মুকুটহীন পল্টি সম্রাটের মুহুর্মুহু পল্টিবাজির প্রধান কারণ !

সমগ্র বিশ্বের বুকেই এরশাদ এক বিরল প্রজাতির রাজনীতিবিদ, কেবল বাংলাদেশ  ছাড়া ! কারণ  বাংলাদেশ পল্টিবাজদের উর্বর  লীলাভুমি, যুগে যুগে এখানে মীর্জাফর,  মওদুদ,  সাকার মত জগত শ্রেষ্ঠ  পল্টিবাজ রা জন্ম নিয়েছে !!! তবে- “একজন কিন্তু সব সময়ই  এগিয়ে থাকে” – সেই “এগিয়ে থাকা একজন” হচ্ছেন মুকুটহীন পল্টিসম্রাট  এরশাদ  !!
এই “প্রেমিকা বান্ধব” রাজনৈতিক কিংবদন্তীকে ভক্ত/ অশুভাকাংখীরা কত কিছুর  সাথে যে তুলনা করে ,তার কোন ইয়াত্বা নাই,  তবে প্রতিটা নামই তার সাথে কেন যেন চমতকার মানিয়ে যায় !


সমগ্র বিশ্বের বুকেই এরশাদ এক বিরল প্রজাতির রাজনীতিবিদ, কেবল বাংলাদেশ  ছাড়া ! কারণ  বাংলাদেশ পল্টিবাজদের উর্বর  লীলাভুমি, যুগে যুগে এখানে মীর্জাফর,  মওদুদ,  সাকার মত জগত শ্রেষ্ঠ  পল্টিবাজ রা জন্ম নিয়েছে !!! তবে- “একজন কিন্তু সব সময়ই  এগিয়ে থাকে” – সেই “এগিয়ে থাকা একজন” হচ্ছেন মুকুটহীন পল্টিসম্রাট  এরশাদ  !!
এই “প্রেমিকা বান্ধব” রাজনৈতিক কিংবদন্তীকে ভক্ত/ অশুভাকাংখীরা কত কিছুর  সাথে যে তুলনা করে ,তার কোন ইয়াত্বা নাই,  তবে প্রতিটা নামই তার সাথে কেন যেন চমতকার মানিয়ে যায় !

” ঐ চাদের  সাথে আমি দেব না, তোমার তুলনা” – সব্যসাচী সাহিত্যিক সৈয়দ শামসুল হক বাংলা সিনেমার জন্য এই কালজয়ী গানটা  লিখে বিশ্বের সমস্ত প্রেমিকদের প্রতি  আহ্বান জানিয়েছিলেন, যাতে ভালবাসার মানুষ কে চাদ/ফুল ইত্যাদি ‘রাবিশ’  কোন কিছুর সাথে তুলনা না করে ! কিন্তু নাহ, তার গুনমুগ্ধ পাবলিকদের আসলে এসব নিয়ে চিন্তা ভাবনার ও টাইম নাই, তারা তাদের প্রিয় “কৌতুক অভিনেতা” এরশাদ কে চাদ-সুর্য, ফুল-ফল ইত্যাদি সব কিছুর সাথেই  তুলনা করেন ! যেমন গতকাল তার দলেরই এক প্রেসিডিয়াম সদস্য এরশাদ কে সুর্য এবং ফুলের সাথে তুলনা করে বলছেন – “এরশাদ হচ্ছেন সুর্যমুখি ফুলের মতন,  সুর্য যেদিকে হেলবে , তিনি ও সেদিকেই হেলিবেন” !!
কথা বাস্তব, তবে এখানে “সুর্যমুখী ফুলের” জায়গায় “মামলা”  শব্দটা টা বসবে ! মানে-  মামলা যেদিকে হেলে, তিনিও সেদিকেই হেলেন ” !!
তার এতবার পল্টি খাওয়ার পেছনের কাহিনী হচ্ছে একটা হত্যা মামলা – তিনি বহুল আলোচিত  “মঞ্জুর হত্যা মামলা”র প্রধান আসামী … মঞ্জুরের বিষয়টা জানার জন্য হাল্কা ফ্লাশব্যাক –

১৯৮১ সালের ৩০ মে চট্টগ্রামে এক সেনা অভ্যুত্থানে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান নিহত হন। তখন চট্টগ্রামে অবস্থিত সেনা বাহিনীর ২৪তম পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল অফিসার স্টাফ (জিওসি) ছিলেন মোহাম্মদ আবুল মঞ্জুর। জিয়াউর রহমান নিহত হওয়ার পর আত্মগোপনে যাওয়ার পথে মঞ্জুরকে পুলিশ আটক করে। এরপর ২ জুন মেজর জেনারেল মঞ্জুরকে পুলিশ হেফাজত থেকে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে নিয়ে গুলি করে হত্যা করা হয়। ঘটনার ১৪ বছর পর ১৯৯৫ সালে ২৮ ফেব্রুয়ারি মঞ্জুরের ভাই আইনজীবী আবুল মনসুর আহমেদ চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় হত্যা মামলা করেন। ১৯৯৫ সালের ২৭ জুন এরশাদসহ পাঁচজনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় সিআইডি …..

এই হত্যা মামলাটাই হচ্ছে  এরশাদের ব্যাপক পল্টিবাজির পেছনের কাহিনী !! লীগ বিম্পি নির্বিশেষে যে যখন ক্ষমতায় থাকে তারা সবাই’ই এই মামলা  রাজনৈতিক স্বার্থে  ব্যাবহার করে এর্শাদকে পল্টির উপ্রে রাখছে, অবশ্য এরশাদ কে ভয় দেখিয়ে হাতে রাখার এই কুটকৌশলের শুভ উদ্ভোধন করছিলেন সুমহান খালেদা জিয়া! তবে লাভ হয় নাই,  ৯৬ তে সে ঠিকই পল্টি মেরে আওয়ামীলীগের সাথে জোট বাধছিল !!

দেশের আপামর পাবলিক দিগকে বিনোদিত করা পল্টিসম্রাট এরশাদ গত কিছুদিন ধরেই. ছিলেন “টক অব দ্য কান্ট্রি”, তিনি আজ বিম্পির সাথে ত কাল আওয়ামীলীগের সাথে …… পাবলিক ও চরম মজা লৈছে , দুই লাইনে কাহিনী বলতে গেলে —

এরশাদ হাসে বেআক্কেল দাতে,
জাতি হাসে তার সাথে সাথে !

তবে যেদিন সে আশরাফের সাথে একরকম কথা বলে, তার পরদিনই আবার তা অস্বীকার করে সংবাদ সন্মেলন ডাকেন , সেদিন’ই অবশ্য বোঝা গেছে, এই মামলা আবার পুনর্জীবিত হবে এবং হলো ও তাই ……

২০ শে নভেম্বর আসামীপক্ষের আইনজীবি যুক্তি তর্ক উপস্থাপন করেন। ঐ দিন এই মামলার পি পি বলেছিলেন, পরবর্তিতে ধার্য তারিখ ২৪ নভেম্বর, সেদিন রাস্ট্রপক্ষের যুক্তি-তর্ক শেষ হলে আদালত  রায়ের তারিখ ধার্য করবেন…..

ফলাফল !?  এরশাদের ইউ টার্ন , তেতুল হুজুরের দোয়া ( মতান্তরে “বদ দোয়া”- বাবু নাগরী) নিয়ে এসে জালেম সরকারের পক্ষে কথা বার্তা বলা শুরু করলেন, এর মধ্যে  বেশ কয়েকবারই বিম্পির ১৪ গুস্টি  উদ্ধার করে ফেলেছেন এই মহামানব … সে সময় তার কয়েকটা বানী –

* আমি জনগণের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ, আপনাদের (বিএনপি) সঙ্গে নই ! আমি নির্বাচনে গেলে আপনাদের এত গাত্রদাহ কেন? কাকে ভয় দেখান? কিসের ভয় দেখান? আপনারা মানুষ পুড়িয়েছেন, শিশু হত্যা করেছেন ! এসব! অপরাধের জন্য কিভাবে মুখ দেখাবেন?” বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে বলেন এরশাদ ! বিম্পির ‘দেশ অচল’র হুমকির সমালোচনা করে তিনি আরো বলেন, “হুমকি দেন কেন? দেশে কি দুর্ভিক্ষ হয়েছে? মহামারি দেখা দিয়েছে? মানুষ কেন আপনাদের হরতাল-অবরোধে সমর্থন দেবে? আমরা এই হরতাল- অবরোধ মানি না” !!!! (বিডিনিউজ ২৪)

*বিরোধী দলকে হুঁশিয়ার করে এরশাদ বলেছেন – “ভয় দেখাবেন না! ইট মারলে পাটকেল খেতে হয়। পাটকেল কীভাবে ছুড়তে হয়, সেটা আমরা জানি” !! তিনি বলেন, “আপনি নির্বাচনে আসুন। কী চান, তা-ই দেয়া হবে। আপনি কি নৈরাজ্যের সংগ্রাম করতে চান ? নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে চাইলে প্রয়োজনে জাতীয় পার্টির লাখো নেতাকর্মী জীবন দেবে” !!!!! ( Prothom Alo)

তাই পুরস্কার ও নগদ, গত ২৪ শে নভেম্বরে পুর্ব নির্ধারীত দিনে সেই অনুমিত ঘটনাই ঘটল,  তাই ২৫ তারিখ প্রথম আলোর শিরোনাম –

শেষ পর্যায়ে এসে মঞ্জুর হত্যা মামলা দুই মাস পেছাল !!

আর তাই এরশাদের আরেকবার ডিগবাজির আকাঙ্খা বেশ প্রকট ভাবেই দেখা দিচ্ছে, এর পর থেকেই নতুন আস্ফালন, গতকাল বললেন-

“এখন পর্যন্ত সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিনেশ নেই ! এ অবস্থায় নির্বাচন অত্যন্ত কঠিন “! (আজকের প্রথম আলোর ২য় পৃঃ দ্রস্টব্য)

জাতি এরশাদের পরবর্তি কৌতুক দেখার জন্য অধীর আগ্রহে প্রতিক্ষায় আছে, আশা করি অনতিবিলম্বে নতুন কৌতুক পয়দা করে তিনি জাতির মুখে আবারো হাসি ফোটাবেন, জাতি আরো মজা লৈতে চায় …..

পুনশ্চ ১ : পল্টীয় রাজনীতির প্রবাদ পুরুষ, ‘প্রেমিকা বান্ধব’ এরশাদ ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েই নিজের নামের সাথে একটা খেতাব লাগাতে তৎপর হয়ে ওঠেন …. আগরতলা আর চৌকির তলার মধ্যে যে’রম দুস্তর ব্যাবধান, বঙ্গবন্ধু আর এরশাদের মধ্যে তার চেয়েও বেশি ব্যাবধান; কিন্তু হলে কি হবে, তবুও তিনি ‘বঙ্গবব্ধু’র আদলে খেতাব নিলেন “পল্লীবন্ধু” !!

আজ এতকাল পর মনে হচ্ছে, তিনি যদি “পল্লীবন্ধু” খেতাব টা না নিয়ে “পল্টীবন্ধু” নামক খেতাব খানা অধিগ্রহণ করতেন, তাইলে জাতি তারে খাঁটি ভবিষ্যত দ্রষ্টা হিসাবে জোত্যিষ সম্রাট “পল দ্য অক্টোপাস” খেতাবে ভুষিত কৈরা চিরকাল ইতিহাসের পাতায় ঢুকাই রাখত !

তবে ভাগ্য ভাল, শহীদ জিয়ার এই খায়েশ হয় নাই কখনো, “খাল বন্ধু” কিংবা “কুমির বন্ধু” টাইপের বিশেষন গুলো যে অবশ্যই পাবলিকের কাছে চরম হাস্যকর ঠেকত, তাতে সন্দেহের কুনো’ই অবকাশ নাই !

পুনশ্চ ২ : কলকাতায় কৌতুক বিষয়ক ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান”মীরাক্কেলের” বিপুল জনপ্রিয়তা দেখে,  বাংলাদেশে ও রাতারাতি বেশ কয়েকটা চ্যানেল মীরাক্কেলের আদলে কৌতুক বিষয়ক রিয়ালিটি শো আয়োজনের ঘোষনা দেয়,  কিন্তু কয় দিন পরেই তাদের মোহ ভঙ্গ,   কোন ভাবেই দর্শক টানা যাচ্ছে না !!

কলকাতায় ধুমায়া চলে অথচ এদেশে চলে না ! কারণ টা কি  !?
খুব সিম্পল – কলকাতায় একজন এরশাদ নাই,  তাই তাদের দর্শকদের কৌতুকের রিয়ালিটি শো দেখেই মজা লৈতে হয়!  কিন্তু আমাদের আছে কৌতুক সম্রাট এরশাদ,  তিনি এতই মজা দেন যে,  পাবলিকের আর কৌতুক শোনার জন্য কস্ট করে শিডিউল মিলিয়ে টিভি দেখতে হয় না !!

১৬ thoughts on “মুকুটহীন পল্টি সম্রাটের মুহুর্মুহু পল্টিবাজির প্রধান কারণ !

  1. কলকাতায় একজন এরশাদ নাই, তাই

    কলকাতায় একজন এরশাদ নাই, তাই তাদের দর্শকদের কৌতুকের রিয়ালিটি শো দেখেই মজা লৈতে হয়! কিন্তু আমাদের আছে কৌতুক সম্রাট এরশাদ, তিনি এতই মজা দেন যে, পাবলিকের আর কৌতুক শোনার জন্য কস্ট করে শিডিউল মলিয়ে টিভি দেখতে হয় না !!

    :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:
    এই বঙ্গদেশে তিনি হচ্ছেন কিংবদন্তী লুল!

  2. এরশাদ কে জিয়া নিজেই পাওয়ার
    এরশাদ কে জিয়া নিজেই পাওয়ার দিয়ে ছিল, আর এরশাদের শেষ থাবায় জিয়া বাঁচতে পারলো না, বাংলার বুকে জন্ম নিলো নব্য স্বৈরাচার,

    1. ইতিহাসের দায় অটোমেট্যিক্যালি
      ইতিহাসের দায় অটোমেট্যিক্যালি মিটে যায়, জিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যার কথা জেনেও ক্ষমতার লোভে চুপচাপ থেকেছেন …. অনেকের মতে তিনি ও ষড়যন্ত্রকারী ছিলেন, কারণ বঙ্গবন্ধু হত্যার ডিরেক্ট বেনিফিসিয়ারি তিনি ….
      যাই হোক, এরশাদ কে সেনা প্রধানের দায়িত্ব দেয়ার পেছনের কারণ হিসাবে বাজারে প্রচলিত ধারণা গুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় ধারণা হচ্ছে – জিয়া ভাবছিল, নারীবান্ধব এরশাদ প্রেমিক মানুষ, সে বিভিন্ন মেয়েদের পটাতেই সব সময় ব্যাতি ব্যাস্ত থাকবে, ক্ষমতার দিকে চোখ দেয়ার সময়ই থাকবে না তার , কিন্তু জিয়া জীবন দিয়ে বুঝলেন যে তার ধারণা আসলে পুরাই ভুল ছিল ! 😛

      1. জিয়া ছিল পৃথিবীর ইতিহাসের
        জিয়া ছিল পৃথিবীর ইতিহাসের সবচেয়ে চৌকস ডাবল এজেন্ট :ক্ষেপছি: … নিজের দেশের সাথে সুনিপুন বিশ্বাসঘাতকতা এবং ঠাণ্ডা মাথায় নিকৃষ্টভাবে নিজের পথ পরিস্কার করে নেয়াতেও সে পৃথিবীর অন্যতম সেরা… :মাথাঠুকি: :এখানেআয়:

  3. আপনে তো মিয়া সাবেক স্বৈরাচার
    আপনে তো মিয়া সাবেক স্বৈরাচার রাস্ট্রপতি ও পল্লীবন্ধু রহস্যপুরুষ আলহাজ্জ জেনারেল হোমো এরশাদরে নিয়া মজা করতেছেন… :বিষয়ডাকী: :চোখমারা: :খাড়া: আপনে মিয়া মানুষ ভালা না… একটাই জাতীয় বিনুধুন আমাদের, তাকে নিয়ে এইরাম মস্করা চইলত ন… :হাহাপগে: :ভেংচি: :শয়তান:

    1. খালি মজা! ? চিটাগাং এর প্রবল
      খালি মজা! ? চিটাগাং এর প্রবল জনপ্রিয় একটা ডায়ালগ ” তুই তো ব্যাটা মজার বছর বিছখান (মজার মাঝখানে) দি আছস ” আমাদের এরশাদ ও এখন “মজার বিছ খানেই ” আছেন ! 😛

  4. এরশাদ কে দিল্লি থেকে ডেকে এনে
    এরশাদ কে দিল্লি থেকে ডেকে এনে জিয়ার সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিল মঞ্জুর। আর এই বুড়ো ভামের ব্যাপারে কিছু বলার রুচি নাই।

  5. কলকাতায় একজন এরশাদ নাই, তাই

    কলকাতায় একজন এরশাদ নাই, তাই তাদের দর্শকদের কৌতুকের রিয়ালিটি শো দেখেই মজা লৈতে হয়! কিন্তু আমাদের আছে কৌতুক সম্রাট এরশাদ, তিনি এতই মজা দেন যে, পাবলিকের আর কৌতুক শোনার জন্য কস্ট করে শিডিউল মলিয়ে টিভি দেখতে হয় না !!

    :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *