পথের মাঝে টুকরা প্রেমঃ

শ্রাবণী মেয়েটা চাল্লু হইতে পারে নাই।।বাসে চলতে গেলেই তার যত ভয় শুরু হয়ে যায়।।এদেশে এমন ভয় থাকাও স্বাভাবিক।।
সামনে পরীক্ষা।।কি এক বই তার দরকার ছিল, কাউকে না পেয়ে ক্লাস শেষে একাই গেলো নীলখেত।।জ্যামের কারণে,একঘন্টার রাস্তা দুই ঘন্টা লাগলো যেতে।।কাজ শেষ হল সন্ধ্যার ঠিক একঘন্টা আগে।।কিন্তু চিন্তা হচ্ছে,সন্ধ্যার আগে বাস পেতে হবে।।ফার্মগেট থেকে বাসে উঠবে,কিন্তু সেইদিনের বাসগুলো খুব ভরা।।দুই-তিনটা বাস মিস করে ইচ্ছে করেই।।
নাহ,আর অপেক্ষা করা সম্ভব না,যেভাবেই হোক,এবার বাসে উঠতেই হবে।।

শ্রাবণী মেয়েটা চাল্লু হইতে পারে নাই।।বাসে চলতে গেলেই তার যত ভয় শুরু হয়ে যায়।।এদেশে এমন ভয় থাকাও স্বাভাবিক।।
সামনে পরীক্ষা।।কি এক বই তার দরকার ছিল, কাউকে না পেয়ে ক্লাস শেষে একাই গেলো নীলখেত।।জ্যামের কারণে,একঘন্টার রাস্তা দুই ঘন্টা লাগলো যেতে।।কাজ শেষ হল সন্ধ্যার ঠিক একঘন্টা আগে।।কিন্তু চিন্তা হচ্ছে,সন্ধ্যার আগে বাস পেতে হবে।।ফার্মগেট থেকে বাসে উঠবে,কিন্তু সেইদিনের বাসগুলো খুব ভরা।।দুই-তিনটা বাস মিস করে ইচ্ছে করেই।।
নাহ,আর অপেক্ষা করা সম্ভব না,যেভাবেই হোক,এবার বাসে উঠতেই হবে।।
বাসের পেছনের গেট দিয়ে উঠবে আর এসময় ৫/৬টা ছেলেও উঠবে,২/৩জন উঠেও গেলো, শ্রাবণী একটু পিছিয়ে গেলো।।বাকি যে ২/৩জন শ্রাবণী কে আগে উঠতে দিল।।সে খুব তাড়াতাড়ি উঠে গেলো।।বাসে তেমন জায়গা ছিল না,ছেলেগুলোর সাথেই শ্রাবণী দাঁড়ালো এবং সেকেন্ডের মাঝে পড়ে যেতে নিলো,পড়ে যাওয়া থেকে বাঁচতে,প্রবল চেষ্টা…।।পাশেই ছিল নীল শার্ট পড়া,সেই ছেলে যে মূলত তাকে আগে বাসে উঠতে দেয়।।শ্রাবণীর হাত সজোরে গিয়ে পড়ল,ভদ্র ছেলেটির পিঠে…।।শ্রাবণী খপ করে তাকে ধরে ফেলল।।(বাসায় গিয়ে আয়নাতে দেখলে,নিঃসন্দেহে হাতের ছাপ দেখতে পেয়েছে :/ )
শ্রাবণী লজ্জায় লাল হয়ে,সরি বলতে নিচ্ছে আর ভদ্র ছেলে বলেছে-আপনি ধরেই দাঁড়ান সমস্যা নাই,বলেই চোখ অন্যদিকে সরিয়ে নিল।।শ্রাবণীরর এমন বেগতিক অবস্থা দেখে,একলোক তার সিট ছেড়ে দেয়।।শ্রাবণী সেখানে বসতে যাবে আর সে আবার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে,আরেকজনের কোলের উপর পড়ার আগেই আবারও সেই ছেলের পিঠে চড়……।।প্রথমবার সে কিচ্ছু বলেনি আবারও?? শ্রাবণীর এবার জিবে কামড়……।।ছেলেটি এবারও কিছু বলেনি।।
বাস অনেকক্ষনপর ২/একটা করে সিট খালি হয় আর ছেলে গুলো বসে যায়।।একটু দূরে থাকায় আর ইগো(হয়তো) সমস্যার কারনেই কেউ কারো সাথে কথা বলেনি।।
মন্তব্যঃছেলেদের প্রতি খুব ক্ষোভ কাজ করে সবসময়।।জীবনে দেখা সব ছেলেদের মাঝে এরা খুব ভিন্ন ছিল।।মেয়েদের একটা অসম্ভব ক্ষমতা আছে।।ছেলেদের নজরের মেজারমেন্ট নিখুঁতভাবে করতে পারে।।অন্যছেলেগুলো বাদ কিন্তু পাতা-ফুলের নীল শার্টের(খুব সম্ভব) ছেলেটার কথা কোনভাবেই ভুলা সম্ভব না।।শুরু থেকে লক্ষ্য করেছে,ছেলেটার ভেতর খারাপ কোন ইন্টেনশন-ই ছিল না।।
যখন ছেলেটির গায়ে হাত পড়ল,ছেলেটার কোন চেঞ্জ লক্ষ্য করা যায়নি…।।একটা সুন্দরী মেয়ের হাত তার গায়ের উপর এই অনুভূতি তার ভেতর ছিল না,এটা স্পষ্টই লক্ষ্যনীয় ছিল।।
আবার অনেক সময় একটু কি উপকারের নাতিপুতি করল না কি,আসে তার প্রতিদান নিতে।।এই ছেলের মাঝে এমন কিছুই ছিল না।।সে শ্রাবণীর কৃতজ্ঞটার ধারও ধারেনি।।
শ্রাবণী যেখানে বসেছিল,তার আগের সিটে কুনাকুনিভাবে সে বসেছিল কিন্তু একটাবার তাকায়নি।।শ্রাবণী চেষ্টা করেও কি বলে কথা শুরু করে বুঝে উঠতে পারেনি……।।
…………………………… এমন ভালো মানুষ সত্যিই দরকার,এই টাইপ ছেলেগুলো ভুলতে দেয় না,ভালো ছেলে আজও আছে।।অপরিচিত মেয়েদের সম্মান দেয়ার মত ছেলে আজও বর্তমান।।আশা করি ভালো আছেন,ভাল থাকবেন,নাম না জানা অপরিচিত একজন………।।
(ঘটনাটি ৫বছর আগের,সব কিছুই একটু আবছা আবছা…।।স্মৃতি থেকে সব মুছে যেতে পারে কিন্তু ছেলেটার প্রতি ভালো লাগা আর সম্মান কখনো কমবে না)

৭ thoughts on “পথের মাঝে টুকরা প্রেমঃ

  1. ভাল এবং খারাপ সব ক্ষেত্রে
    ভাল এবং খারাপ সব ক্ষেত্রে বিদ্যমান॥ এটা একজন ব্যক্তির উপর নির্ভর করে তিনি কোনটা কে অবলম্বন করে জীবন পরিচালনা করবেন॥

  2. যাক, অন্তত একজন নারী পাইলাম
    যাক, অন্তত একজন নারী পাইলাম যিনি পুরুষজাতির এই প্রতিনিয়ত সিটউৎসর্গ :চশমুদ্দিন: মনে রাখছেন… :bow: :bow: :bow: :আমারকুনোদোষনাই:

    নন্দিনী আপু, গডফাদারের পক্ষ থেকে গোলাপ নেন… :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ: :বুখেআয়বাবুল: :আমারকুনোদোষনাই: 😀

    1. কেউ উপকার করলে ভুলবো
      কেউ উপকার করলে ভুলবো ক্যান!!এটা বলতে হয় ইয়াং ছেলেরাই বেশি সিট ছেড়ে দেয়,নীতিগত কারণেই এটা করে………।। 🙂

  3. এমন ভালো মানুষ সত্যিই

    এমন ভালো মানুষ সত্যিই দরকার,এই টাইপ ছেলেগুলো ভুলতে দেয় না,ভালো ছেলে আজও আছে।।অপরিচিত মেয়েদের সম্মান দেয়ার মত ছেলে আজও বর্তমান।।আশা করি ভালো আছেন,ভাল থাকবেন,নাম না জানা অপরিচিত একজন………।।

    ভালো লাগলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *