বাণিজ্য যাদের পেশা,চেতনা যাদের নেশা।

আজকের বি এন পি-র কর্মসূচির পর,কতিপয় হালুয়া বিক্রেতাদের মনে ঝুমকা হাওয়া লেগে গ্যাছে যেনো!
তাদের রসিকতার শ্যাষ নেই যেনো!
কি এক কৌতুক পেয়েছে বহুদিন পর!
আহ! রসিকতার রস। চুঁইয়ে চুঁইয়ে পড়ছে স্ট্যাটাস জুড়ে।

বুলেট খরচা না হয়ে পৃথিবীর বুকে কোন আন্দোলনই তেমন একটা টিকে নাই। আর বিএনপি’তো সেক্ষেত্রে ছু ছু।হয় সরকার দলিয় পক্ষ বিরোধি পক্ষের উপর বুলেট অপচয় করেছে। না হয় বিরোধি পক্ষ হাতে তুলে নিয়েছে আইন। জন্ম দিয়েছে সন্ত্রাসবাদের।

আজকের বি এন পি-র কর্মসূচির পর,কতিপয় হালুয়া বিক্রেতাদের মনে ঝুমকা হাওয়া লেগে গ্যাছে যেনো!
তাদের রসিকতার শ্যাষ নেই যেনো!
কি এক কৌতুক পেয়েছে বহুদিন পর!
আহ! রসিকতার রস। চুঁইয়ে চুঁইয়ে পড়ছে স্ট্যাটাস জুড়ে।

বুলেট খরচা না হয়ে পৃথিবীর বুকে কোন আন্দোলনই তেমন একটা টিকে নাই। আর বিএনপি’তো সেক্ষেত্রে ছু ছু।হয় সরকার দলিয় পক্ষ বিরোধি পক্ষের উপর বুলেট অপচয় করেছে। না হয় বিরোধি পক্ষ হাতে তুলে নিয়েছে আইন। জন্ম দিয়েছে সন্ত্রাসবাদের।
অনেক ক্ষেত্রে ইদানীংকালে দেখা যায়, বিএনপি সমর্থক করলেই তাদের ধরে নেয়া হয় -মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষ শক্তি,যুদ্ধঅপরাধিদের বিচারে বাধা প্রদানকারী দলের এজেন্ট বা এই সমমানের কিছু। এমকি চেতনা ব্যবসায়ী যদি বলি এদের। আমি হয়ে যাই, ধর্ম ব্যবসায়ী কিংবা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে হেয় করে কথা বলায়,অন্যের জন্যে মনগড়া অন্য কোন উপাধি-সন্ত্রাস। অর্থাৎ, একে অপরকে উপাধিজাত করার কি অভিনব বাণিজ্য! চেতনা’তো কারো নিজস্ব প্রোপার্টি নয়।নিজের গায়ে ময়লা মেখে হাটাহাটি করলে নিজেরতো ক্ষতি নেই,এই জিবাণু ছড়ায় অন্যের জন্যে বিষ হয়ে। চেতনা যেমন বিষ নয়,তেমনি ময়লাও নয়।

কোন প্রতিষ্ঠিত সত্য-কে যতোই করাঘাত করা হবে তা ক্রমান্বয়ে আরো খাঁটি হয়ে আরো আগ্রাসী হয়ে ধরা দ্যায় জনচক্ষে। চেতনার মেঝেতে গোবর না ঢেলে দেশ নিয়েই ভাবি। অন্যকে উপাধি না দিয়ে নিজের অবস্থান’কেই করি পরিষ্কার।

চেতনা একটা ফ্লাটের মতোই কিংবা আমাদের পরম প্রতিবেশী। বাতাসের সাথে সাথে তা বদলাবেই। কিন্তু,এ দেশের মানুষের রক্তে,শিরায়,পাকস্থলীতে যে মাটি মিশে আছে তা যে পরিবর্তনশীল নয়। এ যে বাংলার মাটি। বাংলাদেশের মাটি। যা কেউ মায়া দেখিয়ে দ্যায় নি।

৬ thoughts on “বাণিজ্য যাদের পেশা,চেতনা যাদের নেশা।

  1. যা বললেন সেটা আপনি নিজে
    যা বললেন সেটা আপনি নিজে বুঝেছেন তো? আর্মি ক্যান্টনমেন্টে ফাকিস্তানের একজন সত্যিকারের সেবক পৃথিবীর সেরা ডাবলএজেন্ট জিয়ার হাতে যে দলের জন্ম, ৭১রের জারজ ফাকিস্তানি শুয়োরগুলোকে আবার এ দেশের রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত করার উদ্দেশ্যই যে দলের মূল লক্ষ্য ছিল, সেইদল কিভাবে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের হতে পারে, আমি ঠিক বুঝলাম না। আর বিজয়ের ৪২ বছর পর যখন তরুন প্রজন্মের ডাকে জাতি আবার এক হল, তখন তাদের চেতনা ব্যবসায়ি বলে গালি দেয়াটা আসলে নিজের অদ্ভুতুড়ে চিন্তাভাবনারই ফলাফল…

  2. সবার সব কথা সবাই বোঝে না। আর
    সবার সব কথা সবাই বোঝে না। আর বুঝে নেয়াটা গুরুত্বের মধ্যে পড়ে না। কারণ,এখানে না আপনি নেবেন আমার যুক্তি, না আমি নিচ্ছি আপনার যুক্তি। আর এটা একটা ফেবু স্ট্যাটাস। কোন ইশতেহার নয়।

  3. আজ সুপ্রিম কোর্টের ভিতরে এক
    আজ সুপ্রিম কোর্টের ভিতরে এক নারীকে চার জনে আঘাত করেছে, সেটা সবাই দেখেছে, আইটা আমি সমর্থন করি না। সে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের হোক বা বিপক্ষে হোক।

    বিএনপির মানুষ পোড়ানো ও সমর্থন যোগ্য নয়।

    সব মিলিয়ে এখন যা হচ্ছে তা আমরা কেউই আশা করি না,

  4. আপনার পোস্ট পড়ে রিয়েলি
    আপনার পোস্ট পড়ে রিয়েলি ব্যাপারটা ক্লিয়ার হলোনা । ইন দা নেইম অব হরতাল -অবরোধ উই ক্যান্ট ভেলিডেট মারডার ওর এনি আদার এন্টি স্টেট এক্টিভিটি এজ ওয়েল এজ ‘ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ‘ ইজ নট এ সোল প্রোপার্টি অফ এ সারটাইন পার্টি ।
    হোপ ইউ উইল গেট চান্স টু এনালিসিস দা ম্যাটার ইন এন ইমপারসিয়াল স্ট্যান্ড ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *