তাসাউফের দৃষ্টিতে ভূত সমাচার।

নিজেকে সুস্থ ও সুন্দর রাখতে হলে ভূত বিষয়ে জ্ঞানার্জন করা আবশ্যক। তাহলেই ভূত-ভবিষ্যত ভালো হবে।

জেনে নিন ভূত কি?

ভূত শব্দের অর্থ উপাদান। আর পঞ্চ উপাদান বা ভূতে জীবের দেহ গঠন হয়েছে। তা হলো, (১। আগুন, ২। পানি, ৩। মাটি, ৪। বাতাস ও ৫। আলো)। আর মানুষ মরলে ভূত হয়ে যায় এর অর্থ হলো- মরার পরে পঞ্চ ভূতে বা উপাদানে গঠিত দেহ আবার পঞ্চ ভূত বা উপাদানের সাথে মিশে যায়।


নিজেকে সুস্থ ও সুন্দর রাখতে হলে ভূত বিষয়ে জ্ঞানার্জন করা আবশ্যক। তাহলেই ভূত-ভবিষ্যত ভালো হবে।

জেনে নিন ভূত কি?

ভূত শব্দের অর্থ উপাদান। আর পঞ্চ উপাদান বা ভূতে জীবের দেহ গঠন হয়েছে। তা হলো, (১। আগুন, ২। পানি, ৩। মাটি, ৪। বাতাস ও ৫। আলো)। আর মানুষ মরলে ভূত হয়ে যায় এর অর্থ হলো- মরার পরে পঞ্চ ভূতে বা উপাদানে গঠিত দেহ আবার পঞ্চ ভূত বা উপাদানের সাথে মিশে যায়।

জীবের দেহে এই পঞ্চ ভূত এক একটি নির্দিষ্ট পরিমানে বিরাজমান। বয়স অনুপাতে এই পঞ্চ ভূত হ্রাস ও বৃদ্ধি হলেও ভূত সমাহারের নির্দিষ্টতা রক্ষিত রাখতে পারলেই সে সুস্থ থাকতে সামর্থ হইবে। আর এই পঞ্চ ভূতের অনুপাত তারতম্য হলেই জীব অসুস্থ হইবে। অর্থাত, ভূতের অনুপাত ব্যতীক্রম হলেই জীব অসুস্থ হবে। এর অর্থ তাকে ভূতে পেয়েছে বা ভূতে ধরেছে।

একেই কোরান জ্বিন বলে অভিহিত করেছে। পৃথিবী নামক গ্রহে এই পঞ্চ ভূত বিরাজিত, এবং জীবের দেহ গঠনও এই পঞ্চ ভুতে। আর এই পৃথিবীর পঞ্চ ভূত ই জীব সর্বদায় গ্রহন করছে, অর্থাত পৃথিবীর পঞ্চ ভূত গ্রহনে তারতম্য হলেও জীব অসুস্থ হয়ে যাবে বা তাকে ভূতে পাবে বা ভূতে ধরবে।

সার কথা পৃথিবী ভূতময়। ভূতের জন্যই জীব অসুস্থ হয় এবং ভূত শক্তিতেই জীব সুস্থ হয়। ইহা ব্যাতীত অন্য কোন ভূত আমি দেখি নাই। আর যা দেখি নাই তা বিশ্বাস করার প্রশ্নই আসে না। এর বাইরে কেউ যদি অন্য ভূত দেখে থাকেন বিশ্বাস করবেন। তবে অনুরোধ রইলো কারো যদি ভূত বা জ্বীন বশীভূত থাকে আমার শরিরে প্রয়োগ করে পারলে আমাকে শায়েস্তা করুন ।

তবে প্রকাশ থাকে যে-মহাবিশ্বের সকল কিছুই সৃষ্টি হয়েছে একটি ভূত বা উপাদান হইতে। আর তা হলো স্রষ্টা উপাদান বা ভূত।

————————————————————————————————————————————————————
আস্তিক হলো তারাই- যারা বিশ্বাস করে আল্লাহর অস্তিত্ব আছে। আল্লাহ দেহধারী, তাকে দেখা যায় ও তাকে ধরা যায়।
নাস্তিক হলো তারা- যারা মনে করে আল্লাহ নিরাকার, তাকে দেখা ও ধরা যায় না।
আর যারা বিশ্বাস করে স্রষ্টা নাই, তারা মূলতঃ ভণ্ড। সেরু পাগলার বাণী।।

সত্য সহায়। গুরুজী।

৪ thoughts on “তাসাউফের দৃষ্টিতে ভূত সমাচার।

    1. হাঁইসেন না। ভূত বিষয়ে না
      হাঁইসেন না। ভূত বিষয়ে না জানলে-ভূত ভবিষ্যৎ অন্ধকার।

      ——————————————————————————————————————————————————————————————————————————————————————————
      যাহার চিন্তা বাক্য ও কর্ম নিজের, সমাজের, দেশের তথা বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে নিয়োজিত, সেই ইসলাম ধর্মের লোক। তা সে যে সম্প্রদায়েরই হউক না কেন।

      আর-যাহার চিন্তা বাক্য ও কর্ম নিজের, সমাজের, দেশের তথা বিশ্ব অ-শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে নিয়োজিত, সেই অ-ইসলাম ধর্মের লোক। তা সে যে সম্প্রদায়েরই হউক না কেন। সেরু পাগলার বাণী।।

      সত্য সহায়। গুরুজী।।

      1. ভাই আমি জীবনে দুইবার ভূতের
        ভাই আমি জীবনে দুইবার ভূতের খপ্পরে পড়ছিলাম আমার যে অভিজ্ঞতা সেই অভিজ্ঞতার কথা চিন্তা করলে আমার এখনো হাঁসি পায় …… 😀

        1. উপাদান বা ভূত ব্যতীত আর কোন
          উপাদান বা ভূত ব্যতীত আর কোন ভূত নাই। তাই অন্য কোন ভূতে বিশ্বাস অজ্ঞতা ব্যতীত নয়।

          ——————————————————————————————————————————————————————————————————————————————————————————
          যাহার চিন্তা বাক্য ও কর্ম নিজের, সমাজের, দেশের তথা বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে নিয়োজিত, সেই ইসলাম ধর্মের লোক। তা সে যে সম্প্রদায়েরই হউক না কেন।

          আর-যাহার চিন্তা বাক্য ও কর্ম নিজের, সমাজের, দেশের তথা বিশ্ব অ-শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষে নিয়োজিত, সেই অ-ইসলাম ধর্মের লোক। তা সে যে সম্প্রদায়েরই হউক না কেন। সেরু পাগলার বাণী।।

          সত্য সহায়। গুরুজী।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *