হেলেনের ঔরসে মুরুব্বিরা কি গর্ভবতী?

আনসার এক সুতীব্র জ্বালাময়ী সুন্দরীকে বিবাহ করিয়া বাড়ি ফিরিল। স্ত্রীকে হেলেন অফ ট্রয় হিসাবে পরিচয় করিয়ে দিল তার বড়ভাই আলীর কাছে। আলী হেলেন অফ ট্রয়কে দেখিয়া চমকে উঠে বলেঃ এ তুই কাহাকে বিবাহ করে আনিলি আনসার?!! এতো ট্রয় নগরী ধ্বংশ করিবে.. এর রূপের আগুনে আমাদের বর্গাদারেরা জ্বলিয়া পুড়িয়া মরিবে… আনসার এ্যন্সার করেঃ জ্বলিলে জ্বলিবে.. দেশে কি বার্ণ ইউনিট নাই মিয়াভাই?

আলী এবং আনসার। দুইভাই। আলী বড় আনসার ছোট। তাদের পিতার রেখে যাওয়া সকল সম্পত্তি একটা ট্রাস্টি বোর্ডের মাধ্যমে পরিচালিত হয়। একবছর আলী আরেক বছর আনসার এই ট্রাস্টি বোর্ডে মাতব্বরির দায়িত্ব পালন করে।


আনসার এক সুতীব্র জ্বালাময়ী সুন্দরীকে বিবাহ করিয়া বাড়ি ফিরিল। স্ত্রীকে হেলেন অফ ট্রয় হিসাবে পরিচয় করিয়ে দিল তার বড়ভাই আলীর কাছে। আলী হেলেন অফ ট্রয়কে দেখিয়া চমকে উঠে বলেঃ এ তুই কাহাকে বিবাহ করে আনিলি আনসার?!! এতো ট্রয় নগরী ধ্বংশ করিবে.. এর রূপের আগুনে আমাদের বর্গাদারেরা জ্বলিয়া পুড়িয়া মরিবে… আনসার এ্যন্সার করেঃ জ্বলিলে জ্বলিবে.. দেশে কি বার্ণ ইউনিট নাই মিয়াভাই?

আলী এবং আনসার। দুইভাই। আলী বড় আনসার ছোট। তাদের পিতার রেখে যাওয়া সকল সম্পত্তি একটা ট্রাস্টি বোর্ডের মাধ্যমে পরিচালিত হয়। একবছর আলী আরেক বছর আনসার এই ট্রাস্টি বোর্ডে মাতব্বরির দায়িত্ব পালন করে।

যাক হেলেন অফ ট্রয়কে নিয়ে যা ঘটলো তা বলি। ছোটভাইয়ের স্ত্রী হিসাবে হেলেন অফ ট্রয়কে কিছুতেই মানিতে পারিল না আলী। সে পরিস্কার জানাইয়া দিলো এই সর্বনাশীকে ডিভোর্স না করিলে পরবর্তীবার তাকে আর ট্রাস্টি বোর্ডের মাতব্বরি দেওয়া হবে না। সাথে একটু অনুনয়ের সুরে বলেঃ তুই এ কি করেছিস ভ্রাত? তুই কি জানিস এর পিতামাতা ভাইবোনেরা একদা আমাদের সমস্ত সম্পত্তির জাল দলিল করিয়া আমাদের নিঃসহায় করিতে চেয়েছিলো?
আনসার এ্যন্সার করেঃ পুরানা কাসুন্দি ঘাটার কি দরকার মিয়াভাই.. একসময় আপনিওতো ইহার কোলে বসিয়াছিলেন.. যাক আসল কথা হলো মাতব্বরি নিয়ে পলিটিক্স করবেন না… ট্রাস্টিবোর্ডর মাতব্বরি ভালো মানুষের মত আমাকে দিয়া দেন…

আলী কিছুতেই রাজি না… হেলেন অফ ট্রয়কে ইন্সট্যান্ট ডিভোর্স না করিলে কিচ্ছু পাবিনা তুই… পরের বছরও আমিই মাতব্বর থাকিবো… উপায় না দেখিয়া আনসার পাড়ার মুরুব্বিদের ডাকিল.. মুরুব্বিরা যখন আসিলো তখন হেলেন অফ ট্রয় কলপাড়ে খোলামেলা স্নান করিতেছিলো। হেলেন অফ ট্রয় কে এরূপ সিক্ত বসনে স্নানরত দেখিয়া মুরুব্বিদের এ মাথা ও মাথা উভয় মাথায় গরম হইয়া গেলো.. স্নানরত হেলেনের দিক থেকে চক্ষু না ফিরাইয়াই তাহারা কম্পমান উত্তেজিত কন্ঠে আলীকে বলিলোঃ স্বৈরাচারী হইওনা আলী… আনসারকে মাতব্বরি দিয়া দাও… আলী কর্ণপাত করে না।

উপরন্তু মুরুব্বিদের অপমান অপদস্থ করে খেদাইয়া দেয় আলি। ফলে একটা টালমাটাল সিচুয়েশন দেখা দিলো। হেলেন অফ ট্রয় তার স্বামীর প্রতি এই বঞ্চনা সহ্য করতে না পেরে তার রূপের আগুনে নীরিহ বর্গাদারদের পুড়াইয়া দিতে শুরু করিলো… বড়ভাই বলিলোঃ দেখিলি আনসার তোর হেলেন অফ ট্রয় কিভাবে পোড়ামাটি তত্ব প্রয়োগ করিতেছে… বার্ণ ইউনিটে আর জায়গা সঙ্কুলান হয়নারে… উহাকে ছাড় ভাই… আনসারের এ্যন্সারঃ আপনার ষড়যন্ত্র আমি জানি মিয়াভাই… আমি ছাড়িলে আপনি উহাকে ইউজ করিবেন… আপনি যে আড়েঠ্যারে উহার দিকে তাকান তাহা আমি জানি… যাইহোক দিনের বেলায় হেলেন রূপের আগুনে সব ছারখার করে আর রাতে বিছানায় আনসারকে রূপসুধা পান করায়।

কিছুদিন পরে আনসার হঠাৎই বমি বমি ভাব অনুভব করে সাথে মাথা ঘোরা। আনসার ছুটিলো ডাক্তারের কাছে। ডাক্তার টেস্ট ঠেস্ট করে বলে আপনি গর্ভবতী মিস্টার আনসার..

হোয়াট!! আই এ্যম প্রেগনেন্ট!!! আমার গর্ভে হেলেনের ঔরসজাত সন্তান? নিজ চোখে টেস্ট রিপোর্ট দেখিয়া বলেঃ হেলেন অফ ট্রয় আমার সাথে বিট্রয় করিয়াছে… এতবার আমি তাকে অনুরোধ করেছি আমাকে ইউজের সময় আমার উপরে উঠনা পিলিজ… অনুরোধ না শুনে বাসররাত থেকে হেলেন আমার উপরে উঠিয়া আমাকে ইউজ করেছে… তাই আজ আমি গর্ভবতী…

যাইহোক মাতৃকালীন ছুটি লইয়া বিছানাগত হইলো আনসার। পাড়ার মুরুব্বিরা এবার ফিরিয়া আসিয়া আলীকে বলেঃ আনসার আজ গর্ভবান… ডেলিভারির সময় সে বাঁচে কি বাঁচেনা ঠিক নাই… তাহাকে ট্রাস্টির মাতব্বরিটা দিয়া দেও আলী… আলীর পাল্টা প্রশ্নঃ মাতৃকালীন ছুটিতে থাকা আনসার কিভাবে ট্রাস্টি চালাইবে? শুনিয়া মুরুব্বিরা বলিলেনঃ চিন্তা কি? তাহার পক্ষে হেলেন অফ ট্রয় ট্রাস্টি চালাইবে… হাতে ধরি পায়ে ধরি তুমি ছাড়িয়া দাও আলী…

এখানে উল্লেখ প্রয়োজন এইসব মুরুব্বিরা হেলেন অফ ট্রয়কে সেদিন সিক্ত বসনে স্নানরত অবস্থায় দেখিয়া ফেলার কারনে তাহারাও এখন বমি বমি ভাব অনুভব করছেন সাথে মাথা ঘোরানো। হেলেনের ঔরসজাত সন্তান কি তবে তাহাদের গর্ভেও আসিয়াছে????

৩৪ thoughts on “হেলেনের ঔরসে মুরুব্বিরা কি গর্ভবতী?

  1. বেশ মজা করে লিখেছেন ।হেলেন অব
    বেশ মজা করে লিখেছেন ।হেলেন অব ট্রয় নামক জামাত দলটি আসলেই মাদকাসক্তের ন্যায় মারাত্মক ।

  2. দারুণ লিখেছেন
    সংবিধিবদ্ধ

    দারুণ লিখেছেন :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:
    সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণঃ আলীর রক্ষিতা ক্লিওপেট্রা গল্পে অনুপস্থিত থাকিলেও তাহার দ্বারা আলীরও একই পরিণতি হইতে পারে।আলী হয়তো ইতিহাস হইতে শিক্ষা লইয়া হেলেনের মত ক্লিওপেট্রাকে উপরে চড়িতে দিবে না,নিজেই উপরে চড়িবে।কিন্তু তাহাতে যে জারজ সন্তানের জন্ম হইবে তাহা বর্গাদারদের মাঝে ঘৃণার উদ্রেক করিবে।

    1. মন্তব্যের জন্যে আপনাকে অনেক
      মন্তব্যের জন্যে আপনাকে অনেক ধন্যবাদ নাসির মোরশেদ। ক্লিওপেট্রা সম্পর্কে যা লিখেছেন তা সত্য। আপনার লেখার ঢংটা চমৎকার… খুব ভালো লেগেছে…

  3. অনেকদিন পর ব্লগে আসলাম।
    :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:
    অনেকদিন পর ব্লগে আসলাম। গল্পটা পড়ে লগিন না করলে পারলাম না। অনেক দিন পর অনলাইনে চরম একটা স্যাটায়ার পড়লাম।

    1. আপনার মন্তব্যে খুবই
      আপনার মন্তব্যে খুবই ইন্সপায়ার্ড হলাম বৃত্তবন্দী চন্দ… আপনি ‘তাম্বু ডাউন’ লেখাটাও পড়তে পারেন…

  4. মাঝে মাঝে ভাল কিছু মজার জিনিস
    মাঝে মাঝে ভাল কিছু মজার জিনিস মিস করে যায় ।। এইটা মিস করছি কেমনে কি জানি কিন্তু আসলেই ব্যাফুক বিনুদিত হয়লাম …… 😀 :হাসি:

  5. বেশ ভাল লাগল।
    আপনার রসবোধ

    :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :থাম্বসআপ:
    বেশ ভাল লাগল।
    আপনার রসবোধ ভাল; আশা করি ইস্টিশনের “স্যাটায়ার” বিভগটি আরো সমৃদ্ধ হবে আপনার হাত ধরে।

    1. ধন্যবাদ ফাউস্ট.. আপনে আবার
      ধন্যবাদ ফাউস্ট.. আপনে আবার যেন লুসিফারের কাছে আত্মা বেইচা দিয়ে না.. মেফিস্টোফিলিস থিকা দুরে থাকবেন ভাই..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *