রুদ্র

-রুদ্র ভাই,আপনি এতো সিগারেট খান
কেন ?
-এতে পেট পরিষ্কার থাকে।মাথা ঠিকমতো কাজ করে।
-কি?
-হুমম। সকালে,দুপুর,রাত নিয়ম করে খাই।
-ক্যান্সার হয়ে মারা পড়বেন তো।
-পড়বো না। গোল্ডলিফ খেলে ক্যান্সার
হয়না,বিড়ি খেলে হয়।
-কে বলছে..এইসব ছাইপাশ সব এক।



-রুদ্র ভাই,আপনি এতো সিগারেট খান
কেন ?
-এতে পেট পরিষ্কার থাকে।মাথা ঠিকমতো কাজ করে।
-কি?
-হুমম। সকালে,দুপুর,রাত নিয়ম করে খাই।
-ক্যান্সার হয়ে মারা পড়বেন তো।
-পড়বো না। গোল্ডলিফ খেলে ক্যান্সার
হয়না,বিড়ি খেলে হয়।
-কে বলছে..এইসব ছাইপাশ সব এক।

-বিয়ে করবেন না? বয়স তো পার
হয়ে যাচ্ছে।
-হুম করবো।
-কবে?
-টাকাওয়ালা মেয়ে পেলে করবো।
তবে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেই নি।
-টাকাওয়ালা মেয়ে..?
-হুম যে মেয়ের বাপ বড় শিল্পপতি অথবা ব্যবসায়ী। যার ৪-৫টা ফ্লাট বাড়ি থাকবে,এয়ারকন্ডিশোনাল গাড়ি থাকবে এরকম মেয়ে পেলে করবো।
-হ্যা…!
-অবাক হচ্ছো কেন?
-আপনাকে দেখে মনে হয় না আপনি এরকম মেয়ে বিয়ে করতে চান।
-কেন?
-আপনার চেহারার সাথে যায় না।
-সেই হিসেবে আমার চেহারার
সাথে কিছুই যাবে না। খুবই খারাপ
চেহারা।
-নাহ আপনি ফান করছেন।
আপনি এরকম মেয়ে পছন্দ করেন না।
আপনি বিয়ে করবেন মোটামুটি শান্ত-
শিষ্ট তবে একটু মিষ্টি বোকা তবে চালাক টাইপের এমন একটা মেয়ে তাই না?
-হাহা ভালোই তো বুঝো দেখছি !
-হুম দেখছেন আমি ধরে ফেলেছি।
-আচ্ছা এখন আসি তোমার
মা দেখলে মাইন্ড করবে।
-করবে না।
-অব্যশই করবে।আমি একজন
ব্যাচেলর-ভবঘুরে আর তুমি সদ্য
টেনে উঠা সুন্দরী। আমাদের গপ্পো-
সপ্পো ভালো না। বিশাল জেনারেশন গ্যাপ আছে বুঝছো !
-আমি সুন্দর?
-জানি না তবে মাঝে মাঝে মনে হয়।
-মাঝে মাঝে কেন সবসময় হতে পারে না?
-সবসময় হওয়া কি জরুরি? রুদ্র
প্রশ্ন করে।
তুলি একটা দীর্ঘশ্বাস ফেলে,
নাহ জরুরি না।

তুলি রুদ্রের দিকে তাকিয়ে থাকে।
রুদ্রের চোঁখটা অনেক সুন্দর। ছেলেদের চোঁখ এরকম সুন্দয় হয় না,তবে উনার গুলো সুন্দর। এই
চোখের দিকে বেশিক্ষন তাকিয়ে থাকা যায় না।মায়া লেগে যায়। কারও প্রতি মায়া থাকা ভালো না,
একবার মায়া হলে তা আর কমে না। শুধু বাড়তেই থাকে,বাড়তেই থাকে।একসময় মায়া ভালবাসায় রূপ নেয়। রুদ্র ভাইয়ের কাছে ভালবাসা ক্ষনস্থায়ী।এর কোন মূল্য নেই। যার
কাছে ভালবাসার মূল্য নেই তার উপর মায়া রাখা যাবে না,এতে কষ্ট পেতে হয়।
এই কষ্ট সময়ের সাথে শুধু বাড়তে থাকে।

১১ thoughts on “রুদ্র

  1. চমৎকার অনুভুতি দিয়ে লিখেছেন ।
    চমৎকার অনুভুতি দিয়ে লিখেছেন । কেমন জানি অসাড় অনুভুতির চিত্রকল্প তৈরি হল অজান্তে। বেশ লাগল। চালিয়ে জান।ইষ্টিশন এ স্বাগতম , শুভেচ্ছা রইল। :ফুল: :ফুল: :ফুল: :ফুল:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *