ছোট ছোট দুঃখ

পরের দিনই ছেলেটি তার জীবনের ৯ম বর্ষায় পদার্পণ করতে যাচ্ছে । তাই সে ছোট একটি আবদার করেছে , সে কেক কাটবে । কিন্তু ছেলেটির পরিবারের জন্যে কেক কেনা বিলাসিতার সমতুল্য । ৮ বছর বয়সি শিশুর মন তো আর অর্থাভাব বুঝে না । তাই সেই ছোট্ট মনটি কেদেই যাচ্ছে । তার মা বলেছে তাকে কিছু মিষ্টি কিনে দিবে । না , সে এসব বুঝতে চায় না । তার কেক চাই । জন্মদিনের কেক । অবশেষে ছেলেটির মামা ঠিক করল , তার ভাগ্নের জন্মদিনে সে একটা জন্মদিনের কেক গিফ্ট করবে । পরের দিন , অর্থাত্‍ জন্মদিনের দিন বাচ্চা ছেলেটা মহাখুশী । আজ সে কেক কাটবে । কেক কাটার জন্যে অধীর আগ্রহে বসে আছে । অতপর সন্ধ্যায় অপেক্ষার প্রহর শেষ হল । তার মামা কেক নিয়ে আসলো । তার মা মিষ্টি নিয়ে আসলো । অতি সাধারণ একটি কেক এবং কিছু মিষ্টি দিয়ে তার জন্মদিন পালন করা হল । বাচ্চা ছেলেটি এতেই মহাখুশী । যেন আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছে ।

এর কিছু দিন পরেই বাচ্চা ছেলেটির মামাতো ভাইয়ের জন্মদিন । বাচ্চা ছেলেটি উপলব্ধি করল যে , ওর মামাতো ভাইয়ের জন্মদিনের কেকটা আকারে অনেক বড় । এবং কেকের পাশাপাশি শুধু মিষ্টি না , আরও বিভিন্ন ধরনের খাবারের আয়োজন করা হয়েছে । তবে ঐসব খাবার নিয়ে তার মাথা ব্যাথা নেই । সে একদৃষ্টিতে কেকটির দিকে তাকিয়ে আছে । হঠাত্‍ কিছু সুখ স্মৃতি তার মনকে নাড়া দিয়ে গেলো । যখন তার বাবা জীবিত ছিল । তখন তার জন্মদিনও অনেক ধুমধাম করে পালন করা হতো । এখন তার বাবা নেই , তার বড় কেকও নেই । সে একরাশ হতাশায় ডুবে গেলো ।

ছোট ছোট মনের স্বপ্ন গুলো ছোট ছোট । যদি তাদের দুঃখ গুলোও ছোট ছোট হতো !!!

৩ thoughts on “ছোট ছোট দুঃখ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *