আওয়ামী লীগ বনাম বি এন পিঃ একটি নির্বাচনী বিতর্ক

শুরুতেই বলে রাখি এটি একটি উদ্দেশ্য প্রণোদীত কাল্পনিক ঘটনা। এর সাথে কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠির মিল খুজতে চাইলে নিজ দায়িত্ব খুজবেন। এর জন্য আমি দায়ী থাকবো না।
কল্পনা করুন আওয়ামী লীগ আর বি এন পির মধ্যে একটি সমঝোতা হয়েছে, এবং বি এন পি নির্বাচনে অংশগ্রহণের ঘোষণা দিয়েছে। নির্বাচন কমিশন নতুন তফসিল ঘোষণা করেছে। দুই দলের প্রার্থীরা সহ অন্য দলগুলোর এবং সতন্ত্র প্রার্থীরাও তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছে। প্রত্যেক দল এবং তাদের প্রার্থীরা মহাসমারোহে নিজের ও দলের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছে। চারিদিকে সাজ সাজ রব। চায়ের টেবিলে,বাসে-লঞ্চে,রাস্তা-ঘাটে,পাড়ায়-মহল্লায়,শহরে-গঞ্জে সর্বত্রই বইছে নির্বাচনী হাওয়া।



শুরুতেই বলে রাখি এটি একটি উদ্দেশ্য প্রণোদীত কাল্পনিক ঘটনা। এর সাথে কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠির মিল খুজতে চাইলে নিজ দায়িত্ব খুজবেন। এর জন্য আমি দায়ী থাকবো না।
কল্পনা করুন আওয়ামী লীগ আর বি এন পির মধ্যে একটি সমঝোতা হয়েছে, এবং বি এন পি নির্বাচনে অংশগ্রহণের ঘোষণা দিয়েছে। নির্বাচন কমিশন নতুন তফসিল ঘোষণা করেছে। দুই দলের প্রার্থীরা সহ অন্য দলগুলোর এবং সতন্ত্র প্রার্থীরাও তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছে। প্রত্যেক দল এবং তাদের প্রার্থীরা মহাসমারোহে নিজের ও দলের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছে। চারিদিকে সাজ সাজ রব। চায়ের টেবিলে,বাসে-লঞ্চে,রাস্তা-ঘাটে,পাড়ায়-মহল্লায়,শহরে-গঞ্জে সর্বত্রই বইছে নির্বাচনী হাওয়া। সবার মনেই এক প্রশ্ন কে জিতবে এইবার! নৌকা না ধানের শীষ? হাসিনা না খালেদা?
এরই মাঝে এইবার এক নতুন ট্রেডিশান চালু হয়েছে এই দেশে,বিদেশে তা চালু আছে বহুকাল আগে থেকেই। টিভি চ্যানেল গুলোর কল্যাণে এইবার থেকে প্রধান দলগুলোর একই আসনের প্রার্থীদের মাঝে মুখোমুখী বিতর্কের আয়োজন করা হয়েছে। তেমনি এক বিতর্কের অনুষ্ঠানে অতিথী হয়ে এসেছেন একই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বিজয় এবং বি এন পির মনোনীত প্রার্থী বারেক। তারা নিজের পক্ষে, নিজ দলের পক্ষে সাফাই গাইবে জনগণ কেন তাদের ভোট দিবে,তাদের ভোট দিলে জনগণের কি উপকার হবে আর বিপক্ষ দলকে কেন জনগণ বর্জন করবে তা নিয়ে। সঞ্চালক এই দুই প্রার্থীদের মাঝে বিতর্কের শুরু করলেন। প্রথমেই বলবে আওয়ামী প্রার্থী বিজয়।
বিজয়:- আমাদের সরকার দেশে শান্তি শৃঙ্খলা বজায়ে রাখতে অত্যন্ত সফল হয়েছে। আমাদের আমলে দেশে কোথাও জঙ্গীবাদের উত্থান হয়নি। কোথায় সিরিজ বোমা হামলা হয়নি। সারাদেশের মানুষ নিরাপদে বসবাস করেছে। কিন্তু বিরোধী দল জঙ্গীবাদের পৃষ্ঠপোষক। তাই জনগনকে অনুরোধ করছি তাদের মুল্যবান ভোটটি আমাদের প্রদান করার জন্য।
বি এন পি প্রার্থী বারেকের পালা এই বার্।
বারেক:- আমরা জঙ্গীবাদের পৃষ্ঠপোষক নই। এটি আমাদের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ ও ভারতের অপপ্রচার্।আওয়ামী সরকার আবার ক্ষমতায় আসলে এইদেশ ভারত হয়ে যাবে। তাই জনগণকে বলবো আমাদেরকেই ভোট দিবেন।
বিজয়:- আমাদের আমলে আমরা দেশে প্রায় ১০০০০মেগা ওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করেছি। আমরাই দেশে উন্নয়ন করি। বিএনপি আসলে দেশে উন্নয়ন হয় না দুর্নীতি হয়।
বারেক:-আওয়ামী লীগ ভারতে থেকে বেশি দামে নিকৃষ্ট মানের!!! বিদ্যুৎ আমদানী করছে। এর মাধ্যমে তারা কোটি কোটি টাকা ভারতে পাচার করেছে। আর ভারতের বিদ্যুৎ নাস্তিক!!! আমরা ক্ষমতায় গেলে ভারত থেকে আওয়ামী লীগের পাচার করা অর্থ ফেরত আনবো। আর দেশে নাস্তিক বিদ্যুৎ আমদানী বন্ধ করবো। ১০০ ভাগ আস্তিক বিদ্যুৎ আমদানী করবো।
বিজয়:- আমরা দেশের নিরাপত্তা রক্ষায়,সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য সেনাবাহিনীর জন্য অত্যাধুনিক অস্ত্র কিনেছি,নৌবাহিনীর জন্য দেশেই যুদ্ধ জাহাজ তৈরী করেছি। তাই আবারো বলছি আমরাই দেশের উন্নয়ন করি।
বারেক:- আওয়ামী লীগ সস্তা অস্ত্র ক্রয় করে বিপুল পরিমান অর্থ হাতিয়ে ভারতে পাচার করেছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে এই দেশ ভারতের কাছে বিক্রি করে দিবে। আমরা জীবন থাকতে তা করতে দিবো না।
বিজয়:- আমরা দেশে ৩জি এনেছি। আগামীবার ক্ষমতায় আসলে ৪জি আনবো।
বারেক:- আওয়ামী লীগ ভারতের ষড়যন্ত্রে দেশের তরুণ দের নাস্তিক বানানোর পায়তারা করছে। ৩জি ফিজি দিয়ে আমাদের তরুণ প্রজন্মের কিছু বিপথগামী ছেলে-মেয়ে আজকাল নাস্তিক ব্লগ চালায়। আমরা ক্ষমতায় আসলে কঠোর হস্তে নাস্তিক দমন করা হবে। এইদেশকে আমরা কখনোই ভারত হতে দিব না।
বিজয়:- আমরা রাজাকার যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছি। একজনের ফাসী কার্যকর হয়েছে। আগামীবার ক্ষমতায় আসলে বাকীদেরও সর্বোচ্চ সাজা নিশ্চিত করবো।
বারেক:- আওয়ামী লীগ ভারতের ষড়যন্ত্রে যুদ্ধাপরাধীর বিচারের নামে প্রহসন করে এইদেশের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের নেতাদের উপর নির্যাতন চালাচ্ছে। আমরা ক্ষমতায় আসলে ভারত ও আওয়ামী লিগের সকল ষড়যন্ত্র বানচাল করবো। তাই জনগনকে বলবো ভারত ও আওয়ামী লীগ হটাও বাংলাদেশ রক্ষা করো।
বিজয়:-…..………………।
বারেক:- ……ভারত ……।
বিজয়:-…………………..।
বারেক:-……… ভারত ……নাস্তিক ……।
বিজয়:-………………….।
বারেক:-………ভারত ……।
বিজয়:-……………………।
বারেক:- ………ভারত ………নাস্তিক ………।

৯ thoughts on “আওয়ামী লীগ বনাম বি এন পিঃ একটি নির্বাচনী বিতর্ক

    1. ডা. সাব এইটা আপনি কি
      ডা. সাব এইটা আপনি কি বললেন!
      জলদি তওবা তওবা বলতে বলতে নিজের ডান হাত দিয়ে নিজের দুই গালে তিনটা থাপ্পর মারেন(আস্তে মাইরেন, শীতকালে ব্যাথা বেশি লাগে)। প্রথমে ডানগালে তারপর
      বামগালে তারপর আবার
      ডানগালে মারবেন। আর থাপ্পর
      মারার সময় অবশ্যই
      তওবা তওবা কথাটা বলবেন। :ফেরেশতা:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *