একটি সিরিয়াস কথোপকথন!

গতকাল টেস্ট পরীক্ষার ইংলিশ পরীক্ষায় ডায়লগ এসেছিল ৩জি মোবাইলের ইউজেস আর অ্যাবইউজেস নিয়ে দুই ফ্রেন্ডের কথোপকথন। তো আমি যা লিখেছিলাম তার বঙ্গানুবাদ লিখে দিলাম নিচেঃ

হাসিনাঃ হাই দেয়ার!

খালেদাঃ হ্যালো! কেমন আছেন আপনি?

হাসিনাঃ আর বলেন না! এইসব হরতাল-ফরতালে কি আর ভালো থাকা যায়? তবুও ভালো আছি। আপনি কেমন আছেন?

খালেদাঃ কি বলেন? হরতালে কি শুনশান পরিবেশ চারপাশে! এটা খারাপ লাগে আপনার?



গতকাল টেস্ট পরীক্ষার ইংলিশ পরীক্ষায় ডায়লগ এসেছিল ৩জি মোবাইলের ইউজেস আর অ্যাবইউজেস নিয়ে দুই ফ্রেন্ডের কথোপকথন। তো আমি যা লিখেছিলাম তার বঙ্গানুবাদ লিখে দিলাম নিচেঃ

হাসিনাঃ হাই দেয়ার!

খালেদাঃ হ্যালো! কেমন আছেন আপনি?

হাসিনাঃ আর বলেন না! এইসব হরতাল-ফরতালে কি আর ভালো থাকা যায়? তবুও ভালো আছি। আপনি কেমন আছেন?

খালেদাঃ কি বলেন? হরতালে কি শুনশান পরিবেশ চারপাশে! এটা খারাপ লাগে আপনার? আমার তো দুর্দান্ত লাগে! যাহোক, আমি আজ অনেক হ্যাপি! বলেন তো কেন?

হাসিনাঃ তা তো জানিনা! ওকে, লেট মি গেজ, আপনি নতুন একটা গোলাপি শাড়ি কিনেছেন, রাইট?

খালেদাঃ আরে না রে! ওটা তো গত সপ্তাহে ছিল! আমি আজকে বাবার পকেট থেকে কিছু টাকা মেরে দিয়েছি! এটা দিয়ে একটা ৩জি মোবাইল কিনবো!

হাসিনাঃ ওহ! ৩জি! বর্তমান সরকার এর পুরো কৃতিত্ব এটা! তারা যেভাবে দ্রুতগতিতে ৩জি নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে দিচ্ছে, তাতে খুব দ্রুতই ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে! দেশের মানুষজন সরকারের ওপর ভরসা রাখে বলেই সরকার তাদের ভরসার প্রতিদান দিতে…

খালেদাঃ ওহ! থামুন তোহ! আগে আমাকে একটু হেল্প করুন! আমি লেখাপড়া কম করেছি, এগুলা একটু কম বুঝি। আমাকে আগে বলুন তো এই ৩জি জিনিসটার সুবিধা-অসুবিধা কী কী?

হাসিনাঃ বর্তমান সরকার কর্তৃক প্রচলিত এই ৩জি প্রযুক্তির মাধ্যমে আপনি পারবেন দ্রুত গতিতে ইনটারনেট ব্রাউজ করতে, বাফারিং ছাড়া ভিডিও স্ট্রিমিং করে দেখতে, লাইভ টিভি দেখতে, ভিডিও কল করতে ইত্যাদি ইত্যাদি। ৩জি’র সর্বোচ্চ সেবা নিতে ব্যবহার করুন টেলিটক ৩জি নেটওয়ার্ক! সব মিলিয়ে বলতে পারেন ৩জি জিনিসটার খালি সুবিধা আর সুবিধা!

খালেদাঃ আচ্ছা, আমি কি এই ৩জি দিয়ে অনলাইনে বিউটি টিপস পেতে পারবো? এই ধরেন, ভ্রু গজানো যায় কিভাবে সেটা দেখতে পারবো তো? আমি আবার আমার রূপ নিয়ে একটু বেশিই চিন্তিত থাকি কিনা! জানেন তো আমার ভ্রু ঠিক…

হাসিনাঃ আরে আরে! এতো চিন্তিত হচ্ছেন কেন? আমি জানি আপনি এমনকি আপনার দেশ থেকেও আপনার রূপ নিয়ে বেশি চিন্তিত থাকেন! সবই পারবেন! বললাম না, বর্তমান সরকার ৩জি’র মাধ্যমে পৃথিবীকে এনে দিয়েছে হাতের মুঠোয়! আপনি-আমি এখন থেকে ভিডিও চ্যাট করতে পারবো। লাল-ফোন এর দিন শেষ হতে চলেছে!

খালেদাঃ সবই ঠিক আছে, তবে এর কিছু অসুবিধাও কিন্তু আছে! ইনটারনেটে ফেইসবুক বলে একটা জিনিস আছে। আমাদের যুব সমাজ সেখানে ঘন্টার পর ঘন্টা তাদের মূল্যবান সময় নষ্ট করে। তারা সেখানে ধর্ম-বিরোধী নানা কর্মকান্ড চালায়! নাস্তিকতার প্রচার করে সেখানে! সেখানে জোট বেঁধে অন্দোলন করতে রাস্তায় নেমে যায়! রাস্তায় নেমে অশ্লীল নৃত্য করে। নানা অশ্লীল ওয়েবসাইটে অশ্লীল ভিড্যু দেখে! এই সামাজিক অবক্ষয়ের দায়ভার কিন্তু সরকারেরই নিতে হবে! এই সরকার…

হাসিনাঃ আরে ভাই থামেন তোহ! আপনার সাথে তর্কই করা ঠিক না! সবকিছুরই ভালো-মন্দ আছে। যারা মন্দ মানুষ, তাদেরই শুধু সেই মন্দটা চোখে পড়ে। আমাদের উচিৎ ভালোটা গ্রহণ করে এগিয়ে যাওয়া। আপনার এই সরকার-বিরোধী মনোভাব…

খালেদাঃ আপনি কী আমাকে ইনডাইরেক্টলি মন্দ বললেন? আপনার সাথে আসলে কথা বলাই পুরা রাবিশ! থাকেন আপনি! আমি গেলাম মোবাইল কিনতে! কিন্তু নাস্তিক সরকারের ৩জি আমি কিনবো না। হাহ্‌! গেলাম আমি!

হাসিনাঃ হেহে! যান! বাইরে হরতাল! বিরোধী দলের পিকেটিং চলে! যান, আপনার মোবাইল আসমান দিয়ে বৃষ্টির মতো পড়বে! আমি গেলাম!

১০ thoughts on “একটি সিরিয়াস কথোপকথন!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *