………………

আমার মোম রঙের আঁকা নীল ছবি টা আজ চাঁদের আলোর দিকে তুলে ধরলাম । স্বর্গের অমৃত ধারা জ্যোৎস্নায় ঝলমলিয়ে উঠলও সেই দৃশ্য । খানিকটা সময় অবাক চেয়ে রইল মন সেদিকে । নিসঙ্গতা চাঁদের আলোয় কি অপরূপ , সেই আঁকা ছবিতে । হঠাৎ চোখ পড়ল ছবির সেই মেয়েটির দিকে । মনে হল একাকি কাঁদছে । কি উজ্জ্বল তার স্বর্ণ ধারার চোখের জল । কি পরিস্কার ! কই আগে তো লক্ষ্য করিনি আমার চিত্রে ওকে কাঁদতে । চাঁদের গায়ের কাল ছোপের ছায়া ওর গায়ে পড়েছে । কি কান্না !! যা আমার এই দুই হাত এর কারুকাজ না । কেঁদেই চলছে । ওর স্বর্ণ ধারার অশ্রু জল জ্যোৎস্নার কলকলে রঙ্গিন জলে মিশে যাচ্ছে । তারা গুলোয় ওর দু’ধারে নেই । আমি শুধুই চেয়ে ছিলাম এক পুনঃজাগ্রত তৃষ্ণায় । হয়ত আমার মন জিজ্ঞেস করেছিল – “তুমি কি আজও কাঁদছ ? ” । ছবির ওপাশ থেকে সেই আকাশে ভাসা জোছনা তরঙ্গ কি যেন বলল আমায় । আমি বুঝি নাই । ছবি টা বড়ই নোনতা , বহু অশ্রু জল পড়ছে তো তাই । তবুও এই বুকে চেপে ধরে রইলাম সেই নোনতা ঝর্নার স্বর্ণ ধারা কে । চেয়ে রইলাম চাঁদের দিকে ।

কারন চাঁদের ওপাশের নিঃশব্দ অন্ধকারে বসে কান্না চলছে আজও …………………………………………………………

৫ thoughts on “………………

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *