প্রিয় সঞ্জীব দা- প্রেম ও আগুণের যৌথতায় যে আমাদের হয়েছিলো!

নভেম্বর আসলেই আমার মাথার ভেতরটায় কে যেনো কথা বলতে শুরু করে। এক বেখাপ্পা বাউণ্ডুলের স্মৃতি বার বার এসে জানান দিয়ে যায়, এখানে, এই সময়ে, আমাদের জন্য কেউ একজন ছিলো! খুব কাছের কেউ একজন। যে আত্মা দিয়ে কথা বলতো আমাদের আত্মার সাথে, যার পাগলামি মাখা কথা ও সুরের খেলা আমাদের নাগরিক স্বার্থমগ্ন ক্লান্তিকর জীবনকে একঘেয়েমি থেকে বাঁচিয়েছে একটা অস্থির সময়জুড়ে! আমাদের সময়ের এমনতর সেই নাগরিক বাউলকে আমরা চিনতাম সঞ্জীব চৌধুরী নামে, প্রিয় সঞ্জীব দা…


নভেম্বর আসলেই আমার মাথার ভেতরটায় কে যেনো কথা বলতে শুরু করে। এক বেখাপ্পা বাউণ্ডুলের স্মৃতি বার বার এসে জানান দিয়ে যায়, এখানে, এই সময়ে, আমাদের জন্য কেউ একজন ছিলো! খুব কাছের কেউ একজন। যে আত্মা দিয়ে কথা বলতো আমাদের আত্মার সাথে, যার পাগলামি মাখা কথা ও সুরের খেলা আমাদের নাগরিক স্বার্থমগ্ন ক্লান্তিকর জীবনকে একঘেয়েমি থেকে বাঁচিয়েছে একটা অস্থির সময়জুড়ে! আমাদের সময়ের এমনতর সেই নাগরিক বাউলকে আমরা চিনতাম সঞ্জীব চৌধুরী নামে, প্রিয় সঞ্জীব দা…

‘আমি তোমাকেই বলে দেবো, কী যে একা দীর্ঘ রাত, আমি হেঁটে গেছি বিরান পথে’ বলে যে বাউন্ডুলে তরুণ নির্জন পথে হেঁটে যাচ্ছিলো, হঠাৎ শুনি চাঁদের দিকে তাকিয়ে সে গেয়ে উঠলো ‘আমাকে অন্ধ করে দিয়েছিলো চাঁদ, আমাকে নিঃস্ব করে দিয়েছিলো চাঁদ। আমার চোখ গেলো- ধরেছে সুন্দর। মেয়ে তুমি এভাবে তাকালে কেনো?’… পাগলের পাগলামি দেখে মুচকি হেসে আনত হয় সকাল। ভোরের আলোয় পিচ ঢালা রাস্তায় গড়িয়ে গড়িয়ে এক অধরা সূর্যকে সাথে নিয়ে এগিয়ে যায় বেখেয়ালি রিকশা… আমাদের বাউণ্ডুলে চিৎকার করে ওঠে ‘এক পলকেই চলে গেলো, আহ কি তাহার মুখখানা, রিকশা কেনো আস্তে চলে না?’… রিকশা থামে না, খানিকটা জিরোতে চায় যুবক। পাকুড় গাছের ছায়ায় বসে জানান দেয় ফেলে আসা অতীতের গল্প ‘হাতের উপর হাতের পরশ রবে না, রবে না, হাতের উপর হাতের পরশ রবে না… আমার বন্ধু, আমার বন্ধু, হবে না, হবে না’! পাতাদের নীরবতায় পাখিরাও যোগ দেয় এই অগোছালো বেখাপ্পা তরুণের আর্তি শুনে। তরুণ থামে না, অভিমানী শব্দগুচ্ছ সাজিয়ে বলে ‘কথা বলবো না, বলার মত কেউ নেই, পিছু ডাকবো না, পিছু ডাকার কিছু নেই’… দিন গড়িয়ে যেতে যেতে মেঘ জমে যায় আকাশে, যেন বাউণ্ডুলে যুবকের কষ্টের সাথে সঙ্গ দিতে চায় বিশাল আকাশ, আর অভিমানী যুবক পৃথিবীকে জানায় তার ভালো না লাগার কথা ‘ ওই কান্না ভেজা আকাশ আমার ভালো লাগে না, থমকে থাকা বাতাস আমার ভালো লাগে না, নদীর জলে নাচতে থাকা ভালো লাগে না, এই মরি মরি বেঁচে থাকা ভালো লাগে না’।

একসময় অবসন্ন হয়ে আসে যুবকের শরীর, মাটির বিছানায় নিজেকে মেলে দিয়ে বুকের আগুন আরো একবার স্পর্শ করে যুবক, বলে ‘আগুনের কথা বন্ধুকে বলি, দুহাতে আগুন তারও, কার মালা হতে খসে পড়া ফুল, রক্তের চেয়ে গাঢ়, যার হাত খানি পুড়ে গেলো বধূ, আঁচলে তাহার ঢাকো, আজো ডানা ভাঙা একটি শালিক, হৃদয়ের দাবি রাখো…’! যুবকের আশাবাদ যেনো এই অন্তিম মুহূর্তেও শেষ হতে চায় না, ঘোর লাগা চোখে সে উচ্চারণ করে ‘আমি ঘুরিয়া ঘুরিয়া সন্ধান করিয়া, স্বপ্নের ওই পাখি ধরতে চাই, আমার স্বপ্নেরই কথা বলতে চাই, আমার অন্তরেরও কথা বলতে চাই’…

বাউণ্ডুলে ছেলেটি বিদায় নেয় এইসব অনুভূতি আর চাওয়াকে পেছনে ফেলে রেখে। আর দূরে কোথাও কোনো এক সমুদ্রের পাড়ে একদল মানুষ ভয়ানক বিষাদ মেখে তার ভাষায় ও সুরে হাহাকার করতে থাকে ‘চোখটা এত পোড়ায় কেনো, ও পোড়া চোখ সমুদ্রে যাও…’।

আজ ১৯ নভেম্বর সঞ্জীব দা’র ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী। আমাদের সময়ের আর কোন গায়ক এতখানি প্রেম আর আগুণ ধরেছিলো হৃদয়ের মাঝে, অস্তিত্বের গভীরে?!

১৪ thoughts on “প্রিয় সঞ্জীব দা- প্রেম ও আগুণের যৌথতায় যে আমাদের হয়েছিলো!

  1. অনেক ধন্যবাদ ভাই। অনুরোধ
    অনেক ধন্যবাদ ভাই। অনুরোধ রক্ষার জন্য কৃতজ্ঞতা। চাচ্ছিলাম ইস্টিশনের সবাই লেখাটা পড়ুক। অনেক ভালো লিখেছেন। পড়লে যে কারো বুকের মধ্যে সঞ্জীবদা’র জন্য ভালোবাসার হাহাকার জাগতে বাধ্য।

  2. সঞ্জীবদার প্রতি বিনম্র
    সঞ্জীবদার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা। :salute: :salute: :salute: লেখকের অনুভূতি জাগানো লেখা সত্যই হৃদয়কে স্পর্শ করলো। :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ:

  3. । আমাদের সময়ের আর কোন গায়ক

    । আমাদের সময়ের আর কোন গায়ক এতখানি প্রেম আর আগুণ ধরেছিলো হৃদয়ের মাঝে, অস্তিত্বের গভীরে?!!!

    তাই হয়তোবা সবকিছু ফেলে ফাকি দিয়ে চলে গেলেন এতো তাড়াতাড়ি… :ভাঙামন: :ভাঙামন: :ভাঙামন: :মনখারাপ: :মনখারাপ: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:

  4. আমাদের সময়ের আর কোন গায়ক

    আমাদের সময়ের আর কোন গায়ক এতখানি প্রেম আর আগুণ ধরেছিলো হৃদয়ের মাঝে, অস্তিত্বের গভীরে?!

    :bow:

  5. সকলের মন্তব্যের জন্যই ধন্যবাদ
    সকলের মন্তব্যের জন্যই ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। বিশেষ ধন্যবাদ ডাঃ আতিক ভাইকে, তার অনুরোধেই এই প্রথম ইস্টিশন ব্লগের বন্ধুদের সাথে আমার ভাবনা শেয়ার করা। সকলের জন্য শুভকামনা রইলো। 🙂

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *