অসহায়ত্বের কাব্য

বদ্ধ ঘরে চলে নিয়মতান্ত্রিকতা
বেরুচ্ছে নিস্তেজ আগুনের উচ্ছিষ্ঠ
ঝড়ের আবেগে-বর্নহীন ধোঁয়া
মানুষের হৃদপিণ্ডে চলে যান্ত্রিকতা
আমেজহীন শরীরে বিষাদের ছোঁয়া

বদ্ধ ঘরে চলে চেতনার অপচর্চা
আরো কতো কী প্রমোদ-নিষিদ্ধ পাপ
সংকীর্ণতায় মন,খোঁজে পাপের ফসল
সত্যের স্রোত ডিঙ্গিয়ে তীরের আশ্রয়ে



বদ্ধ ঘরে চলে নিয়মতান্ত্রিকতা
বেরুচ্ছে নিস্তেজ আগুনের উচ্ছিষ্ঠ
ঝড়ের আবেগে-বর্নহীন ধোঁয়া
মানুষের হৃদপিণ্ডে চলে যান্ত্রিকতা
আমেজহীন শরীরে বিষাদের ছোঁয়া

বদ্ধ ঘরে চলে চেতনার অপচর্চা
আরো কতো কী প্রমোদ-নিষিদ্ধ পাপ
সংকীর্ণতায় মন,খোঁজে পাপের ফসল
সত্যের স্রোত ডিঙ্গিয়ে তীরের আশ্রয়ে

পথচারী দেখে সব অবলীলায়
আকাশের দিকে নিক্ষেপ করে
সরলতায় পরিপূর্ণ ঘৃণার থুথু
নিজেকে লজ্জা দেবার জন্যেই
মুখ পেতে দ্যায় নির্দ্বিধায়

বর্নমুখর মন পড়ে দ্যোতনায়
অজান্তেই মানিয়ে নেয় নিজেকে
অস্থিতিশীল পরিবেশ দ্যাখে,
বিকারগ্রস্থ পথচারী হারায় ধৈর্য

তবু পথ বেয়ে হেঁটে যায়
সন্ধি করে প্রতিটি সম্ভাবনাময় পদে
সৃষ্টিশীল পাপের সাথে
নিবারন করতে সুপ্রাচীন কর্মের লজ্জা

১০ thoughts on “অসহায়ত্বের কাব্য

  1. শিখা আপু এইতো লিখতে পারছেন!
    শিখা আপু এইতো লিখতে পারছেন! ভালো লিখেছেন। কিন্তু আপনি যতি বিরাম চিহ্নের কোনো ব্যবহার করেন নি কেন??

    চালিয়ে যান। :থাম্বসআপ:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *