নাস্তিকের বিয়ে অথবা বিশেষ বিবাহ আইন, ১৮৭২

বিয়ে প্রথায় আমার কোন আস্থা নেই তবু আজ বিয়ে নিয়েই লিখছি । নারী – পুরুষের সম্পর্ক কাবিননামা নামক একটি কাগুজে দলিল নির্ভর নয়, হতে পারেনা । যেখানে দুজন নর – নারীর আত্মিক সম্পর্ক বিদ্যমান সেখানে কাগজের কি মূল্য আছে । হ্যাঁ, আপনারা নানান প্রয়োজনীয়তার কথা বলবেন – সেই আলোচনায় আপাতত না গিয়ে আসুন জেনে নেই ধর্ম – বর্ণ – জাতি নির্বিশেষে প্রিয় মানুষকে কি করে আইন স্বীকৃত উপায়ে বিয়ে করা যায় ।

মুসলিম, হিন্দু, ও খ্রিস্টান পারিবারিক আইনের অধীনে এই তিন ধর্মের ব্যক্তিরা বিয়ে করতে পারেন । এছাড়াও এই তিনটি পারিবারিক আইনের বাইরে আরো একটি আইন রয়েছে যার মাধ্যমে বিয়েকরা যায় । এই আইনটি হলো বিশেষ বিবাহ আইন ১৮৭২।


বিয়ে প্রথায় আমার কোন আস্থা নেই তবু আজ বিয়ে নিয়েই লিখছি । নারী – পুরুষের সম্পর্ক কাবিননামা নামক একটি কাগুজে দলিল নির্ভর নয়, হতে পারেনা । যেখানে দুজন নর – নারীর আত্মিক সম্পর্ক বিদ্যমান সেখানে কাগজের কি মূল্য আছে । হ্যাঁ, আপনারা নানান প্রয়োজনীয়তার কথা বলবেন – সেই আলোচনায় আপাতত না গিয়ে আসুন জেনে নেই ধর্ম – বর্ণ – জাতি নির্বিশেষে প্রিয় মানুষকে কি করে আইন স্বীকৃত উপায়ে বিয়ে করা যায় ।

মুসলিম, হিন্দু, ও খ্রিস্টান পারিবারিক আইনের অধীনে এই তিন ধর্মের ব্যক্তিরা বিয়ে করতে পারেন । এছাড়াও এই তিনটি পারিবারিক আইনের বাইরে আরো একটি আইন রয়েছে যার মাধ্যমে বিয়েকরা যায় । এই আইনটি হলো বিশেষ বিবাহ আইন ১৮৭২।

উদ্দেশ্য

এই আইনের মূল উদ্দেশ্য হল দুটি ভিন্ন ধর্মের মানুষের মধ্যে বিয়েকে আইনসংগত করা। প্রচলিত ধর্মীয় আইনে ভিন্ন ধর্মের দুই ব্যক্তির বিয়ে করার ক্ষেত্রে কিছু নিষেধাজ্ঞা রয়েছে, যেমন- মুসলিম আইনে মুসলিম পুরুষ কিতাবিয়া অর্থাৎ খ্রিস্টান বা ইহুদি মেয়েকে বিয়ে করতে পারেন । কিন্তু প্রতিমা উপাসিকাকে অর্থাৎ হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ বা জৈন মেয়েকে বিয়ে করলে তা অনিয়মিত বিয়ে হয় । আবার মুসলিম নারী শুধু মুসলিম পুরুষকে বিয়ে করতে পারেন। অন্য যে কোনো ধর্মের মানুষকে বিয়ে করলে তা বাতিল হবে । খ্রিস্টান আইন ও হিন্দু আইনেও ভিন্ন ধর্মের মধ্যে বিয়ে সম্ভব নয় । ধর্মীয় পারিবারিক আইনে এই নিষেধাজ্ঞা থাকায় ভিন্ন ধর্মের মধ্যে যারা বিয়ে করতে চান তারা বিশেষ বিবাহ আইন ১৮৭২ –এর অধীনে বিয়ে করতে পারেন ।
১৮৭২ সালের বিশেষ বিবাহ আইনে বলা আছে, যে ব্যক্তি খ্রিস্টান, ইহুদি, হিন্দু, , মুসলিম, পারসী, বৌদ্ধ, শিখ অথবা জৈন কোন ধর্মই পালন করেনা সে এই আইনের অধীনে বিয়ে করতে পারে। তবে বিশেষ বিবাহ আইনে বিয়ে করতে হলে বিয়ের দু’ পক্ষই উল্লিখিত কোন ধর্মের অনুসারী হতে পারবে না । কিন্তু বিয়েটি যদি হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ ও জৈনদের মধ্যে হয় তবে তারা নিজ নিজ ধর্ম অনুসরণ করতে পারে ।

বিশেষ বিবাহ আইনে শর্ত

বিশেষ বিবাহ আইনে বিবাহ করতে হলে ছেলে ও মেয়ে দু’ জনকেই –
১। অবিবাহিত থাকতে হবে । অর্থাৎ তাদের অন্য কোন স্বামী বা স্ত্রী বর্তমান থাকতে পারবে না ।
২। বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ( ১৯২৯ ) অনুসারে ছেলের বয়স ২১ বছর ও মেয়ের বয়স ১৮ বছর হতে হবে ।
৩। বিয়ের দু’পক্ষ পরস্পরের সাথে রক্ত সম্পর্ক বা আত্মীয়তার কারণে নিষিদ্ধ স্তরের কেউ হতে পারবে না ।

রেজিস্ট্রেশন

বিয়ের যে কোনো এক পক্ষ রেজিস্টারের কাছে বিয়ের জন্য লিখিত নোটিশ পাঠাবে । এই বিয়ে সরকার নিয়োজিত রেজিস্টার সম্পাদন করবেন । নোটিশ দেওয়ার ১৪ দিন পর বিয়ে সম্পাদন করা হবে । এই বিয়েতে কারো আপত্তি থেকে থাকলে দেওয়ানি আদালতের শরণাপন্ন হতে পারে । এই বিয়েতে তিনজন সাক্ষী এবং রেজিস্টার উপস্থিত থাকবেন ।

বিবাহ – বিচ্ছেদ

১৮৬৯ সালের ডিভোর্স অ্যাক্ট, যা খ্রিস্টানদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য তা এই বিয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে ।
উত্তরাধিকার –

এই আইনের অধীনে যারা বিয়ে করবেন তাদের এবং তাদের সন্তানদের সম্পত্তি সাকসেশন অ্যাক্ট ১৯২৫ অনুযায়ী ভাগ করা হবে ।
এই আইনে বিয়ে করতে হলে দু’ পক্ষকেই ঘোষণা দিতে হয় যে তারা কোন ধর্মের অনুসারী নয় । অর্থাৎ ধর্ম ত্যাগ না করে না করে এই আইনের অধীনে বিয়ে করা যায় না । যদিও আইনের কোথাও বলা নাই যে, ধর্ম ত্যাগ করতে হবে । কিন্তু যেহেতু এই আইনে বিয়ে করতে চাইলে দু’ পক্ষই কোন ধর্মের অনুসারী হতে পারবে না, সেহেতু ধর্মত্যাগ না করে বিশেষ বিবাহ আইনে বিয়েও করতে পারবে না । তবে হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ ও জৈন ধর্মাবলম্বীদের ক্ষেত্রে বিয়ের দু’ পক্ষ এই চার ধর্মের মধ্যে যে কোনো দুই ধর্মের অনুসারী হলে তারা ধর্মত্যাগ না করেই এই আইনে বিয়ে করতে পারেন ।
আব্দুল হাকিম বনাম ওবেদুস সামাদ ১৯৬৪ ( ১৬ ডি,এল,আর ৩০৪ ) মামলায় বলা হয়েছে যে, ধর্ম ত্যাগের ঘোষণা ছাড়া এই আইনে বিয়ে করা যায় না । যদি ধর্ম ত্যাগ করা না হয় তাহলে বিয়েটি অবৈধ হবে ।

সূত্র – ১। পারিবারিক আইনে বাংলাদেশের নারী, আইন ও সালিশ কেন্দ্র । ২। Special Marriage Act – 1872 । ৩। বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন, ১৯২৯। ৪। ডিভোর্স অ্যাক্ট, ১৮৬৯ । ৫। সাকসেশন অ্যাক্ট, ১৯২৫।

৩৫ thoughts on “নাস্তিকের বিয়ে অথবা বিশেষ বিবাহ আইন, ১৮৭২

  1. ভাই বেশ কিছু দিন ব্লগে আসেন
    ভাই বেশ কিছু দিন ব্লগে আসেন নাই,
    আর আইসাই বিয়া নিয়া পোস্ট।

    ২ এ ২ এ ৪ তো মিলা যাইতাছে রাহাত ভাই 😛 ক্যামন ক্যামন আভাস পাই 😛

    1. সৌ রভ ,
      হাহাহাহাহাহাহাহা …

      সৌ রভ ,
      হাহাহাহাহাহাহাহা … :হাসি: :হাসি: :হাসি: :হাসি: । আপনার ধারণা একেবারে অমূলক নয় । তবে এই যাত্রায় ও কাজটা সম্পন্ন হলনা । বেশ কিছুদিন গ্রামের বাড়ীতে ছিলাম । আর এমন সে গ্রাম – রাত্রি নামলে ধু ধু অন্ধকার, মানে ইলেক্ট্রিসিটির আশীর্বাদ এসে পৌঁছায়নি । পত্র- পত্রিকা, ইন্টারনেট, টেলিভিশন সবকিছুর বাইরে ছিলাম । লেখাটা আরও আগেই তৈরি করা ছিল ।

        1. পার্টি চাই সাথে নাচা-গানা…
          :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :নৃত্য: :পার্টি: :পার্টি: :পার্টি: :পার্টি: :পার্টি:
          পার্টি চাই সাথে নাচা-গানা… আগে ডিটেইলসে আওয়াজ দেন…

    1. অঘূর্নায়মান ইলেকট্রন,
      অনেক

      অঘূর্নায়মান ইলেকট্রন,
      অনেক ভালো আছি সর্দী কাশি নিয়ে :ভেংচি:
      তবে সকাল বিকাল রোদ – বৃষ্টি মাথায় নিয়ে নৌকো চালানো হবেনা এই ঢাকা শহরে
      এই কারণে :মনখারাপ:

  2. অনেকেই আজকাল এই আইনের আওতায়
    অনেকেই আজকাল এই আইনের আওতায় বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হচ্ছেন। তবে আমার মনে হয় ভালোবাসা বা আত্মিক টান না থাকলে কাগজের আসলেই প্রকৃত কোন মূল্য থাকেনা। অঞ্জনের একটা গান আছে না?
    “চারটে দেয়াল মানেই নয়তো ঘর
    নিজের ঘরেও অনেক মানুষ পর”

    1. যদিও আমার দরকার নাই , তব
      যদিও আমার দরকার নাই , তব বন্ধুবান্ধবের লাগি শেয়ার দিলাম । এই বিষয়ক একটা PIC ছিল আমার কাছে খুইজা পাইতাছি না । পাইলে দিমুনে

  3. বেশকিছুদিন বাদে আপনার দেখা
    বেশকিছুদিন বাদে আপনার দেখা পাওয়ায় শুকরিয়া।

    আইনটি সম্পর্কে পূর্ব থেকেই কিছুটা ধারনা আছে ।তবে আপনার পোস্টটি পড়ে ধারনাটা আবার রিভিউ করে নিলাম।ধন্যবাদ ।

  4. চারটি দেয়াল মানেই নয়তো ঘর
    চারটি দেয়াল মানেই নয়তো ঘর নিজের ঘরেও অনেক মানুষ পর।।রাহাত ভাইকে দেইখা ভালা লাগলো।

  5. খুবই দরকারি পোস্ট । আগে ঝাপসা
    খুবই দরকারি পোস্ট । আগে ঝাপসা ধারণা ছিল ।
    এখন অনেকটাই পরিষ্কার হল । একটা প্রশ্ন আছে, এই বিয়ের পদ্ধতিগত দিকটি নিয়ে আরও কিছু জানালে ভালো হয় । মানে কোথায়, কীভাবে,কতো টাকা ফি দিতে হয় ইত্যাদি বিষয় ।

    1. আমার জানা মতে এই বিয়ের
      আমার জানা মতে এই বিয়ের রেজিস্ট্রেশন ফি ৫১ টাকা । পদ্ধতি তো মনে হয় বলে দেওয়া হয়েছে । আপনি আসলে একজ্যাক্টলি কি জানতে চাচ্ছেন ?

  6. খুব ভালো লাগলো লেখাটা ।
    এই

    খুব ভালো লাগলো লেখাটা ।
    এই পোস্টটা আমার কাজে আসবে কারন আমি একটা অন্য ধর্মের মেয়ে কে ভালোবাসি আর ওকে বিয়ে করবো।
    অনেক ধন্যবাদ রাহাত ভাই

    1. নগরের আহত পাখি,
      আপনাদের জন্য

      নগরের আহত পাখি,
      আপনাদের জন্য শুভকামনা রইলো । ভালবাসার কোন জাত -পাত, ধর্ম – বর্ণ নেই । থাকতে পারেনা । পোস্তটি আপনার কাজে আসছে জেনে অনেক ভালো লাগছে । :গোলাপ: :ফুল:

    1. মুকুল,
      ভাই আপনি কি ইষ্টিশন

      মুকুল,
      ভাই আপনি কি ইষ্টিশন কর্তৃপক্ষের কেউ ? :ভাবতেছি: :মাথানষ্ট: :চিন্তায়আছি: যাহোক ধন্যবাদ !

  7. প্রয়োজনীয় একটা বিষয়ে
    প্রয়োজনীয় একটা বিষয়ে দুর্দান্ত একখান পোস্ট দিয়েছেন রাহাত ভাই :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :bow: :bow:
    সোজা প্রিয়তে দরকার পড়লেই ডু মারবক্ষন… 😉

    1. লিংকন,
      এই বিষয়টা আমাদের

      লিংকন,
      এই বিষয়টা আমাদের অবশ্যই জানা থাকা দরকার । তাই পোস্ট দেওয়া । আইন বিষয়ে তো কতো লেখা দেওয়া যায় … ভেতর থেকে কেন যেন খুব বেশি সাড়া পাই না ।

    1. অমিত,
      এই আইনের অধীনে কাণ্ড

      অমিত,
      এই আইনের অধীনে কাণ্ড ঘটাবার আগে একবার ফোন বা দেখা করে নিয়েন । আরও কিছু ব্যাপার আছে । আইন সবটা কাভার করেনা ।

  8. হাহাহা পোস্টটা পড়ে ব্যপক মজা
    হাহাহা পোস্টটা পড়ে ব্যপক মজা পেয়েছি ভাই। অনেক কিছু জানলাম।

    কিন্তু দু:খের বিষয় এই যে,
    আমাদের বিয়ে বিশেষজ্ঞ রাহাত ভাই এখনই এই ফরজ কাজ খানা করে নাই। ইস্টিশন মাস্টারের হস্তক্ষেপ কামনা করি । অনতি বিলম্বে রাহাত ভাই এর বিয়ের ব্যবস্থা করুন……
    দিতে হবে দিতে হবে
    রাহাত ভাই এর বিয়ে দিতে হবে।
    আমাদের দাবী মানতে হবে
    রাহাত ভাইকে বিয়ে করতে হবে

    :হাহাপগে: :হাহাপগে:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *