টেক্সটাইল সেক্টরে ইতিবাচক ব্র্যান্ডিং জরুরী।

বাংলাদেশের টেক্সটাইল সেক্টর অন্য যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে।রানা প্লাজা,তাজরীন ফ্যাশন,আসওয়াদ গার্মেন্টস সহ বিভিন্ন গার্মেন্টস এর নেতিবাচক খবর বাংলাদেশ ভাবমূর্তিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।এর ফলশ্রুতিতে আমাদের টেক্সটাইল সেক্টরও বিভিন্ন নেতিবাচকতার সম্মুখীন হচ্ছে।বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ তার সম্মান হারাচ্ছে ব্যাপকহারে।


বাংলাদেশের টেক্সটাইল সেক্টর অন্য যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে।রানা প্লাজা,তাজরীন ফ্যাশন,আসওয়াদ গার্মেন্টস সহ বিভিন্ন গার্মেন্টস এর নেতিবাচক খবর বাংলাদেশ ভাবমূর্তিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে।এর ফলশ্রুতিতে আমাদের টেক্সটাইল সেক্টরও বিভিন্ন নেতিবাচকতার সম্মুখীন হচ্ছে।বহির্বিশ্বে বাংলাদেশ তার সম্মান হারাচ্ছে ব্যাপকহারে।

প্রায় ৪০ লক্ষ লোকের কর্মসংস্থান তৈরি করা এ সেক্টরটিকে টিকিয়ে রাখতে হলে ইতিবাচক ব্র্যান্ডিং অতি অবশ্যই জরুরী।বর্তমানে আমরা যেসকল নেতিবাচকতার সম্মুখীন হচ্ছি সেগুলো কাটিয়ে ওঠার জন্য অবশ্যই ইতিবাচক হওয়া প্রয়োজন।আমাদের গার্মেন্টস সেক্টরের আছে গর্ব করার মতো এক অধ্যায়।আরএমজি সেক্টরে চীনের পরই বাংলাদেশের অবস্থান।দক্ষ জনশক্তি,কাঁচামালের সহজলভ্যতা,নিম্ন শ্রমিক মজুরি ইত্যাদি নানা কারণে টেক্সটাইল সেক্টরে বাংলাদেশের অবস্থান আরো সুদ্ ঢ় হচ্ছে।এমতাবস্থায় কিছু কিছু ঘটনা যেমন শ্রমিক আন্দোলন,রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা ইত্যাদি ঘটনা আমাদের জন্য নেতিবাচক ফলাফল বয়ে আনছে।সময় এসেছে ঘুরে দাড়াবার।ইতিবাচক ব্র্যান্ডিং এর মাধ্যমে টেক্সটাইল সেক্টরকে উন্নতির শিখরে পৌছে দেয়ার দায়িত্ব তো আমাদেরই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *