একটি রিপোর্ট আর একটি স্বপ্নের করুন পরিনতি

সাংবাদিকরা হল দেশের দর্পণ স্বরূপ। একটি দেশের সম্পর্কে ভাল মন্দ অন্য দেশের নাগরিকরা জানতে পারে সেই দেশের মিডিয়া, পত্র-পত্রিকা দেখে। সাংবাদিকদের সততা, নিষ্ঠার উপর নির্ভর করে অনেক কিছু।

স্বাস্থ্যই সকল সুখের মুল আর ডাক্তাররা সেই সুখের রচনাকারি ।একটি দেশের স্বাস্থ্য ব্যাবস্থার স্তম্ভ তারাই গড়ে তুলেন দিন রাত তাদের মেধা দিয়ে।

অথচ অত্যন্ত দুঃখ জনক হলেও আমাদের দেশে ডাক্তার- সাংবাদিকদের সম্পর্ক যেন দাঁ কুমড়া। দাঁ কুমড়া বলার যথেষ্ট কারন রয়েছে।


সাংবাদিকরা হল দেশের দর্পণ স্বরূপ। একটি দেশের সম্পর্কে ভাল মন্দ অন্য দেশের নাগরিকরা জানতে পারে সেই দেশের মিডিয়া, পত্র-পত্রিকা দেখে। সাংবাদিকদের সততা, নিষ্ঠার উপর নির্ভর করে অনেক কিছু।

স্বাস্থ্যই সকল সুখের মুল আর ডাক্তাররা সেই সুখের রচনাকারি ।একটি দেশের স্বাস্থ্য ব্যাবস্থার স্তম্ভ তারাই গড়ে তুলেন দিন রাত তাদের মেধা দিয়ে।

অথচ অত্যন্ত দুঃখ জনক হলেও আমাদের দেশে ডাক্তার- সাংবাদিকদের সম্পর্ক যেন দাঁ কুমড়া। দাঁ কুমড়া বলার যথেষ্ট কারন রয়েছে।

একটি ক্লিনিক বা হাসপাতালে যদি একজন রুগী মারা যায় তাহলে সব দোষ ঐ ডাক্তারের। আর তারপরেই পেপার-পত্রিকায় শিরোনাম হয়ে আসে অমুক ডাক্তারের অবহেলার কারনে রোগীর মৃত্যু !!সেখানে ডাক্তারের মন্তব্য শোনার কোন অপেক্ষা করা হয় না!! কোন যুক্তিযুক্ত কারন থাকলেও দোষ ঐ ডাক্তারের!! আমি বলি না যে সব ডাক্তার তার কর্তব্য ঠিক মত পালন করে, হুম কিছু ডাক্তার আছে যারা আসলেই তাদের দায়িত্ব পালন করে না। তারা খুবই নগন্য। এই কথা আমি জোর গলায় বলতে পারি। কিন্তু পত্রিকায় যে পরিমান ডাক্তার বিদ্বেষী রিপোর্ট লেখা হয় তাতে তো সাধারন জনগনের এ রুপ ধারনার সৃষ্টি হওয়াই স্বাভাবিক যে দেশের কোথাও ভাল চিকিৎসা হয় না। দেশের সব ডাক্তারেরা সব কসাই !! এমনকি দেশের নাম করা ল্যাব এইড হসপিটাল নিয়েও রিপোর্ট হয়, যেখানে দেশের সেরা চিকিৎসকেরা রুগীদের স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে থাকেন । সরকারি হাসপাতালে না হয় সরকারি ডাক্তার বলে তাদের দায়িত্ব নাই বলে চালিয়ে দেয়া হয়, কিন্তু ল্যাব এইড এর ক্ষেত্রে কিসের যুক্তি?? অনেকেই হয় তো জানে না যে ল্যাব এইড এর কার্ডিওলোজির হেড (নামটা খেয়াল নেই) এর হাতে ১০০% সাক্সেসফুল ওপেন হার্ট সার্জারি রেকর্ড আছে যা সারা বিশ্বে খুবই বিরল।

হাসপাতালে ভর্তি হওয়া সকল রোগী কি সুস্থ হয় ?? হয় না। আর না হলে দোষ কার? ডাক্তারের।আবার কাউকে যদি দেখার পড় একটা টেস্ট দেয় তাহলে ডাক্তার ভাল না, আর বেশি টেস্ট দিলে ডাক্তার ডায়গনিষ্ট সেন্টার এর দালাল !! কেউ যদি কোন ডাক্তারের অধীনে থাকা অবস্থায় যথেষ্ট চিকিৎসা দেয়ার পরেও মারা যায়, আর রোগী যদি হয় কোন ক্ষমতাশালীর মামা – খালু তাহলে মাইর কে খায়? ডাক্তার। আর সংবাদিকরা ডাক্তারের বক্তব্য না শুনেই সরাসরি রিপোর্ট করে দেয়। অথচ ঐ ডাক্তারের সারা জীবনের অর্জিত জ্ঞান, অভিজ্ঞতা, সম্মান নিমিষেই ধুলোয়ে মিশে যায় ঐ একটা রিপোর্ট এর জন্য। পার্লার কর্মী কানিজ আসলামের সাথে সু সম্পর্ক প্রথম আলোর সম্পাদকের, ডাক্তারদের সাথে কেন নয় ?? শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ থেকে পাশ করা এক ডাক্তার হত্যা নিয়ে কয়দিন পত্রিকায় রিপোর্ট হয়েছে? ২ কি ৩ দিন,এর পরেই ডাক্তারদের টপিকস বলে তা চলে গেছে আন্ডার গ্রাউনড এ!! বেশ বেশ বেশ !!

এক জন মেডিক্যাল স্টুডেন্ট হিসেবে প্রায় স্যারদের লাইফ এর অনেক ঘটনা শুনি, যা শোনার পড় আর ডাক্তার হতে ইচ্ছে হয় না।

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ এর নামকরা সার্জন এর হাতে হাতকরা দেখে নিজেদের অনেক অসহায় মনে হয় পত্রিকার একটা রিপোর্ট এর কাছে, যেখানে আমাদের সারা জীবনের সাধনা, জ্ঞান , অভিজ্ঞতার কোন মূল্য নেই ……

১১ thoughts on “একটি রিপোর্ট আর একটি স্বপ্নের করুন পরিনতি

  1. আরও বিস্তারিত লিখলে ভাল হত।
    আরও বিস্তারিত লিখলে ভাল হত। শুধু মিডিয়ার না এটা সবার সমস্যা। সবাই ডাক্তারের সমালোচনায় ব্যস্ত॥

  2. একটা সময় ছিল, যখন দেশে সবচেয়ে
    একটা সময় ছিল, যখন দেশে সবচেয়ে ঘৃণিত ছিল পুলিশেরা। তাদের কাজও ছিল জনগণের সেবা। এখন তার পাশাপাশি ডাক্তাররা উঠে আসছে। তাদের কাজও জনগনের সেবা। কী অদ্ভুত! কী অদ্ভুত!

    1. আপনার পরিচিত কেউ অসুস্থ হলে
      আপনার পরিচিত কেউ অসুস্থ হলে ডাক্তার এর কাছে নিয়ে তার ক্ষতি করবেন না, অন্তত সচেতন নাগরিক(!!) হিসেবে আপনার এটাই দায়িত্ব। আর আপনার পরিচিতর ”সেবা” প্লিজ আপনি নিজেই করবেন। কেমন?? আপনি কয় জন ডাক্তারকে চিনেন? কয় জনার সাথে কথা বলেছেন ?আর এত বড় একটা ফালতু কথা আপনি চাপিয়ে দিবেন ডাক্তারদের উপরে ?? ভাই ফ্রি চিকিৎসা প্রত্যেক জেলায় আছে, প্রত্যেক উপজেলায় আছে, ইউনিয়ন এ আছে। তারপরেও রক্ত চোষা? আপনি যদি কোন এক ডাক্তার এর কাছে গিয়ে বলেন স্যার আমি গরিব, আমি এত টাকা দিতে পারব না, ৯৮% ডাক্তার আপনার ফি কম নিবে । অনেক ডাক্তার দের দরজায় লেখা থাকে অর্থনৈতিক সমস্যা থাকলে সংকোচ বোধ করবেন না। সরাসরি ডাক্তারকে বলুন। কি বিশ্বাস হয় না? ইবনে সিনার ডা ইদ্রিস (হাড় ভাঙ্গা) এর চেম্বারে যাবেন, কিনবা ডা হান্নান (মডার্ন মেডিক্যাল) স্যার এর চেম্বারে যাবেন..এই রকম অনেক অনেক ডাক্তার আছে… নিজ চখে দেখে আসেন…তারপরে মন্তব্য করবেন ।

      1. হ্যাঁ, দেখেছি তো। সরকারী
        হ্যাঁ, দেখেছি তো। সরকারী হাসপাতালে ঔষধ আসার আগে সব ফার্মেসিতে পাচার হয়ে যেতে দেখেছি। ডিউটি প্রতিদিন থাকলেও সপ্তাহে দু’দিন দু’ঘণ্টার জন্য আসতে দেখেছি। জ্বরের বাইরে কোন অসুখ হলেই, “আমার চেম্বারে আইসেন” বলতেও শুনেছি।

        আর কত দেখব?

        1. ঐ গুলা বাস্তবের থেকে কাগজেই
          ঐ গুলা বাস্তবের থেকে কাগজেই বেশি পাওয়া যায়…আমিও সরকারি হাসপাতালে অনেক ডাক্তার দেখিয়েছি কসম করে বলছি আমাকে তো কেউ কখনও বলে নি। ২-১ জন দিয়ে সবাইকে বিচার করবেন না…

          1. শহরের হাসপাতালগুলো দিয়ে কখনও
            শহরের হাসপাতালগুলো দিয়ে কখনও সামগ্রিক অবস্থা বোঝা যায় না। আমি আমাদের গ্রামীন এলাকায় এর থেকে ভাল পরিস্থিতিতে থাকা কোন সরকারী হাসপাতালা দেখি নি।

          2. আপনার কথার ও যুক্তি আছে।
            আপনার কথার ও যুক্তি আছে। কিন্তু একদম প্রথম মন্তব্যে আপনি যেভাবে বলেছেন তাতে মনে হয় যে ডাক্তার হওয়াটাই মনে হয় পাপ। আর ডাক্তারদের থেকে মনে হয় কোন খারাও মানুশ নাই…

          3. সমান কিংবা তার চেয়ে বেশি
            সমান কিংবা তার চেয়ে বেশি পঁচানি (এবং সম্পূর্ণ অপ্রয়োজনে) তো পুলিশরেই দিলাম… 😀 😀 😀

          4. এই পচানি দিয়ে কি উদ্ধার করলেন
            এই পচানি দিয়ে কি উদ্ধার করলেন ?? ”সমান কিংবা তার চেয়ে বেশি পচানি ” পুলিশ রে দিছেন, আর ডাক্তার দের একটু কম দিছেন সেই খুশিতে বগল বাজাই !!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *