আমরা দেশদ্রোহীদের বিপক্ষে একটা যুদ্ধ কি চাইতে পারি না?

স্বঘোষিত আল্লাহর জান-মাল খেদমতকারীরা যখন বীরদর্পে যুদ্ধাপরাধীদের পক্ষে সাধারণের জান-মালের উপর হামলা করে, তখন ঘৃণায় আমার উঁচু শির নত হয়ে যায়। আমি বিএনপি আওয়ামীলীগ কোনটাকেই আমার মনে স্থান দিতে রাজী নই। কিন্তু নিজেকে বড্ড অসহায় মনে হয় যখন দেখি যুদ্ধাপরাধীরা গলা উঁচিয়ে আমার মাটির বীর সন্তানদের রক্তমাখা স্বাধীন মাটিতে দাঁড়িয়ে তারা কথা বলে, রাস্তায় শোডাউন দেয়। যুদ্ধাপরাধীর বিপক্ষে আমজনতার জাগরণকে ছোট করে দেখার দুঃসাহস আমার আস্তিত্বে আজো হয়নি, কোনদিন হবেও না। কিন্তু গণজাগরণ মঞ্চ নামের মঞ্চটিকে চুতিয়ার মঞ্চ বলতে আমার বিন্দুমাত্র আপত্তি হচ্ছে না। আইজু, মহামান্য, আরিফ-দের চুতিয়া বলবে, সুব্রত, আসিফরা জেল খাটবে, রাজিবদের নাস্তিক উপাধি দিয়ে শহীদ করবে। এমনি করে হয়তো কোন একদিন আমিও শিবিরের হাতে প্রাণ হারাবো। কিন্তু আমার অন্তর আত্মা থেকে প্রতিধ্বনিত জয় বাংলা শব্দটি আমার শেষ রক্ত বিন্দু বাংলার আকাশ বাতাসকে জানান দিবে। আমি নেতা হতে আসিনি, আমি লোভে পড়ে আসি নি। আমার মত লাখো মানুষ এই বাংলায় আছে। আমরা দেশদ্রোহীমুক্ত একটি স্বাধীন দেশ দেখতে চাই। আমরা এই বাংলার মাটিতে প্রত্যেকটি অপরাধের বিচার চাই। শত প্রাণের ঝন্কার আমি শুনতে চাই না, চাই শুধু কিছু সৎ নিষ্ট প্রাণ যারা আমার সাথে একমত। আমার ইমেইল ( info.sjb89@gmail.com ) ইনবক্স আপনাদের জন্য খোলা রইলো। জানান দেন, আলাপ করুন, দেখি আমরা কি করতে পারি? এভাবে ভাঙ্গা মেরুদন্ড নিয়ে বেঁচে থাকার চেয়ে মৃত্যুই শ্রেয়।

জয় বাংলা, জয় জনতা।

১৪ thoughts on “আমরা দেশদ্রোহীদের বিপক্ষে একটা যুদ্ধ কি চাইতে পারি না?

  1. ভাই, আবেগ দিয়ে সবকিছু হয়
    ভাই, আবেগ দিয়ে সবকিছু হয় না।অবশ্যই একটা যুদ্ধের প্রয়োজন তবে সেই যুদ্ধটা হতে হবে কৌশলী পদ্ধতিতে।৭১ এ অনেক রক্ত দেয়া হয়েছে, আর রক্ত দিতে চাই না।আগামী নির্বাচনে লীগকে পুনরায় জয়ী করে আনতে পারলে সেটাই হবে বিরাট একটি যুদ্ধ জয়।এই যুদ্ধটা জয় করতে পারলে মোটামুটি রক্তপাতহীনভাবেই স্বাধীনতার শত্রুকে মোকাবেলা করা সম্ভব হবে ইনশাআল্লাহ ।

    1. ভাই যুদ্ধাপরাধীর বিচার করার
      ভাই যুদ্ধাপরাধীর বিচার করার জন্য আওয়ামিলীগ ব্যতিত অন্য কোন অপশন নাই তা আমি মানি কিন্তু ভাই এই লীগ যে আমাদের অনুভুতি ব্যবহার করছে সেটা কি???

  2. আমারো তাই মনে হয়।শহিদ ভাইয়ের
    আমারো তাই মনে হয়।শহিদ ভাইয়ের সাথে একমত।আগামী নির্বাচনে আওয়ামী যাবার পরও যদি কোনো হের ফের না হয় তখন দেখা যাবে।কিন্তু এখন যা করা উচিত তা তো শহিদ ভাই বললই।

  3. যুদ্ধ সবসময় অস্ত্র দিয়া হয়না।
    যুদ্ধ সবসময় অস্ত্র দিয়া হয়না। অস্তের যুদ্ধ জাতিকে বিভ্রান্তই করবে। এ যুদ্ধের হাতিয়ার হতে হবে জ্ঞান-বিজ্ঞান, শিক্ষার প্রসার, সামাজিক, সংস্কৃতিক। তবে হ্যাঁ রক্ত ঝরানোর প্রস্তুতিও থাকতে হবে।

  4. পোস্ট লেখকের উদ্দ্যশ্যে বলতে
    পোস্ট লেখকের উদ্দ্যশ্যে বলতে চাই। আপনি গণজাগরন মঞ্চের সবাইকে চুতিয়া বলতে পারেন না। এখন একটা সত্য কথা বলবেন তো সবাই, সেই দিন গুলোর কথা মনে করেন লাখো বাঙালি যখন এক হয়েছিল শাহবাগে। আপনি আমি কি তখন নিজেকে গনজাগরণ মঞ্চের একজন হিসেবে বলি নি? তাদের সাথে সুর মিলাই নি?

    এই গণজাগরণ মঞ্চ না থাকলে বাঙ্গালির যে এই দেশ প্রেম তা প্রকাশ হত না। কত সুপ্ত প্রাণে দেশাত্ববোধ জন্ম নিয়েছে। রাজাকারদের বিরুদ্ধে লড়াই এর ইচ্চা জেগেছে তা কি অস্বীকার করতে পারবেন।

    এই আমি ব্লগিং জগেতে আসি এই গণজাগরন মঞ্চের জন্য। দেশের প্রতি আমার মায়া আরো গাঢ় হয়। আমি মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে চেষ্টা করি। আজ আমার এক্টিভিটি দেখলেই বুঝবেন আমি মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কেমন মত প্রকাশ করি।

    হ্যা বর্তমানে গণজাগরণ মঞ্চের কাজ একটূ খারাপ লাগছে। এর জন্য দায়ী কে? এই ফেসবুক সেখানে সবাই মুখে বলে কঠোর কর্মসূচি দেন আর হরতালের মত কঠোর কর্মসূচি দিলে কাউকে পাওয়া যায় না!!!

    তাই ভাই একটু বুঝে কথা বলবেন।
    এই যে জান্নাতুল ফেরদৌস পুন্যা আপা যে কিছু দিন আগে নতুন কর্মসূচী দিয়েছিল কয়জন গিয়েছিল? সেখানে তো গণজাগরণ মঞ্চের ইমরান এইচ কে আমন্ত্রন করা হয়েছিল সে তো ঠিক ই গিয়েছিল।

    আসলে আমরা শুধু সবার খারাপ দিকটা খুটিয়ে বের করতে পারি। হয়তো এটা আমাদের জীন গত বৈশিষ্ট্য।
    তা না হলে আমরা কেন সরকারের ভাল দিক দেখি না শুধু খারাপ টাই দেখি।

  5. দুরন্ত ভাই, আওয়ামীলীগের কাছে
    দুরন্ত ভাই, আওয়ামীলীগের কাছে আমর অনেক পাওনা আছি ।সেই হিসেবটা না হয় কয়দিন পরে করলাম, আগে দেশ কলঙ্কমুক্ত হোক।আর এই কলঙ্কমুক্তিটা লীগ ছাড়া আর কারো দ্বারা সম্ভব হবে না ।

    ধরুন, আপনি পানিতে নেমে মাছ ধরতে গেছেন ।একসময় দেখলেন একটি জোঁক আপনার পায় লটকে আছে ।যখনি জোঁকটি ছাড়াতে উদ্যত হলেন দেখলেন একটি বিষধর সাপ আপনার দিকে তেড়ে আসছে!
    আপনি তখন কি করবেন?জোঁক ছাড়াবেন না সাপ মারতে উদ্যত হবেন?
    (আশা করি ব্যাখ্যা ছাড়াই বুঝতে পেরেছেন)

    1. পারফেক্ট উদাহরন শাহিন ভাই…
      পারফেক্ট উদাহরন শাহিন ভাই… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :ধইন্যাপাতা: এভাবে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেবার পরেও যদি কেউ না বোঝে, তাহলে তাকে আর বোঝানোর কোন উপায় নাই… :মানেকি: :মানেকি: আমাদের মাননীয় শুসিল ভাইদের নিরবিচ্ছিন্ন সুশীলতা করবার স্বার্থেই আওয়ামীলীগক আবার ক্ষমতায় আনতে হবে… কেননা জামাতশিবির :তুইরাজাকার: :তুইরাজাকার: যদি কোন রকমে ক্ষমতায় আসতে পারে, তবে আমাদের শুসিলরা বাঁশটা খাবে সবার প্রথমে… এইটা একটা শিশুও বোঝে…

      1. রাআদ ভাই আর আমার পুরো
        রাআদ ভাই আর আমার পুরো মন্তব্যটা পড়েন গণজাগরনের অংশটুকু নিয়ে যা বলছি তার উত্তর দিবেন আসা করি

    2. কলঙ্কমুক্তিটা লীগ ছাড়া আর

      কলঙ্কমুক্তিটা লীগ ছাড়া আর কারো দ্বারা সম্ভব হবে না ।

      এটা স্বীকার করি কিন্তু ভাল এই জোকের ছাড়াতে ছাড়াতে সাপে কামড় দিয়ে দিলে তো সবই শেষ। জোঁক তো একটু রক্ত নেবে কিন্তু সাপ তো প্রানটাই নিয়ে নিবে তাই না??

      যুক্তি ছাড়াই সহমত কিন্তু যুক্তিটা খন্ডন করে দিলাম

  6. পোস্ট লেখককে বলতে চাই, দুরন্ত
    পোস্ট লেখককে বলতে চাই, দুরন্ত জয় এবং শহিদ ভাইয়ের মতামত ভালভাবে বিশ্লেষণ করুন…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *