বিনা কারনে বৃক্ষ হত্যার বিচার চাই।

যে বৃক্ষের অনুগ্রহে তুমি বেঁচে থাকো সেই বৃক্ষের সাথেই গড়ে তোলো তুমি বৈরিতা। প্রলয় যখন আঘাত হানে তোমার পৃথিবীতে এই বৃক্ষইতো তখন কান্ডারী হয়ে রক্ষা করে তোমাদের অতি মুল্যবান মানবীয় প্রান।তোমার সৃস্টির পর থেকে নিজে কার্বনডাইঅক্সাইড গ্রহন করে তোমার বেঁচে থাকার উপাদান অক্সিজেন তোমাকে দিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। তা দিয়েই তুমি বেঁচে থাকো,দম্ভ কর শ্রেষ্ঠত্বের।



যে বৃক্ষের অনুগ্রহে তুমি বেঁচে থাকো সেই বৃক্ষের সাথেই গড়ে তোলো তুমি বৈরিতা। প্রলয় যখন আঘাত হানে তোমার পৃথিবীতে এই বৃক্ষইতো তখন কান্ডারী হয়ে রক্ষা করে তোমাদের অতি মুল্যবান মানবীয় প্রান।তোমার সৃস্টির পর থেকে নিজে কার্বনডাইঅক্সাইড গ্রহন করে তোমার বেঁচে থাকার উপাদান অক্সিজেন তোমাকে দিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। তা দিয়েই তুমি বেঁচে থাকো,দম্ভ কর শ্রেষ্ঠত্বের।

মেহেরপুর: জামায়াতের ডাকা ৪৮ ঘন্টার হরতাল সফল করতে বুধবার ভোর পাঁচটা থেকে মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর-মুজিবনগর, মেহেরপুর-কাথুলি বৃক্ষ কেটে সড়কে ফেলে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে জামায়াত-শিবির কর্মীরা।

শুধুইকি প্রান? তোমার ঘরের সুসজ্জিত আসবাব গুলোর দিকে তাকিয়ে দেখ,বৃক্ষ তোমার জীবন ধারনের উপকরন গুলোও নিশ্চিৎ করেছে।অথচ বিনিময়ে বৃক্ষ কি পেয়েছে? সামান্য সামান্য কারনেও অত্যাচারের খরগ হস্ত নেমে আসে বৃক্ষের উপর।ছিঁড়ে নাও ছাল,বাকল,লতা,পাতা আর ডাল।ভেবে দেখেছোকি একবার,দুঃখ – কস্টের, আনন্দ-বেদনার,ভালো লাগা মন্দ লাগার অনূভুতি যেমন তোমার আছে,একটি বৃক্ষও কিন্তু ব্যাতিক্রম নয়।পার্থক্য শুধু তুমি তোমার অনূভুতিগুলো বলতে পারো,অন্যকে জানাতে পারো,বৃক্ষ তা পারেনা।কোনো দুবৃত্ত তোমাকে ধারালো কিছু দিয়ে আঘাত করলে তুমি যেমন যন্ত্রনায় চিৎকার করতে পারো,বৃক্ষ তা পারেনা। তুমি তোমার ভালোবাসার কথা বলে বেড়াও নানাভাবে, বৃক্ষেরও মন আছে,আছে ভালোবাসা,সেও তার ভালোবাসার কথা বলে অন্য আরেক বৃক্ষকে অথবা তোমাকেও,তুমি তা জানতে পারোনা হয়তো কোনো দিন জানার চেস্টাও করনি।অথচ সেই বৃক্ষকেই তুমি অপ্রয়োজনে হত্যা করে চলো বিভিন্ন সময়ে।মানুষ হত্যার বিচার মানুষ চাইতে পারে,বৃক্ষ হত্যার বিচার কে চাইবে?সমগ্র মানব বিবেকের কাছে আমার এই প্রশ্নটি রইলো,আমরা কি বিনা কারনে প্রতিটা বৃক্ষ হত্যার বিচার চাইতে পারিনা?আমাদের বিবেক আর কতকাল বাক্স বন্দী হয়ে থাকবে???

২ thoughts on “বিনা কারনে বৃক্ষ হত্যার বিচার চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *