মোনালিসা

লিওনার্দো ডা ভিঞ্চির শ্রেষ্ঠ চিত্রকর্মগুলোর একটি দ্য মোনালিসা । পপলারের উপরে ওয়েল পেইন্টিং এর এই ছবিটি La Gioconda

লিওনার্দো ডা ভিঞ্চির শ্রেষ্ঠ চিত্রকর্মগুলোর একটি দ্য মোনালিসা । পপলারের উপরে ওয়েল পেইন্টিং এর এই ছবিটি La Gioconda
নামেও পরিচিত । ধারণা করা হয় এটি লিসা জিওকোন্দা নামক এক নারীর পোট্রেট । লুভ্যর মিউজিয়ামে সংরক্ষিত মোনালিসা সৃষ্টির পেছনের গল্পটাও মোনালিসার মতোই রহস্যময় ।।

মোনালিসার হাসি অথবা তার প্রেক্ষাপট নিয়ে রচিত হয়েছে হাজারো মহাকাব্য । সিক্রেট কোডিং এর ঈশ্বর লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চি মোনালিসার প্রতিটি ভাজে , প্রতিটি তুলির আঁচড়ে জীবনের সৌন্দর্য্য ঢেলে দিয়েছেন । প্রাচীন মিশরের পৌরষত্বের দেবতা Amon এবং নারীত্বের দেবী আইসিস তথা Lisa এর নাম মিলিয়ে সৃষ্টি হয়েছিলো Monalisa নামক শাশ্বত সৌন্দর্য্যের ।

লিওনার্দোর মৃত্যুর পরে মোনালিসা দীর্ঘদিন সংরক্ষিত থাকে Palace of Fontainebleau এ । সেখান থেকে এটি চতুর্দশ লুই নিয়ে যান তার Palace of Versailles এ । ফ্রান্সের সমস্ত শিল্পকর্ম যখন ধ্বংসের সম্মুক্ষীন , সেই ফরাসী বিদ্রোহের সময় এটি প্রথমবারের মতো নিয়ে আসা হয় Louvre জাদুঘরে । এর আগে অবশ্য এটি ন্যাপোলিওনের বেডরুমেও দীর্ঘদিন শোভা পায় । দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় কালে Monalisa সংরক্ষিত থাকে ইনগ্রেজ জাদুঘরে

বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত চিত্রকর্ম দ্য মোনালিসা ১৯১১ সালের ২১ আগস্টে মোনালিসা চুরি হয়ে যায় লুভ্যর থেকে । চুরির অভিযোগে তদন্তের আওতায় আনা হয় আরেক মহান শিল্পী পাবলো পিকাসোকে । পরে অবশ্য তিনি অভিযোগ থেকে মুক্তি পান । পৃথিবীর সবচেয়ে রহস্যময় আর আলোচিত ছবিটি নিখোজ থাকে প্রায় দুই বছর ।

সৌন্দর্য্যের উপর হিংস্র আক্রমনের রীতি থেকে রেহাই পায়নি মোনালিসাও । ১৯৫৬ এক উন্মাদ মোনালিসার উপর এসিড ছুড়ে । এতে ছবিটির নীচের অংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয় । সে বছরেরই ৩০ ডিসেম্বর উগো নামের এক বলিভিয়ান মোনালিসার উপরে পাথর নিক্ষেপ করে । এতে ছবিটির বাম কনুই এর রং চটে যায় ।
এরপরেই মোনালিসার সুরক্ষা জোড়দার করা হয় । লাগানো হয় বুলেটপ্রুভ গ্লাস । এর ফলে মোনালিসা রক্ষা পায় আরো দুটি ভয়াবহ আক্রমন থেকে । টোকিও জাদুঘরে প্রদর্শনকালে এক খোঁড়া মহিলার ছোড়া লাল স্প্রে থেকে এবং ২০০৯ সালে এক রাশিয়ান মহিলার ছুড়ে দেওয়া টেরাকোটা মগের আঘাত থেকে বেঁচে যায় দ্য মোনালিসা

মোনালিসার ব্যবচ্ছেদ
মোনালিসার বাম কাঁধের পেছনেই রয়েছে একটি পিরামিড । তার চেহারায় , গলায় এবং স্তনযুগলের মুক্ত অংশে একই আলোকিত অবস্থার প্রতিফলন দেখা যায় । মানব শরীরের বিভিন্ন অংশের গাণিতিক ও জ্যামিতিক অনুপাত সম্পর্কে লিওনার্দো অবগত ছিলেন । যার প্রতিফলন স্পষ্টতই ফুটে উঠেছে মোনালিসার চোখে , নাকে , ঠোঁটে । মোনালিসার রহস্যময় ভঙ্গিতে রাখা হাতগুলো অথবা তার বুকের সাথে লেপ্টে থাকা জামার কারুকাজগুলো নিষ্প্রাণ মোনালিসার মাঝে যেনো হৃদস্পন্দন জাগিয়ে তোলে ।
দর্শক এবং মোনালিসার দূরত্ব এমন যেনো জ্বলজ্যান্ত লিসা দেল জোকোন্দা স্মিতহাস্যে তাকিয়ে আছেন ।

লুমিয়ার টেকনোলজির সাম্প্রতিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে লিওনার্দো মোনালিসার ভ্রু এঁকেছিলেন । কালের বিবর্তনে সেটা স্রেফ হাওয়া হয়ে গিয়েছে ।
এ গবেষণায় এটাও প্রমাণিত যে মোনালিসার রহস্যময় ভঙ্গিতে রাখা হাতগুলো মূলত একটা চাদর ধরে রেখেছে । এর আগে বিষয়টা চোখে পরেনি কারো ।
সেই সাথে এটাও প্রকাশ্যে এসেছে যে লিওনার্দোও দোটানায় পরেছিলেন । মোনালিসার বামহাতের আঙ্গুলগুলো দেখলেই বোঝা যায় । সেগুলো প্রথমে একভাবে আঁকা হয় , পরে তা পরিবর্তন করেন লিওনার্দো ।

ফ্লোরেন্টাইন ভঙ্গিতে বসে থাকা এক রমনীর পোট্রেট আজ রেঁনেসার প্রতীক হিসেবে বিবেচিত । মোনালিসা আজ একটি সাধারণ পোট্রেট নয় , মোনালিসা আজ কেবল লিওনার্দো ডা ভিঞ্চির আরেকটি মাস্টারপিস নয় , মোনালিসা আজ অসুন্দরের বিপক্ষে সৌন্দর্য্যের প্রতিরূপ ।
মোনালিসা আজ হিংস্রতার বিপক্ষে টিকে থাকা এক শাশ্বত সৌন্দর্য্যের নাম । মোনালিসা আজ স্নিগ্ধতার প্রতীক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত ।
ন্যাট কিং মোনালিসাকে নিয়ে সম্ভবত শ্রেষ্ঠতম লাইনগুলো বলেছিলেন ,
Are you warm , are you real, Monalisa?

Or just a cold and lonely lovely work of art?

১০ thoughts on “মোনালিসা

  1. তথ্যগুলো জেনে খুব ভালো লাগল।
    তথ্যগুলো জেনে খুব ভালো লাগল। মোনালিসার একটা পিকচার এড করে দিলে আরও সুন্দর হতো। আমি একটা দিয়ে দিলাম-

    1. এটাকে আরো বড় করার ইচ্ছা আছে ।
      এটাকে আরো বড় করার ইচ্ছা আছে । আসলে ফোন থেকে ছবি এড করা যায় না । পিসিতে বসলে করে দিবো অবশ্যই

  2. মোনালিসা নিয়ে লিখা পড়েছি তবে
    মোনালিসা নিয়ে লিখা পড়েছি তবে আপনার রিভিউটা যেন আরেকবার মোনালিসার সাথে পরিচয় করিয়ে দিল ।ধন্যবাদ

  3. ভাল লাগল, আপডেটের অপেক্ষায়
    ভাল লাগল, আপডেটের অপেক্ষায় রইলাম। মোনালিসার সৌন্দর্য যতবারই দেখি বা এর সম্পর্কে রিভিও পড়ি ততবারই মুগ্ধ হয়। আক্রমণ এর ঘটনাগুলু জানা ছিল না, ধন্যবাদ

  4. চমৎকার একটা লেখা আর সেই
    চমৎকার একটা লেখা আর সেই :মাথানষ্ট: :ভালুবাশি: মোনালিসা…

    অর্ফিয়াস ভ্রাতা, ইউ মেড মাই ডে… :তালিয়া: :থাম্বসআপ: :বুখেআয়বাবুল: :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *