হেফাজতীদের কি এখনও ঈমান আছে ?

এরশাদ নির্বাচনকালীন সরকারে যোগ দেওয়াতে সবচেয়ে কষ্ট পেয়েছে হেফাজতের ইসলাম নামধারী দাড়ি টুপিওয়ালা মুসলমান নামের মূর্খ জঙ্গি কিছু মানূষ । যদিও ইসলামের দৃষ্টিতে এরা আর মুসলমান নেই মুরতাদ হয়ে গেছেন । কারন একজন মানূষ যখন ঈমান আনেন তখন তিনি মুসলমান হন । ঈমান আনার পর যদি সে ইসলাম বিরোধী কাজ করেন তখন তিনি বা তারা মুরতাদ হয়ে যান । হেফাজতে ইসলামের নেতা কর্মীরা মুরতাদ হয়ে গেছেন ইসলামের ব্যাখায় । কারন ইতি মধ্যে তারা অনেক গুলি কাজ করেছেন যা ইসলাম পরিপন্থি । এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো তারা যুদ্ধাপরাধীদের ফাসির দাবীদারদের গণহারে নাস্তিক বলেছেন । শেখ হাসিনার সরকারকে নাস্তিকবাদী সরকার বলেছেন । যা ইসলামী পরিভাষায় সম্পন্ন নিষেধ ।



হেফাজতীদের কি এখনও ঈমান আছে ?
————————————
এরশাদ নির্বাচনকালীন সরকারে যোগ দেওয়াতে সবচেয়ে কষ্ট পেয়েছে হেফাজতের ইসলাম নামধারী দাড়ি টুপিওয়ালা মুসলমান নামের মূর্খ জঙ্গি কিছু মানূষ । যদিও ইসলামের দৃষ্টিতে এরা আর মুসলমান নেই মুরতাদ হয়ে গেছেন । কারন একজন মানূষ যখন ঈমান আনেন তখন তিনি মুসলমান হন । ঈমান আনার পর যদি সে ইসলাম বিরোধী কাজ করেন তখন তিনি বা তারা মুরতাদ হয়ে যান । হেফাজতে ইসলামের নেতা কর্মীরা মুরতাদ হয়ে গেছেন ইসলামের ব্যাখায় । কারন ইতি মধ্যে তারা অনেক গুলি কাজ করেছেন যা ইসলাম পরিপন্থি । এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো তারা যুদ্ধাপরাধীদের ফাসির দাবীদারদের গণহারে নাস্তিক বলেছেন । শেখ হাসিনার সরকারকে নাস্তিকবাদী সরকার বলেছেন । যা ইসলামী পরিভাষায় সম্পন্ন নিষেধ । অনেক হাদিস এবং কুরআনের আয়াত রয়েছে যে, হে ঈমানদারগণ! তোমরা যখন আল্লাহর পথে সফর কর,তখন যাচাই করে নিও এবং যে, তোমাদেরকে সালাম করে তাকে বলো না যে, তুমি মুসলমান নও।
তোমাদের কেউ যদি কাউকে ফাসেক বলে, কিংবা কাফের বলে অথচ লোকটি এমন নয়,তাহলে তা যিনি বলেছেন তার দিকে ফিরে আসবে। {সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৫৬৯৮}
কত মারাত্মক হুশিয়ারী, তাই কাউকে কাফের, মুশরিক, নাস্তিক বলার ক্ষেত্রে কঠোর সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত।
উপরের ব্যাখা থেকে হেফাজতে ইসলাম, জামায়াতে ইসলাম এবং বেগম খালেদা জিয়া বা তাদের সমর্থকদের (যারা গণহারে অপর ব্যক্তিদের নাস্তিক বলে) কি বলা যায় ? তাদের কি ঈমান আছে নাকি নাই ?
হেফাজতে ইসলাম যে জামায়াত বিএনপির কথায় চলে এবং যুদ্ধাপরাধীদের বাচানোর জন্যই মাঠে নেমেছে তার প্রমান পাওয়া যায় এরশাদের মন্ত্রী সভায় যোগ দেওয়ার পর থেকে । হেফাজত এই পষন্ত একাধিকবার বক্তব্য দিয়েছে এরশাদকে নিয়ে যা তাদের করার কথা না । তারা তো ইসলাম প্রচারের জন্য কাজ করছে । কে কোন জোটে যাবে এটা তো তাদের দেখার বিষয় না । এই জন্যই আমরা বলি তারা ধর্ম ব্যবসায়ী । ধর্মের ধুয়া তুলে তারা ৭১ ধ্বংসলীলা চালিয়েছে এখনও তাই করছে । আর এটা করতে পারছে কারন আমরা কুরআন ও হাদিসের অর্থ বুঝে পড়ি না । তাই দাড়ি টুপিওয়ালারা দুই লাইন আরবী বললেই আমরা তা লুফে নেই । যত দিন আমরা কুরআন ও হাদিসের অর্থ বুজে না পড়বো তত দিন ইসলাম ধর্ম গেল বলে এই ধর্ম ব্যবসায়ীরা আমাদের উপর যমদূতের মত লেগে থাকবে । বাংলাদেশে বিভিন্ন এনজিও মালিক যেমন বিদেশ থেকে টাকা এনে পাজারো হাকিয়ে বেড়ায় তেমনি মাদ্রার কথা বলে এই সমস্ত ভন্ড আলেম নামধারীরা ধর্ম ব্যবসায়ীরা সৌদী, কুয়েক থেকে টাকা এনে নিজেদের আখের গোছায় । এখন তারা ক্ষমতায় যেতে চায় । আসুন এদের এখনই প্রতিহিত করি । ধন্যবাদ । জয় বাংলা…….

৭ thoughts on “হেফাজতীদের কি এখনও ঈমান আছে ?

  1. যতই চাপাচাপি করো, কুন লাভ নাই
    যতই চাপাচাপি করো, কুন লাভ নাই মহামান্য হিজুহাগুর ছাওেরা :এখানেআয়: … কাদের কুকুর :তুইরাজাকার: ঝুলবেই… :নৃত্য: :অপেক্ষায়আছি:

  2. চন্দন তলায় থাকেল চন্দন চন্দন
    চন্দন তলায় থাকেল চন্দন চন্দন েগান্ধাই আর নািস্তক েঘষা মানুষ এখন খািট মুসলমান হেত চায়‍‌

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *