এক মাস্তানের ভালবাসার গল্প পর্ব ১

জমির ভাই নতুন পাঞ্জাবি পরেছেন। ঈদেরদিন সবাই পড়ে তিনি তার ব্যাতিক্রম নন।তিনিও পরেছেন। খয়েরি রঙ্গের পাঞ্জাবি। ২৫০০ টাকা দিয়ে কিনেছেন। খয়েরি নাকি মেয়েদের
পছন্দ। তিনি জানতেন না তার শাঙ্গু দুলাল বলেছে। দুলাল অনেক চালাক ছেলে।মেয়েদের সাথে ভালো কথা বলতে জানে।

জমির ভাই নতুন পাঞ্জাবি পরেছেন। ঈদেরদিন সবাই পড়ে তিনি তার ব্যাতিক্রম নন।তিনিও পরেছেন। খয়েরি রঙ্গের পাঞ্জাবি। ২৫০০ টাকা দিয়ে কিনেছেন। খয়েরি নাকি মেয়েদের
পছন্দ। তিনি জানতেন না তার শাঙ্গু দুলাল বলেছে। দুলাল অনেক চালাক ছেলে।মেয়েদের সাথে ভালো কথা বলতে জানে।
তাই তুলির ব্যাপারটা তাকে বলেছে। বলে ভালোয় করেছেন। দুলাল তাকে নতুন একটি বুদ্ধি দিয়েছে । তুলি বাসায় যাওয়ার বুদ্ধি। বুদ্ধিটি খারাপ না। ঈদের দিন যাওয়া যায়। কেউ বাড়িতে আসার কারণ জিগ্যেস করবে না। তাই তিনি সেজেছেন।দামি সেন্ট ও মেখেছেন । দামি সেন্ট তিনি কিনেন নি দুলাল দিয়েছে। নাম নাকি ” এক্স”। এই সেন্ট দিলে মেয়েরা নাকি আসে পাশে ঘুরঘুর করে। জমির ভাই চান না দশ বারোটা মেয়ে তার পিছনে ঘুরুক।তুলি ঘুড়লে যথেষ্ট।জমির ভাই সেন্টের বোতলটি হাতে নিয়ে আরো কিছুটা মাখলেন।

তুলির মাথার মেজাজ বিগড়ে আছে। ড্রইংরুমে জমির ভাই বসে আছেন। জমির ভাই আসাতে তার ভালোয় লাগছে। ভালোবাসার মানুষ বাসায় আসলে ভালো লাগারই কথা ।কিন্তু মেজাজ খারাপ হয়েছে জমির ভাইয়ের পাঞ্জাবি দেখে। দুনিয়াতে কি রঙ্গের অভাব পরেছিল যে উনি খয়রি রঙ্গের পাঞ্জাবি কিনেছেন ?দেখতে কেমন খেত খেত লাগছে।তুলির ধারণা এটি জমির ভাইয়ের শাঙুটার আইডিয়া । নিশ্চয়
শাঙুটা এই পাঞ্জাবি কিনতে বলেছে। তুলি ঠিক করেছে জমির ভাইকে ঝাড়ি দিবে। শাসন করবে। ভালোবাসার মানুষকে শাসন করা যায়। তুলি সেমাই নিয়ে ড্রইং রুম প্রবেশ করল ৷

জমির ভাইয়ের হাঁটু কাঁপছে। সামনে তুলি বসে “আছে।তিনি চেষ্টা করছেন হাঁটু কাপা বন্ধ করতে কিন্তু পারছেন না।এতো বড় মাস্তান হয়ে কেনো তুলিকে দেখলে হাঁটু কাঁপে জমির ভাই বুঝতে পারেন না ।পাশে দুলাল বসে আছে। দুলাল দেখলে প্রেস্টিজ থাকবে না ‼

– সেমায় কেমন হয়েছে বললেন না তো ?
– অনেক ভালো হয়েছে এতো মজার সেমায় আগে খাই নি !!
– তাই
– হা
– মিষ্টি হয়েছে
– হা , একে বারে মধুর মতো
– আপনর হাঁটু কাঁপছে কেনো ?

জমির ভাই ইলেক্ট্রিক শক খাওয়ার মতো নড়ে উঠলেন । তুলি তাকে দেখছে তিনি বুঝেন নি।তার বুক ধক ধক করা শুরু হয়েছে ৷

– কই কাঁপছে না তো
– উহু , কাঁপছে আপনি মিথ্যা বলছেন ,আপনি এখানে বসে দুটো মিথ্যা কথা বলেছেন মিথ্যুক লোকদের আমি পছন্দ করিনা।
– কি মিথ্যা কথা ?
– প্রথমটা হল আপনার হাঁটু কাঁপছে কিন্তু আপনি তা মানছেন না
– ও
– আর দ্বিতীয়টা হচ্ছে সেমাইতে মিষ্টি হয়নি। আমি চিনি দেয়নি। অথচ আপনি বলেছেন,মধুর
মতো মিষ্টি হয়েছে !!

জমির ভাই আরো বড় শক খেলেন। তার মাথা ঘুড়া স্টার্ট হয়েছে। তার ইচ্ছা হচ্ছে দরজা খুলে পালাতে। কিন্তু দরজাকোন দিকে তা ভেবে পাচ্ছেন না

– চুপ করে আছেন কেনো?
– এমনিতে
– আপনার হাতে কি ?
– তোমার খরগোশের জন্য মাল আনছিলাম!
– মাল মানে ?
– না , মানে খাবার
– হুম , মাস্তান্দের ভাষা আমার ভাল লাগে না। এগুলো আর বলবেন না ।
– আচ্ছা

জমির ভাইয়ের নিজের উপর রাগ লাগছে। বিরাট ভুল করেছেন এখানে এসে ৷

– আমি এখন উঠি
– আচ্ছা , আর শুনেন এখন থেকে আর খয়রি রং পড়বেন না। খয়রি রং আমি পছন্দ করি না।
– আচ্ছা ।
– টিক আছে যান। ঈদ মুবারক
জমির ভাই দ্রুত গতিতে সিড়ি দিয়ে নামছেন। নাকে সেণ্টের ঘ্রান আসছে। সেন্টের ঘ্রান এখন আর সুঘ্রান ছড়াচ্ছে না।আতরের ঘ্রান বের হচ্ছে । আতরের ঘ্রান জমির ভাইয়ের সহ্য হয় না । তার মাথা ঘুড়ায়। জমির ভাই মনে প্রাণে চেষ্টা করছেন ঠিক থাকতে মাথা ঘুড়ে পরে গেলে তার মাস্তানের টাইটেল থাকবে না …… -_-

৭ thoughts on “এক মাস্তানের ভালবাসার গল্প পর্ব ১

  1. ছোট্র হলেও বেশ মজার গল্প ।
    এই

    ছোট্র হলেও বেশ মজার গল্প ।
    এই লাইনটা পড়ে হাসি থামাতে পারতাছি না… তার ইচ্ছা হচ্ছে দরজা খুলে পালাতে। কিন্তু দরজা কোন দিকে তা ভেবে পাচ্ছেন না ।

      1. গল্পটা যে পর্ব করে লিখা তা
        গল্পটা যে পর্ব করে লিখা তা আগে খেয়াল করিনি ।যাইহোক, পরবর্তী পর্বটা যত তাড়াতাড়ি পারেন পোস্টাইয়েন ।অধীর আগ্রহে বসে রইলাম…

  2. সমালোচনা: রম্যগল্প হিসেবে
    সমালোচনা: রম্যগল্প হিসেবে সুন্দর। তবে এই গল্পের চরিত্রগুলোর কিভাবে দেখা বা সাক্ষাৎ হল তার কিছুই জানান নি। গল্পের প্রথম পর্ব হিসেবে মনে হল হঠাৎ করেই গল্প শুরু হয়ে গেছে।

    ক্রেডিট: গল্পটি পড়ে সৃজনশীল মনে হল। আপনি কয়েকটি জায়গাতে হাস্যরস তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। এবং রম্যের দৃষ্টিকোণ হতে এক রকম সফল হয়েছেন।

    কানে কানে কথা: আশা করি দ্বিতীয় গল্প আরো ভালো হবে। নতুন হিসেবে শুভকামনা রইলো।

    1. সর্বপ্রথম আপনাকে ধন্যবাদ আমার
      সর্বপ্রথম আপনাকে ধন্যবাদ আমার ভুলটি ধরেছেন। এটির আরেকটি পার্ট আছে অনেক আগের লিখা। নোট করে রাখতে পারেনি তাই পর্বটি হারিয়ে ফেলেছি। দুঃখিত তার জন্য

  3. আপনাকে সর্বপ্রথম ইস্টিশনে
    আপনাকে সর্বপ্রথম ইস্টিশনে স্বাগতম জানাচ্ছি।

    ভাল লেগেছে। মজার গল্প ইলেক্ট্রন ভাই/বোন আমার মন্তব্য করে দিয়েছে। আমি একটা যোগ করলাম পর্ব করবেন সেই ক্ষেত্রে এটা একটা গল্প অনু গল্প নয়।
    আর

    1. প্রথম সাজেশন জন্য ধন্যবাদ
      প্রথম সাজেশন জন্য ধন্যবাদ নেক্সট টাইম খেয়াল রাখব।

      আর পরের প্রশ্নের উত্তর বিগত ৩ বছর যাবত ভাবাচ্ছে আমকে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *