আরও একটি রাত মহাপুরুষ হওয়ার ব্যর্থ চেষ্টা

< আরও একটি রাত মহাপুরুষ হওয়ার ব্যর্থ চেষ্টা >

গত রাত টা কেটেছে নির্ঘুম, পুরা রাত্রি ধরে কুয়াসা, রাত উপভোগ করেছি। একটা সময় আমার স্বপ্ন ছিল হিমু হব, হিমুর বাবার আদর্শে মহাপুরুষ হব। আর তাই তখন রাত্রি যাপন করতাম, দিনে ঘুমাতাম, খালি পায়ে হাঁটা টা উনার থেকেই শিখেছি, শিখেছি প্রচণ্ড খিদায় ১ টা গোল্ড লিফ দিয়ে ক্ষিদা নিবারণ।

তবে আজকাল আর হয়ে উঠে না, হিমুর পথ ধরে চলা, এর কারন অবশ্য আমার জানা আছে, আজকাল মায়ার বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে যাচ্ছি, যা হিমুর সম্পূর্ণ বিপরীত। আর হিমু দের কখনও মায়ার বন্ধনে আবদ্ধ হতে নেই, তাদের কোন পিছুটান থাকে না।


< আরও একটি রাত মহাপুরুষ হওয়ার ব্যর্থ চেষ্টা >

গত রাত টা কেটেছে নির্ঘুম, পুরা রাত্রি ধরে কুয়াসা, রাত উপভোগ করেছি। একটা সময় আমার স্বপ্ন ছিল হিমু হব, হিমুর বাবার আদর্শে মহাপুরুষ হব। আর তাই তখন রাত্রি যাপন করতাম, দিনে ঘুমাতাম, খালি পায়ে হাঁটা টা উনার থেকেই শিখেছি, শিখেছি প্রচণ্ড খিদায় ১ টা গোল্ড লিফ দিয়ে ক্ষিদা নিবারণ।

তবে আজকাল আর হয়ে উঠে না, হিমুর পথ ধরে চলা, এর কারন অবশ্য আমার জানা আছে, আজকাল মায়ার বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে যাচ্ছি, যা হিমুর সম্পূর্ণ বিপরীত। আর হিমু দের কখনও মায়ার বন্ধনে আবদ্ধ হতে নেই, তাদের কোন পিছুটান থাকে না।

ছোট থেকে আমার অভ্যাস কিছু কথা মাথার ভিতর চেপে রাখা যা প্রয়োজনে বেরিয়ে আসে, ঠিক সে ভাবেই, হিমুর বাবার কিছু কথা সবসময় মাথার ভিতর গেঁথে রাখি, যদিও তেমন করে পুরন করা হয়ে উঠে না, কিন্তু যখনই পুরা রাত জাগি, তখন রাতের অনেকটা অংশ জুড়ে এই কথা গুলো ঘুরপাক খায় সবসময়।

হিমুর বাবা বলেছিলেন, “ “ ঘুমাইয়া রাত নষ্ট করিও না, দিনে নিদ্রা যাইবে। রাত কাটাইবে অনিদ্রায়। কারন রাত্রি আত্ন-অনুসন্ধান জন্য উত্তম, জগতের সকল পশু নিশিযাপন করে, পশু মাত্রই নিশাচর , মানুষ এক অর্থে পশু, নিশি যাপন অবশ্যই তার একটা কর্তব্য।
আর তিনি এটাও বলেছিলেন মহাপুরুষদের ঘুমাতে হয় না, এদের সবকিছু জয় করতে হয়, ক্ষুদা, তৃষ্ণা, ঘুম। ঘুম হচ্ছে মরে যাওয়ার মত, ঘুম হল ২য় মৃত্যু, সাধারন রা ঘুমিয়ে থাকে, আর অসাধারণ রা জেগে থাকে। ” ”

কিন্তু বাস্তবতা আমাদের হিমু হওয়ার সবচেয়ে বড় বাধা, এই যেমন আমি পুরা রাত হিমুর বাবার কথানুসারে জেগে থাকলেও, সকাল প্রভাব ফেলতে ফেলতে চলে আসতে হয়েছে কর্মস্থানে। কিন্তু হিমুরা কখনও কোথাও আবদ্ধ থাকে না। কিন্তু আমি জীবিকার তাগিদে, পরিবারের টানে আবদ্ধ, আর এর পিছনে মূল কারন মায়া। আর তাই হিমুর বাবা বার বার করে বলেছিলেন হিমুদের মায়া থাকতে নেই, মায়ার বন্ধনে হিমুদের আবদ্ধ হতে নেই। কারন মহাপুরুষ হওয়ার পথে সবচেয়ে বড় বাধা মায়া।

যদিও জানিনা কখনও মহাপুরুষ হয়ে উঠতে পারব কিনা, হিমুর বাবার সেই সাধারন মহাপুরুষ, তবুও মাঝে মাঝে চেষ্টা করে যায়, এবং যাবো আমি খুব ভালো করেই জানি। কারন একাকী মানুষ গুলোর , বেকার যুবক দের সবচেয়ে বড় প্রতিকৃত হিমু । সে আছে বলে অনেক যুবক বেকারত্বের আঘাতে আত্নহত্যা না করে হিমু হয়ে বেঁচে থাকে। আর সময়ের নিয়মে একটা সময় হিমু কে পিছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যায়।

আর আমাদের এই যুবা সমাজের মাথায় হিমুর বাবার একটা আলাদা স্থান আছে, হিমুর একটা আলাদা স্থান আছে, আমরা আমাদের প্রেয়সী কে রুপা হিসেবে পেতে চাই প্রতিক্ষনে।
মাস শেষে যখন পকেটে গাড়ি ভাড়া টা থাকে না, তখন আমরা আবার ফিরে যায় হিমু তে, কখনও সমাজের বাধায় কিংবা নিজেদের কারনে যখন আবার হারিয়ে ফেলি আমাদের রুপা কে তখন আবার ফিরে যায় হিমু তে, আবার হয়ে যায় সে মায়া হীন হিমু, যার কোন পিছুটান নেই।
সত্যি আমার এখনও ইচ্ছে আছে কোন একদিন মাঝ রাতে থানায় বসে এক কাপ চা খাবো, বা কোন এক আঙ্গুল কাটা জগলুর সাথে দেখা হয়ে যাবে একদিন।

যদিও আমরা জানিনা হিমুর বাবা কেমন ছিলেন, তার পোশাক কি ছিল, তিনি কি খেতেন, কিন্তু তার বসবাস আমরা প্রতিটা হিমুর ভিতরে, তার উপদেশ আমাদের মাঝে মাঝে এখনও তাড়া দেয়। তিনিই আমাদের ভিতর এক মহাপুরুষ হওয়ার কামনা কে বাঁচিয়ে রাখেন।
সত্যিই স্যার কি সৃষ্টি করে গেলেন আমাদের জন্যে, আমি জানি এভাবে যুগ যুগ ধরে সকল যুবা সমাজের প্রতিটা যুবক, যুবতী দের মাঝে হিমু, রুপা, মহাপুরুষ গড়ার কারিগর রা বেঁচে থাকবেন।

কিইবা বা অপরাধ করেছিলাম আমরা এত দ্রুত আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন, আর কিছু হিমু কি আমাদের জন্যে সৃষ্টি করে যেতে পারতেন না আপনি। আমি জানি আপনি এখনও হিমু,রুপা,শুভ্র, মিসির আলি দের কে নিয়ে লিখেন, সমস্যা নেই স্যার লিখতে থাকুন,অল্প কিছুদিনের মাঝে আপনার সঙ্গী হয়ত হয়ে যাবো,ওই পারে গিয়েই না হয় পর্ব আপনার নতুন বই গুলি।

২০ thoughts on “আরও একটি রাত মহাপুরুষ হওয়ার ব্যর্থ চেষ্টা

  1. হিমু চরিত্রটা আসলেই অসাধারণ
    হিমু চরিত্রটা আসলেই অসাধারণ সৃষ্টি যদিও হিমু নিজেই মহাপুরুষ হতে পারেনি ।। আমি নিজেও কিছু হিমুর মত চেষ্টা করেছি এবং এখনো করি কিন্তু মহাপুরুষ হতে না কালপুরুষ হতে চেষ্টা করি …… সুন্দর লিখেছেন :থাম্বসআপ:

  2. হুমায়ূন আহমেদের সৃষ্ট ব্যর্থ
    হুমায়ূন আহমেদের সৃষ্ট ব্যর্থ চরিত্রর নাম হিমু। মহাপুরুষ না ছাই হবে- এই যখন একটা উপন্যাসের মূল কথা সেটা পড়ে আপনার মত জন্ডিসের রোগী (হলুদ পাঞ্জাবী) হওয়াই স্বাভাবিক। মরে গিয়ে হুমায়ূন আহমেদ উপন্যাস লিখছে আর আপনিও তা পড়ার জন্য দ্রুত মরে যেতে চান- হুমায়ূন তার ভক্তদের কি গিলিয়েছে এসব থেকে বেশ বুঝা যায়। আপনি বেশি করে বিভূতিভূষণ পড়ুন। গোর্কি ছেলেবেলা পড়ুন। জীবনকে বুঝতে শিখবেন। মহাপুরুষ বলতে জগতে কিছু নেই। ভাবালুতা ছাড়া হিমু আর কিছুই না। খুবই বিরক্ত লাগলো চিন্তা ভাবনা দেখে।

    1. কিউরিয়াস মাইন্ড জানিতে চায়
      কিউরিয়াস মাইন্ড জানিতে চায় যে, মহাপুরুষ নাহলে নাই কিন্তু মহানারী কিংবা মহামহিলা কি আছে?? :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি:
      থাকলে,আমি তাহলে ওইটা হতাম… কারণ এটাই আমার এম্বিশন :মনখারাপ:

    2. মারছে আম্রে, ইষ্টিশনে আঁতেল
      মারছে আম্রে, ইষ্টিশনে আঁতেল আবাল আইল কইত্তে?? :ভাবতেছি: ভাইজান, বিভুতিভূষণ আর গোর্কি সাবরে এইভাবে আপনার আতেলিয় আবলামির উপাদান না বানাইলে হইত না?? :মানেকি: :এখানেআয়:

    3. ভাইজান আপনার বিবেচনা দেখে মনে
      ভাইজান আপনার বিবেচনা দেখে মনে হচ্ছে আপনি সারাজীবন ম্যাক্সিম আর বিভূতিভূষণ পরেছেন হুমায়ূন পড়েন নাই অনুগ্রহ করে বলবেন বাংলা দেশে এমন একটা লেখক দেখান যার সৃষ্টি চরিত্র নিয়ে আলোচনা হয়েছে , মিছিল হয়েছে , স্লোগান হয়েছে বাকের ভাই এর চরিত্র ছাড়া ?? হলুদ টিশার্ট পড়ে কারা চোখে জল এনে স্যারকে বিদায় বেদনায় সামিল হয়েছে ?? আপনার বিভূতিভূষণ আর ম্যাক্সিম কিন্তু এর কোনটায় সৃষ্টি করতে পারে নাই ।। সুতরাং গুনীর গুণ করতে না জানলে সমালোচনা করার আগে চিন্তা করুন কারো অস্থিত্তে আঘাত হচ্ছে কিনা খেয়াল রাখুন ……

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *