“The Dollar Trilogy” ; Part- 2 : For a Few Dollars More— লোভ, হিংস্রতা, বিশ্বাসঘাতকতা আর নৈতিকতার এক মহাকাব্যিক উপাখ্যান

Where Life had no value,
Death, Sometimes,
Had its Price.
That is why
Bounty Killers appeared



Where Life had no value,
Death, Sometimes,
Had its Price.
That is why
Bounty Killers appeared

“A Fistfull of dollars” এর অসম্ভব জনপ্রিয়তার সূত্র ধরে চলচ্চিত্রগুরু Sergio Leone শুরু করলেন ডলার ট্রিলজি কিংবা “The Man With No Name Trilogy” এর ২য় পর্ব “For a Few Dollars More” চলচ্চিত্রের কাজ। আর পৃথিবীর ইতিহাসে অন্যতম সেরা মাস্টারপিস ট্রিলজি হিসাবে ডলার ট্রিলজির অবস্থান হল আরও সুসংহত…

For a Few Dollars More

বুনো পশ্চিমের এক ধুলোময় প্রান্তরের বুক চিরে কুঝিকঝিক শব্দে ছুটে চলেছে ট্রেন। টিকেট চেকার যখন টিকেট চেক করতে এলেন, মুখের সামনে বাইবেল ধরে থাকা এক আগুন্তুক তাকে জিজ্ঞেস করলেন, Tucumcari স্টপেজটা আর কতদূর? চেকার জানালেন, আর তিন-চার মিনিট পরেই ট্রেন সেখানে পৌঁছে যাবে। এই ট্রেন Tucumcari স্টপেজে থামে না, এই কথাটা ব্যাখ্যা করতে গিয়ে হঠাৎ বাইবেল পড়ুয়া আগুন্তুকের দিকে চেয়ে চুপসে গেলেন আরেক ভদ্রলোক। চুরুটে একটা লম্বা টান দিয়ে শিকল টেনে গম্ভীর গলায় আগুন্তুক তাকে বললেন, এই ট্রেনকে Tucumcari স্টপেজে থামতেই হবে। বিনা কারণে অনৈতিকভাবে ট্রেন থামানোয় গার্ড বেশ মারমুখো চেহারায় কিছু বলার জন্য আগুন্তুকের সামনে আসা মাত্র মেনি বিড়াল হয়ে গেলেন। কেননা তার সামনে যে স্বয়ং Colonel Douglas Mortimer দাঁড়িয়ে আছেন; বাউনটি কিলিংয়ে যাকে কিংবদন্তি হিসেবে জানে সবাই… এই জনমানবশুন্য স্টপেজে নামার কারনটা পরিস্কার হল কিছুক্ষন পরেই, যখন Guy Calloway নামের দুর্ধর্ষ আউটলকে প্রায় হাফ কিলোমিটার দূর থেকে নিখুঁত লক্ষ্যভেদে গুলি করে মেরে ফেললেন কর্নেল মরটিমার। Callowayয়ের মাথার উপর ধরা $১০০০ নিয়ে শেরিফের অফিস থেকে বেরিয়ে যাবার মুহূর্তে হঠাৎ নতুন একটা ওয়ান্টেড পোস্টারের দিকে নজর গেলো কর্নেলের। শেরিফ তাকে জানালেন Red Baby Cavanagh নামের এই আউট ল এর মাথার দাম $2000 কিন্তু ওকে আগেই বুক করে গেছে এক অচেনা রুক্ষ পাথুরে চেহারার আগুন্তক…অবাক হলেন কর্নেল। এই তল্লাটে তিনি ছাড়া আর কার এতো বড় বুকের পাটা আছে!! সেই আগুন্তুক যে শুধু ধীরস্থির প্রচণ্ড সাহসী এক যুবাই নয়, সে যে অদ্ভুত দৃঢ় আর নৈতিক এক চরিত্রেরও অধিকারী, তার প্রমান পাওয়া গেলো শহরের আরেক বারে। অসম্ভব ক্ষিপ্ততায় Cavanagh কে হত্যা করে যখন সে শেরিফের কাছ থেকে টাকাটা নিল, তখন দাঁতের ফাঁকে সিগারটা রেখে হঠাৎ শেরিফকে সে জিজ্ঞেস করল,

Tell me, isn’t the sheriff Supposed to be Courageous, Loyal and above all Honest??

serif: yes, that he is.

শেরিফের সাথে আর একটা কথাও না বলে আগুন্তুক শেরিফের ব্যাজটা টান দিয়ে খুলে বাইরে দাঁড়ানো জনসাধারণের সামনে ফেলে দিয়ে শুধু একটা কথা বলে গেলো…

I think you people need a new sheriff.

এদিকে ঠিক সেই মুহূর্তে আরেক শহরের জেলে হামলা হল। হামলাকারীরা নিখুঁতভাবে অভিযান চালিয়ে বের করে নিয়ে গেলো বুনো পশ্চিমের সর্বকালের অন্যতম হিংস্র ও দুর্ধর্ষ আউট ল El Indio” কে। ঠাণ্ডা মাথার এই খুনির চরিত্রের সবচেয়ে অদ্ভুতুড়ে বৈশিষ্ট্য হল রক্ত হিম করা পৈশাচিক হাসি আর ডুয়েল লড়ার আগে একটা ছোট্ট পকেটঘড়ির সুর শোনা। ঘড়িটা সবসময় তার পকেটে থাকে।

ডুয়েলে কারোর সামনে দাঁড়ানোর সময় সে ঘড়িটা খোলে, যতক্ষণ ঘড়িটার অদ্ভুত সুন্দর বাজনাটা চলে,ততক্ষন সে ওতে ডুবে থাকে। বাজনা শেষ হওয়া মাত্র মুহূর্তের মধ্যে তার পিস্তলের গুলি নিভিয়ে দেয় বিপক্ষের জীবনপ্রদীপ। জেল থেকে বের হয়ে সে আর দুর্ধর্ষ হয়ে উঠল। ফলাফলে ১০০০০ ডলার নির্ধারিত হয় ইন্ডিওর মাথার দাম।

এই বিজ্ঞপ্তি চোখে পড়ে কর্নেল ও আগুন্তুকের। সবচেয়ে বড় সমস্যাটা হল এই দুই বাউনটি হান্টারের কেউই শিকারকে অন্যের হাতে ছেড়ে দেবে না। কিন্তু ইন্ডিওর মাথায় যে অতি অদ্ভুতুড়ে দুঃসাহসী এক প্ল্যান চলছে, সেটা আর কে জানতো?? পশ্চিমের সবচেয়ে সম্পদশালী দুর্ভেদ্য এবং নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা সংবলিত ব্যাংক অফ এল-পাসো’র আশেপাশে ইদানীং ইন্ডিওর গ্যাংকে দেখ যাচ্ছে কেন? উন্মোচিত হল ইন্ডিওর এক অদ্ভুত পাগলামি, নিয়তির অমোঘ নিয়মে যাতে জড়িয়ে গেলো কর্নেল আর সেই অদ্ভুত রহস্যময় আগুন্তুকের ভাগ্য। তৈরি হল লোভ, হিংস্রতা, বিশ্বাসঘাতকতা আর নৈতিকতার এক অমর উপাখ্যান…

ইটালিয়ান ওয়েস্টার্ন স্প্যাগোটি ধাঁচের বিখ্যাত ট্রিলজি “The Man with No Name” অথবা ডলার ট্রিলজির ২য় পর্ব For a Few Dollars More ইটালিতে মুক্তি পায় ১৯৬৫ সালে ।ইতালীয় চলচ্চিত্রগুরু Sergio Leone এর পরিচালনায় এবং আগুন্তুকের চরিত্রে স্টাইলগুরু Clint Eastwood আর কর্নেল মরটিমারের চরিত্রে Lee Van Cleef এবং ঠাণ্ডা মাথার খুনি ইনডিয়োর চরিত্রে Gian Maria Volonté এর অনবদ্য অভিনয়ে এই মুভিটি প্রথম পর্বের মতই ইতালি এবং আমেরিকাতে অসম্ভব জনপ্রিয়তা অর্জন করে। বিশেষ করে যারা প্রথম পর্ব দেখে আরেক গ্রেট লিজেন্ড আকিরার কুরসাওয়ার মুভির রিমেক বলে নাক শিটকেছিল, তাদের এই মুভিটা লজ্জায় ফেলে দেয়। তারা একবাক্যে মানতে বাধ্য হন Sergio Leone এর এই মুভিটা আসলেই অনবদ্য এক মৌলিক সৃষ্টি। বিশেষ করে মুভিতে কাহিনীর বৈচিত্র্য, উত্থান-পতন, অ্যাকশন আর ড্রামার এহেন সৃজনশীল মেলবন্ধন আর একটা ব্যাংক ডাকাতি নিয়ে এইরকম ভয়াবহ কিন্তু অদ্ভুতুড়ে টম অ্যান্ড জেরি খেলা এই মুভিটাকে এবং এই ট্রিলিজিটাকে দিয়েছে এক ভিন্ন মাত্রা। আর চলচ্চিত্র ইতিহাসে একেবারই নতুন কিছু ধারা সংযোজনের এই পুরো কৃতিত্বই Sergio Leone।

মুভিটাতে সবচেয়ে শক্তিশালী ছিল তিনজন প্রধান চরিত্রের অসম্ভব শক্তিশালী অভিনয়। প্রথম পর্বে যেখানে লাইমলাইটের পুরোটাই ছিল Clint Eastwood বসের,সেখানে এই মুভিতে একই সাথে আরও দুইজন গুণী অভিনেতা ভাগ করে নেন দর্শকের মনোযোগ। কর্নেলের চরিত্রে পাথরকঠিন ব্যক্তিত্বের ছটায় দর্শকের চোখ ধাধিয়ে দেয়া Lee Van Cleef কিংবা ঠাণ্ডা মাথার সাক্ষাত শয়তান ইন্ডিয়ো চরিত্রে সাইকো অভিনয় করে দর্শককের মাথা ঘুরিয়ে দেয়া Gian Maria Volonté, প্রত্যেকেই ছিলেন জাস্ট অসাম। আর নামপরিচয়হীন আগুন্তুক চরিত্রে Clint Eastwood এর হট অ্যান্ড কুল :চশমুদ্দিন: :ভেংচি: অভিনয়ের ব্যাপারে বলার মতো কোন শব্দ পাচ্ছি না। প্রথম পর্বের মতো এখানেও ধীর স্থির কিন্তু প্রচণ্ড রুদ্র কঠিন মহিমায় আবির্ভূত হয়ে মুহূর্তে সবার মনোযোগের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসা ইনার অভ্যাসে পরিনত হয়ে গেছে।

পুরো মুভিটাইম জুড়ে এদের অনলবর্ষী অভিনয় দর্শকদের অন্যদিকে ফেরার সময়ই দেবে না। বিশেষত কর্নেল আর আগুন্তুকের ফিজিক্স(নায়ক-নায়িকা হইলে কেমিস্ট্রি বলতাম :চোখমারা: :ভেংচি:) ছিল জাস্ট স্পেলবাউনড।

ব্যাকগ্রাউনড মিউজিক কিংবা প্লেব্যাক মিউজিকগুলোর ব্যাপারে নতুন করে আর কিছু বলার নেই। পিচ্চিকাল থেকে হিন্দি, বাংলা আর ইংলিশ অসংখ্য মুভিতে Ennio Morricone এর কম্পোজ করা এই সুরগুলো এতবার শুনেছি যে, এই মুভিতে আবার এই সুর শুনে তব্দায়িত হয়ে বসে ছিলাম অনেকক্ষণ। আর এই মুভির সুর শুনে যখন আম্মু অবাক স্বরে ও নয়নে জিজ্ঞেস করল, আমি পুরান আমলের বাংলা মুভি দেখতেছি কবেরত্তে?? তখন আমি আম্মুরে ধরে মনিটরের সামনে নিয়া আইসা বললাম, এতকাল যা দেখছ আর শুনছ,সব কিছুর মাদারফাদারসিসটারব্রাদার এই মুভি তিনটা… আম্মুর চেহারাটা যা হইছিল না…

জানি এই মুভিগুলো হয়তোবা সবারই দেখা হয়ে গেছে, এই মুভিগুলো এতদিন পরে দেখছি বলে আক্ষেপে মাথার চুল ছিঁড়তে বাকি রেখেছি। তারপরও যদি কেউ এই মুভিগুলো এখনও না দেখে থাকেন তবে আর সময়ক্ষেপন না করে বসে যান। আজকে এই পর্যন্তই… আগামিবার এই ট্রিলজির ৩য় ও শেষ পার্ট The Good, the Bad and the Ugly নিয়ে হাজির হব আপনাদের মাঝে। ততক্ষন পর্যন্ত হ্যাপি মুভি ওয়াচিং :বুখেআয়বাবুল: :গোলাপ:

http://www.imdb.com/title/tt0059578


http://thepiratebay.sx/torrent/8946669/

যারা যারা প্রথম পর্ব মিস করেছেন, তাদের জন্য প্রথম পর্বের লিংকটা আবার দিয়ে দিলাম…

http://www.istishon.com/node/4979#sthash.IKDRMHFc.dpbs

২১ thoughts on ““The Dollar Trilogy” ; Part- 2 : For a Few Dollars More— লোভ, হিংস্রতা, বিশ্বাসঘাতকতা আর নৈতিকতার এক মহাকাব্যিক উপাখ্যান

  1. অনেকটা মন খারাপ নিয়ে রিভিউটা
    অনেকটা মন খারাপ নিয়ে রিভিউটা পড়েছি।মন খারাপের কারণ অবশ্যই শাবির ঘটনা।যাই হোক।। চমৎকার লিখেছেন।

    1. আমার মনটাও খারাপ ছিল …
      আমার মনটাও খারাপ ছিল :মাথাঠুকি: … যাই হোক, স্যার শেষপর্যন্ত আমাদের কথা ভেবে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছেন দেখে শান্তি পাচ্ছি। :ফেরেশতা: রিভিউ ভালো লেগেছে শুনে খুশি হলাম… ধইন্না রইল ভাই… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ফুল:

  2. মুভিটা দেখা হয় নাই এখনো;
    মুভিটা দেখা হয় নাই এখনো; দেখতে হবে।
    আর বরাবরের মতই চমৎকার রিভিউ, রাআদ ভাই। :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

    1. আশা করি তারাতাড়ি দেখবেন …
      আশা করি তারাতাড়ি দেখবেন :অপেক্ষায়আছি: … তবে শুরুটা প্রথম পর্ব দিয়ে করবেন… তাহলে বুঝতে সুবিধা হবে… হ্যাপি মুভি ওয়াচিং… :থাম্বসআপ: :ধইন্যাপাতা: :বুখেআয়বাবুল:

  3. গতকাল একটা সুদীর্ঘ মন্তব্য
    গতকাল একটা সুদীর্ঘ মন্তব্য লিখে পোস্ট করার ঠিক আগ-মুহূর্তে যথারীতি আমার ৫ বৎসর বয়স্ক বৃদ্ধ ল্যাপটপটি রিস্টার্ট করে… :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথানষ্ট: :মাথানষ্ট: :মাথানষ্ট: :মাথানষ্ট:
    চমৎকার রিভিউ ডন… চালায় যাও!!
    কিংবদন্তী ক্লিন্ট ইস্টউড এবং সারজিও লিওন জুটির প্রতি :bow: :bow: :bow: :bow: :salute: :salute: :salute:

    1. কি দুঃখের কথা…
      কি দুঃখের কথা… :কানতেছি: :মাথাঠুকি: :মনখারাপ: :দেখুমনা: :কথাইবলমুনা:

      ভালোবাসা রইল ভাই… :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ: :ফুল: :লইজ্জালাগে: :বুখেআয়বাবুল:

    2. একটা কাম করেন, আপনে এই
      একটা কাম করেন, আপনে এই ট্রিলজি নিয়া একটা মতামত পোস্ট দেন লিংকন ভাই… :জলদিকর: :ভাবতেছি: :অপেক্ষায়আছি: আপনার মতামত সবাইকে মুভিটা দেখতে আরও উৎসাহী করবে… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :বুখেআয়বাবুল:

    1. আগ্রহ জাগাতে পেরেছি দেখে খূব
      আগ্রহ জাগাতে পেরেছি দেখে খূব ভালো লাগছে :নৃত্য: … মুভিগুলো দেখবেন আশা করি… :থাম্বসআপ: :ধইন্যাপাতা: :বুখেআয়বাবুল:

    1. ত্রাত্রি দেখেন ভাই… ইহা না
      ত্রাত্রি দেখেন ভাই… ইহা না দেখলে লাইফটাইম মিস… :মাথানষ্ট: :ভাবতেছি: :টাইমশ্যাষ: :জলদিকর: :আমারকুনোদোষনাই: :বুখেআয়বাবুল: :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ:

        1. হুম, দেখতে বসলেই বুঝবেন কেন
          হুম, দেখতে বসলেই বুঝবেন কেন কইলাম লাইফটাইম মিস… মুভি শুরু হওয়ার সাথে সাথে যে ব্যাকগ্রাউনড মিউজিকটা শুরু হইব, শুইনাই আপনে চমকায়া উঠবেন… কারন এই মিউজিক আপনে বাংলা, হিন্দি কিংবা ইংলিশ মুভি দেখতে গিয়া কতবার যে শুনছেন, তার কোন ইয়ত্তা নাই… :হাসি: :হাসি: :চোখমারা: :কল্কি: :নৃত্য:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *