ক্রিকেট কি শুধুই ব্যাটসম্যানদের খেলা?

একদিনে ৭২১ রান!! তাও আবার ৯৪ ওভারে!! এভারেজ রান রেট সাড়ে সাতেরও বেশী! ঈদ বিনোদন হিসেবে জয়পুরে ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে সিরিজের ২য় ওয়ানডে ম্যাচটা ছিল দারুণ উপভোগ্য। ভিরাত কোহলীর রেকর্ড সেঞ্চুরীর (ভারতীয়দের মধ্যে দ্রুততম সেঞ্চুরি ৫০ বলে, আগের রেকর্ড ছিল শেহওয়াগের ৬০ বলে) সাথে ম্যাচে দুই দল মিলিয়ে বাউন্ডারীরও সেঞ্চুরি! যার মধ্যে আবার ২৫ টা ছক্কা। ধামাকা বিনোদন কোন সন্দেহ নাই। কিন্তু কথা হচ্ছে, ক্রিকেট কি শুধুই ব্যাটসম্যানদের খেলা? ব্যাটে বলে সত্যিকার অর্থেই লড়াই তো এখন হয় না।


একদিনে ৭২১ রান!! তাও আবার ৯৪ ওভারে!! এভারেজ রান রেট সাড়ে সাতেরও বেশী! ঈদ বিনোদন হিসেবে জয়পুরে ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে সিরিজের ২য় ওয়ানডে ম্যাচটা ছিল দারুণ উপভোগ্য। ভিরাত কোহলীর রেকর্ড সেঞ্চুরীর (ভারতীয়দের মধ্যে দ্রুততম সেঞ্চুরি ৫০ বলে, আগের রেকর্ড ছিল শেহওয়াগের ৬০ বলে) সাথে ম্যাচে দুই দল মিলিয়ে বাউন্ডারীরও সেঞ্চুরি! যার মধ্যে আবার ২৫ টা ছক্কা। ধামাকা বিনোদন কোন সন্দেহ নাই। কিন্তু কথা হচ্ছে, ক্রিকেট কি শুধুই ব্যাটসম্যানদের খেলা? ব্যাটে বলে সত্যিকার অর্থেই লড়াই তো এখন হয় না।

উইকেট যদি এমন ফ্লাটই বানানো হয় তাহলে আর বোলারের দরকার কি? দুই আম্পায়ার অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে উভয় প্রান্ত থেকে বোলিং মেশিন দিয়ে বল করে যাবেন। তাহলেই তো হয়। যতো খুশি চার ছয় মারো।

এমনেই কি আর এই শতাব্দীতে এক দক্ষিণ আফ্রিকার ডেল স্টেইন ছাড়া আর কোন বিশ্বমানের বোলার পায়নি ক্রিকেট বিশ্ব! আমার দৃষ্টিতে ডেল স্টেইনই এখন পর্যন্ত এই শতাব্দীর সেরা বোলার। আই রিপিট, আমার দৃষ্টিতে। হ্যাঁ আরও অনেকেই এসেছে, কিন্তু টিকে থাকতে পেরেছে শুধু ডেল স্টেইনই।

ডেনিস লিলি, জোয়েল গারনার, মাইকেল হোল্ডিং, কোর্টনি ওয়ালস, কার্টলি এ্যামব্রোজ, স্যার রিচার্ড হ্যাডলি, ইমরান খান, কপিল দেব, ইয়ান বোথাম, টু ডাবলু ওয়াসিম আকরাম ও ওয়াকার ইউনুস, সাদা বিদ্যুৎ এ্যালান ডোনাল্ড, শন পোলক, পিজিয়ন গ্রেন ম্যাকগ্রাথ, মুরালীধরন, শ্যেন ওয়ারন, অনিল কুম্বলে, হিথ স্ট্রিক, সাকলায়েন মুশতাক, চামিন্ডা ভাসদের বোলিং কি উপভোগ্য ছিল না?

ব্যাটসম্যানদের ঘিরে ধরে মুরালী, ওয়ারন, কুম্বলে, সাকলায়েনের স্পিন বা তিন স্লিপ, দুই গ্যালি, পয়েন্ট, কভার, শর্ট মিড উইকেট নিয়ে হোল্ডিং, হ্যাডলি, আকরাম, ডোনাল্ডদের এ্যারাউন্ড ৯০ মাইল গতির বোলিং আমার কাছে ক্রিস গেইলের দানবীয় ছক্কা, লারার প্লেসমেন্ট, টেন্ডুলের ইম্প্রোভাইজড স্ট্রোকের বন্যা বা দ্রাবিড়ের ক্লাসিকাল ব্যাটিঙয়ের চাইতে কোন অংশে কম উপভোগ্য ছিল না।

আগামী পঞ্চাশ বছরেও কি মুরালীধরনের রেকর্ড ভাঙ্গা সম্ভব হবে? গড়ে প্রতি ম্যাচে ৫ উইকেট করে পাইলেও মুরালীর রেকর্ড ভাঙতে ১৬০ টা টেস্ট ম্যাচ খেলতে হবে। একজন বোলারের পক্ষে ১৬০ ম্যাচ খেলা খুব একটা সহজ ব্যাপার নয়। ম্যাচে ৬ উইকেট পাইলেও তো লাগবে ১৩৩ ম্যাচ! তাছাড়া একটা দল বছরে এভারেজ সর্বোচ্চ ১০-১২টা টেস্ট খেলে। সে হিসেবে দেড়শ টেস্ট খেলতে হলে ক্যারিয়ার হতে হবে ১৫ বছরের। ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলে যাওয়া কয়টা বোলার আছে এখন যার কাছে থেকে আশা করা যায় এক টানা পনেরো বছরের ক্যারিয়ার? এই মুহূর্তে যারা খেলছেন তাদের কারো কি ঐ রেকর্ডের আশে পাশে যাওয়ার কোন সম্ভাবিলিটি আছে? আমার মতে নাই।

আগে মারাত্মক ভক্ত ছিলাম ক্রিকেটের। সেই আশির দশকের মাঝামাঝি থেকে রেডিওতে কান লাগিয়ে খেলার কমেন্ট্রি শোনা পাবলিক ছিলাম। বন্ধুরা খ্যাপাইতো “খেড়বাড়িতে ক্রিকেট হলেও উত্তর বাংলা রেডিওতে খেলা শুনবে”। কিন্তু এই টিটুয়েন্ট আসার পর থেকে এতো ম্যাচ এতো ম্যাচ যে বিরক্ত লাগে। তাই খেলা দেখাও হয় না খুব একটা। কিন্তু আজকে খেলাটা দেখলাম। এবং চার ছয় উপভোগ করার থেকে বেশী বিরক্তই হইলাম। জর্জ বেইলি, শেন ওয়াটসন, ম্যাক্সওয়েল, ধাওয়ান, রোহিত শর্মা, ভিরাত কোহলিদের দুর্দান্ত স্ট্রোক প্লে’র প্রতি সম্মান জানিয়েই বলছি, এভাবে বোলারদের নাজেহাল করার কোন মানেই হয় না। ক্রিকেটের বাণিজ্যিকিকরণ খেলাটার স্পিরিটটাই নষ্ট করে দিয়েছে। এখন আর কেউ বোলার হতে চায় না। ঢাকা প্রিমিয়ার লীগে তো পেসাররা অনেক সময় দলই পায় না খেলার জন্য। ধুর, কেন যে এই টিটুয়েন্টি ম্যাচটা আসলো! ফাউল। অবশ্য এতো বিরক্ত হওয়ার পিছনে একটা কারণ আছে। আমার পছন্দের ক্রিকেটারদের মধ্যে ব্রায়ান লারা, স্যার ভিভ রিচারডস, রাহুল দ্রাবিড় ছাড়া বাকী সবই যে বোলার বা অল রাউন্ডার!!

## এক কালে নির্মাণ স্কুল ক্রিকেটে বাজার দর পেসার ছিলাম আর কি! বাংলাদেশ জাতীয় দলের ওপেনার ও পাইলটের আগে উইকেট কিপার ছিলো জাহাঙ্গীর আলম। তো নির্মাণ স্কুলের চূড়ান্ত পর্বে নারায়নগঞ্জের সাথে খেলায় ঐ ব্যাটা আমাদের সাথে ক্রিস গেইলিয় আচরণ করেছিল!! বল রাজারবাগ পুলিশ মাঠ থেকে একদম রাস্তায় পাঠায় দিলো! এক বার দুই বার না, কয়েক বার। আমার ক্ষমতা থাকলে তাকে ঐ শটগুলার জন্য ১৮ করে রান দিতাম!!

২৭ thoughts on “ক্রিকেট কি শুধুই ব্যাটসম্যানদের খেলা?

  1. অতি বাণিজ্যইকী করণ সব কিছু
    অতি বাণিজ্যইকী করণ সব কিছু নষ্ট করে দিচ্ছে এতে ক্রিকেটেরই ক্ষতি হচ্ছে। দীর্ঘ দিন এটা চললে খেলা টার প্রতিই মানুষ আগ্রহ হারিরে ফেলবে। আমাদের তো আজকেও মনে হয়েছে ম্যাচ টা পাতানো কিনা!

  2. পিচ বাইড়ানি উপযোগী বানালে তো
    পিচ বাইড়ানি উপযোগী বানালে তো কিছুই করার নাই । বোলারদের ক্ষমতা দেখানোর একটু সুযোগ তো পিচ কিউরেটরদের দেয়া উচিত
    কে শুনে ! মানুষ ছক্কা দেখতেই ইদানীং ভালবাসে । ক্রিকেট আর কি 🙁

    1. সেজন্যই তো বললাম যে বোলার
      সেজন্যই তো বললাম যে বোলার দরকার নাই। আম্পায়ার বোলিং মেশিন দিয়ে বল করবে আর ব্যাটসম্যান পিটাবে।

    1. ধুর ভাই, বারো মাসেই যদি খেলা
      ধুর ভাই, বারো মাসেই যদি খেলা লেগে থাকে তাহলে কেমন করে আগ্রহ থাকে! :ভাঙামন: :ভাঙামন: :ভাঙামন:

  3. উইকেট যদি এমন ফ্লাটই বানানো

    উইকেট যদি এমন ফ্লাটই বানানো হয় তাহলে আর বোলারের দরকার কি? দুই আম্পায়ার অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে উভয় প্রান্ত থেকে বোলিং মেশিন দিয়ে বল করে যাবেন। তাহলেই তো হয়। যতো খুশি চার ছয় মারো।

    এই ইন্ডিয়ান ছাগলগুলার ক্রিকেটটাকে একটা লাভজনক পণ্য বানায়ে ফেলা যে আসলে কতটা ভয়াবহ প্রভাব ফেলতেছে পুরো খেলাটার ভবিষ্যৎের উপর, সেইটা আমরা এখন টের পাইতেছি না। কিন্তু যখন মানুষ অনবরত চারছয় দেখতে দেখতে খেলাটার উপর পুরোপুরি বিরক্ত হয়ে যাবে, তখন আমাদের হুশ হবে। কিন্তু আফসোস, তখন আর এই হাঁস সোনার ডিম তো দূরের কথা, সাধারন ডিম দেয়ার ক্ষমতাও হারিয়ে ফেলবে… বড় দেরি হয়ে যাবে তখন… :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :এখানেআয়:

    1. একের পর ব্যাটসম্যানদের সুবিধা
      একের পর ব্যাটসম্যানদের সুবিধা করে দেয়া হচ্ছে, উল্টা দিকে বোলারদের আগে যে সব সুবিধা ছিল সেগুলাও কেড়ে নেয়া হচ্ছে। নব্বই এর দশকের শুরুতে আইসিসি চালু করলো নতুন নিয়ম, প্রতি ওভারে বাউন্সার নিয়ন্ত্রণ। মানে একটার বেশী করা যাবে না। অথচ, এই বাউন্সারই ছিল ব্যাটসম্যানদের অন্যতম বড় পরীক্ষা। নোবলের দেয়া হলো ফ্রি হিট। মার ঘুরিয়ে আউট নাই!! পাওয়ার প্লে তো আছেই। আমি ঠিক করছি বাংলাদেশের ম্যাচ দেখবো আর টেস্ট ক্রিকেট সময় সুযোগ হলে দেখবো। বাকীগুলা জাহান্নামে যাউক। :মানেকি: :মানেকি: :মানেকি: :ভাঙামন: :ভাঙামন:

  4. আগে ক্রিকেটখোর ছিলাম। এখন
    আগে ক্রিকেটখোর ছিলাম। এখন বাংলাদেশের খেলা ছাড়া ক্রিকেট দেখি না। বোলারদের জন্য উপযুক্ত উপমহাদেশে পিচ আছে বলে আমার মনে হয় না। এখানকার মানুষ স্টেইনের টো ক্রাসিং ইর্য়োকারের থেকে, ভিরাট/ধোনির ধুমধাম ছক্কা বেশি পছন্দ করে।তাই খেলাটাকে ব্যাটসম্যানদের করা ছাড়া উপায় নেই! বানিজ্য করার ক্ষেত্র আরকি…

    গতমাসে Cleamon থেকে কিছু ভাইয়া ইয়াং টেলেন্ট খুজতে আমাদের স্কুলে আসছিল। আমি 65Kph এ বল করেছিলাম (স্পিড মাপার যন্ত্র ছিল)। আশা ছিল দেশের হয়ে বোলিং করবো। কিন্তু এদেশে সাকিবের মতো স্পিনার অথবা তামিমের মত হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান না হলে দাম নেই। এদেশে মাশরাফি তৈরী হওয়া কষ্টকর।

    1. এক সময় পাকিস্তান তাদের সুবিধা
      এক সময় পাকিস্তান তাদের সুবিধা মতো বাউন্সি উইকেট বানানোর চেষ্টা করতো, কারণ তাদের ছিল ইমরান, আকরাম, ওয়াকার ইউনুসের মতো পেসার। তেমনি ভারত কুম্বলে, মানিন্দার সিং এর জন্য বানাতো টারনিং পিচ, কিন্তু এখন তো ঐ সবের খাওয়া নাই। সব খানেই একই উইকেট, যতো পারো রান করো। ফাউল। ……………… কিন্তু আপনি স্কুলে পড়া অবস্থায় যদি ঐ গতিতে বল করতে পারেন তাহলে ছেঁড়ে দিয়েন না। রুবেল হোসেন কি কল্পনা করেছিল সে এমন একটা অবস্থানে আসবে? তাই খেলে যান। বড় বোলার হতে হবে সেজন্য না হলেও নিজের জন্যোই খেলে যান। ধন্যবাদ। :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

      1. দেখি ভাইয়া, আমার উপর পরিবারের
        দেখি ভাইয়া, আমার উপর পরিবারের এক একজনের একেকটা চাওয়া। কেউ ডাক্তার, কেউ ইন্জিনিয়ার, কেউ হ্যান কেউ ত্যান। শালার আমি কি চাই এটা কেউ জানতে চায় না!

  5. এই কথা গুলো এখানেই শেষ
    এই কথা গুলো এখানেই শেষ ইস্টিশন থেকে বের হলেই কারোও মনে থাকবে না। আফসোস!!

    যদি উপর্যুক্ত স্থানে পৌছানো যেত তাদের বোঝানো যেত

    1. তা ঠিক জয়, তবে আমাদের মনে
      তা ঠিক জয়, তবে আমাদের মনে থেকেই বা লাভ কি? ইভেন বাংলাদেশেই বা মনে থেকে লাভ কি? ক্রিকেট বিশ্ব এখন নিয়ন্ত্রণ করে ভারত। অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে, ভারতই ক্রিকেটের বাবা, ভারতই মা, আর ক্রিকেট হচ্ছে কুত্তার বাচ্চা!! (ভারতের সমর্থকরা আবার পিটাইতে আসিয়েন না, ফান করলাম)। 😀 😀 😀

      1. কথা কিন্তু ঠিক বলছেন দাদা।
        কথা কিন্তু ঠিক বলছেন দাদা। আইসিসি পুরোটাই বিসিসিআই এর নিয়ন্ত্রনে। নামটাই শুধু নিজস্ব বাকি সব ভারতীয়। :বুখেআয়বাবুল:

      2. অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে,

        অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে, ভারতই ক্রিকেটের বাবা, ভারতই মা, আর ক্রিকেট হচ্ছে কুত্তার বাচ্চা!!

        মইরা যামুরে হাসতে হাসতে… :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: 😀 😀

        1. হাঁসি হার্টের জন্য ভালো। তবে
          হাঁসি হার্টের জন্য ভালো। তবে হাঁসতে হাঁসতে পড়ে গেলে আবার অর্থপেডিক্সের ডাক্তারের কাছে যাওয়া লাগতে পারে। হুম! 😀 😀 😀

  6. বোলারদের এই দৈন্যদশা নিয়ে
    বোলারদের এই দৈন্যদশা নিয়ে আক্ষেপ আছে আপনার মতো আমারও। হয়তো এ কারনেই আজকাল খেলা দেখতে আর আগ্রহ পাইনা। মোবাইল তো আছেই, স্কোর দেখা মানেই খেলা দেখা।
    টেনিস, ফরমুলা ওয়ান, র‍্যালি রেসিং দেখেন। মজা আছে।

    1. সব খেলা দেখতে চাইলে তো
      সব খেলা দেখতে চাইলে তো সারাদিন টিভির সামনে বসে থাকতে হবে। :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  7. তো ভারতের কেমন লাগলো ফকনারের
    তো ভারতের কেমন লাগলো ফকনারের কাছে হারার পর? প্লাস্টিক পিচে কী ধরাটাই না খাইল :হাহাপগে:

    আপনি যেমন-ক্রিকেট কি শুধুই ব্যাটসম্যানদের খেলা? বলে প্রশ্ন ছুঁড়েছেন তেমনি আমিও প্রশ্ন ছুঁড়লাম-

    ফুটবল কি শুধুই ফরোয়ার্ডদের খেলা?
    আমার মত গোলকিপাররা কি রোহিঙ্গা?

    1. জেমস ফকনার পুলাটা যদি আর
      জেমস ফকনার পুলাটা যদি আর কোনদিন কিছু করতে নাও পারে, যদি ওর ক্যারিয়ার এইখানেই শেষ হয়া যায়, তারপরও আমি ইন্ডিয়ারে এইরাম আন্তর্জাতিকমানের স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ আছোলা বাঁশ দেয়ার জন্য ওরে স্যালুট জানায়া যামু… :salute: :salute: :salute: :চশমুদ্দিন: :ভেংচি: 😀

    2. তা হবে কেন? তবে মানুষ মনে
      তা হবে কেন? তবে মানুষ মনে রাখে ট্রাইকারদের বা চার ছয় যারা মারে তাদেরকেই। কিন্তু সেজন্য কর্তৃপক্ষও পক্ষপাতিত্ব করবে? :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *