হয়‘ত সম্ভব, কারণ জারজ বলে কথা

আজকাল যুদ্ধাপরাধী ও তাদের দোষর‘রা গলা ফাটিয়ে চিৎকার করছে, ঈদের পরে নাকি কঠিন আন্দোলনে যাবেন। তো আন্দোলন‘টা কিসের ? বিএনপি‘র কন্ঠে তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর অবৈধ জন্মের খ্যাতি অর্জনকারী যুদ্ধাপরাধী রাজাকারের দল পাকিস্তানী দালালেরা তাদের জন্মের বৈধতা পাওয়ার জন্য আন্দোলন।

আজকাল যুদ্ধাপরাধী ও তাদের দোষর‘রা গলা ফাটিয়ে চিৎকার করছে, ঈদের পরে নাকি কঠিন আন্দোলনে যাবেন। তো আন্দোলন‘টা কিসের ? বিএনপি‘র কন্ঠে তত্ত্বাবধায়ক সরকার আর অবৈধ জন্মের খ্যাতি অর্জনকারী যুদ্ধাপরাধী রাজাকারের দল পাকিস্তানী দালালেরা তাদের জন্মের বৈধতা পাওয়ার জন্য আন্দোলন।
আমি জানি না, ক‘এক পুরুষের পুরুষের রক্ত কনিকায় যাদের জন্ম ইতিমধ্যেই দেশ ও জাতি জেনেগেছে তারা কি করে নিজেদের সঠিক জন্মের জাল সার্টিফিকেট নিতে আন্দোলনের কথা বলে। হয়‘ত সম্ভব, কারণ জারজ বলে কথা। আওয়ামীলীগ সহ মহাজোটের সরকার যখন দেশের মানুষের অনেক দিনের প্রতিক্ষা সুস্থ্য ও সুন্দর ভাবে আইনের মাধ্যমে বাস্তাবায়ন করা শুরু করে তখন দেশে নানান ভাবে মিথ্যে তথ্য সরবরাহ করে জাতি কে ভ্রান্ত পথে ঠেলে দিতে মড়িয়া। একের পর এক দেশের এক প্রান্ত তেথে অন্য প্রান্তে হরতালের নামে জীবন্ত মানুষ জীবনহীন করে ফেলছে। চান্দের দেশে দেউল্যা রাজাকারের ছবির কথা বলে মানুষ মেরে ফেলা। সংখ্যালগুদের বাড়ীতে অগ্নি সংযোগ করা। মসজিদে মিথ্যা প্রচার করা, মন্দিরে হামলা ও রুটপাট করা মুরু করেছিলো। এ জাতি যখন বুঝতে পেরেছে, বেজন্মাদের কাছে মিথ্যে আর বানোয়াট ছাড়া আর কিছুই পাওয়া সম্ভব নয় তখন শুরু হয় নতুন নতুন কৌসল।

৭৫ এর পরবর্তি সময়ে এই বেজন্মাদের সামাজিক, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ভাবে সামরিক শক্তি প্রদর্শন করে মতায় আসার দল বিএনপি যেভাবে ওষ্টপুষ্ট করে লালন পালন করেছে তা এক মা‘র পেটের সন্তান বা ভাই ভাই বলে প্রতিয়মান। আজ এ জাতি জানতে জানতে সবই জেনে গেছে। সময়ের অপেক্ষা… ঠিক মত সঠিক জায়গায় সঠিক মূল্যায়ণ করবে। বিএনপি‘র কন্ঠে যতই তত্ত্বাবধায়ক তত্ত্বাবধায়ক সরকার করা হোক না কেন ভিতরে ভিতরে ভাইয়ের জন্য এই আন্দোলন তার আর বলার অপো রাখে না। কারন, জেনেটিক বলে কথা।

ঈদের পরে আন্দোলনের যতই হুঙ্কার দেয়া হোক না কেন, জনগণ কিন্তু এতে মোটেও আতঙ্কিত নয়। জনগণ ক্ষুব্ধ, রাগান্বীত এবং ঘৃনীত। এ দেশের জনগণ আর যুদ্ধাপরাধী-রাজাকার-পাকিস্তানী দালালের হাতে রক্তে-সম্ভ্রমে অর্জিত লাল-সবুজের পতাকা দেখতে চায় না। যারা এই দালালদের পাশে থেকে তাদের সহযোগীতা করবে তাদেরও সঠিক সময়ে সঠিক জায়গাতে সঠিক জবাব দিয়ে দিবে।
আমি মনে করি, রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তি নয়। যারাই এই পাকিস্তানী দালালের পে সখ্য গড়বে তাদের বিরুদ্ধে এই যুব সমাজ দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে। তাদেরও রাজাকার কিংবা তাদের দোসর হিসেবে জনগণের আদালতে কঠিন থেকে কঠিনতম বিচারের কাঠগড়ায় দাড় করাবে।

এই দেশে যারা রাজনীতি করবে তারা কখনো আমার মা-বোন এর সম্ভ্রমের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার সাথে মীরজাফরি করতে পারবে না, করতে দেয়া হবে না।
এই দেশে যারাই রাজনীতি করবে তারা কখনো আমার বাবা-ভাই এর রক্তে অর্জিত স্বাধীনসার্বভৌমত্ব কে নিয়ে বেঈমানী করবে না, করতে দেয়া হবে না।
এই দেশে যারাই রাজনীতি করবে তারা কখনো ত্রিশল শহীদ‘দের আত্মবলিদানে অর্জিত লাল-সবুজের পতাকা‘কে পদদলিত করতে পারবে না, করতে দেয়া হবে না।

এ প্রজন্ম অতন্দ্র প্রহরীর মত জেগে আছে, জেগে থাকবে যেমনি জেগেছিল তাদের পূর্ব বীর পুরুষ‘রা। এ প্রজন্ম এমন একটি বাংলাদেশ বির্নিমানের শপৎ গ্রহণ করেছে, যেখানে থাকবে কোনো হানাহানী-কাটাকাটি। যে দেশে থাকবে না দূর্নীতিগ্রস্থ ব্যক্তিবর্গ। যে দেশে থাকবে কোনো রাজাকার-আলবদর, আলসামস, যুদ্ধাপরাধী রাজাকারের মত জঙ্গী সংগঠন। সকল ধর্মের মানুষ, সকল মতের মানুষ, সকল বর্ণের মানুষ, সকল লিঙ্গের মানুষ সম্মানের সহিত জীবন ও জীবিকা পালনে সকল অধিকার নিশ্চিত করতে পারবে।
আমি মনে করি, একটি বটবৃক্ষ যেমন প্রশ্ন করে না হে পথিক! তুমি কোন ধর্মের, কোন বর্ণের, কোন গোত্রের, কোন রং এর, কোন শ্রেনীর ? ঠিক রাষ্ট্রও তার সাংবিধানীক সকল অধিকার বটবৃক্ষের মত প্রশ্ন না করে নিশ্চিত করবে।

আর সে জন্য আমাদের রাজনৈতিক ব্যক্তিদের এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। নয়‘ত এ প্রজন্ম কখনই কাউকে মা করবে না।

৭ thoughts on “হয়‘ত সম্ভব, কারণ জারজ বলে কথা

  1. আন দোলন। বিএনপি’র রাজনীতি
    আন দোলন। বিএনপি’র রাজনীতি হইলো আন্দোলনের রাজনীতি। ওরা জানে আন্দোলন করতে হবে। কিন্তু তাদের অনেকেই হয়তো জানেনা আন্দোলন কেন করা হচ্ছে। অনেকে আন্দোলনের অর্থটাই জানে না। তাও আন্দোলন আন্দোলন বলে গলা ফাটায়।

  2. এত রাজনীতি বুঝি না। তয়
    এত রাজনীতি বুঝি না। তয় যুদ্ধাপরাধিদের নিয়ে কোন চুদুর বুদুর চইলত ন কই দিলাম!!!! :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:

  3. একটু যত্ন নিয়ে লিখেন
    একটু যত্ন নিয়ে লিখেন ভাই।লাস্ট লাইনে যেমন:’এই প্রজন্ম কাউকে মা করবে না’ লিখছেন।এখানে হয়তো মাপ হবে।আরো অনেক জায়গায় এমন ভুল আছে।

  4. পোস্ট ভাল লিখেছেন। তবে একটু
    পোস্ট ভাল লিখেছেন। তবে একটু যত্ন সহকারে প্রুফ দেখার পর পোস্ট দিলে ভাল হয়। কারণ একটি শব্দ বা বাক্যের কারণে সব কিছু উল্টা-পাল্টা হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়। তাড়াহুড়ার কিছু নাই… কারণ এটা বালের কেল্লা বা সোনার বাংলা না যে, পোস্ট বা কমেন্ট দিলে পারিশ্রমিক বা পুরস্কার পাওয়া যাবে। সুতরাং পরবর্তী আরও একটি ভাল পোস্টের অপেক্ষায় রইলাম,, আশা করি নিরাশ করবেন না….

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *