মুখোশ : পর্ব ১

দিনের বেলায় ধর্ষণ বিরোধী মানবন্ধন শেষে, রাতের অন্ধকারে মুখ গুজে দিয়েছি পর্ণ মুভীর মহোৎসবে।

নারীবাদী পুরুষ অনেক আছে যাদের দেখেছি নারীর স্বাধীনতা নিয়ে মুখে ফেনা তুলতে, তারা মুখোশের আড়ালে ধর্ষণকে করেছে প্যাশন।

বহু পুরুষবিদ্বেষী অনলাইন নারী কতবার শুয়েছে অন্যের বিছানায় তার হিসেব কে রেখেছে!

কত মেয়ে নিজেকে ভার্জিন বলে দাবি করেছে! আড়ালে আবডালে নিজেকে সপে দিয়েছে অন্যের বিছানায়। সবই মুখোশ!

এই সব মেয়েদের সতী সাজার কথাবাজি শুনে হেসেছি, হায় তুমি! হায় তোমার ভার্জিনিটি!

বাঙ্গালীর এরূপ মুখোশ শৈলী বড়ই বিস্ময়কর! ট্রয়-গ্রীসের উপাখ্যানকেও অনায়াসে হার মানায়!


দিনের বেলায় ধর্ষণ বিরোধী মানবন্ধন শেষে, রাতের অন্ধকারে মুখ গুজে দিয়েছি পর্ণ মুভীর মহোৎসবে।

নারীবাদী পুরুষ অনেক আছে যাদের দেখেছি নারীর স্বাধীনতা নিয়ে মুখে ফেনা তুলতে, তারা মুখোশের আড়ালে ধর্ষণকে করেছে প্যাশন।

বহু পুরুষবিদ্বেষী অনলাইন নারী কতবার শুয়েছে অন্যের বিছানায় তার হিসেব কে রেখেছে!

কত মেয়ে নিজেকে ভার্জিন বলে দাবি করেছে! আড়ালে আবডালে নিজেকে সপে দিয়েছে অন্যের বিছানায়। সবই মুখোশ!

এই সব মেয়েদের সতী সাজার কথাবাজি শুনে হেসেছি, হায় তুমি! হায় তোমার ভার্জিনিটি!

বাঙ্গালীর এরূপ মুখোশ শৈলী বড়ই বিস্ময়কর! ট্রয়-গ্রীসের উপাখ্যানকেও অনায়াসে হার মানায়!

শিক্ষক সেজে তের বছরের কিশোরীকে ধর্ষণ এদেশে অনেক হয়েছে।কলমের বদলে ব্যবহার হয়েছে লিঙ্গদন্ড।

চাদরের আড়ালে লুকিয়ে থাকা লালসার হাত থেকে রক্ষা পায়না কাজের মেয়েটাও।দিনের আলোতে তারাই আবার সমাজসেবক! সেলুকাস!

অন্যের বোনকে রাস্তা ঘাটে উত্তপ্ত করে এসে নিজের বোনকে নির্যাতিত হতে দেখা পরিণত করে ফেলেছি রুটিনে!

একের পর এক ধর্ষণের পর সুশীলরা টিভিতে, পত্রিকায় ঝড় তুলেছে কতবারই। কিন্তু তাদের খুঁজে পাওয়া যায়নি কোন রাস্তার আন্দোলনে, পাওয়া যায়নি কোন ছোট্ট সেমিনারে যেখানে বৃষ্টি এলে সব ভিজে একাকার।তাদের
পাওয়া যায়নি সাধারণ মানুষের হাহাকারে -দুুঃখে।

ইন্সপাইরেশনের বুলি কপচানো লেখক, ভার্চুয়াল বিপ্লবী লেখক, ফেসবুক সেলিব্রেটি তরুণী সবাই সুযোগে যৌনতার কারুকাজে কম যায়নি।শরীরের ভাঁজে ভাঁজে ডুবে গেছে তাদের কামনার রঙ। কথায় কথায় বেডে নিয়ে যাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে তবু বহুগুণে।

কখনো বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে আড্ডার নামে চলা বেশ্যা হওয়ার প্রথম পদক্ষেপ, অন্যের শরীরে হাত রাখার দুর্বার নেশা, একসাথে ছয় সাত জনের সাথে সুকৌশলে রিলেশন চালিয়ে যাওয়া মেয়ে, স্বামীর সাথে প্রতারণা করা বউ – সবাই এখন মুখোশের আড়ালে। তাই আপনি হয় প্রতারণা করবেন নাহয় প্রতারিত হবেন!

সাংবাদিকতার আড়ালে দলের লেজুরবৃত্তি করা মুখোশ! বেশ্যামীরও একটা সীমা আছে! আহ্ কী ভয়ংকর মুখোশ!

মুখ ভর্তি দাঁড়ি কিংবা গলায় তুলসীর মালা নিয়ে অনেকেই আটকে গিয়েছে নারীর সম্ভ্রম লুটে!

বন্ধু বান্ধবের আড্ডায় কতবার বলে উঠেছি, “মালডা সেইরাম। “তার হিসেব রাখতে পারিনি।
সেই আমরা শিক্ষিকার ব্রায়ের ফিতার রঙ নিয়ে আলোচনা করতেও বাদ দেইনি।
এলাকার মেয়েটির ধারণ করা গোপন ভিডিও মেমোরিতে কবজা করতে লাইন লাগিয়েছি দোকানে দোকানে! সেই আমরাই আবার মানববন্ধনের নামে নিজের শোভাযাত্রা করেছি দিনের আলোতে।
প্রাইভেট টিউশনির নামে কতজন তার ছাত্রীর সাথে জড়িয়েছে যৌন সম্পর্কে!

ফাপরবাজী আর শোয়িং টেনডেন্সি মিশে গেছে আমাদের রক্তে, উন্নীত হয়েছে শিল্পে!

ভাবছি একটা জবরদস্ত মুখোশ কিনবো! এত এত মুখোশের আড়ালে নিজেকে লুকিয়ে ফেলতে হবে। নিজের আসল রূপটা ঢেকে ফেলতে হবে।সবাই তো করে। কী লাভ মুখোশহীন থেকে?

(সবাইকে এক ভেবে ফেলাটাই অন্যায়। লেখাতে আমি অবশ্যই সবাইকে ইঙ্গিত করে বলিনি। মুখোশের আড়ালে লুকিয়ে থাকা কিছু মুখ তুলে ধরেছি )

৪ thoughts on “মুখোশ : পর্ব ১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *