প্রিয় হুমায়ুন স্যার

একটা মানুষ কে নিয়ে কিছু লিখব সেই সাহস আছে । কিন্তু যে কাউরে নিয়ে লিখব সেই সাহস তো নেই । প্রিয় হুমায়ুন স্যার জানি আপনাকে নিয়ে কিছু লিখার মত শব্দ আমরা তৈরি করতে পারব না । আপনি যে সব শব্দ নিয়ে গেছেন । আমরা পারি শুধু নিরবে শ্রদ্ধা জানাতে । জানি সেই শ্রদ্ধা জানানোর মধ্যে ও কেমন যেন লুকোচুরি থাকে ।

একটা মানুষ কে নিয়ে কিছু লিখব সেই সাহস আছে । কিন্তু যে কাউরে নিয়ে লিখব সেই সাহস তো নেই । প্রিয় হুমায়ুন স্যার জানি আপনাকে নিয়ে কিছু লিখার মত শব্দ আমরা তৈরি করতে পারব না । আপনি যে সব শব্দ নিয়ে গেছেন । আমরা পারি শুধু নিরবে শ্রদ্ধা জানাতে । জানি সেই শ্রদ্ধা জানানোর মধ্যে ও কেমন যেন লুকোচুরি থাকে ।
আপনি মারা যাওয়ার পর থেকে এমন কোন দিন নেই আপনাকে মনে হয়নি । কখন উপন্যাস পড়তাম কিনা জানি না তবে আপনার হিমু পড়ার পর মনে হল মানুষ কেমনে বই পড়া ছাড়া বেঁচে থাকতে পারে । সেই শুরু । আপনি যে গুরু । সেই থেকে যে পড়া শুরু করলাম এখনও শেষ করতে পারিনি । এমন ও হয়েছে আপনার কোন কোন বই দশ পনের বার পড়ে ফেলেছি । হয়ত কিছু কিছু মুখস্ত ও হয়ে গেছে । তবু ও কেন যেন পড়ি । আবার পড়ি । বারবার পড়ি । সুধা মিটে না । পুরায় না ভালোবাসা ।
আপনার বই পড়ে যতোটানা ভালো লাগে ঠিক ততটুকু ভালো লাগে উৎসর্গ পাতাটা পরতে । আমরা বাংলাদেশের মানুষরা খুব বেশি সুখি নই । কেন জানি আবার অল্পতেই আমরা সুখি হয়ে যাই । আপনি চিলেন আমাদের সুখির কারিগর । আমরা এতো আনন্দিত এতো সুখি আগে কখনও হইনি এখনও হতাম না যদি আপনি না থাকতেন ।
এমন ও হয়েছে আপনার উপন্যাস পরতে পরতে কখন যে কেঁদে দিয়েছি বুঝতে পারতাম না । আবার কখনও নিজের অজান্তে হাসতে হাসতে গড়াগড়ি খেতাম । এই ক্ষমতার কারিগর আপনি । এতো মহান ক্ষমতার মালিককে ঈশ্বর নিশ্চয় অসুখি করবেন না ।
বৃষ্টিতে ভেজা যে খুব একটা আনন্দের হতে পারে এই হাস্যকর বিষয়টা কখনও বুঝতে পারিনি । কিন্তু যখন আপনি লিখলেন শুধু ভেজা নয় প্রচণ্ড ইচ্ছে নিয়ে বৃষ্টিতে ভেজা যায় তখন বুঝলাম এইটা আসলেই হাস্যকর নয় এইটা হচ্ছে হচ্ছে বেঁচে থাকার অন্তত সুখে বেঁচে থাকার কৌশল ।
রাতে চাদের আলোতে কত হেঁটেছি কখনও মনে হয়নি এই চাঁদটাকেই এতো ভালোবাসা যায় । যখন আপনি লিখলেন রাতে খালি পায়ে অথবা ঘাসের উপর খালি পিঠ বিছিয়ে জোসনা দেখা যায় তখন ওই সাধারন চাঁদটাকে নতুন করে অবিস্কার করলাম । তখন বুঝলাম চাঁদটাও খুব নেশা ধরাতে পারে ।
ভালোবাসার মত আবেগি একটা বিষয়ে ছোটবেলা থেকেই জড়িত কিন্তু কখনও সেই ভালবাসাকে সাধারনের বাইরে নিতে পারিনি । যখন রুপার প্রতি হিমুর ভালোবাসা দেখলাম তখন থেকে আবার নতুন করে ভালবাসতে শিখলাম । যেই ভালোবাসায় হারানর কিছু নেই । আমি আজো ধরে রেখেছি আমার পাঁচটি নীল পদ্ম ।
আপনি ভূত চিনিয়েছেন । ভূতের গল্প দিয়ে আমাদের বোকা বানানোর চেস্টা করেছেন । আমরা বোকা হয়েছি । এবং পরবর্তীতে মিসির আলী নামক এক জ্ঞানীর যুক্তিতে ভূতকে প্রমাণ করেছেন ভুল ।
আমরা বাংলাদেশের মানুষরা খুব একটা সুখি নই । তবে সুখি হতে জানি । এ জানার প্রক্রিয়ায় সবচে প্রথম দিকের কারো যদি অবদান থেকে থাকে; সে আর কেউ নয় । আপনি । হ্যাঁ আপনি প্রিয় হুমায়ূন আহমেদ । আপনি চলে যাবার পর আমরা কাঁদছি । আমাদের সাথে আছে বৃষ্টি, জ্যোৎস্না, মাতাল হাওয়া, লিলুয়া বাতাস আর আমাদের মত দেখতে অনেক অনেক চরিত্র । সব আপনার সৃষ্টি । আপনাকে সৃষ্টিকর্তা খুব দেখেশুনে রাখবেন । এত মানুষকে যে একসাথে হাসাতে আর কাঁদাতে পারে তাকে দেখার ক্ষমতা সৃষ্টিকর্তা ছাড়া আর কারো নেই ।।

৪ thoughts on “প্রিয় হুমায়ুন স্যার

  1. হে জীবনবোধের মহান শিল্পী, শুভ
    হে জীবনবোধের মহান শিল্পী, শুভ জন্মদিন :bow: :bow: … বিচিত্র এই জীবনের বৈচিত্র্যময় সব বাঁকে আপনাকে স্মরণ করবো শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় :গোলাপ: :গোলাপ: … আপনি বেঁচে থাকবেন আমাদের মাঝে চিরকাল… :salute: :salute:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *