লিখাটার শিরোনাম কি দিমু বুঝতে পারতাছিনা। মনটা খুব ভারি। মন হালকা হইলে চিন্তা কইরা একটা কিছু দিয়া দিমু।

ঈদের ইত্যাদির রিপিট দেখলাম আজ। ঈদের সময় দেখার সৌভাগ্য হয় নাই আমার। শালার হানিফ সংকেত। শেষ টাইমে চোখে পানি না আইনা থাকতে পারলো না। মা আর বড় আপু সোফায় বইসা টিভির দিকে তাকাইয়াই কাঁদতাছে। আব্বা আর আমি একসাথে বইসা ছিলাম। চোখের পানি ঢাকতে আব্বা তড়িঘড়ি কইরা উইঠা উনার রুমে গেলোগা, আমিও আমার রুমে যাইয়া দরজা লাগাইয়া দিলাম। পোলারা যে সবার সামনে কাঁদতে পারে না। সেই ক্ষমতা আল্লাহ দেয় নাই পোলাদের। ধন্যবাদ হানিফ সংকেতরে সবাইরে একসাথে কাঁদানোর জন্য। এই চোখের পানিগুলো অনেকগুলো কষ্ট ধুইয়া মুইছা দিছে আমাগো ফ্যামিলির। বাপের কষ্টটা আর ভালবাসাটা কেউ ধরতে পারে না। আমি কোনদিনও মনে করি নাই আমার বাপ আমারে ভালোবাসে। খালি রাগ আর রাগই দেখছি। কোন অকাম করলে ফিরিতে মাইর খাইয়া গেছি। ভুল ভাইঙ্গা গেলো ২০০৮ সালে। একটা এক্সিডেন্ট করছিলাম আমি। আমার বাপ হাজার হাজার লোকের সামনে হাসপাতালের বেঞ্চে গইড়াইয়া গইড়াইয়া কাঁদছে আমার লাইগা। বাপের ভালোবাসা বোঝতে আমার ১৯ টা বছর লাইগা গেছিলো। এমনই পাপী পোলা এই বাকের ভাই। এখনো গভীর রাতে বাপ আমার রুমে আইসা চেক কইরা যায় আমি আলসেমী কইরা মশারি না টাঙ্গাইয়া শুইছি কিনা। টাঙ্গাইলে আবার খেয়াল কইরা দেখে মশারি চারদিকে ভালা কইরা গুইজা দিছি কিনা। মশারি না টাঙাইলে টাঙ্গাইয়া দেয়, ভালো কইরা চারপাশ না গুজলে গুইজা দেয়। ২০০৮ এর আগে বিরক্ত লাগতো আব্বার এই কাম। এখন ভালা লাগে। মাঝে মাঝে ইচ্ছা কইরা মশারি না টাঙ্গাইয়া শুইয়া পড়ি বাপের এই আদরটা নেওয়ার জন্য। আর মায়ের কথা কি কমু। মা তো আমার সব ভুল ভ্রান্তি তাঁর আঁচল দিয়া ঢাইকা রাখছে। অবস্থা আমার এমন যে মায়ের আঁচলটা সরাইয়া নিলে ভুল ভ্রান্তির মধ্যে এই বাকের ভাইয়ের সলীল সমাধি হইয়া যাইবো। অনেক কষ্ট দিয়া ফালাইছি তোমাগরে এই ছোট্ট জীবনে। দোয়া কইরো বাকি জীবনে যাতে আর কষ্ট তোমাগরে সইতে না হয়।

১০ thoughts on “লিখাটার শিরোনাম কি দিমু বুঝতে পারতাছিনা। মনটা খুব ভারি। মন হালকা হইলে চিন্তা কইরা একটা কিছু দিয়া দিমু।

      1. নাহ, আমার আব্বা এমুন করেনা।
        নাহ, আমার আব্বা এমুন করেনা। সে এখনো মাঝে মাঝে আমারে বলে, ” দেখি তো আমার বাবাকে কোলে নিতে পারি কিনা? ” বাবার আর আমাদের সম্পর্ক একবারে বন্ধুর মত।

  1. আবেগাপ্লুত হলাম ভাই!
    ঠিকই

    আবেগাপ্লুত হলাম ভাই!

    ঠিকই বলসেন , থাবড়াইয়া দাঁত ফালাইয়া দিবো। যদিও আড়ালে যাইয়া খুশি হইব।

  2. আজকে থেকে ইস্টিশনে খানিকটা
    আজকে থেকে ইস্টিশনে খানিকটা অ্যাকটিভ হবার ইচ্ছে আছে। তার শুরু হিসেবে একটা পোস্ট পড়লাম। শুরুর পোস্টটাই অনন্যসাধারণ… :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল:

    1. পাঠক কোন জায়গায় বেশি তা
      পাঠক কোন জায়গায় বেশি তা জানিনা। আমি লিখি শুধু লিখার জন্য। মন হাল্কা করার জন্য। একটা ইস্যুতে অথবা, কোন বিষয়ে আমাকে লিখতেই হবে এমন না। যখন ভিতর থেকে কিছু ফিল করি এবং মনে করি সবার সাথে শেয়ার করলে ভালো লাগবে তখনই লিখি। আমি মুলত ফেসবুকের স্ট্যাটাসের জন্যই লিখি। কিন্তু ব্লগে পোস্ট করি যাতে খুব ভালোভাবে লেখাটা সরক্ষিত থাকে সেইজন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *