ধর্ম! সভ্যতা-সংস্কৃতি-সম্প্রীতির কষ্ট!

আমার ধারণা,ধর্মের নামে এমন অধর্ম দেখলে ধর্মের প্রচারকরাও লজ্জা পেতেন।
এখানে ধর্ম ঘুরে কাপড়ে কাপড়ে,এখানে এক ধর্মের চাপে অন্য ধার্মিক কাদে গোপনে!
সমাজের ধরাবাঁধা নীতি শাস্ত্র কচলাতে কচলাতে মানুষ তাঁর অনুভূতি জীবনবোধ ও মানবতা-বোধকে লিঙ্গ, ধর্ম, দেশ, গোত্র, জন্ম পরিচয়ের অভ্যন্তরে গৃহবন্দী করে ফেলেছে।
লিঙ্গ, ধর্ম, দেশ, গোত্র, জন্ম পরিচয়ের অন্তরালে তখন জীবন-বোধ নব জাতক শিশুর মত ডুকরে কেঁদে উঠে।


আমার ধারণা,ধর্মের নামে এমন অধর্ম দেখলে ধর্মের প্রচারকরাও লজ্জা পেতেন।
এখানে ধর্ম ঘুরে কাপড়ে কাপড়ে,এখানে এক ধর্মের চাপে অন্য ধার্মিক কাদে গোপনে!
সমাজের ধরাবাঁধা নীতি শাস্ত্র কচলাতে কচলাতে মানুষ তাঁর অনুভূতি জীবনবোধ ও মানবতা-বোধকে লিঙ্গ, ধর্ম, দেশ, গোত্র, জন্ম পরিচয়ের অভ্যন্তরে গৃহবন্দী করে ফেলেছে।
লিঙ্গ, ধর্ম, দেশ, গোত্র, জন্ম পরিচয়ের অন্তরালে তখন জীবন-বোধ নব জাতক শিশুর মত ডুকরে কেঁদে উঠে।

তবে ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি বা ধর্মীয় আচারের জন্য শুধু এই নিরীহ বাঙ্গালির উপর খড়্গ ধরার মানে নেই, পুরো উপমহাদেশেই এই রোগ পুরানো। ধর্ম মানুষকে আরো মানবিক করে, কিন্তু ধর্মের নামেই এমন নৃশংসতা কিভাবে সম্ভব?

মাঠে ঘাটে মন্দিরে মসজিদে-কীর্তন-ওয়াজে!
শুধু জ্ঞানগর্ভ কথার ফুল ঝড়িয়ে উলু-বনে মুক্তা ছড়িয়ে ভাববাদী হওয়ার চেয়ে, বাস্তববাদী হওয়া ঢের বেশী আনন্দের,পাগলের সুখ মনে মনে,একটা বার বিবেকের কাঠ গড়ায় প্রশ্ন করে দেখো! শুধু লোক নিন্দা পরচর্চার ভয়ে জীবন সংগ্রামের ময়দান থেকে পালিয়ে যেওনা।
লোক নিন্দা পরচর্চার চেয়ে একটা জীবন বেচে থাকা অনেক মহামূল্যবান, জীবন সবাই’র কাছে প্রিয়। কেউ ভোগ বিলাস, আরাম আয়েশে, আর কেউ আত্ম ত্যাগে।
যে, যেখানে জীবনের সার্থকতা খুঁজে পায়। তাতে অসন্তোষ হবার কিছু নাই, শুধু নিজে ভোগ বিলাস, আরাম আয়েশে বেচে থেকে, অন্যের বেচে থাকার ছোট ছোট আবেগ, ছোট ছোট ইচ্ছেকে পায়ের তলায় পিষে মেরে ফেলো না। তাতে শুধু তুমি আবেগকে মারো না, সাথে একজন মানুষকেও মারো।
আজ আমার এক বন্ধু রামুর নতুন মন্দিরে গিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছে এ যেন এক স্বপ্নপুরি!আমি জানি না কতো টা কি তবে অজান্তেই এক ভালোলাগা ভর করেছে!
তবে আমি মনে প্রানে বিশ্বাস রাখি,
রামুর ঐ পোড়া বুদ্ধের মূর্তির সামনে দাঁড়িয়ে একজন বৌদ্ধভিক্ষুর যতটা কষ্ট,ভাঙ্গা প্রতিমার সামনে দাড়িয়ে একজন পূজারীর যতোটা কষ্ট,আমার কষ্ট তার চেয়ে অনেক বেশি টা শুধু আমি একজন ধর্মভীরু সে জন্য নয়! তার তো শুধু আক্রান্ত হওয়ার কষ্ট। আমার কষ্ট চোখের সামনে সভ্যতা ধ্বংস হতে দেখার কষ্ট!সংস্কিতি নষ্ট হবার কষ্ট!পথভ্রষ্ট সম্প্রীতির জন্য কষ্ট!

এখানে মানুষ বলতে, নারী, পুরুষ বুঝে, ধর্ম বলতে, মুসলমান, হিন্দু….বোঝে। দেশ বলতে, ভূখণ্ড বোঝে, গোত্র বলতে, বংশ মর্যাদা বোঝে, জন্ম পরিচয় বলতে, পিতৃ পরিচয় বোঝে, ঢেঁকি স্বর্গে গেলেও ধান ভানে। শুধু মানুষ বলতে, আপাদমস্তক মানুষ বোঝে না।
শুধু সমগোত্রীয়, সম-দেশীয়, সম মর্যাদা সম্পন্ন, সম-মতবাদ সম্পন্ন মানুষ না হওয়াটাই কী একজন মানুষের একটা অপরাধ হতে পারে?
জাগ্রত বিবেক স্থান কাল, পাত্র, দেখে না। সে সর্বদাই জাগ্রত, সবার প্রতিই তার সমান দৃষ্টি ভঙ্গি সমান। তাকে শুধু লিঙ্গ, ধর্ম, দেশ, গোত্র, জন্ম পরিচয় দিয়ে বিচার করার অবকাশ নাই।

‘আমি চাই বিজেপি নেতার সালমা খাতুন পুত্রবধূ; আমি চাই ধর্ম বলতে মানুষ বুঝবে মানুষ শুধু।’
কবে আমরা অসাম্প্রদায়িক, ধর্মনিরপেক্ষ,প্রকৃত চেতনার পন্থী একটি দেশ পাবো? কবে? কবে? কবে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *