বিন্দু মাত্র বেসিক না থাকা সত্বেও আপনি হোন পপুলার লেখক(!!?)

হ্যা, শিরোনাম দেখে হয়তো আপনি ভাবছেন কলকাতা হারবাল বা চায়না হারবালের মত আমরাও চাপাবাজির প্রতিযোগিতায় আগানোর চেষ্টা করছি। কিন্তু তা সম্পুর্ণ রুপে আপনাদের ভুল ধারনা। আমরাই কোনো টাকা পয়সা ছাড়া আপনাদের লেখক বানিয়ে দিব। শুধু লেখক বললে ভুল হবে, আমাদের ফর্মুলাটা প্রয়োগ করলে আল্লাহর রহমতে আপনি হয়ে যাবেন প্রপুলার লেখক। ‘ কিছু পেতে গেলে কিছু দিতে হয় ‘। না, ভয় পাবেন না। আমরা কিছু নিয়ে নয় আপনাদের দিয়েই প্রপুলার লেখক হিসেবে আপনাদের দুনিয়ার দোয়ারে দার করাতে চাই। আপনারা শুধু আমাদের রোলস গুলা কষ্ট করে হলেও মানবেন। এটাই আপনাদের নিকট প্রত্যাশা। এবার চলে যাচ্ছি ফর্মুলায়, প্রপুলার লেখক হওয়ার ফর্মুলায়!!

১ম ধাপঃ- প্রাথমিক ভাবে আপনাকে একটা ইন্টারনেট সংযুক্ত ফোন বা পিসি সংগ্রহ করতে হবে (কাছে থাকলে ভাল, আপনার কাজ আরো আগে আগাবে)। অতঃপর আপনাকে সেই ফোনটি দিয়ে জোকার মামার তৈরি ফেইসবুকে একটি একাউন্ট খুলতে হবে। যদি না পারেন তাহলে স্থানীয় কোনো বন্ধুকে বলুন, দেখবেন নিমিষেই খুলে দিবে। একাউন্টটা বাংলা নামের হলে ভাল হয়। এডিট অপশনে গিয়ে এভাউট লেখুন। পারলে নিজে কিছু গরম কথা লেখুন আপনার সমন্ধে যাতে মানুষ আপনার এবাউট দেখলে আপনার জন্য আগ্রহ বারে। রিলিজন ভিউতে দিন মানব ধর্ম, হিউমিনিটি, এক আল্লাহর ধর্ম ইসলাম ইত্যাদি ইত্যাদি। পলিটিক্স ভিউতে দিন, কড়া আওয়ামিলীগ, কড়া বিএনপি কিংবা মানুষ আকৃষ্ট হয় এমন কিছু। আর বাকি সব ইচ্ছা মত বসান।

২য় ধাপঃ- এবার আপনি দেখুন আপনি কোন দিক থেকে পপুলার হতে চান। পপুলার হওয়ার জন্য আপনি নাস্তিক, সুবিধা পার্টি কিংবা খাটি গালাগালি বাজ ঈমানদার(!!?) হতে হবে। যে কোনো একটি বেছে নিন। বেশি ভাল হয় যদি আপনার রিলিজন আর পলিটিক্স ভিউর সাথে মিলিয়ে এই কাজ গুলা করেন। এতে সবার সন্দেহ থেকে দূরে থাকতে পারবেন। এবার শুরু করেন আপনার কাজ।

৩য় ধাপঃ- আইডি খুলে বসে থাকলে হবে না। এবার আপনাকে বন্ধু যুগাতে হবে। এর জন্য আপনি যে ধাচে লেখা লেখি করতে চান সে ধাচের মানুষ খুজুন। আর রিকুয়েষ্ট পাঠান। আর বর্তমানের হাজারো গ্রুপ আছে, হাজারো পেইজ আছে যেখানে লেখা যায়, নাস্তিকরা আমাকে এড করুন, ধর্মান্ধরা (?!) দূরে থাকুন। কিংবা লেখুন মুসলিমরা রিকুয়েষ্ট পাঠান, নাস্তিক মুরতাদরা দূরে থাউন। আর সব চাইতে ভাল আরেকটা সিষ্টেম হচ্ছে আপনি কট্যর টাইপের কিছু লেখা লেখুন যে কোনো পক্ষের জন্য। আপনার ওয়ালে পোষ্ট করেন, এবং ভিবিন্ন জনরে মেসেজ দেন যারা আপনার মতই, বা পেইজে কমেন্টে এসব লেখেন। ফেইসবুক চেলেব্রেটিদের ওয়ালে লেখেন। দেখবেন ঢেলি কম করে হলেও ৫০ থেকে ৬০ রিকুয়েষ্ট আসছে।

৪র্থ ধাপঃ- আপনাকে এখন যেটা করতে হবে, আপনার ফ্রেন্ড অনুযায়ি (অর্থাৎ ফ্রেন্ডরা কোন ধাচের) তার উপর নির্ভর করে পোষ্টাতে থাকেন। যত উগ্রপন্থি আপনার বিপক্ষের বিরোধী পোষ্ট দিতে পারেন ততই লাভ। ইচ্ছা মত গালি দিতে থাকুন কমেন্টে। সমালোচনায় মুখরিত রাখুন আপনার ফেইসবুক ওয়াল। প্রত্যেকটা ইশুতে শিশু করে আপনি আপনার লেখা ধাচে ধাচে চালিয়ে যান। দেখবেন আপনি আসতে আসতে ফেইচবুক চেলেব্রেটি (প্রপুলার) লেখক (?!) হয়ে উঠেছেন।

৫ম ধাপঃ- আপনি যখন ২০০ কি ৪০০ লাইকের অধিকারী হয়ে উঠেছেন, তখন দেখবেন অনেকেই আপনাকে ধন্যা দিবে। এবার যা করতে হবে আপনাকে যে কোনো একটা ব্লগে একাউন্ট খুলেন। ফেইসবুকে যেই পোষ্ট করেন সেই গুলাই আরো সমালোচনা মুখর করে ব্লগে প্রকাশ করুন (ভুলেও ছোট পোষ্ট দিবেন না)। আর ঐ সব লিন্ক গুলো আপনার ওয়ালে শেয়ার করুন। তখন দেখবেন আপনার অএন্ক ফ্রেন্ডরা ঐ ব্লগ দেখছে। এতে করে আপনি হয়ে যাবেন প্রথম পাতার প্রপোলার রাইটার। লাইকের সংখ্যা আরো ভারতে থাকবে আপনার। ( আপনি হয়তো ভাবছেন, এই ফর্মুলা দিয়ে তো ফেইসবুকে প্রপোলার হওয়া যায়। কিন্তু লেখক হিসেবে প্র্পোলার হবো কখন? একটু অপেক্ষা করেন ৬ষ্ট ধাপে বলছি।)

৬ষ্ঠ ধাপঃ- এবার আপনি এমন একটা কিছু আপনার ব্লগে কিংবা ফেইসবুকে লেখুন, যাতে করে সরকার আপনার উপর ক্ষেপা হয়। সরকার বিরোধী লেখলে অনলাইন তথ্য মামলা, আর নবী বিরোধী লেখলে লোক দেখানো শাস্তির জন্য কয়েক দিন শ্রী ঘরে থাকতে হবে আপনাকে (অবাক হওয়ার কিছু নাই, কষ্ট না করলে কেষ্ট পাওয়া যায় না)। আপনি জেলে যাওয়ার পরেই আপনার জন্য অনলাইনে শুরু হবে চিৎকার চেচামেচি। ব্লগ গুলোতে ঢুকলে দেখা যাবে কেউ আপনাকে গালি দিয়ে বলছে শালারে ধরাতে খুশি হইছি। কিংবা বলবে অমুক ভাইরে ধরে সরকার বাকশালের প্রমান দিয়েছে। হেন তেন। ইত্যাদি। এর মাধ্যমে আপনাকে যারা চিনেননি তারাও চিনবে। তখন আপনি হয়ে যাবেন ইসলামী যুদ্ধা বা চেতনাধারী মুক্তি যুদ্ধা (আপনার লেখার উপর ডিপেন্ড করবে তা)

৭ম ধাপঃ- স্বাভাবিক ভাবেই আপনি সাত কি আট মাস পর শ্রী ঘর থেকে ছাড়া পেয়ে যাবেন। যদি বেশি হয় তাহলে ১ বছরের বেশি আশা করি থাকতে হবে না। এসেই আপনার একাউন্ট টি অন করেন। দেখবেন হাজার হাজার মেসেজ, হাজার রিকুয়েষ্ট, আপনার ফলোয়ার বেড়ে পুরা জগত বিখ্যাত হয়ে গেছেন আপনি। প্রপুলার হওয়ার সম্ভবনা আগের চাইতে আপনাকে বেশি তারা করবে। কিছু দিনের সমালোচনা ইত্যাদি ফিত্যাদি কারণে আপনি নিজেই এখন বেশ ভাল লিখতে পারবেন। তো দেরি না করে আপনি খন্ডে খন্ডে আপনার জেল খানার জীবন নিয়ে লেখা শুরু করুন। যেমন নাম দিন ‘ অভিসপ্ত শ্রী ঘরে কয়েকদিন ‘ কিংবা ‘ জেলের ভিতর নিজের জলান্জলি ‘ ইত্যাদি। লিখতে থাকুন খন্ডে খন্ডে। হেচা মিছার পাহাড় বানান। যাতে সবাই পড়তে পড়তে মুগ্ধ হয়ে যায়। দেখবেন যেমন আপনার অনলাইন প্রপোলারিটি বাড়ছে। তেমনি আপরা পক্ষিয় কিছু প্রত্রিকা বা মেগাজিন এসে আপনার লেখা গুলো তাকে দিতে বলবে। সমালোচনার সু’পাত্র হয়ে আপনি লিখবেন মেগাজিনে পত্রিকার কলামে। (বেশি টেনশনে পড়ার কারণ নাই, কেননা লেখতে লেখতে আপনি বুঝে ফেলবেন আসলে কিভাবে আপনাকে লিখতে হবে)।

৮ম ও শেষ ধাপঃ- এখন আপনি প্রায় জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। সবাই আপনাকে চিনে। মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব হয়ে উঠবেন আপনি। এখন ছোত একটা কাজ করতে হবে আপনাকে। আপনার বন্ধুদের দিয়ে আপনি নিজে কয়েকটা কোপ খান। অর্তাৎ নিজে নিজেকে রক্তাক্ত করেন। দেখবেন আপনার আগের চাইতে এখব বেশি প্রপোলারিটি। আপনার পক্ষিয় বিভিন্ন নেতারা আপনার বাসায় হসপিটালে যেখানে আপনি থাকেন সেখানে যাবে। টিভি বা সংবাদ পত্রিকার ব্যাক্তিত্বরা আপনার বাসায় প্রতিদিন হানা দিবে। আপনাকে দেখবে সাড়া দেশ। যারা এতো দিন শুধু নাম শুনেছে তারাও আপনাকে দেখে ধন্য হবে। এবার আপনি আপনার পুর্বের এক্সপিরিয়েন্স দিয়ে সাজিয়ে গুছিয়ে পরিবেশ, ঐতিহ্য, ধর্ম, রাজনীতি ইত্যাদি নিয়ে লিখে ফেলুন আগোছালো যে কোনো বই। দেখবেন সেই বছরে সব চাইতে বিক্রিত আর সমালোচিত বইটি হবে আপনার। এভাবেই আপনি হয়ে উঠবেন বিখ্যাত লেখক। জয় জয় ধ্বনিত মুখরিত থাকবে আপনার কান। আর তো বিভিন্ন সারপ্রাইজ আছেই।

(বিঃদ্রঃ রোলসটা ফলো করে আপনি জনপ্রিয় হবেন ঠিক। কিন্তু আমাদের কিন্তু ভুলে যাবেন না। আর দয়া করে সব রকম সেইভ থাকবেন, নইলে বুঝতে তো পারছেন কত প্রকার গোলা বারুদ আপনার উপর দিয়ে যাবে)

১৬ thoughts on “বিন্দু মাত্র বেসিক না থাকা সত্বেও আপনি হোন পপুলার লেখক(!!?)

    1. দেশের চলমান অবস্থা দেখলে মনে
      দেশের চলমান অবস্থা দেখলে মনে হয় দেশ আমার রাজনীতির পরম স্নেহ ধন্য ধারায় চলছে, তাই আমাদের চিন্তা ভাবনার দিক নির্দেশনা গুলো বার বারই রাজনীতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

    1. একদম স্পষ্ট করেই বুঝাতে
      একদম স্পষ্ট করেই বুঝাতে চাইছি… কিছু সংখ্যক ব্লগার নামক বৎকার আর আবাল মার্কা ফেইসবুকিয় চেলিব্রেটি মহদয়দের সাফল্য গাথা কাহানী থেকে এই লেখার উৎপাত!!

  1. শুধুমাত্র সর্বশেষ কথাটা
    শুধুমাত্র সর্বশেষ কথাটা মানতে পারলাম না॥ ফলোয়ার বা লাইম লাইটে আসার জন্য নিজে নাটক করে কোপ খাবে, এটা মানতে পারলাম না॥ বাকী যা বলেছেন তা সঠিক॥

  2. ভাই জান আমি বিষয়টাকে
    ভাই জান আমি বিষয়টাকে পরবর্তিতে রাজনীতি হিসেবে ট্যাগ দিছি। সেহেতু বুঝে নিন কেন, কি কারণে এই ট্যাগ দেয়া…

  3. এতো জনপ্রিয়তা দিয়ে কি হবে আমি
    এতো জনপ্রিয়তা দিয়ে কি হবে আমি বুঝি না। ইব্রাহিম খলিল আমিদ ভাই, আপনার লেখা অত্যান্ত বিদ্রূপাত্মক হয়েছে। তবে যারা সস্তা জনপ্রিয়তার পেছনে ছুটছে তারা এসব বোঝে কিনা তা নিয়ে আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে।

    1. যারা সস্তা জনপ্রিয়তার পিছনে
      যারা সস্তা জনপ্রিয়তার পিছনে বস্তা বেধে ছাগলের মত দৌড়াইতেছে তাদের জন্য ধিক্কার সরুপ এই লেখা। এতে কোনো লেখকের মন ক্ষুন হলে দুঃখিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *