মেকিং অফ দ্য গড

মধ্যপ্রাচ্য , পৃথিবীর প্রায় সকল ধর্মের উত্‍পত্তিস্থল । ইসলাম , খ্রিষ্টান বা ইহুদী ধর্মের মত মূল ধর্মগুলো হোক বা অধুনালপ্ত সেমিটিক প্যাগান ও অন্যান্য ধর্মই হোক , ধর্ম উত্পাদনের ক্ষেত্রে মধ্যপ্রাচ্য বরাবরই উর্বরা । অনেকে বলবেন হিন্দু বা সনাতন ধর্মের কথা । কিন্তু তারাও আর্য উদ্ভুত জাতি । অর্থাত্ মধ্যপ্রাচ্যীয় ।

কিন্তু যাবতীয় ধর্ম ঐ এক জায়গাতেই কেন ? ফিলিস্তিন থেকে ইরান পর্যন্ত , কি এমন আছে সেখানে যে হাজার বছর এর ব্যাবধানেও ধর্ম গুলোর মোদ্দা কথা এক ??


মধ্যপ্রাচ্য , পৃথিবীর প্রায় সকল ধর্মের উত্‍পত্তিস্থল । ইসলাম , খ্রিষ্টান বা ইহুদী ধর্মের মত মূল ধর্মগুলো হোক বা অধুনালপ্ত সেমিটিক প্যাগান ও অন্যান্য ধর্মই হোক , ধর্ম উত্পাদনের ক্ষেত্রে মধ্যপ্রাচ্য বরাবরই উর্বরা । অনেকে বলবেন হিন্দু বা সনাতন ধর্মের কথা । কিন্তু তারাও আর্য উদ্ভুত জাতি । অর্থাত্ মধ্যপ্রাচ্যীয় ।

কিন্তু যাবতীয় ধর্ম ঐ এক জায়গাতেই কেন ? ফিলিস্তিন থেকে ইরান পর্যন্ত , কি এমন আছে সেখানে যে হাজার বছর এর ব্যাবধানেও ধর্ম গুলোর মোদ্দা কথা এক ??

আমরা একটু খেয়াল করলেই একটা জিনিস দেখতে পাই , তা হল ফেরেশতা বা এন্জেল দের নাম । জিব্রাইল বা গ্যাব্রিয়েল , মিকাঈল বা মাইকেল , ইসলাম আর ইহুদী খ্রিষ্টান ধর্মেরস্বর্গীয় নাম গুলো একই । যেমন , আগেই দুটো বলেছি , তাছাড়া ইলাহ – এলোহিম , ইসহাক – আইজ্যাক , হারুন – এরোন , ইসা – যিসাস . ইব্রাহিম – আব্রাহাম , ইউসূফ – যোসেফ , সাহারা – সারাহ …… একই নাম , উচ্চারণ ভিন্ন । অর্থাত্‍ এগুলো একই সূত্রে গাঁথা । আর ধর্মীয় গ্রন্থগুলোতে তা নবুয়্যাত বা প্রোফেসি নামে পরিচিত । কিন্তু আসলেই কি তাই ?

মূসা বা মোসেস আমাদের পরিচিত একজন ধর্ম প্রচারক । ইহুদী বা যিউরা তার অনুসারী । ওল্ড টেস্টামেন্ট , যা তৌরাত নামে পরিচিত , তা হল তার কথিত , ঐশ্বরিক গ্রন্থ । ওল্ড টেস্টামেন্ট যারা পড়েছেন তারা জানেন , এখানে অসংখ্যবার বাআল দেবতার উল্লেখ আছে । কিন্তু কে এই বাআল যাকে ঈশ্বরের শত্রু হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে ?

যে জাতিকে ধ্বংস করে ইহুদীরা পৃথিবীতে ধর্ম ব্যবসা কে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছিল তারা হল কেনানীয় । অথচ আশ্চর্যের বিষয় ঐ কেনানীয়দের দেবতাকেই ইসলাম ইহুদী আর খ্রিষ্টানরা পূজা দিচ্ছে !! কেনানীয় মিথ অনুযায়ী , EL ( এল / আল / ইল ) হল কেনানীয়দের প্রধান দেবতা । সকল দেবতার সেরা ।তিনি হলেন সকল সৃষ্টির স্রষ্টা । তার সম্পর্কে জানুন : এল অথবা http://en.wikipedia.org/wiki/El

বাআল হলেন এলের একজন সহযোগী । এল বা ইল হলেন বর্তমান ধর্মগুলোর ভিত্তি । খ্রিষ্টান আর ইহুদী ধর্মে দেখুন : ELohim , gabriEL , michaEL , shamaEL , rafaEL এল কে সর্বত্র দেখতে পাবেন । আবার আরব সংস্কৃতিতে এ উচ্চারণ হয় ই , তাই দেখুন : ILah , jibraIL , mikaIL , israfIL , ajraIL …….

কুরানে বাইবেলে সর্বত্র অগ্নি উপাসক কেনানীয় বেদুঈন দের কাফের বা pagan বলা হয়েছে , অথচ নিজেরাই তা শৈল্পিক ভাবে চুরি করে হাজার বছর ধরে ব্যাবহার করছে !

১২ thoughts on “মেকিং অফ দ্য গড

  1. চমৎকার কিছু তথ্য পেলাম।
    চমৎকার কিছু তথ্য পেলাম। লিখাটা আরো বড় করলে খুব ভালো হত। আরেকটু সাজানো গোছানো লিখা আশা করছি এই টপিকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *