আমি কারো সন্তান নই; স্বাধীন অস্তিত্ব—

আমি কারো সন্তান নই। আমি একটা পুরুষের শুক্রাণু একটা নারীর ডিম্বাণুর সাথে মিলিত হয়ে নিষিক্ত হবার পরে গর্ভে ভ্রুন থেকে পরিনতির প্রথম ধাপ অতিক্রম করে বেড়িয়ে আসা শিশু থেকে বহুপরিক্রমা পার করে আজকের পরিনতির এ অবস্থান। আমার অস্তিত্ব হীনতায় আমার কোন হাত ছিল না।আমার অস্তিত্বের সৃষ্টির সিদ্ধান্তও আমি নেই নি।এবং যাদের সতস্ফুর্ত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সঙ্গমের ফলে আমার অস্তিত্বের শুরু। তারা ওই সতস্ফুর্ত সিদ্ধান্ত ও ক্রিয়ার দুটি পক্ষ এবং আমার সৃষ্টির পেছনে তাদেরও কারো হাত নেই। ওই দুটি পক্ষের মধ্যে পিতৃতান্ত্রিক ক্ষমতায়নের জন্য যদি নারী পক্ষ পরাজিত ও অধিনস্ত থাকে, অনুরুপ মাতৃতান্ত্রিক ক্ষমতায়নের ফলে যদি পুরুষ পক্ষ পরাজিত ও অধিনস্ত হয় ; এমনতর সামাজিক প্রেক্ষাপট থাকতে পারে, কিন্তু শুক্রাণু ও ডিম্বাণুর মধ্যে কোন ক্ষমতার দ্বন্দ্ব নেই,জয়-পরাজয় নেই, অধিকারী ও অধিনস্ততাও নেই। সম্পুর্ন স্বাধীন দুটি পক্ষের স্বাধীন সংক্রমণ। সেখান থেকেই আমার স্বাধীন অস্তিত্বের শুরু। এবং অবশ্যই ওই স্বাধীন দুটি পক্ষের অর্থাৎ শুক্রাণু ও ডিম্বাণুর সম্মিলন ক্রিয়ায় কোনরূপ সাকার বা নিরাকার কোন কর্তা নেই বলেই তাঁরা স্বাধীনভাবে ঘটিত ও পরিনত । তাই আমার অস্তিত্বও স্বাধীন, স্রষ্টাহীন এবং কারো সন্তানও নয়। এখানে বলে রাখা ভাল,সন্তান ব্যাপারটাই হচ্ছে অধিনস্ততার,যার ইশ্ব্রর বা মালিক থাকে। তাই পিতা-মাতা এই শব্দগুলোও প্রভুত্ব সিকৃতিসুলভ।

“সন্তান” শব্দের আভিধানিক অর্থ খুঁজতে গিয়ে—
“সন্ত” (He) অর্থ “সাধু”, [অর্থাৎ যার “স্ব” এর মধ্যেই অন্ত বা শেষ, ফলে সাধু কে নিষ্কাম হতে হয় । ]
“সন্তত” শব্দের অর্থ — ব্যাপ্ত,বিস্তীর্ণ, নিরন্তর, অবিচ্ছিন্ন; [ অর্থাৎ “স্ব” এর পর অন্তত কিছু থেকে যাওয়া বা কন্টিনিউয়াস বা বংশবিস্তার। ]
“সন্ততি” শব্দের অর্থ— সন্তান, অপত্য,ব্যাপ্তি,অবিচ্ছেদ, শ্রেণী; [ অর্থাৎ কন্টিনিউম বা বংশধারা। ]
“সন্তান” শব্দের আভিধানিক অর্থ — অপত্য, পুত্র/কন্যা, ব্যাপ্তি,অবিচ্ছেদ । [অর্থাৎ বংশের উত্তরাধিকার বা ওয়ারিশ ]

অর্থাৎ, এই “সন্তান” শব্দের “স্ব” সামগ্রীক অর্থে বা সমগ্র মানবজাতীর অর্থে না (যদি লেখা হয় “আমি মানবজাতীর সন্তান” ,তাহলে আভিধানিক অর্থে যা বোঝানো হয় তা শুধু পুরুষের উত্তরাধিকার নির্দেশ করে) বরং একটা অংশের বা পুরুষার্থে এমন কি তাও না অধিকন্তু ব্যাক্তিপুরুষার্থে। “সন্তান” মানে হচ্ছে কোন ব্যাক্তিপুরুষের বংশানুক্রমিক উত্তরাধিকার। একবার ভাবুন “সন্তান” শব্দটা কতটা পুরুষতান্ত্রিকতায় বা পিতৃতান্ত্রিকতায় দূষিত। আর “সন্তান” শব্দটার মধ্যে তাই অধিনস্ততার বা কাউকে প্রভুত্ব সীকার করার একধরনের সীকৃতি সমর্পণ পরাজয় ও পরাধীনতা আছে এবং তা ভাবাটা অমূলকও নয়।

পরিশিষ্টে:— সন্তান শব্দটা অধিনস্ততার দুর্গন্ধ যুক্ত, আর সকল অধিনস্ততাই বর্জনীয়। —

সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ :: জন্মনিয়ন্ত্রিকরণ শুক্রাণু ও ডিম্বাণুর স্বাধীনতা খর্বকারক নয়।

বি:দ্র: শব্দের অর্থ জানতে ” চলন্তিকা আধুনিক বঙ্গভাষার অভিধান” ব্যাবহৃত।

১৮ thoughts on “আমি কারো সন্তান নই; স্বাধীন অস্তিত্ব—

  1. কহলিল জিবরানের এ নিয়ে একটি
    কহলিল জিবরানের এ নিয়ে একটি প্রবচন আছে। অনেকটা একরম– “তোমার সন্তানেরা তোমার হলেও আসলে তোমার নয়।”

  2. এরকম হবে ভাবিনি!আমার প্রথম
    এরকম হবে ভাবিনি!আমার প্রথম টিউশনির আয়ু মাত্র এক সপ্তাহ।চারটি দিন পড়াতে পেরেছিলাম।দু’টো মেয়েরই লক্ষ্য ছিল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে পড়বে।এদের একজন ধর্মীয় দিক থেকে বৌদ্ধ,আরেকজন মুসলিম।মুসলিম মেয়েটির পরিবারে ওই-ই এতদুর(উচ্চ মাধ্যমিক) পড়াশোনা করতে পেরেছে।বাপের আছে অনেক টাকা।কিন্তু মেয়েটির পড়াশোনাকে কোনো গুরুত্ব দিতে নারাজ সে।এখনই বিয়ে দিতে হবে!আছে অনেক লিংক বাঁধিয়ে দেওয়া আত্মীয়স্বজন।তারা সম্বন্ধ নিয়ে আসে আগে থেকে কিছু না জানিয়েই।আজকে থেকে মেয়েটির বাইরে বের হওয়া বন্ধ।কত হাসিখুশি দেখেছি মেয়েটিকে!হাসির আড়ালে যে অনিশ্চয়তা লুকিয়ে ছিল তা আমার চোখে পড়েনি।আজকে তাকে মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে ‘পা লম্বা হয়ে গিয়েছে’ ইত্যাদি বলে বলে। সে আর কতদূর যেতে পারবে কে জানে!বৌদ্ধ মেয়েটির সাথে এ নিয়ে কথা বলবার সময় মনে হচ্ছিল আমি অনিচ্ছা সত্ত্বেও ফিরে গিয়েছি ব্রিটিশ আমলে।
    ওই মেয়েটি না পড়ায় বৌদ্ধ মেয়েটিও পড়বে না আর্থিক সমস্যার কারণে।বৌদ্ধ মেয়েটিরও রয়েছে অনেক সমস্যা।তার পিতা জানিয়ে দিয়েছে যে ব্যয়বহুল ফর্মের দাম মেয়েটিকে অর্ধেক দিতে হবে।আমার কাছে টাকা ছাড়াই পড়তেও তার দ্বিধা।নিজে নিজে খেটে পরীক্ষা দেবে ওই লড়াকু মেয়েটি।অনেক দূর যাক ও–এই কামনা করি।পেরিয়ে যাক সকল বাধা।

  3. চমৎকার দর্শন… চিন্তা এবং
    চমৎকার দর্শন… চিন্তা এবং উপস্থাপন উভয়ই অনবদ্য…
    :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :বুখেআয়বাবুল: :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ: :রকঅন: :রকঅন: :রকঅন: :রকঅন: :রকঅন:

  4. তবে এমন সত্য ভাষণের জন্য
    :খাইছে: :খাইছে: :খাইছে: :খাইছে: :খাইছে: :খাইছে: :খাইছে: :খাইছে:
    তবে এমন সত্য ভাষণের জন্য :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

Leave a Reply to পাভেল দেওয়ারী Cancel reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *