বাংলাদেশের আভ্যন্তরীণ ব্যাপারে ভারতের নগ্ন হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে গো-দেবতাদের নৃশংসভাবে আগুণে পুড়িয়ে ধর্মানুভূতিতে আঘাত করুন

হে গৃহযুদ্ধকালের সংগ্রামী ভাইয়েরা,

আপনারা অবগত আছেন যে বর্তমান স্বৈরাচারী আওয়ামীলীগের প্রভু ভারত আমাদের আভ্যন্তরীণ ব্যাপারে ন্যাক্কারজনক হস্তক্ষেপ করিয়া আসিতেছে। বর্তমানে আমাদের জাতীয় নির্বাচনকে তাহারা তাহাদের নীল নকশা অনুযায়ী সাজাইয়া লইয়া জাতির কষ্টার্জিত গণতন্ত্রকে গলা টিপিয়া হত্যা করিয়াছে। এমতাবস্থায় কোন ঈমানদার মুসলিমই হাত গুটাইয়া বসিয়া থাকিতে পারেন না। তাহারা পূর্বেও আমাদের প্রাণ-প্রিয় মাতৃভূমি অখন্ড মুসলিম দেশ পাকিস্তানকে দুই খন্ডিত করিয়া বাংলাদেশ নামক নাস্তিকের এক দেশ প্রতিষ্ঠা করিবার প্রয়াস পাইয়াছে। কিন্তু আমাদের ঈমানদার মুসলিম জনগণ তাহাদের সকল ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র ইসলামের নামে সফলভাবে নস্যাৎ করিয়া দিয়াছেন।



হে গৃহযুদ্ধকালের সংগ্রামী ভাইয়েরা,

আপনারা অবগত আছেন যে বর্তমান স্বৈরাচারী আওয়ামীলীগের প্রভু ভারত আমাদের আভ্যন্তরীণ ব্যাপারে ন্যাক্কারজনক হস্তক্ষেপ করিয়া আসিতেছে। বর্তমানে আমাদের জাতীয় নির্বাচনকে তাহারা তাহাদের নীল নকশা অনুযায়ী সাজাইয়া লইয়া জাতির কষ্টার্জিত গণতন্ত্রকে গলা টিপিয়া হত্যা করিয়াছে। এমতাবস্থায় কোন ঈমানদার মুসলিমই হাত গুটাইয়া বসিয়া থাকিতে পারেন না। তাহারা পূর্বেও আমাদের প্রাণ-প্রিয় মাতৃভূমি অখন্ড মুসলিম দেশ পাকিস্তানকে দুই খন্ডিত করিয়া বাংলাদেশ নামক নাস্তিকের এক দেশ প্রতিষ্ঠা করিবার প্রয়াস পাইয়াছে। কিন্তু আমাদের ঈমানদার মুসলিম জনগণ তাহাদের সকল ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র ইসলামের নামে সফলভাবে নস্যাৎ করিয়া দিয়াছেন। এখন সুযোগ আসিয়াছে এই নাছারা, বেঈমান, বিধর্মী, কাফেরদের উপযুক্ত শিক্ষা প্রদান করার। তাহারা আমাদের পানিতে মারিতেছে, তাহাদের পণ্যে আমাদের দেশকে ছাহিয়া ফেলিয়াছে, এখন আমাদের পবিত্র আমানত ভোট প্রদানকে আমাদের কাছ থেকে কাড়িয়া লইতেছে। সুতরাং বিনিময়ে আমরা তাহাদের ধর্মানুভূতিকে আঘাত করিয়া মারিব। এই অবস্থায় মজলুম জনগণ জিহাদী জোশে উজ্জ্বীবিত হইয়া তাহাদের গো-মাতা গোত্রীয় গো প্রজাতিকে পেট্রোলের তপ্ত দাউ দাউ আগুণে ভষ্মিভূত করিয়া দিন। আমাদের ঈমানদার ভাইয়েরা গত কিছুদিন আগে মালাউন হিন্দুদের চট্টগ্রামের তীর্থস্থান সীতাকুন্ডের কাছাকাছি এক ভর্তি ট্রাকে যে গরুগুলিকে আগুণে পুড়িয়া মারিয়াছেন, তাহাদের গাজী বলিয়া অভিনন্দন জানাই। ইসলামের এইসব অকুতোভয় সৈনিকদের পদাঙ্ক অনুসরণ করিয়া দুর্বার গতিতে পেট্রোল বোমায় গো-দেবতা, গোপাল, গোপী বলিয়া পরিচিত এই সকল প্রজাতিকে চিরতরে পৃথিবী থেকে নির্মূল করিয়া সত্যিকারের ঈমানদারের পরিচয় তুলিয়া ধরুন।

হে ইসলামী বিপ্লবের সৈনিকেরা,

মুসলিম হইয়া আমরা সবাই গো-মাংস ভক্ষণ করিতে নিতান্তই পটু। বিপ্লবের এই দীর্ঘ যাত্রায়, যদি গো-মাংস ভক্ষণ করিবার প্রয়োজন হয়, তবে আমাদের পেয়ারা পাকিস্তান হইতে আগত ‘সান’ (SHAN) কোম্পানীর কাবাবের মসলা শরীরের গোপন স্থানে সংরক্ষিত রাখিবেন। আমরা জানি, গনতন্ত্র পুনরুদ্ধারের এই গুরু দায়িত্ব পালনে আমাদের অকুতোভয় সৈনিকেরা দীর্ঘ সময় আন্দোলনের পথে রহিয়াছেন। সুতরাং তাহাদের ভোগ নিবারণের দিক বিবেচনা করিয়া দলের কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা এই ফতোয়ায় আসিয়াছেন যে, এইসব গো-প্রজাতিকে আগুণে দগ্ধ করিবার সময় প্রয়োজন মাফিক পাক পাকিস্তানের সান কাবাবের মসলার গুড়া মিশাইয়া আল্লাহ্‌র নাম ‘তিন তিনবার’ উচ্চারণ করিয়া নিবেন। তবেই আপনাদের গো-মাংস হালাল বলিয়া গণ্য হইবে।

মনে রাখিবেন, আমরা আমাদের প্রতিবেশী বিধর্মী কাফেরদের চাইতে কোন ক্রমেই পেছনে পড়িয়া নাই। তাহারা যেমন রথ দেখিবার সময় কলা বিক্রয় করে, আমরাও তেমনি জিহাদ করিবার সময় গো-মাংসের কাবাব ভক্ষণ করিয়া থাকি। আমাদের নৈতিক শক্তিও সেই রুপ মাংসাশী হইয়া উঠিয়াছে। অচিরেই গলা এবং পায়ের রগ কাটিয়া নর-হত্যায় আমরা বিশ্বে অগ্রণী হইয়া উঠিব। ইনশাল্লাহ্‌! এই বিষয়ে মনে কোনরূপ সংশয় রাখিবেন না।

সবাইকে ইসলামের পক্ষ হইতে লও লও পবিত্র লাল সালাম।

নিবেদক –

ইসলামী ছাত্র শিবির কেন্দ্রীয় মুরতাদ নিধন কমান্ড কাউন্সিল

১৮ thoughts on “বাংলাদেশের আভ্যন্তরীণ ব্যাপারে ভারতের নগ্ন হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে গো-দেবতাদের নৃশংসভাবে আগুণে পুড়িয়ে ধর্মানুভূতিতে আঘাত করুন

  1. প্রথমে পড়তে গিয়ে একদম ক্ষেপে
    প্রথমে পড়তে গিয়ে একদম ক্ষেপে যাবো যাবো তখন পড়তে পড়তে মজাটা পাইলাম। ছাগুদের নিয়ে স্যাটোয়ারটা দারুণ হইছে।

  2. পুরাই টাস্কিত। প্রথমে মেজাজা
    পুরাই টাস্কিত। প্রথমে মেজাজা টা খারাপ হয়ে গেছিলো। পড়ে বাকিদের কমেন্ট দ্বারা পাঠোদ্ধার করতে পারলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *