বাঙালির দামে ‘বাঙালি’ বাচাও !!

বাঙালি খুবই আবেগি জাতি।আর মধ্যযুগ থেকে এই আবেগের সবথেকে বড় জায়গা ধর্ম।কিন্তু এই ধর্মীয় আবেগ কিন্তু মৌলবাদী,মাথামোটা বা মাথাওয়াশ আবেগ না।তাহলে আর লালান ফকির বলত নাঃ

“ভেদ বিধির পর শাস্ত্র কানা”

যেখানে শুধু ভেদ বিধির কারনেই শাস্ত্রকে বাঙালি কানা করে দিয়েছে,সেখানে বাঙালির ধর্মীয় আবেগকে মৌলবাদী বলা কোনভাবেই যুক্তিযুক্ত হতে পারে না।এখন অনেকেই বলতে পারেন লালন কি বাঙালিদের প্রতিনিধিত্ব করে ?


বাঙালি খুবই আবেগি জাতি।আর মধ্যযুগ থেকে এই আবেগের সবথেকে বড় জায়গা ধর্ম।কিন্তু এই ধর্মীয় আবেগ কিন্তু মৌলবাদী,মাথামোটা বা মাথাওয়াশ আবেগ না।তাহলে আর লালান ফকির বলত নাঃ

“ভেদ বিধির পর শাস্ত্র কানা”

যেখানে শুধু ভেদ বিধির কারনেই শাস্ত্রকে বাঙালি কানা করে দিয়েছে,সেখানে বাঙালির ধর্মীয় আবেগকে মৌলবাদী বলা কোনভাবেই যুক্তিযুক্ত হতে পারে না।এখন অনেকেই বলতে পারেন লালন কি বাঙালিদের প্রতিনিধিত্ব করে ?

এই প্রশ্নের উত্তর কি হবে তা বর্তমান সুশীল সমাজরাই বলতে পারবেন।কারন সম্প্রতিকালে ঘটে যাওয়া সকল কিছুরই মান নির্ধারক এই তথাকথিত সুশীল সমাজ।যাই হোক,সুশিল সমাজ লালনকে বাঙালির রিপ্রেজেন্টিভ না ভাবলেও শিবিরের কর্মীদের অবশ্যই বাঙালির প্রতিনিধি বলতে পারবে না।আর যদি বলেও ফেলে তবে বাঙালির সংজ্ঞা নিয়ে আবার নতুন করে ভাবতে হবে।অবশ্য তখন নিজেকে বাঙালি পরিচয় দিলে এদেশের মানুষের ধর্ম যাবে।

ক্ষমতা দখল করার জন্য মানুষ মারা, কোন দলের বা ধর্মের মৌলবাদী বান্দাদের স্বর্গের রাস্তা করে দিলেও, বাঙালির জন্য কিন্তু সেটিই জীবন-মৃত্যু প্রশ্ন।এখন বাঙালির ভেবে দেখার সময় হয়েছে বাঙালি পরিচয় রাখবে নাকি স্বর্গে যাবে ?

মৌলবাদী হবার মধ্যে সুখ আছে।স্বর্গের ঘ্রান পাওয়া যায়।নিজেরে ভাল মানুষ মনে হয়।মাঝে মাঝে নিজ হাতে অন্যায় দমন করার জন্য জোশ উঠে।সবমিলিয়ে এক অপার্থিব অনুভুতি।

তবে বাঙালি হবারও মজা আছে।কিন্তু জাতে যদি কেউ আসলেই বাঙালি না হয় তবে তাকে এই মজা বুঝানোর সামর্থ্য আমার নাই।এই কথা বললাম এই কারনে যে, এদেশে এই রকম লোকের অভাব নাই।বহু লোক আছে নিজেদের পাকিস্থানি মনে করে।কি বিশ্বাস করলেন না ?বিশ্বাস নিত্তান্তই আপনার মনের ব্যাপার,তবে আমি নিজে এমন লোক দেখেছি যিনি সগর্বে বলেন, বাঙালিরা হল শয়তান বাচ্চা।পাকিস্থানিরা ছিল সাচ্চা মুমিন ।যোগাযোগ করেন আমার সাথে,আমি আপনার কানকে সেই সুমধুর কথাগুলো নিজে কানে শোনার সৌভাগ্য করে দেব।এই লোকদের আমি ক্যামনে বাঙালিত্বের মজা বুঝাব ?
আর এদের আমি বাঙালি ভাববই-বা কিভাবে ? আব্দুল হাকিম তো আর না বুঝেই বলেন নাইঃ

“যেজন বঙ্গে জন্মি হিংসে বঙ্গবাণী
সেজন কাহার জন্ম নির্ণয় না জানি।।”

এই ধরনের লোক দেশে না থাকলে কবির এই কবিতা লিখতেও হত না,আর হুমায়ুন আজাদকেও এভাবে মরতে হত না।

সে যাই হোক,কথা হচ্ছিল বাঙালিত্ব নিয়ে।অনেকেই এটিকু বঝেন যে তিনি বাঙালি,কিন্তু ধর্মের আবেগের টানে বাঙালিত্ব আর টেকে না।
না টিকুক তাতে কি আসে যায়?
একটা কথা আছেঃ

“আত্মবিস্মৃত জাতি কখনো উন্নতি করতে পারে না”

আজকের বাঙালি সমাজ যদি নিজেদের উন্নতি চায় তবে তাকে অবশ্যই শিকরের সন্ধান করতে হবে।তবে “৭১” যখন একবার পার করেই এখানে আসতে হয়েছে,তাই এই ৫০ বা ১০০ লাশ কিম্বা শতখানেক গাড়ি পোড়ানোতে বাঙালি শিকরের সন্ধান করবে না।এর জন্য হয়ত এদের আরও বড় মূল্যই দিতে হবে।হয়ত এই বাঙালি নামটাই !!

১০ thoughts on “বাঙালির দামে ‘বাঙালি’ বাচাও !!

  1. আমি কালকেও একজনকে বলতে শুনলাম
    আমি কালকেও একজনকে বলতে শুনলাম পাকিস্তান আমলই নাকি ভাল ছিল। যত্তসব। :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:

    1. আমি যখন ছোট ছিলাম তখন গ্রামের
      আমি যখন ছোট ছিলাম তখন গ্রামের অনেক লোককে এসব বলতে শুনেছি।ভেবেছি এরা না বুঝে বলে।কিন্তু বড় হয়েও অনেক অনেক জ্ঞানী এবং সুশিক্ষিত লোকদের এসবের পক্ষে যখন যুক্তি দারা করাতে দেখলাম তখন ভাবলাম,বাঙালিদের নিশ্চয়ই বড় কোন অসুখ হয়েছে।এই অসুখেই বাঙালির সব যাবার চাঞ্ছ আছে মনে হয় !!
      ================================================

    2. পাকিস্তান আমল নিয়ে আপসোস করা
      পাকিস্তান আমল নিয়ে আপসোস করা লোকদের কানের উপর কষে দুইটা থাপ্পড় মারা উচিত। দেখবেন, আর কখনই বলবে না।

    1. ভাই এরা কিন্তু আমাদের নিজেদের
      ভাই এরা কিন্তু আমাদের নিজেদের প্রানের সংস্কৃতিকে ঠিকই মন থেকে উপলব্ধি করতে পারে।তবে এই মনের এককোণে রেখেছে বাঙালির অবুঝ আবেগ আর এককোনে আছে মৌলবাদের বিষ।পাশাপাশি ধর্মীয় বিদ্বেষ।এদের ফাকিস্থান পাঠালেও বুঝ হবে না।এদের দরকার মাথার ঘিলু পরিস্কার করা।কারন ৭১ যে জাতির চোখ খুলতে পারে নাই সে জাতির আর কোন কিছুতেই কিছু হবে না।

      ==========================
      =================================

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *