আমার প্রবচনসমূহ

অনেক দিন পর ইস্টিশনে লিখছি। অনেক দিন লিখা বন্ধ থাকলে যা হয় হাত ঠিকঠাক কাজ করে না, সাথে মাথাটাও না। তাই নিজেকে সমর্পণ করলাম পুরোনো কিছু লিখার সাথে। প্রবচন আমার খুবই প্রিয় একটা জিনিষ তাই আমিও মাঝে মাঝে নিজের মনে প্রবচন বানিয়ে ফেলি একটা দুটো। এখানে আমার লিখা আমার প্রিয় কিছু প্রবচন তুলে ধরছিঃ

* প্রত্যেকটা ধর্মে মৌলবাদ থাকে, নাস্তিক্য ধর্মে ও মৌলবাদ আছে । আমি যেহেতু মৌলবাদি হতে চাই না তাই হয়েছি অধার্মিক ।

* জ্ঞানীদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ । তাঁদের সাথে কথা বললে অনেক কিছু শেখা যায়, নিজেকে অনেক তুচ্ছ মনে হয় যা আমাকে বাড়তে সাহায্য করে ।

অনেক দিন পর ইস্টিশনে লিখছি। অনেক দিন লিখা বন্ধ থাকলে যা হয় হাত ঠিকঠাক কাজ করে না, সাথে মাথাটাও না। তাই নিজেকে সমর্পণ করলাম পুরোনো কিছু লিখার সাথে। প্রবচন আমার খুবই প্রিয় একটা জিনিষ তাই আমিও মাঝে মাঝে নিজের মনে প্রবচন বানিয়ে ফেলি একটা দুটো। এখানে আমার লিখা আমার প্রিয় কিছু প্রবচন তুলে ধরছিঃ

* প্রত্যেকটা ধর্মে মৌলবাদ থাকে, নাস্তিক্য ধর্মে ও মৌলবাদ আছে । আমি যেহেতু মৌলবাদি হতে চাই না তাই হয়েছি অধার্মিক ।

* জ্ঞানীদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ । তাঁদের সাথে কথা বললে অনেক কিছু শেখা যায়, নিজেকে অনেক তুচ্ছ মনে হয় যা আমাকে বাড়তে সাহায্য করে ।
মূর্খ্যদের প্রতিও আমি কৃতজ্ঞ । তাদের সাথে কথা বললে আত্মবিশ্বাস বাড়ে । একটা আত্মমর্যাদা আমাকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করে ।

* মূর্খ্য দুই প্রকার । এক, নিজেরা জানে তারা জ্ঞানী না । দুই, তারা জানে না তারা মূর্খ্য । দ্বিতীয় দল পৃথিবীর সর্বোচ্চ মূর্খ্য । এরা অন্য জ্ঞানীদের সবসময় মূর্খ্য মনে করে আসে ।

* ভাল আর নীতিবানের মধ্যে পার্থক্য টা স্পস্ট । লাদেন ভাল ছিলেন না কিন্তু নিঃসন্দেহে নীতিবান ছিলেন ।

* মিথ্যা অনেক গ্রহনযোগ্য হয় যখন সেটা একটা বাস্তবতার প্রতিরূপ সৃষ্টি করে, আর যখন সেটা বাস্তবতা কে ঢাকতে চায় তখন হয় অগ্রহনযোগ্য ।

* সুখ বলতে আলাদা কোন অনুভূতি নেই, দুখের অভাব ই সুখ, আর দুঃখ টা যখন ঋনাত্বক থাকে তখন হয় উল্লাস অথবা আনন্দ । ঘুমের ভেতর দুঃখ নেই তাই সেটা সুখের কিন্তু উল্লাসের নয় ।

* আমরা যদি কোন নারীর ধর্ষনের জন্যে নারীর পর্দার দোষ দেই তাহলে ভাবতে হবে কোন নারী পর্দাহীনভাবে থাকলে আমরা তাকে ধর্ষন করতে প্রস্তুত ।

* ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত স্বত্তা । উনি নিজে জানে না উনি কি এবং কেউ কে জানাতে চান না । উনি প্রতারক হলেও নিজেকে ভাল মনে করেন । উনি নিষ্ঠুর হলেও দয়াবান বলতে ভালবাসেন । উনি একবার বলেন আমার গুনে গুনান্বিত হও অথচ উনি ই বলেন অহংকার করোনা একমাত্র আল্লাহ ই অহংকারী ।

* মানব সমাজ যুক্তি দিয়ে ই ঈশ্বর কে বিশ্বাস করেছে, অথচ কেউ যদি যুক্তি দিয়ে তাকে অবিশ্বাস করতে চায় তাকে ভয় দেখান হয় তাকে থামিয়ে দেয়া হয় ।

* প্রেম সত্যিকার অর্থেই অনেক সুন্দর জিনিস। ধার্মিক রা যেভাবে ধর্ম কে নিচে নামিয়েছে তেমনি প্রেমিক প্রেমিকারা ও প্রেম কে নিচে নামাচ্ছেন।

* প্রেমিক প্রেমিকার চেতনায় থাকে ভালবাসা, অবচেতনায় থাকে যৌনতা, আর গভীরে থাকে জীব ও জীবন কে বিস্তার করার তাগিদ।

* সকাল তাদের কাছেই সুন্দর যারা রাতে ঘুমাতে পারে, একজন রাত জাগা মানুষের কাছে সকাল আহামরি কিছু নয়।

* মৃত্যু টা বাজে ব্যাপার কারন জন্মের একটা অর্থ আছে। এবং মৃত্যু ভাল ব্যাপার কারন জীবন অর্থহীন।

* দারিদ্র আমাদের প্রতিভা বিকাশের পথ রুদ্ধ করে দেয় । সে প্রতিভা বিনাশের কারনে আমরা পুনরায় দরিদ্র হয় ।

* তুমুল বাক বিতন্ডায় হয় দুজন মূর্খ্য থাকে অথবা একজন মূর্খ্য-একজন জ্ঞানী থাকে । দুজন জ্ঞানীর মধ্যেকার কথা আলোচনায় রুপ নেয় ।

* তর্কে একজন গর্দভ আর একজন জ্ঞানী থাকলে তারা দুজনই পরস্পরকে অযৌক্তিক মনে করে এবং সেটা মনেপ্রানে । জ্ঞানী সেটা মনে করেন বিপক্ষের যুক্তি প্রয়োগ দেখে, আর গর্দভটি বিপক্ষকে অযৌক্তিক মনে করে অপরের যুক্তিটি না বুঝতে পেরে ।

* রাত্রি হচ্ছে বাস্তবতার একটি অবাস্তব উপহার।

* মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যায় দিন; তৈরী করে রাত।

* একটা মানুষ ভাল কিনা তার প্রত্যয়ন আসে বাইরে থেকে, একটা লোক সৎ কিনা তার প্রত্যয়ন আসে নিজ থেকেই।

* ‘বঙ্গবন্ধু’ আর ‘জাতির পিতা’ শব্দ দুটো পরস্পর কিয়দাংশে সাংঘর্ষিক। আমরা কারো খেতাবটাও ভাল মত দিতে পারি না এর কারণ আমরা কেউকে বুঝার চেষ্টাই করি না।

২৯ thoughts on “আমার প্রবচনসমূহ

  1. ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত

    ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত স্বত্তা । উনি নিজে জানে না উনি কি এবং কেউ কে জানাতে চান না । উনি প্রতারক হলেও নিজেকে ভাল মনে করেন । উনি নিষ্ঠুর হলেও দয়াবান বলতে ভালবাসেন । উনি একবার বলেন আমার গুনে গুনান্বিত হও অথচ উনি ই বলেন অহংকার করোনা একমাত্র আল্লাহ ই অহংকারী ।

    মানব সমাজ যুক্তি দিয়ে ই ঈশ্বর কে বিশ্বাস করেছে, অথচ কেউ যদি যুক্তি দিয়ে তাকে অবিশ্বাস করতে চায় তাকে ভয় দেখান হয় তাকে থামিয়ে দেয়া হয় ।

    :ভালাপাইছি: :ভালাপাইছি: :ভালাপাইছি:

  2. শেষ প্রবচনের ক্ষেত্রে আমার
    শেষ প্রবচনের ক্ষেত্রে আমার নিজের মতামত দিচ্ছি:

    জাতির পিতার চেয়ে বঙ্গবন্ধু অভিধায় তাকে আগে ভূষিত করা হয়েছিল। যখন করা হয়েছিল, তখন তিনি পিত হবার মত এতটা অনন্য উচ্চতায় ওঠেননি। স্রেফ বন্ধু হয়েই সন্তুষ্ট হতে হয়েছে। কিন্তু, জাতির পিতা তাকে বলা হয় স্বাধীনতার পর থেকে। যখন তিনি সত্যিকার অর্থেই পিতার মতই কিছু হতে পেরেছেন।

      1. এই তো বেঁচে আছি। দিনরাত
        এই তো বেঁচে আছি। দিনরাত চব্বিশ ঘণ্টা ফেসবুকাচ্ছি। পরীক্ষায় ফেল করছি। বাপের ঝাড়ি খাচ্ছি।

        আপনার কী খবর???

  3. সকাল তাদের কাছেই সুন্দর যারা

    সকাল তাদের কাছেই সুন্দর যারা রাতে ঘুমাতে পারে, একজন রাত জাগা মানুষের কাছে সকাল আহামরি কিছু নয়।

    – বেশ কিছু ভালো লেগেছে । লিখতে থাকুন আর ইস্টিশনে নিয়মিত হওয়ার চেষ্টা করুন ।

    1. আসলে এখানে আমি বুঝাতে চেয়েছি
      আসলে এখানে আমি বুঝাতে চেয়েছি নাস্তিকতাকে যখন ধর্ম হিসেবে নেয়া হয় তাহলে সমস্যা । নাস্তিকতা তো ধর্ম নয়, এটা হচ্ছে অধর্ম। নাস্তিকতা তখনই সাম্প্রদায়িকতা তৈরী করে যখন এটাকে ধর্মের মত নেয়া হয়। তাই এখানে আমি বলেছি ‘নাস্তিক্য ধর্ম’।

  4. * রাত্রি হচ্ছে বাস্তবতার একটি

    * রাত্রি হচ্ছে বাস্তবতার একটি অবাস্তব উপহার।

    * মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যায় দিন; তৈরী করে রাত।
    * সকাল তাদের কাছেই সুন্দর যারা রাতে ঘুমাতে পারে, একজন রাত জাগা মানুষের কাছে সকাল আহামরি কিছু নয়।
    * ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত স্বত্তা । উনি নিজে জানে না উনি কি এবং কেউ কে জানাতে চান না । উনি প্রতারক হলেও নিজেকে ভাল মনে করেন । উনি নিষ্ঠুর হলেও দয়াবান বলতে ভালবাসেন । উনি একবার বলেন আমার গুনে গুনান্বিত হও অথচ উনি ই বলেন অহংকার করোনা একমাত্র আল্লাহ ই অহংকারী ।
    * ভাল আর নীতিবানের মধ্যে পার্থক্য টা স্পস্ট । লাদেন ভাল ছিলেন না কিন্তু নিঃসন্দেহে নীতিবান ছিলেন ।

    এগুলো ভালো লেগেছে।
    আর হেঁয়ালি করে বানান ভুল করেছেন। যেগুলো কঠিন নয়। আপনার কাছে বানান ভুল কাম্য নয়।
    😀

    1. ঠিক বলেছেন। দ্রুত টাইপ করতে
      ঠিক বলেছেন। দ্রুত টাইপ করতে গিয়ে বানান ভুল হয়ে যায়। ধরিয়ে দিবেন যাতে সম্পাদনা করে ঠিক করে নিতে পারি। ধন্যবাদ আপনাকে।

  5. সবগুলোর সাথে একমত নই যদিও
    সবগুলোর সাথে একমত নই যদিও কয়েকটি অসাধারণ…!

    এতোগুলো টপিক যে প্রত্যেকটা নিয়েই বিশাল আলোচনা করা যেতে পারে। কয়েকটা আবার আমার পূর্ব পরিচিত এবং আলোচনা করা হয়ে গেছে…

    সর্বপরি মন্তব্য করার মত কিছু পাচ্ছি না। কিংবা বলা যেতে পারে- মন্তব্য করতে আলসেমী লাগছে! :আমিকিন্তুচুপচাপ:

  6. ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত

    ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত স্বত্তা । উনি নিজে জানে না উনি কি এবং কেউ কে জানাতে চান না । উনি প্রতারক হলেও নিজেকে ভাল মনে করেন । উনি নিষ্ঠুর হলেও দয়াবান বলতে ভালবাসেন । উনি একবার বলেন আমার গুনে গুনান্বিত হও অথচ উনি ই বলেন অহংকার করোনা একমাত্র আল্লাহ ই অহংকারী ।

    কিছুটা দ্বিমত পোষণ করছি, তবে কথা পুরোপুরি মিথ্যা না… :ভাবতেছি: :ভাবতেছি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: বাকিগুলো ভালো ছিল… :তালিয়া: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: বানানগুলা দয়া কইরা ঠিক কইরা দেন ভাই :দেখুমনা: :কেউরেকইসনা: :আমারকুনোদোষনাই: … দেখতে কষ্ট লাগে… :মাথাঠুকি:

  7. ভাই অনেকদিনপর আশা করি আবারও
    ভাই অনেকদিনপর আশা করি আবারও নিয়মিত হবেন…

    * প্রত্যেকটা ধর্মে মৌলবাদ থাকে, নাস্তিক্য ধর্মে ও মৌলবাদ আছে । আমি যেহেতু মৌলবাদি হতে চাই না তাই হয়েছি অধার্মিক ।

    — নাস্তিকতা কোন ধর্ম নয়। এই বিষয়ে বিস্তারিত বিতর্কের অবকাশ আছে…

    * ভাল আর নীতিবানের মধ্যে পার্থক্য টা স্পস্ট । লাদেন ভাল ছিলেন না কিন্তু নিঃসন্দেহে নীতিবান ছিলেন ।

    — নীতিবান ছিল কথাটা অবান্তর তবে নিজের বিশ্বাসের প্রতি একনিষ্ঠ ছিল এইটা বলা যেতে পারে…

    * মিথ্যা অনেক গ্রহনযোগ্য হয় যখন সেটা একটা বাস্তবতার প্রতিরূপ সৃষ্টি করে, আর যখন সেটা বাস্তবতা কে ঢাকতে চায় তখন হয় অগ্রহনযোগ্য ।

    — মিথ্যা কীভাবে বাস্তবরূপ সৃষ্টি করে বুঝলাম না…

    * সুখ বলতে আলাদা কোন অনুভূতি নেই, দুখের অভাব ই সুখ, আর দুঃখ টা যখন ঋনাত্বক থাকে তখন হয় উল্লাস অথবা আনন্দ । ঘুমের ভেতর দুঃখ নেই তাই সেটা সুখের কিন্তু উল্লাসের নয় ।

    — প্রথম অংশ চমৎকার কিন্তু শেষেরটায় বিতর্কের সুযোগ আছে…

    * আমরা যদি কোন নারীর ধর্ষনের জন্যে নারীর পর্দার দোষ দেই তাহলে ভাবতে হবে কোন নারী পর্দাহীনভাবে থাকলে আমরা তাকে ধর্ষন করতে প্রস্তুত ।

    — :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

    * ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত স্বত্তা । উনি নিজে জানে না উনি কি এবং কেউ কে জানাতে চান না । উনি প্রতারক হলেও নিজেকে ভাল মনে করেন । উনি নিষ্ঠুর হলেও দয়াবান বলতে ভালবাসেন । উনি একবার বলেন আমার গুনে গুনান্বিত হও অথচ উনি ই বলেন অহংকার করোনা একমাত্র আল্লাহ ই অহংকারী ।

    — জটিল বলেছেন তবে অল্পকথায় শেষ করতে পারলে ভাল হত!!

    * মানব সমাজ যুক্তি দিয়েই ঈশ্বর কে বিশ্বাস করেছে, অথচ কেউ যদি যুক্তি দিয়ে তাকে অবিশ্বাস করতে চায় তাকে ভয় দেখান হয় তাকে থামিয়ে দেয়া হয় ।

    — :bow: :bow: :bow: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

    * প্রেম সত্যিকার অর্থেই অনেক সুন্দর জিনিস। ধার্মিকরা যেভাবে ধর্ম কে নিচে নামিয়েছে তেমনি প্রেমিক প্রেমিকারা ও প্রেম কে নিচে নামাচ্ছেন।

    — ধর্মের সাথে প্রেমের তুলনা খুবই আপত্তিকর।। দুটায় মাদকতা আছে ঠিকই কিন্তু ভালবাসারটা ধ্বংসাত্মক নয় বরং শৈল্পিক… আর নিচে নামার ব্যাপারটা আপেক্ষিক ভালবাসার ক্ষেত্রে… :থাম্বসআপ:

    * প্রেমিক প্রেমিকার চেতনায় থাকে ভালবাসা, অবচেতনায় থাকে যৌনতা, আর গভীরে থাকে জীব ও জীবন কে বিস্তার করার তাগিদ।

    অবচেতনায় নয় বরং প্রচ্ছন্ন থাকে যৌনতা…

    * সকাল তাদের কাছেই সুন্দর যারা রাতে ঘুমাতে পারে, একজন রাত জাগা মানুষের কাছে সকাল আহামরি কিছু নয়।

    — এইটা অসাধারণ… :bow: :bow: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :ফুল: :ফুল: :ফুল:

    * মৃত্যুটা বাজে ব্যাপার কারন জন্মের একটা অর্থ আছে এবং মৃত্যু ভাল ব্যাপার কারন জীবন অর্থহীন।

    — নৈরাশ্যবাদী হয়ে গেল, মানতে পারলাম না…

    * দারিদ্র আমাদের প্রতিভা বিকাশের পথ রুদ্ধ করে দেয় । সে প্রতিভা বিনাশের কারনে আমরা পুনরায় দরিদ্র হয়।

    — প্রতিভার বিনাশ নয় অবরুদ্ধতায় দারিদ্রতার কারণ…

    * মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যায় দিন; তৈরী করে রাত।

    — এইটায় আপনি কোন ট্রিক্স ব্যাবহার করছেন ঠিক বুঝতে পারলাম না… 🙁

    * একটা মানুষ ভাল কিনা তার প্রত্যয়ন আসে বাইরে থেকে, একটা লোক সৎ কিনা তার প্রত্যয়ন আসে নিজ থেকেই।

    — :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :bow: :bow: :bow: :রকঅন: :রকঅন:

    * ‘বঙ্গবন্ধু’ আর ‘জাতির পিতা’ শব্দ দুটো পরস্পর কিয়দাংশে সাংঘর্ষিক। আমরা কারো খেতাবটাও ভাল মত দিতে পারি না এর কারণ আমরা কেউকে বুঝার চেষ্টাই করি না।

    — বক্তব্য পরিষ্কার নয়।। মনে হচ্ছে একটু ব্যাখার দরকার আছে…
    ধন্যবাদ… আপনার পোস্ট নিয়মিত দেখার অপেক্ষায় আছি…

    1. ঠিক কোন জায়গা থেকে শুরু করব
      ঠিক কোন জায়গা থেকে শুরু করব বুঝতে পারছি না। অনেকগুলো কথা বলে ফেলেছেন :p ধন্যবাদ এত মনযোগের সাথে পড়ার জন্যে।

      ১, আপনি ব্যপারটা ধরতে পেরেছেন। নাস্তিকতা কোন ধর্ম নয়। আমি শব্দদ্বয় এজন্যে পাশে বসিয়েছি যে, নাস্তিকতাকে যখন ধর্ম হিসেবে নেয়া হবে তখন এটি মৌলবাদ সৃষ্টি করবে। অনেকে বলে ফেলছে এটা একটা ধর্ম। আমি নিজেও জানি এটা ধর্ম নয়; এটা অধর্ম। এজন্যেই পরবর্তিতে বলেছি আমি অধার্মিক। যারা নাস্তিকতাকে ধর্ম বলে তাদের কটাক্ষ করা হয়েছে।

      ২, নীতিবান কথাটা অবান্তর ছিল না। শব্দটা অত্যন্ত সুচিন্তিতভাবে প্রয়োগ করা হয়েছে। এখানে নীতিবানকে সংজ্ঞায়িত করা প্রয়োজন। নীতিবান বলতে আমরা তাই বুঝি যা গঠিত আদর্শের সাথে সমন্বয় করে চলে। সাধারণভাবে যে নীতি মেনে চলে সেই নীতিবান। লাদেন তার গঠিত আদর্শের সাথে সমন্বিত করে কাজ করেছিল। এখানে প্রশ্নবিদ্ধ হবে তার আদর্শ; আর কিছু নয়। আর নীতিবানেরাই একনিষ্ঠ থাকে।

      ৩, বাস্তবতার প্রতিরুপ মানে বাস্তবের মত করে। যেমন একটা উপন্যাস, গল্প, নাটক, সিনেমা। সেটা সবাই জানে মিথ্যা কিন্তু অন্যায় নয় এজন্যে যে সেটা একটা বাস্তবতার প্রতিরুপ সৃষ্টি করেছে, বাস্তবতা ঢাকে নি।

      ৪,

      সুখ বলতে আলাদা কোন অনুভূতি নেই, দুখের অভাব ই সুখ, আর দুঃখ টা যখন ঋনাত্বক থাকে তখন হয় উল্লাস অথবা আনন্দ । ঘুমের ভেতর দুঃখ নেই তাই সেটা সুখের কিন্তু উল্লাসের নয়

      । শেষের অংশে চাইলে আপনি বিতর্ক করতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনার প্রথম অংশকে ভুল প্রমাণিত করতে হবে।

      ৫,

      ধর্মের সাথে প্রেমের তুলনা খুবই আপত্তিকর।। দুটায় মাদকতা আছে ঠিকই কিন্তু ভালবাসারটা ধ্বংসাত্মক নয় বরং শৈল্পিক… আর নিচে নামার ব্যাপারটা আপেক্ষিক ভালবাসার ক্ষেত্রে

      এই কোটটা আসলে বাদ দেয়া উচিৎ ছিল আমার। কোন গভীর দর্শন নেই। তবে আপনি যেটা বলেছেন ভালবাসা শৈল্পিক সেটা ভুল হতে পারে। একটা জিনিস ততক্ষন পর্যন্তই শৈল্পিক থাকে যখন সেটার বিজ্ঞান লুকায়িত থাকে। এরপর সেটা হয়ে যায় যান্ত্রিক। ভালবাসাটা এখন চাইলেই বৈজ্ঞানিকভাবে সূত্রবদ্ধ করা যায়।

      ৬,

      অবচেতনায় নয় বরং প্রচ্ছন্ন থাকে যৌনতা…

      ঠিক একথাটার মানে আমি বুঝলাম না। অবচেতন মন কি আমাদের প্রচ্ছন্ন থাকে না? আর সবচেয়ে বড় কথা আমরা যখন বাক্যে জাতিবাচক বিশেষ্য ব্যবহার করি সেটা সংখ্যাগরিষ্ঠদের কথা মাথায় রেখে বিশেষ্য পদটি ব্যবহার করি। অথবা জাতিবাচক বিশেষ্যটি আমরা এমনভাবেও ব্যবহার করতে পারি যে সেটি সে জাতির নির্দিষ্ট গ্রুপকে নির্দেশ করবে। সুতরাং শতভাগ ক্ষেত্রে শুদ্ধতা নিরূপণ না হলেও ক্ষতি নেই দর্শনের। আরেকটা কথা বলা প্রয়োজনঃ এখানে চেতনা-অবচেতনা-অচেতনা একটা অর্ডার করা হয়েছে সৌন্দর্য রক্ষা করার জন্যে, একটা শীল্পিত রূপ দেবার জন্য। এবং সেটা বৈজ্ঞানিকভাবে ত্রুটিহীনভাবে।

      ৭, না মানার কিছু নেই। জীবনের মানে সবসময়েই আমাদের প্রতারিত করে এসেছে। ইন দ্য ইন্ড আমরা সেই ধূলিকণা হিসেবেই ছড়িয়ে পড়ব এই মহাকাশে, হয়তো লেগে থাকব কোন এক নক্ষন্ত্রের হিলিয়াম অনুতে। কোনদিক থেকে বিচার করলেই জীবনের অর্থবহ উদ্দেশ্য খুঁজে পাওয়া যায় না। মহাকালের কাছে জীবন কিছুই না।

      ৮,

      প্রতিভার বিনাশ নয় অবরুদ্ধতায় দারিদ্রতার কারণ…

      হুম, সেটাও আপনি বলতে পারেন।

      ৯,

      মানুষকে এগিয়ে নিয়ে যায় দিন; তৈরী করে রাত।

      এটাকে আপনি একটা কবিতাও বলতে পারেন। এখানে আবেগ ছিল। এখানে আপনি বিজ্ঞান নাও পেতে পারেন। তবে ব্যপারটা মূলত এই যে, দিন হচ্ছে মানুষের চলার পথ, মানুষের কাজের সময়; আর রাত মানুষের গঠিত হবার সময়, সৃষ্টির সময়। দিনে মানুষ পৃথিবীকে গড়ে আর রাতে নিজেকে গড়ে। এই কোটটির মূল ভাবটি হচ্ছে রাতের প্রতি আমার একটি শ্রদ্ধা-ভালবাসা-মমতা।

      ৯, সব বাংলাদেশিরা কি বাঙালি ? কিন্তু আমাদের জাতির ভেতর সব বাংলাদেশি। বঙ্গবন্ধু বলতেও বাঙ্গালির নেতা বুঝায়, জাতির পিতা বলতে বাংলাদেশিদের নেতা বুঝায়। আমি ভাবের স্তর থেকে আলোচনা করছি। বাংলাদেশে সব বাঙালি না, সুতরাং উনি সর্বোপরি বাঙ্গালির নেতা নন; বাংলাদেশি জাতির নেতা। এক ক্ষেত্রে উনি সাম্প্রদায়িক, আরেক ক্ষেত্রে সবার জন্যে।

      হুম, এখন থেকে নিয়মিত পাবেন। আপনাকে আবারো ধন্যবাদ 🙂

      1. এই বিশাল বিশাল জ্ঞানগর্ভ
        এই বিশাল বিশাল জ্ঞানগর্ভ আলোচনা দেইখ্যা আমার ঘুমে ঢুলু ঢুলু চোখ টানটান হইয়া উঠল… যদিও বেশিরভাগ মাথার ওপর দিয়া যাইতেছে, তবুও আনন্দ পাইতেছি। চালায় যান। আফটার অল, দুজন জ্ঞানীর মধ্যেকার কথা আলোচনায় রুপ নেয় ।

      2. শেষটা ছাড়া সবগুলোই আপেক্ষিক
        শেষটা ছাড়া সবগুলোই আপেক্ষিক আলোচনায় গিয়ে শেষ হবে তাই তর্কে গেলাম না…
        সম্মুখ কোন আড্ডার জন্য দুর্দান্তসব সাবজেক্ট এক করেছেন!!
        এইবার শেষটা নিয়ে আমার বক্তব্য পড়ুনঃ
        ‘আইডেন্টিটি ক্রাইসিস’ বা পরিচয় সংকটের বাংলাদেশীদের জন্য কিছু কথা…
        ভাল থাকবেন… নিয়মিত পেলে ভাল লাগবে!! ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

      3. চমৎকার আলোচনা !!! ধন্যবাদ
        চমৎকার আলোচনা !!! ধন্যবাদ দুজনকেই !
        আর প্রবচনের ক্ষেত্রে লেখকের সব কথার সাথে একমত হওয়া আবশ্যিক নয় । হুমায়ূন আজাদ স্যার তার এক প্রবচনে সত্যজিৎ রায় ও পথের পাঁচালী ফিল্ম সম্পর্কে যে কথা কথা বলেছেন তার সাথে আমি দ্বিমত পোষণ করি সবসময় । ফিল্ম সম্পর্কে কিছুটা পড়াশোনা থাকার কারণেই বলতে পারি উনি ওই প্রবচনে ঠিক বলেন নি ।

  8. ১)ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত
    ১)ঈশ্বর সবচেয়ে দ্বিধাগ্রস্ত স্বত্তা ।উনি নিজে জানে না উনি কি এবং কেউ
    কে জানাতে চান না ।উনি প্রতারক হলেও নিজেকে ভাল মনে করেন ।উনি নিষ্ঠুর হলেও দয়াবান
    বলতে ভালবাসেন । উনি একবার বলেন আমার গুনে গুনান্বিত হও অথচ উনি ই বলেন অহংকার করোনা একমাত্র আল্লাহই অহংকারী ।

    অসাধারন বলেছেন ।সে নিজেই জানে সে কোনটি বলতে চাচ্ছে

    ২) “মানব সমাজ যুক্তি দিয়ে ই ঈশ্বর কে বিশ্বাস করেছে, অথচ কেউ যদি যুক্তি দিয়ে তাকে অবিশ্বাস করতে চায় তাকে ভয় দেখান হয় তাকে থামিয়ে দেয়া হয় ।

    লাখ টাকার কথা ।কেউ ধর্মের পক্ষে কোন কথা বললে তাকে উতসাহিত করা হয় ।কিন্তু কেউ যুক্তি দিয়েও তার বিপক্ষে গেলে তাকে হুমকি দেয়া হয়

    ৩) প্রেম সত্যিকার অর্থেই অনেক সুন্দর জিনিস। ধার্মিক রা যেভাবে ধর্ম কে নিচে নামিয়েছে তেমনি প্রেমিক প্রেমিকারা ও প্রেম
    কে নিচে নামাচ্ছেন।

    কীভাবে নামাচ্ছে বুঝিনি ।

    ৪) প্রেমিক প্রেমিকার চেতনায়
    থাকে ভালবাসা, অবচেতনায়
    থাকে যৌনতা, আর গভীরে থাকে জীব ও জীবন কে বিস্তার করার তাগিদ।

    সহমত ।তাছাড়া সবগুলাই অসাধারন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *