার
    ড. লজিক্যাল বাঙালি-আপনার হতাশার কথা শুনাচ্ছেন নাকি আশাহতের কথা বলছেন ঠিক বুঝা যাচ্ছে না তবে যা ভাল লাগছে তাহল বিশাল একটা পটভূমি আর আলোচনার স্থান নিয়ে আপনি আপনার বক্তব্যকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন!! ভাল লাগল…
    আগামীকাল আপনার শেষের অপেক্ষায় থাকলাম!! তবেই কিছু বলব বা নিজের বক্তব্য তুলে ধরব…

    1. আমি ঘটনাক্রমে পৃথিবির
      আমি ঘটনাক্রমে পৃথিবির অনেকগুলো দেশ ভ্রমণ করেছি, তাদের সাথে নানা উপাঙ্গে নিজেদের তুলনা করে হতাশই হয়েছি বেশি, তাই নিজের দু:খবোধ থেকে অন্য বাঙালিকে শিক্ষা নেয়ার মানসে এ লেখা।

  2. বাঙালির স্কুল তথা শিক্ষা
    বাঙালির স্কুল তথা শিক্ষা পদ্ধতি কি ছিল? জানেন কি কেউ? টোল বা পাঠশালার প্রাচিন ঐতিহ্য কি? গভির চিন্তার বিষয় বটে! – ওহ আবার চিন্তায় পরে গেলাম… তবে লেখাটা কিন্তু বেশ… :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া:

    1. ফাতেমাকে ধন্যবাদ। বাঙালির
      ফাতেমাকে ধন্যবাদ। বাঙালির চিন্তনে আঘাত দিতেই এ লেখাটা, তা করতে পারলে স্বার্থক মনে করবো, আপনি আমার ফেবুকে আছেন কি?

  3. শেষ পর্বের অপেক্ষায় থাকলাম।
    শেষ পর্বের অপেক্ষায় থাকলাম। তখন হয়তো বিগ পিকচারটা দেখতে পারব; এবং আশা করি বিস্তারিত আলোচনা হবে।

    বেশ ভাল একটা প্রচেষ্টা; শুভ কামনা রইল। :থাম্বসআপ: :ফুল:

    1. “রাজপথ ঘুরে, নর্দমা খুড়ে,
      “রাজপথ ঘুরে, নর্দমা খুড়ে, খুজি জীবনের মানে” কথাটা ভাল লাগল, এ প্রত্যয়ে বাঙালি খুঁজে দেখার চেষ্টা, ফলোদয়ের প্রতিক্ষায়!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *