লাইলী-মজনু কিংবা সম্রাট শাহজাহানের সুযোগ্য উত্তরসুরীর জন্মদিনে বিলম্বিত শ্রদ্ধাঞ্জলী

দুর্ভাগ্যজনকভাবে  তারেক জিয়ার জন্মদিন পালিত হয়েছে  পরশু দিন !! বেচারা আসলে বড্ড দুর্ভাগা, শেখ হাসিনার ওপর ২১ শে অগাস্টের সেই ঐতিহাসিক বোমা হামলা সফল হলে তাকে এত কষ্ট করে বিলেতে ফেরারী থাকা অবস্থায় গত পরশু জন্মদিন পালন করতে হত না , মায়ের পদাঙ্ক অনুসরণ করে ২১ শে অগাস্টই মহা ঠুশ ঠাষ করে দেশেই পালিত হত তার জন্মদিন – লাইক মাদার লাইক সান !!!
বেচারার মন খারাপ – গতকাল তার প্রিয় জিনিস বোমা বা গ্রেনেড একটা ও ফুটে নাই  !! এইটা হৈল কিছু !? গ্রেনেড কিংবা বোমা ছাড়া রাজপুত্রের জন্মদিন কি সহি সালামতে পালিত হতে পারে! ?!!


দুর্ভাগ্যজনকভাবে  তারেক জিয়ার জন্মদিন পালিত হয়েছে  পরশু দিন !! বেচারা আসলে বড্ড দুর্ভাগা, শেখ হাসিনার ওপর ২১ শে অগাস্টের সেই ঐতিহাসিক বোমা হামলা সফল হলে তাকে এত কষ্ট করে বিলেতে ফেরারী থাকা অবস্থায় গত পরশু জন্মদিন পালন করতে হত না , মায়ের পদাঙ্ক অনুসরণ করে ২১ শে অগাস্টই মহা ঠুশ ঠাষ করে দেশেই পালিত হত তার জন্মদিন – লাইক মাদার লাইক সান !!!
বেচারার মন খারাপ – গতকাল তার প্রিয় জিনিস বোমা বা গ্রেনেড একটা ও ফুটে নাই  !! এইটা হৈল কিছু !? গ্রেনেড কিংবা বোমা ছাড়া রাজপুত্রের জন্মদিন কি সহি সালামতে পালিত হতে পারে! ?!!

এই ‘নাস্তেক’ সরকারের কি উচিত ছিল না – তার ৪৮ তম জন্মদিনে ৪৮ বার কামান দাগানো তোপদ্ধনী দিয়ে ৪৮ দিনব্যাপি রাস্ট্রীয় উতসবের এন্তেজাম করা !? এ কেমন ফ্যাসিবাদী আচরণ !! এই বাকশালি ‘নাস্তেক’  সরকারের আমলে মানুষ নিজের জন্মদিনটা ও  ঠিকঠাক মত হৈ হুল্লোড় করে নিজের মত গ্রেনেড-বোমা মেরে বা কামান দাগিয়ে উদযাপন করতে পারে না !! জাতির পক্ষ থেকে আমরা এসব  গণতান্ত্রীক অধিকার হরণের ‘তেব্র’ নিন্দা জানাই !!!

এ প্রসঙ্গে এক জনাকীর্ণ সমাবেশে “গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় বিরোধীদলীয় নেত্রী” বেগম খালেদা জিয়া “তারেকাপ্লুত”  হয়ে বলেন –  “একটি কুচক্রি মহল এবং পার্শ্ববর্তি একটি ‘হিন্দু দেশে’র গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার এই নিস্পাপ অবলা তারেক,  কিন্তু ষড়যন্ত্রকারীদের নীল নকশা সফল হবে না,  জনগণ তা যথাসময়েই রুখে দেবে  !!

তিনি অভিযোগ করেন – এই ‘নাস্তেক’ সর্কার তারেক কে  হাওয়া ভবনে বসে সুখে শান্তিতে একটু হাওয়া পর্যন্ত খেতে দেয় নাই ! এ সময়ে তিনি অশ্রু ছলছল চোখে বলেন – আপ্নারা জানেন, সে হাওয়া ভবন কে কতটা ভালবাসত !! এজন্য সমস্ত নিয়ম নীতি কে বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করে  সকল প্রকার রাস্ট্রীয় কর্মকান্ড গণভবন থেকে সরিয়ে হাওয়া ভবনে নিয়ে গিয়েছিল সে !  এই নজিরবিহীন ঘটনা ঘটল শুধুই  ভালবাসার জন্য, ‘কত্তগুলা আত্নত্যাগ’ !!  লাইলী-মজনু , শিরি- ফরহাদের মত তারেক-হাওয়া ভবনের প্রেমের কথা ও ইতিহাসের পাতায় চিরকাল স্বর্ণাক্ষরে লিপিবদ্ধ থাকবে ….

‘প্রিয় ভাই ও বোনেরা’, তিনি বলতে থাকেন- “তবে এখানে একটা ‘কিন্তু’ আছে ! “ভালবাসিয়া গেলাম ফাসিয়া” কিংবা হায়দারের গান “ফাইসা গেছি  মাইঙ্কার চিপায়” – এই গানগুলো আপ্নারা নিশ্চয়ই. শুনেছেন …. ঠিক সেই হৃদয়স্পর্শি গানের কথা গুলোর মতই- হাওয়া ভবনের প্রতি ‘হোয়াট ইজ লাভ’ তথা ‘নিঃস্বার্থ ভালবাসার’ কারণে তারেককেও ফেসে যেতে হলো !!! মাসুম বাচ্চা তারেক ও প্রেম করতে গিয়ে “মাইঙ্কার চিপায় ফাইসা” গেছে ,তাই আমি আজ আপ্নাদের আহবান জানাই –  ‘তেব্র’ আন্দোলনের মাধ্যমে ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তুলে তারেক কে আবার ফিরিয়ে আনুন তার একান্ত ভালবাসার জায়গা সেই ঐতিহাসিক হাওয়া ভবনে” !

“তাছাড়া,এই নাস্তেক সরকার  জন্মদিনে তারেক কে এক ফোটা ফেনসিডাইল ও খাইতে দিল না” !! সেই সাথে তিনি জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন রাখেন- “জন্মদিনে একটু ডাইল/টাইল না খাইলে ক্যাম্নে কি” !?
এ সময় Typical মমতাময়ী মা’য়ের মতই তার চোখ আদ্র হয়ে যায় , তা দেখে উপিস্থিত গন্য মান্যব্যাক্তি বর্গ’র চোখ ছলছল করে ঊঠে , এক হৃদয় বিদারক পরিস্থিতির উদ্ভব হয়,  চোখের জলের বন্যার তোড়ে সমাবেশস্থল ভেসে যাওয়ার উপক্রম !! তবু তিনি অবিচল, বলে যাচ্ছেন – “তাই আমরা আপ্নাদের আশ্বস্ত করছি, যদি এবারের নির্বাচনে আমরা সরকার গঠন করি,  তাইলে বাংলাদেশ আর কোন কিছুতে স্বয়ংসম্পুর্ণ হোক বা না হোক,  অবশ্যই ফেনসিডাইলে স্বয়ং সম্পুর্ণ হবে   ! দেশের চাহিদা মিটিয়ে তারেকের মত প্রবাসী  জনগণের সুবিধার্থে ফেনসিডাইল বিদেশে  রপ্তানী করার মাধ্যমে মহা মুল্যবান প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা ও অর্জিত হবে, ভাঙ্গা  স্যুটকেসে ফরেন  কারেনসির রিজার্ভ ও জ্যামিতিক হারে বাড়তে থাকবে”!!
এ ঘোষনা দেয়ার সাথে সাথেই সেখানে এক উতসব মুখর পরিবেশ সৃস্টি হয়,  মুহুর্মুহু করতালিতে ফেটে পড়ে পুরো অডিটোরিয়াম !!! শ্লোগানে শ্লোগানে প্রকম্পিত চারপাশ-
আমরা সবাই তারেক হব,
সারা বছর ফেনসি খাব ….

আপোষহীন নেত্রী আরো বলেন, “ক্ষমতায় গেলে অত্র দেশের সমস্ত গ্রোসারী সপে মুগ,  ডাইল মশুরের ডাইলের মত ফেনসি’ডাইল ও বিক্রয় করা হবে, প্রয়োজনে বিজিবির “অপারেশন চাল ডাল”এর আদলে “অপারেশন ফেনসিডাইল” কর্মসুচীর আয়োজন করা হবে !
যাতে আর কোন তারেক কে  কখনোই নিজের জন্ম দিনে এটলিস্ট ডাইলের কস্ট না করতে হয়” !!
এসময় তিনি আরো বলেন – এই সরকার তারেককে হাওয়া ভবনের হাওয়া খাইতে দেয় নাই, তাই আমরা ক্ষমতায় এলে – তারেকের নিক নেম মিঃ ১০% এর প্রতি সন্মান জানিয়ে হাওয়ার উপ্রেও ১০% ট্যাক্স ধার্য করা হবে !!

পরিশেষে তিনি বলেন, তারেক জিয়া বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক,  অথচ তার নিজেরই এদেশে থাকার কোন স্বাধীনতা নাই, সে এখন লন্ডন শহরে পালিয়ে বেড়াচ্ছে! এ কেমন সন্মান ! এটা কোন ভাবেই বরদাশত করা যায় না….
উপস্থিত সাংবাদিকরা বিস্মিত স্বগোক্তি “তারেক আবার স্বাধীনতার ঘোষক” ……
শুনেই আপোষহীন দেশনেত্রী তেলে বেগুনে “আপন শক্তিতে জ্বলে” উঠে বজ্র কন্ঠে জবাব দেন – শহীদ জিয়া রাস্ট্রপ্রধান ছিলেন, তাই মাত্র অস্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়া শোনা কর্লেও  তার স্ত্রী হিসাবে উত্তরাধিকার সুত্রে আমিও  রাস্ট্রপ্রধানের মসনদে অধিষ্ঠিত হয়েছি ! ঠিক এক’ই ভাবে তারেক জিয়া ও উত্তরাধীকার সুত্রে স্বাধীনতার ঘোষক…. এটা বংশ পরম্পরায় চলতেই থাকবে,  একসময় তারেকের পুত্র কন্যা রাও “উত্তরাধিকার সুত্রে স্বাধীনতার ঘোষক” হিসাবে স্বীকৃতি পাবে এনশাল্লাহ !!

এই মহান নেত্রী এবং তার ‘সুযোগ্য পুত্রে’র প্রশংসা করার জন্য যথা যোগ্য ভাষা খুজে পাচ্ছি না, অতীব শব্দ সংকটে ভুগতেছি ! তাই আক্তারুজ্জামান আজাদের কটা লাইন মহান এই রাজপুত্র কে উতসর্গ করতে চাই –

ধান ভানলে কুড়ো দেব, মাছ কুটলে মুড়ো;
কুড়ো-মুড়োর টেন পার-সেন্ট আধেকটা না, পুরো!
ডাকছে তোমায় রানু-মণি, ডাকছে তোমায় পবন;
তুমি বিনে শূন্য ভীষণ তোমার হাওয়া ভবন!

তোমায় ডেকে সকাল-বিকেল মতির গলায় তিয়াস,
তোমার হয়ে প্রক্সিটা দেয় লাল দালানে গিয়াস!
তুমিও নেই, গিয়াসও নেই, বন্ধ এখন খাওয়া;
হারিছ-বাবর উধাও সবে, হাওয়া ভবন হাওয়া!

তোমার নামে কেঁপে ওঠে বাকশালি আর শোষক;
তারেক, তুমি বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক!
শুভ শুভ শুভ দিন, তারেক জিয়ার জন্মদিন; ওম শান্তি ওম !
একুশ আগস্ট আসছে ফিরে, ফুটাও আবার বোম !

৮ thoughts on “লাইলী-মজনু কিংবা সম্রাট শাহজাহানের সুযোগ্য উত্তরসুরীর জন্মদিনে বিলম্বিত শ্রদ্ধাঞ্জলী

  1. এই ‘নাস্তেক’ সরকারের কি উচিত

    এই ‘নাস্তেক’ সরকারের কি উচিত ছিল না – তার ৪৮ তম জন্মদিনে ৪৮ বার কামান দাগানো তোপদ্ধনী দিয়ে ৪৮ দিনব্যাপি রাস্ট্রীয় উতসবের এন্তেজাম করা !? এ কেমন ফ্যাসিবাদী আচরণ !! এই বাকশালি ‘নাস্তেক’ সরকারের আমলে মানুষ নিজের জন্মদিনটা ও ঠিকঠাক মত হৈ হুল্লোড় করে নিজের মত গ্রেনেড-বোমা মেরে বা কামান দাগিয়ে উদযাপন করতে পারে না !! জাতির পক্ষ থেকে আমরা এসব গণতান্ত্রীক অধিকার হরণের ‘তেব্র’ নিন্দা জানাই !!

    :শয়তান: :শয়তান: :শয়তান: :মাথাঠুকি: :ভেংচি: 😀 😀

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *