হলুদ সাংবাদিকতা অথবা প্রথম আলো ও ডেইলি স্টার

প্রথম আলো এবং ডেইলি স্টার সব সময় সুবিধাবাধীদের দলে থাকে। আগে পত্রিকা খুললেই দেখা যেতো বসুন্ধরা গ্রুপের বারোটা বাজানোর জন্য ভিবিন্ন প্রতিবেদন ছাপাতো। অনিয়ম, ভূমি দখল, অবৈধ সম্পদের পাহাড় হিসেব দেশের এক নম্বর লুটেরা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হতো। আর এখন পত্রিকা খুললেই দেখা যায় বসুন্ধরা গ্রুপের বিজ্ঞাপন। বড় বড় প্লট, এপার্টমেন্ট, ভিবিন্ন পণ্যের মনোরম উপস্থাপনা। এই কয় বছরে বসুন্ধরা গ্রুপ কি তাদের অনিয়ম, অবৈধ জমি দখল, গ্রাহকের টাকা মেরে খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে? নাকি প্রথম আলো এবং ডেইলি স্টার তাদের হলুদ সাংবাদিকতার মাধ্যমে বসুন্ধরার কাছ থেকে পার্সেন্টেজ নিচ্ছে?


প্রথম আলো এবং ডেইলি স্টার সব সময় সুবিধাবাধীদের দলে থাকে। আগে পত্রিকা খুললেই দেখা যেতো বসুন্ধরা গ্রুপের বারোটা বাজানোর জন্য ভিবিন্ন প্রতিবেদন ছাপাতো। অনিয়ম, ভূমি দখল, অবৈধ সম্পদের পাহাড় হিসেব দেশের এক নম্বর লুটেরা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা হতো। আর এখন পত্রিকা খুললেই দেখা যায় বসুন্ধরা গ্রুপের বিজ্ঞাপন। বড় বড় প্লট, এপার্টমেন্ট, ভিবিন্ন পণ্যের মনোরম উপস্থাপনা। এই কয় বছরে বসুন্ধরা গ্রুপ কি তাদের অনিয়ম, অবৈধ জমি দখল, গ্রাহকের টাকা মেরে খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে? নাকি প্রথম আলো এবং ডেইলি স্টার তাদের হলুদ সাংবাদিকতার মাধ্যমে বসুন্ধরার কাছ থেকে পার্সেন্টেজ নিচ্ছে?

ছাত্রলীগ টেন্ডারবাজি করলে, আওয়ামীলীগ দূর্নীতি করলে কিংবা আওয়ামীলীগ দ্বারা কেউ খুন হলে তা হাইলাইট করে প্রথম পাতায় কয়েক দিন ধরে প্রচার করা হয়। বি এন পি বা জামায়াত ঠিক একই কাজ করলে তা ভেতরে পাতায় এক কলামে শেষ করে দেয়া হয়।

আওয়ামীলীগের অধীনের নির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা যাচ্ছেন না। আওয়ামীলীগ নেতারা ব্যালট বাক্স ছিনিয়ে নিচ্ছে, কেন্দ্র দখল করে ভোট দিচ্ছে। এসব কিছু খুব গুরুত্ব সহকারে প্রচার করা হচ্ছে। কিন্তু জামায়াত শিবির, বি এন পির হামলায় পিসাইডিং অফিসার কে হত্যা করা, হাত পা ভেংগে ফেলা, আনসার সদস্য কে হত্যা করা. বোমা মেরে মানুষকে ভোট দিতে ভয় দেখানো তাদের পত্রিকায় অল্প জায়গা পায়।
যেসব কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি কম সেইসব কেন্দ্র থেকে খালি মাঠের ছবি তুলে প্রচার করা হয় কেউ ভোট দিচ্ছেন না। মানুষের অংশগ্রহণ নেই। আর যেসব কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি বেশি সে সব কেন্দ্র এড়িয়ে চলছে।

২০০৬ সালে প্রথম আলো ও ডেইলি স্টার তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মহত্ব তুলে ধরে বেপক প্রচার চালিয়েছে। আওয়ামীলীগ ও বি এন পির বাইরে বিকল্প দল গঠনের জোর তদবির করেছে। মুহম্মদ ইউনূসকে এবং তার গঠন করা দলকে এমন ভাবে হাইলাইট করা হয়েছে যেন মনে হয়েছিলো ইউনূসই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন এবং দেশের স্রষ্টা হিসেবে আবির্ভাব করেছেন। আওয়ামীলীগ ও বি এন পি কে দেশের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে সার্টিফায়েড দিয়েছে।

এখনো এই পত্রিকা দুইটি দেশের প্রধান দুটি দলকে তেমন ভাবে উপস্থাপন করছে। বিশেষ করে আওয়ামীলীগ কে সবচেয়ে বড় দুর্নীতিবাজ এবং দেশের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে প্রচার করা হচ্ছে। যেন মনে হচ্ছে এই সরকারকে হটাতে পারলেই দেশে চির শান্তি বিরাজ করবে। সব দুর্নীতি কমে যাবে। উন্নয়নের জোয়ার বইবে।

১ thought on “হলুদ সাংবাদিকতা অথবা প্রথম আলো ও ডেইলি স্টার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *