SUCKআহ চৌধুরীর মুখনিঃসৃত অমৃত বচন সমূহ।

SUCKআহ চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ড দেয়াকে আমি কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছি না। SUCKআহ চৌধুরীর বেশ কিছু অমৃত বচন আছে যা থেকে জাতি বঞ্চিত হবে যখন তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হবে। SUCKআহ চৌধুরীর অসামান্য কিছু অমৃত বচন যা তিনি বিভিন্ন সময় মিডিয়া, সংসদ এবং ট্রাইব্যুনালে দিয়েছেন এর কিছু কিছু আমি তুলে ধরলামঃ

অমৃত বচন ১ – ”আমরা নেতা হইছি বইলা এমন না যে নিজের পায়জামার ফিতা খুইল্লা জনগনের মশারী বাইন্ধা দিমু।”


SUCKআহ চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ড দেয়াকে আমি কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছি না। SUCKআহ চৌধুরীর বেশ কিছু অমৃত বচন আছে যা থেকে জাতি বঞ্চিত হবে যখন তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হবে। SUCKআহ চৌধুরীর অসামান্য কিছু অমৃত বচন যা তিনি বিভিন্ন সময় মিডিয়া, সংসদ এবং ট্রাইব্যুনালে দিয়েছেন এর কিছু কিছু আমি তুলে ধরলামঃ

অমৃত বচন ১ – ”আমরা নেতা হইছি বইলা এমন না যে নিজের পায়জামার ফিতা খুইল্লা জনগনের মশারী বাইন্ধা দিমু।”

অমৃত বচন ২ – ”পঞ্চম সংশোধনীর কথা আর কি বলব? সোনা মিয়ারে বানাইসে লাল মিয়া আর লাল মিয়ারে বানাইসে সোনা মিয়া। মিয়া কিন্তু ঠিকই আছে। সোনা ডা খালি লাল হইয়া গেছে।”

অমৃত বচন ৩ – ”মাননীয় স্পিকার , মহামান্য রাষ্ট্রপতির ভাষণ শুনে আমি চোদনা হয়ে গেলাম।” অতঃপর স্পিকার যখন সালাউদ্দিন কাদেরকে সংযত ও মার্জিত হয়ে কথা বলতে বললেন, তখন তিনি তার মার্জিত ভাষায় বলে উঠলেন; ”মাননীয় স্পিকার, আপনার কথা শুনে আমি আবারও চোদনা হয়ে গেলাম।”

অমৃত বচন ৪ – প্রধনামন্ত্রী শেখ হাসিনা SUCKআহ চৌধুরী সম্পর্কে মন্তব্য করেছিলেন সাকা চৌধুরী একজন চিহ্নিত সোনা চোরাচালানকারী। সাকা চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীর এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে বলিলেন; “দেশে এত সোনা থাকতে আমার সোনা নিয়ে শেখ হাসিনার কেন এত টানাটানি, বুঝলাম না।”

অমৃত বচন ৫ – ”ঐ পারের ঐ রবীন্দ্রনাথের লেখা গান জাতীয় সংগীত কেন? আমাদের দেশে কি জাতীয় সংগীত লিখার কেউ ছিল না?”

অমৃত বচন ৬ – অ্যাটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ্য করে SUCKআহ চৌধুরী বলেন, “খানকীর পোলা দুই বছর জেলে রাখছিস, বের হইয়া নেই, তোর পুটকির মধ্যে আঙ্গুল ঢুকাবো।”

অমৃত বচন ৭ – ”আমি গর্ব করেই বলতে চাই আমি মরহুম ফখরুল কাদের চৌধুরীর ছেলে, এবং ফখরুল কাদের চৌধুরী বাংলাদেশের পক্ষে ছিলেন না।”

অমৃত বচন ৮ – “মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানের পক্ষ নেওয়া যদি রাজাকারী হয়, তবে আমি স্বীকার করছি; আমি রাজাকার, রাজাকারের বাচ্চা রাজাকার।”

অমৃত বচন ৯ – ”আন্দালিব পার্থ পোলাডা অনেক সুইট আছে।”

অমৃত বচন ১০ – একবার SUCKআহ তার দলের চেয়ারপার্সনকে উদ্দেশ্য করে বললেন; ”আগে জানতাম কুকুরে লেজ নাড়ায়, আর এখন দেখি লেজে কুকুর নাড়ায়!”

অমৃত বচন ১১ – “আমি মুসলিম পরিবারে জন্ম নিয়েছি। আমার মাতৃভাষা বাংলা নয়, চাটগাঁইয়া।”

অমৃত বচন ১২ – গ্রেফতার আতঙ্কের মধ্যেও এতটা নির্ভার এবং হাসিখুশি কিভাবে আছেন এক সাংবাদিকের এই প্রশ্নের জবাবে সাকা চৌধুরী, “ধর্ষন যখন নিশ্চিত, তখন তা উপভোগ করাই শ্রেয়।”

অমৃত বচন ১৩ – চট্টগ্রাম এ এক সমাবেশে তৎকালীন আওয়ামী সরকারের সবকিছুতেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন খুজে পাওয়াকে কটাক্ষ করে সাকা বলেন “বঙ্গবন্ধু এত বেশি স্বপ্ন দেখতেন যে মনে হয় উনার স্বপ্নদোষ (!!!) আছিল”

অমৃত বচন ১৪ – আমার নাম সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরি থেকে যদি সাকা চৌধুরি হতে পারে তাহলে আমিও বলতে পারি Bangladesh Awami league থেকে বাল BAL.

অমৃত বচন ১৫ – “সুশীল আবার কি? সু মানে সুন্দর আর শীল মানে নাপিত, তাহলে সুশীল মানে সুন্দর নাপিত।”

অমৃত বচন ১৬ – হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে বলা –
“আংগুল দেখাবেন না,ওই আংগুল এ রিং পরানোর কথা ছিল।”

অমৃত বচন ১৭ – নারী নির্যাতন বিষয়ে কামরুলের একটি বক্তব্যের জবাবে সাকা বলেন,” তিনি কেরানীগজ্ঞের একজন প্রমোধ বালক, এটা কি আমি কখনও বলেছি?”

অমৃত বচন ১৮ – আওয়ামী লীগের একটি মহল প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তাকে উস্কে দিচ্ছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, ” ওই মহলটি জানে না যে তারা যে বিলের মাছ আমি সালাউদ্দিন ওই বিলের বক।”

এই ধরনের হাজার হাজার বানী প্রদান করেছেন SUCKআহ চৌধুরী। এই রকম একজন অমর বানীশিল্পীর মৃত্যু হতে পারে না। নাহ নাহ নাহ।

২১ thoughts on “SUCKআহ চৌধুরীর মুখনিঃসৃত অমৃত বচন সমূহ।

  1. একটা নাটক নাজিল করতে মুঞ্চায়।
    একটা নাটক নাজিল করতে মুঞ্চায়। কইরাই দিলাম।

    (মঞ্চে আলো আঁধারি খেলা করতেছে। জল্লাদ এগিয়ে এল।)

    সাকাকে জিজ্ঞেস করল কমিশনার:
    কমিশনার: হে চাকা, তুমার শেষ ইচ্ছা কি? সাকা চোখ মেলে তাকালো কমিশনারের সেন্টার বরাবর। কমিশনারের নাক বেয়ে ঘাম পড়তেছে।
    ~~~~~~
    এমন সময় মঞ্চে সাইদীর প্রবেশ। সাকার সামনে সাইদী দাঁড়ালো। সাকার চোখ তখন
    সাইদীর পায়জামার দিকে।
    সাইদী: আর বুঝি শেষ রক্ষা হইলো না রে?
    সাকা: আমি লাউড স্পিকার হইয়া গেলাম গো।
    সাইদী: এখন কি হবে?
    সাকা: ময়নাপাখি, উড়ে আয়!
    সাঈদী: কপিরাইট ভাঙবিনা কইলাম! এইটা আমার ডায়ালগ।
    সাকা: ঐযে একটা টেবিল দেখতেছেন। সেখানে শুয়ে পড়েন।
    সাইদী: তারপর?
    সাকা: না! আপনে বুড়া হয়ে গেছেন। আন্ডালিভ কে ডাকেন।
    ~~~~~~

    আন্ডালিভ গুটিগুটি পায়ে এগিয়ে আসছে। সাকার শেষ ইচ্ছাটুকু রক্ষা করতে। কমিশনার
    হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন, কারণ সাকা তাকে বেছে নেয়নি।

    আন্ডালিভ: দাদা, আজকেই ডাকলেন?
    সাকা: কেন? প্রিপারেশন নাই?
    আন্ডা: না ইয়ে মানে….
    সাকা: কি হইছে বল। হাতে টাইম নাই।
    আন্ডা: মানে, আমি প্রেগনেন্ট!
    সাকা: কোন হারামজাদা এই কাম করলো? (রাগত স্বরে)

    (দূর হতে ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক হাসতে লাগলো।)
    সাকা: কামডা ভালা করলি না আন্ডা। শেষ পর্যন্ত রাজ্জাইককা??
    কমিশনার: চাকা, টাইম ওভার। ঝুইলা পড়।
    সাকা: আরে মিয়া, ইচ্ছা তো পূরন হইলো না।
    কমিশনারের গা আবার ঘামতে শুরু করলো। সাকা আবার কমিশনারের প্যান্টের দিকে তাকিয়ে সন্তুষ্টির শব্দ করলো। আর ফিসফিস করে বললো,”কাজ হয়ে যাইবো মনে হইতাছে।” কমিশনার অজ্ঞান হয়ে পড়ে গেলেন।

    ~~~~~~
    (মঞ্চের আলো নিভে যাবে। একটি লাল সবুজের পতাকা ধীরে ধীরে উড়বে। অবিনাশী গর্জনের স্বর শোনা যাবে,”রক্ত যখন দিয়েছি, রক্ত আরো দেবো, তবু বাংলার মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাআল্লাহ।”)

    [পর্দা নামবে]

    1. জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন ,
      জাতির বিবেকের কাছে প্রশ্ন , সাকা – সাঈদী আর আন্দালিবের মধ্যে কি সম্পর্ক ??? :ভাবতেছি:

  2. মহা মানুষটির আরেকটি বক্তব্য
    মহা মানুষটির আরেকটি বক্তব্য আছে যা ব্যারিষ্টার রফিকুল ইসলামকে করা , উনার বয়স হয়েছে । বুড়ো মানুষতো কত কথাই বলে । ……………

  3. সংগ্রহ করার জন্য অনেক ধন্যবাদ
    সংগ্রহ করার জন্য অনেক ধন্যবাদ । ভাল লাগল অনেক । এই রকম একটা বজ্জাত শুয়োরেরে ফাসি হবে তা খুব ভাল খবর ছিলো 🙂

  4. ”আমরা নেতা হইছি বইলা এমন না

    ”আমরা নেতা হইছি বইলা এমন না যে নিজের পায়জামার ফিতা খুইল্লা জনগনের মশারী বাইন্ধা দিমু।”

    ‘আণ্ডালিভ পার্থ পোলাডা অনেক সুইট আছে।”

    ”আগে জানতাম কুকুরে লেজ নাড়ায়, আর এখন দেখি লেজে কুকুর নাড়ায়!”

    :হাহাপগে: :হাহাপগে: :চোখমারা: :ভেংচি: :ভেংচি: 😀

  5. এমুন বিনোদন আর পামু না। আপচুচ
    :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে:
    এমুন বিনোদন আর পামু না। আপচুচ :ভাঙামন:

  6. হেব্বী পোস্ট তবে ভাই ফেসবুকে
    হেব্বী পোস্ট তবে ভাই ফেসবুকে অনেক পেজে পড়েছি এগুলো একই রকম লেখা। তাহলে কি কপি পেস্ট ধরে নেব??

  7. অমৃত বচন ৩ – ”মাননীয়

    অমৃত বচন ৩ – ”মাননীয় স্পিকার , মহামান্য রাষ্ট্রপতির ভাষণ শুনে আমি চোদনা হয়ে গেলাম।” অতঃপর স্পিকার যখন সালাউদ্দিন কাদেরকে সংযত ও মার্জিত হয়ে কথা বলতে বললেন, তখন তিনি তার মার্জিত ভাষায় বলে উঠলেন; ”মাননীয় স্পিকার, আপনার কথা শুনে আমি আবারও চোদনা হয়ে গেলাম।” – See more at: http://www.istishon.com/node/4997#sthash.YgAd1I4Y.dpuf

    নির্মল আনন্দ !!! :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাহাপগে: :হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *