অনুগল্প – যৌনাবেগ – নতুন দুলাভাই এবং …

(ক)

সরফরাজ রীতিমতো ঘামছে । তার মাথায় কেবলমাত্র একটি বাক্য ডিগবাজী দিচ্ছে ।
“ কি খেইল দেখাইলেন গো মমিনসাব ! উত্তেজনায় ঘামাইয়া গেছি “

বর্তমানে দেশে মমিন একটা জাতীয় নিক হলেও ( “ কস্কি মমিন “ থেকে উদ্ভব ) সরফরাজের কাছে মমিন নামের আলাদা মাজেজা আছে । সরফরাজের পিতার নাম মমিন । সম্পূর্ণ নাম মমিনুল হক । সরফরাজ আজ যতবার তার পিতাকে দেখছে ততবার বলছে
– “ কি খেইল দেখাইলেন গো মমিনসাব ! উত্তেজনায় ঘামাইয়া গেছি “
সরফরাজ এই কথা বলছে ফিসফিসিয়ে । কিছু সময় অন্তর অন্তর তার হাতের রুমাল নাকে চেপে এই কথা আবৃতি করছে ।

নিজের বাবাকে কেন তিনি এই কথা বলছেন !


(ক)

সরফরাজ রীতিমতো ঘামছে । তার মাথায় কেবলমাত্র একটি বাক্য ডিগবাজী দিচ্ছে ।
“ কি খেইল দেখাইলেন গো মমিনসাব ! উত্তেজনায় ঘামাইয়া গেছি “

বর্তমানে দেশে মমিন একটা জাতীয় নিক হলেও ( “ কস্কি মমিন “ থেকে উদ্ভব ) সরফরাজের কাছে মমিন নামের আলাদা মাজেজা আছে । সরফরাজের পিতার নাম মমিন । সম্পূর্ণ নাম মমিনুল হক । সরফরাজ আজ যতবার তার পিতাকে দেখছে ততবার বলছে
– “ কি খেইল দেখাইলেন গো মমিনসাব ! উত্তেজনায় ঘামাইয়া গেছি “
সরফরাজ এই কথা বলছে ফিসফিসিয়ে । কিছু সময় অন্তর অন্তর তার হাতের রুমাল নাকে চেপে এই কথা আবৃতি করছে ।

নিজের বাবাকে কেন তিনি এই কথা বলছেন !

তার কারণ মমিনুল হক এই বছর হজ্বে যাচ্ছেন । হজ্বে যাওয়ার আগে তিনি তার একমাত্র পুত্রের বিয়ে পড়িয়ে দিতে চান । সেই উদ্দেশ্যে তিনি পুত্রের জন্য পাত্রী দেখা শুরু করেন । কিন্তু সরফরাজের নিজের বাবার রুচির প্রতি ছোটকাল থেকেই চরম অবিশ্বাস ।
ছোটবেলার ঈদে যতবার মমিনুল হক সরফরাজের জন্য জামা কিনে এনেছেন ততবার সরফরাজ কেঁদে কুঁদে ঈদের জামাত পড়তে গিয়েছে । কারন একবারও বাবার পছন্দের ঈদ জামা তার পছন্দ হয়নি ।

তো যেই বাবা তার পুত্রের জন্য ঈদের জামাটাই চয়েজ করতে পারেন না , তিনি কখনোই সেই পুত্রের মনের মতো পছন্দের পাত্রী খুঁজে বের করতে পারবেন না । হিসাব সহজ এবং তরল ।
কিন্তু সরফরাজ টাস্কিত । অরুচিবান মমিনুল হক পুত্রের জন্য পরী নিয়ে আসলেন । পাত্রী মমিনুল হকের অফিস সহকর্মী ইব্রাহিম খলিলের বড় মেয়ে । দেখতে অপরুপা । পূর্বধলা ডিগ্রি কলেজে পড়ে । খুব সাংসারিক । পরহেজগার । সেলাইয়ের কাজ জানে । শোনা যায় কম্পিউটার চালাতেও নাকি এক্সপার্ট !

আর এইদিকে পাত্র সরফরাজ বহু কষ্টে সমাজ বিজ্ঞানে অনার্স পাশ । মাস তিনেক আগে একটি চলনসই ওষুধ কোম্পানির রিপ্রেজেন্টিটিভ হিসেবে জয়েন করে । সে উচ্চতায় খাটো । গায়ের রঙ ময়লা । মাথায় কিঞ্চিত টাকের আভাস দেখা যায় ।
সবমিলিয়ে বলা যায় সরফরাজের তুলনায় এই পাত্রী তো শুধু পরী নয় , পরী টু দি পাওয়ার ইনফিনিটি ।

সরফরাজ যেদিন পরী টু দি পাওয়ার ইনফিনিটি মানে পাত্রীর ছবি দেখে সেদিন সারারাত তার দু চোখের পাতা এক হয়নি । অবিশ্বাসে । এই মেয়ে কি সত্যি ই তার বউ হবে !

(খ)

আজ সেই পরী তুল্য পাত্রী সরফরাজের বউ হতে যাচ্ছে । কিছুক্ষন পরেই খাওয়া দাওয়া । তারপর পরই আঞ্জুমান জামে মসজিদের ইমাম সাহেব তিন কবুল পড়িয়ে পরীর সাথে সরফরাজের কপাল জোড়া লাগিয়ে দিবেন । সরফরাজ রীতিমত কাঁপছে । কাঁপাকাঁপির পরিমাণ রিক্টার স্কেলে ৮ মাত্রা ছাড়িয়ে যাবে । সেই সাথে হচ্ছে ঘাম ।

মেয়ে পক্ষ থেকে ভালো রকম খাবারের আয়োজন করা হয়েছে । আস্ত খাসি প্লেটে দাড়া করিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে । এসেছে জামাই বাবুর জন্য । জামাই বাবু সরফরাজ বেশ ক্ষুধা অনুভব করছে । অতিরিক্ত উত্তেজনায় আজ সকাল থেকে সে কিছু খেতে পারিনি । এক গ্লাস পানি ছাড়া । তার উপর সামনে আস্ত খাসির রোষ্ট দাড়িয়ে থাকা দেখে ক্ষুধা আরও বেয়াড়া হয়ে উঠেছে ।

কিন্তু না । ক্ষুধা লাগলেও এখন চুপচাপ সহ্য করতে হবে । এইসব বিয়েতে জামাইয়ের খাওয়া-দাওয়ার হেনতেন নিয়ম আছে । জামাই বাবুর হাত জামাই বাবু নিজে ধৌত করলে চলবে না । ধুয়ে নিতে হবে শ্যালা শ্যালী মারফত । শুধু তাই না । উক্ত হাত ধৌতকারীকে নগত ক্যাশ প্রদান করতে হবে । সাধারণত পাত্র পক্ষের সাথে তার বন্ধু বান্ধব থাকে যারা চাপাবাজি করে নগদ ক্যাশের পরিমাণ কমিয়ে নিয়ে আসে । কিন্তু সরফরাজের সাথে তার কোন বন্ধু নেই । হুট করেই বিয়ে । বন্ধুদের জানানোর সময় পাওয়া যায়নি । আসল কথা সরফরাজ নিজেই তাদের কাউকে জানায়নি । তার ইচ্ছা তার পরী টু দি পাওয়ার ইনফিনিটি বউকে সবার সামনে হটাত উপস্থিত করে তাক লাগিয়ে দেয়া । কেউ বিশ্বাস ই করতে চাইবে না , আলাভোলা সরফরাজ একটা হুর পরী বউ নিয়ে ঘুরছে !!

মেয়ে পক্ষ থেকে পাত্রীর ছোট বোন সাথে চার পাচজন এসেছে সরফরাজের হাত ধুয়ে দিতে । পাত্রীর ছোট বোনের নাম সুরভী । এই বালিকা স্কুলে পড়ে । ক্লাস সিক্স নাকি সেভেন । ঠিক মনে নেই । এই অল্প বয়সেই মেয়েটা দেখতে খুব সুন্দর হয়ে গেছে । এরা আসলে সুন্দরী পরিবার । সরফরাজের ধারনা মেয়ের বাড়ির কোন কুকুর থাকলে কুকুরটাও দেখতে সুন্দর হবে । সবাই বলবে – “ আহ কি কিঊট ডগি “

সরফরাজের বাচ্চা বাচ্চা শ্যালা শ্যালীরা তার হাত ধুয়ে দিতে দু হাজার টাকা দাবী করেছে । সরফরাজ বিনা বাক্য ব্যায়ে টাকা দিয়ে দিয়েছে । আজ তার দিল উদার । দু হাজার তো তার কাছে আজ নস্যি নস্যি নস্যি ।

(গ)

চারিদিকে চিৎকার হাসাহাসি । একেকজন একেক কথা বলছে আর চারিদিকে হাসির ফোয়ারা উঠে যাচ্ছে ।

সুরভী নতুন কেনা লাক্স সাবান দিয়ে নতুন দুলাভাইয়ের হাত ধুয়ে দিচ্ছে । হাত ধুয়ে দেয়ার মুহূর্তে সে তার বুকের বা পাশে খুব ধীরে ধীরে একটা চাপ অনুভব করলো । সে অবাক হয়ে লক্ষ্য করলো তার নতুন দুলাভাই কুনুই দিয়ে তার বুকের বা পাশে চাপ দিচ্ছে । সুরভীর মনে হল কিছুক্ষণের জন্য তার দুনিয়া স্তব্ধ । কোনমতে হাত ধুয়ে দিয়ে সে জামাইয়ের স্টেজ থেকে ছুটে পালালো ।

সুরভীর নতুন দুলাভাই পছন্দ হয়নি । বড় আপুটার জন্য তার খুব খারাপ লাগছে । তার ইচ্ছা হচ্ছে চিৎকার করে কাঁদতে । কিন্তু সে পারছে না ।
বিয়ে বাড়িতে পাত্রী ছাড়া আর কোন মেয়ের চিৎকার করে কাঁদবার নিয়ম নেই ।

( ছবি – সংগ্রহ )
—————————————————————————-

অনুগল্প – যৌনাবেগ – ‘ ওয়ার্কিং লেডিস ‘

৩৪ thoughts on “অনুগল্প – যৌনাবেগ – নতুন দুলাভাই এবং …

  1. অসাধারন ।বিশেষ করে
    অসাধারন ।বিশেষ করে প্লেকার্ডটি পুরো গল্পের মুলভাবকে অন্যভাবে ফুটিয়ে তুলেছে ।
    ধন্যবাদ লেখককে ।

  2. আগা এবং মাথা কেমন যেন খাপছাড়া
    আগা এবং মাথা কেমন যেন খাপছাড়া মনে হল । গল্পের মূল স্পিরিটের সাথে অসামঞ্জস্য হয়ে গেছে । আর গল্পের শেষে পিকচার আপলোড করা পছন্দ হয়নি । সৃজনশীল লেখায় এইসব আমার কাছে বাহুল্য মনে হয় । যেমন হাবিবের অনেক গানের ক্ষেত্রে কণ্ঠের কিছু কাজ মেশিনের সহায়তায় করা হয়েছে ।

    1. পারভারট্রা যখন যেখানে ইচ্ছা
      পারভারট্রা যখন যেখানে ইচ্ছা তাদের স্বার্থ মিটায় । সেক্ষেত্রে হটাত কিছু ঘটিয়ে ফেলাই তাদের দ্বারা স্বাভাবিক । সে হিসেবে এইটা আগা এবং মাথা – বিহীন গল্প ।

      আর পিকচার – মূলত সিরিজের সাথে সামঞ্জস্যতা বজায় রেখে দেয়া হয়েছে ।

      আর পারসনালি আমি চেষ্টা করি প্রতি লিখায় একটা পিকচার দিতে । :আমারকুনোদোষনাই:

      হাবিবের গানের উদাহরণ ভালো লেগেছে । ( আমি হাবিবের ফ্যান 😀 )

      আপনার চমৎকার মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ রাহাত মুস্তাফিজ :গোলাপ: :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ:

  3. গল্পটা সুন্দর কিন্তু আগের
    গল্পটা সুন্দর কিন্তু আগের গুলোর চেয়ে এইটা শেষের অংশ দুর্বল মনে হল .। তবে আপনার লেখনি ক্ষমতার প্রসংশা না করে পারি না ভাই !! চমৎকার

    তবে যে ভিকারুন্নেসার ছবি দিলেন তারাই তো ছেলেদের sexual abuse করে ..। বিস্বাস না হইলে কিছু করার নাই!!!

    1. দুরন্ত জয়,
      তবে যে

      দুরন্ত জয়,

      তবে যে ভিকারুন্নেসার ছবি দিলেন তারাই তো ছেলেদের sexual abuse করে ..।

      —— আপনার কি কোন ধরনের মানসিক সমস্যা যাচ্ছে ? এইসব কি লিখছেন ?

      1. হাহাহাহা রাহাত ভাই রাগ হয়েন
        হাহাহাহা রাহাত ভাই রাগ হয়েন না অপনি অনেক বড় তাই এগুলো দেখেন নারে ভাই বলতে আফসোস লাগে কিছু মেয়ে এবং কিছু ছেলের জন্য সবার নাম খারাপ হয় .। এই গল্পের দুলাভাইয়ের মত যেমন মানুষ আছে তেমনই আমার মন্তব্যের মতও আছে!

        সাফাই গাইবো নিজের আমার বয়সি কারো সাথে ফ্রি হলে একটু জিজ্ঞাসা করে দেখবেন এটাই আবেদন।তা নাহলে আমাকে ভুল বুঝে বসে থাকবেন

        1. তা নাহলে আমাকে ভুল বুঝে বসে

          তা নাহলে আমাকে ভুল বুঝে বসে থাকবেন

          দুরন্ত জয় , আপনি ভুল ভাঙ্গান । আপনার মন্তব্যের একটা যথার্থ ব্যাখ্যা আশা করছি ।
          ধন্যবাদ

          1. আমি হয়তো যুক্তি তর্কে আপনাদের
            আমি হয়তো যুক্তি তর্কে আপনাদের সাথে পেরে উঠবো না তবুও বলছি চেষ্টায় হয়তো সফলতা আসবে

            আমি বাস্তবতা নিয়ে কথা বলি আপনার গল্পের দুলাভাইয়ের চরিত্রের মত কি সমাজের সবাই? নিশ্চই না সমাজে ভাল মানুষের সংখ্যা কম নয় তা না হলে সমাজ টিকে থাকতো না .।
            আর আমি যে ছবিটি সম্বন্ধে বললাম সেটা হল ভিকারুন্নেসার .। সেখানের মেয়েদের বেশির ভাগই ছেলে ঘুরাতে পছন্দ করে আর এই সেস্কুয়াল abuse সেটা ও অনেকেই করে আমি সেই কথাই বলেছি .। যে ভালও যেমন আছে খারাপ ও আছে

          2. আর আমি যে ছবিটি সম্বন্ধে

            আর আমি যে ছবিটি সম্বন্ধে বললাম সেটা হল ভিকারুন্নেসার . সেখানের মেয়েদের বেশির ভাগই ছেলে ঘুরাতে পছন্দ করে আর এই সেস্কুয়াল abuse সেটা ও অনেকেই করে আমি সেই কথাই বলেছি . যে ভালও যেমন আছে খারাপ ও আছে

            এই বিষয়টার প্রমানসহ ব্যাখ্যা দিন । আপনি কেন এই কথা বললেন ? তার পিছনে নিশ্চয়ই কোন কারণ আছে । সেই কারণটা কি ? আপনি একটা প্রতিষ্ঠানের মেয়েদের নামে কথা বলছেন । অর্থাৎ আপনার কাছে অবশ্যই তার যথার্থ এভিডেনশ আছে । সেটা কি ? জানা নাই । জানতে চাই ।

          3. আপনি দুবার মাথা বাইড়ানির ইমো
            আপনি দুবার মাথা বাইড়ানির ইমো দিছেন কিন্তু প্রমানসহ উত্তর দেন নি । একটা গ্রহণযোগ্য জবাব চাই । আমার অজ্ঞতা দূর করেন ।

            আর আমি যে ছবিটি সম্বন্ধে বললাম সেটা হল ভিকারুন্নেসার । সেখানের মেয়েদের বেশির ভাগই ছেলে ঘুরাতে পছন্দ করে আর এই সেস্কুয়াল abuse সেটা ও অনেকেই করে আমি সেই কথাই বলেছি । যে ভালও যেমন আছে খারাপ ও আছে

            আমার জানা নেই , আমি জানতে চাই । আমাকে বুঝাইয়া দেন

          4. সিফাত সাহেব। একটু
            সিফাত সাহেব। একটু ভিকারুন্নেসা স্কুলের সামনে এসে ছুটির সময় দাঁড়িয়ে দেখবেন দুই দিন তাহলেই বুঝবেন……… আসলে আমরা সমাজের কিছু মহলকেই দোষ দিতে পছন্দ করি। নারী পুরুষের মধ্যে হলে উদারতা দেখিয়ে পুরুষ কে দোষ দেই। ধনী গরিবের মধ্য হলে সেখানেও তুলনা মুলক ধনী ব্যক্তিকে দোষ দেই। এই টা আমরা মনুষত্ব বলে মনে করে নিয়েছি তাই নয় কি?? একটু ভেবে দেখবেন এই ছোট ছেলেটির কথা। ভুল হলে ক্ষমা করবেন। এবং সঠিক টা শিখিয়ে দিবেন। এই ……

          5. সঠিক তো আপনার কাছে শিখতে চাই
            সঠিক তো আপনার কাছে শিখতে চাই । ছোট ছেলে অজুহাতে পাড় পেতে চাচ্ছেন কেন ? ছোট ছেলে খেতাব ই যদি চান্স বুঝে নিবেন তো বললেন কেন

            আর আমি যে ছবিটি সম্বন্ধে বললাম সেটা হল ভিকারুন্নেসার । সেখানের মেয়েদের বেশির ভাগই ছেলে ঘুরাতে পছন্দ করে আর এই সেস্কুয়াল abuse সেটা ও অনেকেই করে আমি সেই কথাই বলেছি । যে ভালও যেমন আছে খারাপ ও আছে

            এখন ইউনুস কি সেটা বুঝতে হইলে কি ইউনুসের বাড়ির সামনে বইসা থাকতে হবে ?
            ক্লিয়ার আনসার দেন । ছোট ছেলে হইয়া একটা কথা বলে চলে যাবেন । ব্যাখ্যা দিবেন না , সেটা কি ছোট ছেলের মানায় ?

            ব্যাখ্যা করুন

    2. ধন্যবাদ দুরন্ত জয়
      আর পিকের

      ধন্যবাদ দুরন্ত জয়

      আর পিকের ব্যাপারে আমার মতামত পরিষ্কার । আমার কাছে এই পিকটাই গল্পের জন্য যথার্থ মনে হয়েছে ।

      আবারও ধন্যবাদ । সুস্থ থাকবেন — লাল গোলাপ শুভেচ্ছা :গোলাপ: :গোলাপ: :গোলাপ: 😀

  4. “হিসাব সহজ এবং তরল” না হয়ে
    “হিসাব সহজ এবং তরল” না হয়ে ‘হিসাব সরল এবং তরল’..হলে আরও চমৎকার হত!!
    সিফাত ভাই আপনার এই সিরিজের সবগুলো গল্প থেকে কিছু ছেলেমানুষি (টাস্কিত ইত্যাদি…) শব্দচয়ন বাদ দিয়ে দিন। আর একটু ভাল কোন কবি-সাহিত্যিককে দিয়ে রিভিউ করিয়ে নিন… আপনার গল্পগুলোকে অনবদ্য বললেও ভুল হবে!!
    আপনার গল্পের শুধু ফ্যান না আমি মুগ্ধ!! অসাধারণভাবে আপনি মানুষের ভিতরের কুকুরগুলোকে তুলে ধরছেন… যে সরফরাজ (সাপের রাজা অনেক অর্থবহ একটা নামকরন করেছেন…) তার পিতার নৈতিকতা বা সততা অথবা রুচিবোধ নিয়ে সে শঙ্কিত অথচ সে নিজে তার নিজের মধ্যে আরেকটা শুয়রকে পেলে বড় করেছে!! এইটাই আমাদের মত অন্তঃসারশূন্য সমাজের আর মানুষগুলোর দ্বন্দ্বিক হঠকারিতা তুলে ধরেছেন আপনার সাবলীল ভঙ্গীতে :bow: :bow: :bow: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

    “বড় আপুটার জন্য তার খুব খারাপ লাগছে । তার ইচ্ছা হচ্ছে চিৎকার করে কাঁদতে । কিন্তু সে পারছে না । বিয়ে বাড়িতে পাত্রী ছাড়া আর কোন মেয়ের চিৎকার করে কাঁদবার নিয়ম নেই ।”

    আর যথারীতি অনবদ্য ফিনিশিং… এমনভাবে শেষ করা ব্লগের গল্পাকারদের মধ্যে আসলেই ইউনিক… :রকঅন: :রকঅন: :রকঅন: :রকঅন: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া:

    1. ভাইরে আপনার মন্তব্য পড়লে আমি
      ভাইরে আপনার মন্তব্য পড়লে আমি কিছুটা আবেগি হয়ে যাই

      আপনার সাজেশনগুলো অবশ্যই মাথায় রাখবো । আমি খুব বেশী তাড়াহুড়া করি তার জন্য দ্বিতীয়বার কন লেখা পড়ি না । এর জন্য অনেক ভুল ভুলে হয়েই বসে থাকে ।

      প্রতিনিয়ত চেষ্টা করছি ভুল গুলো শুধরাবার

      আবার ধন্যবাদ , কৃতজ্ঞতা
      সুস্থ থাকবেন :গোলাপ:

  5. আপনার এই বিষয়ক গল্পগুলো পড়তে
    আপনার এই বিষয়ক গল্পগুলো পড়তে অসাধারণ লাগে। আসলে অসাধারণ বললেও কম বলা হবে! :bow: :bow:

  6. সবাই বলবে – “ আহ কি কিঊট ডগি

    সবাই বলবে – “ আহ কি কিঊট ডগি “

    সরফরাজ এর চরিত্রের যে বর্ণনা দিয়েছেন তাতে এই কথা তার সাথে যায় না।

    “ কি খেইল দেখাইলেন গো মমিনসাব ! উত্তেজনায় ঘামাইয়া গেছি “
    সরফরাজ এই কথা বলছে ফিসফিসিয়ে । কিছু সময় অন্তর অন্তর তার হাতের রুমাল নাকে চেপে এই কথা আবৃতি করছে ।

    নিজের বাবাকে কেন তিনি এই কথা বলছেন !

    ধরণে ‘হুমায়ুন আহমেদ’ এর প্রভাব মনে হয়েছে।

    রাহাত ভাই এর সাথে সহমত মৌলিক পোস্টে ছবি বাহুল্য। যাহোক আপনি হয়ত প্রথা বিরোধী!

    তবে স্বীকার করতে হবে , আমাদের মনের মাঝে এরকম কুকুর ওৎপেতে থাকে।

    1. প্রথা বিরোধী অনেক কঠিন শব্দ ,
      প্রথা বিরোধী অনেক কঠিন শব্দ , আমি ইচ্ছের অনুরাগী 🙂
      আমি নিজের জন্য গল্প লিখি , যদি তা আপনাদের ভালো লাগে , সেটা আমার বাড়তি পাওনা ও ভালোবাসা

      ধন্যবাদ Kiron Shakar :গোলাপ: :ধইন্যাপাতা:

    1. এইটা সিরিজ ! যৌনাবেগ সিরিজ
      এইটা সিরিজ ! যৌনাবেগ সিরিজ … সিরিজের নাম ছাড়া সিরিজ লিখা যায় ? এই গল্পের নিচেও সিরিজের অন্য গল্পের লিংক দেয়া আছে ।

      মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ

  7. দুই একটা জায়গায় বাক্য গঠন
    দুই একটা জায়গায় বাক্য গঠন দুর্বল হয়েছে। এছাড়া চমৎকার হয়েছে গল্প। :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

  8. আপনার লেখনি যে ভালো তা আগেও
    আপনার লেখনি যে ভালো তা আগেও বলেছি… বাকি কথা বাকিরা বলে ফেলেছে…

    জাস্ট ক্যারি অন!
    :ফুল:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *