বলে কি আর লাভ ?

ইন্ডিয়ান মিউজিক ভিডিও গুলা এক কথায় অশ্লীল । এক কথায় বললাম , কারণ কথা ঘুরায় পেচায় বলার অভ্যাস আমার নাই (ছাগু মার্কা অভ্যাস না থাকাই ভালো) ।

হ্যা , হলিউডি গুলা যে খুব শ্লীল তা না । কিন্তু সেটা তাদের কাছ থেকে অপ্রত্যাশিত না । আমাদের সংস্কৃতির সাথে অদেরটার বিশাল পার্থক্য । সেই হিসেবে ইন্ডিয়ান কালচাল কিন্তু এতটা অসভ্য ছিল না । আর হলিউডি মুভির ক্ষেত্রে অশ্লীল কথাটা খুব একটা খাটেও না বলা যায় । কারন ওদের দেশের পোষাক-আশাক বহু আগে থেকেই এমন । তাই এটা ওদের জন্য নরমাল । মুভিতে যেমন দেখায় , রাস্তা ঘাটে এবং পারিবারিক দিক থেকেও একদম সেইম ই দেখা যায় ।


ইন্ডিয়ান মিউজিক ভিডিও গুলা এক কথায় অশ্লীল । এক কথায় বললাম , কারণ কথা ঘুরায় পেচায় বলার অভ্যাস আমার নাই (ছাগু মার্কা অভ্যাস না থাকাই ভালো) ।

হ্যা , হলিউডি গুলা যে খুব শ্লীল তা না । কিন্তু সেটা তাদের কাছ থেকে অপ্রত্যাশিত না । আমাদের সংস্কৃতির সাথে অদেরটার বিশাল পার্থক্য । সেই হিসেবে ইন্ডিয়ান কালচাল কিন্তু এতটা অসভ্য ছিল না । আর হলিউডি মুভির ক্ষেত্রে অশ্লীল কথাটা খুব একটা খাটেও না বলা যায় । কারন ওদের দেশের পোষাক-আশাক বহু আগে থেকেই এমন । তাই এটা ওদের জন্য নরমাল । মুভিতে যেমন দেখায় , রাস্তা ঘাটে এবং পারিবারিক দিক থেকেও একদম সেইম ই দেখা যায় ।

বলিউড বাসিন্দারা এই জিনিসটা খুব smoothly তাদের চলচ্চিত্রে নিয়ে আসল । তারা প্রথমেই খুব সংক্ষিপ্ত কাপড়ে গেলো না । অনেকটা slow poisoning এর মতো । একটু হিসেব করলেই টের পাওয়া যায় । বলিউডি মুভিতে সংক্ষিপ্ত কাপড়ের বদলে প্রথমে আসল ঝাকাঝাকি । দেহটাকে সংক্ষিপ্ত কাপড়ে ঢাকা টা যতটা অশ্লীল , তার চাইতে এই জিনিসটা অনেক বেশী অশ্লীল , কিন্তু যতক্ষণ শরীরে কাপড় আছে , ততক্ষণ ব্যাপারটাকে অশ্লীল বলা যায় না – এটা মোটামুটি ভাবে গ্রহণযোগ্য একটা যুক্তি ।

এখন অবশ্য শরীর ঝাকাঝাকি আর সংক্ষিপ্ত পোশাক – দুইটা এক ই সাথে চলে । কে আর কী বলবে ? আমাদের ছোট বেলায় টিভিতে যে ধরনের দৃশ্য দেখালে চ্যানেল চেঞ্জ করতাম সাথে সাথে , সে ধরনের দৃশ্য তো এখন নেহাৎ ছেলেখেলা । আজকে এক বিয়ার অনুষ্ঠানে টিভি তে যে সব “জিনিস” দেখাচ্ছিল – সেটা আমার কাছে প্রচন্ড রকমেরই অশ্লীল বলে মনে হইল । যারা ছিল ,তাদের ৯০% ই এডাল্ট , অথচ কেউ চ্যানেল্টা চেঞ্জ করতে উদ্দ্যোগী হল না । মোটামোটি সবাই দেখলাম বেশ আয়েশে বসে বসে “গিলতেছে” ।

এক পিচ্চি পোলায় আমারে জিগায় , ভাইয়া “change” মুভিটা দেখছেন ? আমি তাকায়া দেখলাম আগের মতোই একটা অশ্লীল ভিডিও চলতেছে । আমি বললাম – না ভাইয়া , আমি হিন্দি ছিনেমা দেখি না । বাচ্চাটা ক্লাস ফোর এ পড়ে । চেহারা থেকে নিষ্পাপ ভাবটা এখনো যায় নাই । আহারে ভাই , কি সুন্দর ভাবেই না ব্যাপারগুলো তোমার মাথায় “খুব স্বাভাবিক” হিসেবে গেঁথে দেয়া হলো ।

এসব কথা বইলা কোনো লাভ নাই , জানি । খুব বেশী হইলে ১০ টা লাইক পাব ? হ্যা ? আমার ফ্রেন্ড লিস্টের অনেকেই হয়তো এরকম কোন “মিউজিক ভিডিউ” দেখা থামিয়ে একটা লাইক দিয়ে আবার দেখা শুরু করবে । আমি তো আর তাদের হিন্দি মুভি-সিরিয়াল দেখানো থামাতে পারবো না । তবু লিখলাম । যতদিন তেল আছে , লিখব । খারাপ কিছু হাত দিয়ে থামাতে পারবার ক্ষমতা নাই , প্রতিবাদ টুকু করলাম । আসলে খুব ভালো হয় পৃথিবিটা শেষ হয়ে গেলে , এই পৃথীবিতে থাকাটা দিন দিন অসহ্য হয়ে উঠতেছে ।

৯ thoughts on “বলে কি আর লাভ ?

  1. সেই হিসেবে ইন্ডিয়ান কালচাল

    সেই হিসেবে ইন্ডিয়ান কালচাল কিন্তু এতটা অসভ্য ছিল না

    ইন্ডিয়ান কালচার বলে প্রকৃতপক্ষে আলাদা কিছু নেই। আছে পাঞ্জাবি কালচার,মারাঠি কালচার,বাঙালি কালচার,গুজরাটি কালচার ইত্যাদি। এখন মূলত বলিউডের কালচারকেই ইন্ডিয়ান কালচার বলে মার্কেটিং করা হচ্ছে।

  2. ফেসবুকে যতটা ইশটাটাশ লিখবেন
    ফেসবুকে যতটা ইশটাটাশ লিখবেন তার সবকটি ব্লগেও লিখুন ।এরকম লিখতে লিখতে একদিন বলগ ফেসবুক এক হয়ে যাবে ।কি আনন্দ!!

    1. ফেসবুকে যতটা ইশটাটাশ লিখবেন

      ফেসবুকে যতটা ইশটাটাশ লিখবেন তার সবকটি ব্লগেও লিখুন ।এরকম লিখতে লিখতে একদিন বলগ ফেসবুক এক হয়ে যাবে ।কি আনন্দ!!

      :মানেকি: :মানেকি: :মানেকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :ক্ষেপছি:

      বার বার বুঝিয়ে বলার পরেও কিছু জনাব/জনাবা কেন এই সহজ বিষয়টি বুঝতে পারছেন না, সেইটা আমার ক্ষুদ্র মস্তিস্কে ঢুকতেছে না। ফেসবুকে মানুষ তাৎক্ষনিক মতামত দেয়, তাই সেটা ছোট হওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু ব্লগে আপনি যখন সেটা আলোচনা করতে চাবেন, তখন স্বভাবতই মানুষ একটু বিস্তৃত আলোচনা দেখতে চায়। নইলে ব্লগ আর ফেসবুকের মধ্যে পার্থক্যটা কি থাকল??? :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: আপনার বিষয়টা যথেষ্ট সময়উপযোগী ও গুরুত্বপূর্ণ, সুতরাং আপনার কাছ থেকে একটা তথ্যবহুল ও বিস্তৃত আলোচনা আসা করতেই পারি বাচাল ভাই… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: দয়া করে ফেবু ইসটেটাগুলো ব্লগে সরাসরি কপি-পেস্ট করবেন না :-B :থাম্বসডাউন: :থাম্বসডাউন: … অনুরোধ থাকলো… :মাথাঠুকি:

      1. কিছুটা এডিট করার দরকার ছিল ।
        কিছুটা এডিট করার দরকার ছিল । তবে আমি তো আর সব ধরনের স্ট্যাটাস পেস্ট মারতিছি না । মনে হইল কিছুটা বিস্তৃত ভাবেই যেহেতু লিখছি , তাই দিয়া দেই ।

  3. যারা ছিল ,তাদের ৯০% ই এডাল্ট

    যারা ছিল ,তাদের ৯০% ই এডাল্ট , অথচ কেউ চ্যানেল্টা চেঞ্জ করতে উদ্দ্যোগী হল না । মোটামোটি সবাই দেখলাম বেশ আয়েশে বসে বসে “গিলতেছে” ।

    এক পিচ্চি পোলায় আমারে জিগায় , ভাইয়া “change” মুভিটা দেখছেন ? আমি তাকায়া দেখলাম আগের মতোই একটা অশ্লীল ভিডিও চলতেছে । আমি বললাম – না ভাইয়া , আমি হিন্দি ছিনেমা দেখি না । বাচ্চাটা ক্লাস ফোর এ পড়ে । চেহারা থেকে নিষ্পাপ ভাবটা এখনো যায় নাই । আহারে ভাই , কি সুন্দর ভাবেই না ব্যাপারগুলো তোমার মাথায় “খুব স্বাভাবিক” হিসেবে গেঁথে দেয়া হলো ।

    পাশ্চাত্যে তো বিভিন্ন মুভির রেটিং করে দেওয়া হয়।এটা বড়দের দায়িত্ব যে বাচ্চারা কী দেখছে না দেখছে তার দিকে খেয়াল রাখা।আর বড়দের মুভি যে কোনো সময়ে দেখানো হয় না।এইচবিও-তে তো যথেষ্ট কাট করে সব দেখানো হয়। স্টার মুভিজও একই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *