আপনে মিয়া আওয়ামীলীগের খাস দালাল -আগেই কইছিলাম, মুখ না খুলাইতে… (অমি রহমান পিয়াল)

-ভাই রামপাল নিয়া আপনার মুখ বন্ধ কেন?
-মুখ খুললে সমস্যা আছে
-কি সমস্যা
-গালি খামু, আমি এখন গরম ভাতে বিলাই বেজার ভাইরাস আক্রান্ত আছি
-আমারে বলেন তাইলে, এই যে সুন্দরবন ধ্বংস কইরা এই তাপ বিদ্যুত কেন্দ্র তৈরি করার -দরকার আছে সরকারের?
-নিশ্চয়ই দরকার আছে, জনগনের উপকারের জন্য সরকার যে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারে, আর বিদ্যুত ঘাটতির জন্য আমাদের সব উৎপাদনখাতই আক্রান্ত।
-কিন্তু কেনো সুন্দরবন? আমরা তো অল্পের জন্য সপ্তমাশ্চর্যে নাম লেখাইতে পারি নাই

-ভাই রামপাল নিয়া আপনার মুখ বন্ধ কেন?
-মুখ খুললে সমস্যা আছে
-কি সমস্যা
-গালি খামু, আমি এখন গরম ভাতে বিলাই বেজার ভাইরাস আক্রান্ত আছি
-আমারে বলেন তাইলে, এই যে সুন্দরবন ধ্বংস কইরা এই তাপ বিদ্যুত কেন্দ্র তৈরি করার -দরকার আছে সরকারের?
-নিশ্চয়ই দরকার আছে, জনগনের উপকারের জন্য সরকার যে কোনো পদক্ষেপ নিতে পারে, আর বিদ্যুত ঘাটতির জন্য আমাদের সব উৎপাদনখাতই আক্রান্ত।
-কিন্তু কেনো সুন্দরবন? আমরা তো অল্পের জন্য সপ্তমাশ্চর্যে নাম লেখাইতে পারি নাই
-মূর্খ বালক, ওইটা একটা প্রতারণামূলক ইভেন্ট ছিলো। আর অন্য কোথাও জমির জন্য সরকার হাত বাড়াইলেই বিদ্রোহ শুরু হইয়া যায়। তাছাড়া ওইখানে ন্যাচারাল কয়লাখানি, সুন্দরবনের গাছপালা থিকা সৃষ্টি, গাছের কবর খুইড়া কয়লা তোলা, মানুষের উপকারের জন্য, প্রকৃতির সব কিছু সাজায়া রাখার জন্য দেয় নাই আল্লাহ।

আর সুন্দরবন সম্পর্কে তোমার কোনো ধারণা নাই মনে হয় এইটার আকার ও প্রকার নিয়া, মুখের কথাতেই সুন্দরবন ধ্বংস হয় না। চীনরে কনট্রাক্টটা দিলেই দেখবা বিদ্যুতকেন্দ্রটা যে আসলে পরিবেশ ও প্রতিবেশবান্ধব এই যুক্তি দিয়া একটা নিবন্ধ লেইখা দিবো তোমার স্যার।
-আবার আপনার চিংকুবাজি শুরু হইলো!
-শোন মিয়া, এই স্পেসিফিক গ্রুপটার আন্দোলন হইলো এনজিও স্পন্সরড, টাকার খেলা আর কিছু না, দেশপ্রেম সুন্দরবনপ্রেম কিচ্ছু না, আমাগো দেশে কিছু আবাল সারাক্ষণই হাউকাউ করতে চায়, কি নিয়া কেনো অত কিছু তাগো লাগে না, এইডা তাগো কাছে একটিভিজম।
-আমরা প্রয়োজনে আরেকটা ফুলবাড়ির জন্ম দিবো রামপালে, রক্ত দিবো
-তাতে কি? সরকার ডিসক্রেডিটেড হইবো এই তো? সহিংসতার বদলে বরং তোমারে অহিংস একটা উপায় বলি।
-কিরকম?
-থিয়াল করছো কিনা জানি না, গত কয়দিন লোড শেডিং অসহ্য রকম বাইড়া গেছে, আমার ধারণা এইটা সরকারের একটা মনস্তাত্বিক চাপ, অতিষ্ট হইয়া লোমুকে বিদ্যুতকেন্দ্র বাড়ানোর জন্য উল্টা আন্দোলন করবে। তো এর কাউন্টারে তোমরা একটা পাল্টা চাল দিতে পারো। চিড়িয়াখানায় গিয়া সমাবেশ করবা, স্কুলে স্কুলে গিয়া পোলাপাইনরে কইবা চলো ফ্রি চিড়িয়াখানা দেখামু। তাতে নাবালকের সংখ্যা বাড়লেও তোমাগো অন্য আন্দোলনগুলা থিকা মানুষ বেশী হবে। চিড়িয়াখানায় গিযা বাঘ কম, হরিন কম কেনো বইলা হাউকাউ তুলবা। রামপালে তখন বাঘ আর হরিণ উৎপাদন কেন্দ্র বসাইতে বাধ্য হবে সরকার।
-মজা লন মিয়া? আপনে মিয়া আওয়ামীলীগের খাস দালাল
-আগেই কইছিলাম, মুখ না খুলাইতে…

৯ thoughts on “আপনে মিয়া আওয়ামীলীগের খাস দালাল -আগেই কইছিলাম, মুখ না খুলাইতে… (অমি রহমান পিয়াল)

  1. এটা অমি রহমান পিয়াল এর একটা
    এটা অমি রহমান পিয়াল এর একটা ফেবু পোস্ট। শাকিল সাব কেনই বা এই পোস্ট দিলেন বোঝা দায়। আবার পোস্ট দিয়ে উধাও। কোন খোঁজ নাই।

  2. নিলয় ভাই, আচ্ছা মনে করে এই
    নিলয় ভাই, আচ্ছা মনে করে এই পোস্টটা পড়ে কারও খুব ভালো লাগলো, তাহলে ধন্যবাদ কাকে বলবে? আপনাকে না পিয়াল ভাইকে? আবার কারও যদি ফাউল পোস্ট মনে হয়, তাহলে সে কাকে দুইটা টেরা কথা বলবে, আপনাকে না পিয়াল ভাইকে? উত্তরটা পাইলে ভালো লাগছে না খারাপ লাগছে সে বিষয়ে মন্তব্য করতাম।

  3. পোস্টদাতার খাইয়া কোন কাম নাই
    পোস্টদাতার খাইয়া কোন কাম নাই তাই এসব ফালতু বিষয় কপি করে ফেসবুক থেকে ব্লগে আনার দায়িত্ব নিছেন ।
    আরে ভাই, কপি যখন করবেন তখন পিয়াল ভাইর ভাল একটি পোস্ট কপি করলেন না কেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *