নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুঃ একটি নতুন ভাবনা ও জাতীয় ঐক্যের শ্রেষ্ঠ সুযোগ

পদ্মা সেতু নিয়ে অনেক কথা হয়েছে আজ আমি এমন একটি বিষয় উপস্থাপন করব যা বাঙ্গালী জাতিকে বোধকরি এমন চরম রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকটের দিনে অনেক আশাবাদী করবে। প্রথমেই বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমিতির সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ আবুল বারাকাত স্যার-এর লিখটা সবাইকে একবার পড়তে অনুরোধ করব। লিখাটি পাবেন এইখানে যা দৈনিক প্রথম আলোতে একটি বিশেষ ক্রোড়পত্র হিসেবে প্রকাশিত হয়েছিল ২০১২ সালের ২৯ জুলাই। বিশ্বব্যাংক যখন ৩০ জুন এ ঋণ প্রস্তাব বাতিল করে তার কিছু দিন পর আবুল বারাকাত স্যার বলেছিলেন,

পদ্মা সেতু নিয়ে অনেক কথা হয়েছে আজ আমি এমন একটি বিষয় উপস্থাপন করব যা বাঙ্গালী জাতিকে বোধকরি এমন চরম রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকটের দিনে অনেক আশাবাদী করবে। প্রথমেই বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমিতির সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ আবুল বারাকাত স্যার-এর লিখটা সবাইকে একবার পড়তে অনুরোধ করব। লিখাটি পাবেন এইখানে যা দৈনিক প্রথম আলোতে একটি বিশেষ ক্রোড়পত্র হিসেবে প্রকাশিত হয়েছিল ২০১২ সালের ২৯ জুলাই। বিশ্বব্যাংক যখন ৩০ জুন এ ঋণ প্রস্তাব বাতিল করে তার কিছু দিন পর আবুল বারাকাত স্যার বলেছিলেন,
“বিশ্বব্যাংক কর্তৃক পদ্মা সেতুর ঋণ চুক্তি বাতিল অযৌক্তিক এবং মহা অন্যায় তবে তা বাংলাদেশের জন্য মহা আশীর্বাদ (blessing in disguise)”।

এবং ২৯ জুলাইয়ে তাঁর প্রকাশিত প্রবন্ধটির শিরোনাম ছিল এইরকমঃ ‘নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুঃ জাতীয় ঐক্য সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ সুযোগ’;এমন কিছু দিয়ে বিরক্ত করব না যা আমরা গত কয়েক বছরে অনেক অনেকবার শুনেছি এবং জেনেছি। বিশ্বব্যাংক, বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৪২ বছ্‌ নিজস্ব অর্থায়ন বা পিপিপি অথবা এইসবের কারণে বার্ষিক উন্নয়ন বাজেট বাধাগ্রস্থ এমন অনেক আলচনায় হয়েছে এবং ব্লগেও প্রচুর লিখালিখি হয়েছে। তাই আজ নতুন করে একটু ভাবতে ও ভাবাতে লিখতে বসেছি কারণ আমার এই বিষয়ে একান্ত নিজস্ব একটা প্ল্যান বা প্রস্তাব আছে। যা আমাদের শুধু জাতীয় ঐক্য সৃষ্টির সুযোগ করে দিবে না আমাদের জাতীয় জীবনে আমুল পরিবর্তন সাধন করবে (আমার ধারনা… ঠিক নাও হতে পারে! পাঠক সিদ্ধান্ত নিবেন!)

দুইটা ঘটনা আমার এমন প্ল্যান বা প্রস্তাবের মূল চালিকা শক্তি;প্রথমটি আমরা তরুণেরা ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ থেকে গণজাগরণ মঞ্চে একতাবদ্ধ হয়ে চিহ্নিত রাজাকারদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবীতে আন্দোলনরত ছিলাম আজ অব্দি আছি। আমাদের এই তরুণ প্রজন্মের মূল আবেগই হচ্ছে ১৯৭১ এর জাতীয় মুক্তির জন্যে স্বাধীনতা সংগ্রামের অনবদ্য ও মহাকাব্যিক চেতনা, যার ফলশ্রুতিতে আমরা আজ জাগরন মঞ্চে একতাবদ্ধ যাতে করে বাংলার মাটি থেকে হায়েনা ও তার দোসরদের বিতাড়িত করতে পারি। এর জন্যে আমাদের সবচে প্রেরণা জুগিয়েছেন শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি ও সেক্টর কম্যান্ডারস ফোরামের সকল কর্মসূচী। অথচ আমাদের দেশের কতজন এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে? অর্ধেকও হবে না বোধকরি। চেতনা কখন মানুষ লালন করে? যখন সে ঐ বিষয় সম্পর্কে জ্ঞাত হয় এবং বিষয় বা ঘটনাটি তাকে অনুপ্রাণিত করে। তাহলে কেন মুক্তিযুদ্ধের মত এমন একটা বিশাল অর্জন এই বাংলার সবাইকে বা সকল তরুনকে ঐক্যবদ্ধ করতে পারল না? এই প্রশ্নই আমার সকল কিছুর মূলে। আমার ধারনা ১৯৭৫ সালের পরবর্তীতে রাজনৈতিক পটপরিবর্তন এবং জামাতি-রাজাকারি আদর্শের বীজ বপন এবং সেই বিষবৃক্ষের ২১ বছরের লালন পালন আমাদের চেতনাকে বহুলাংশে বিনষ্ট করেছে। তাহলে এখন আমাদের করনীয় কি?

একমাত্র করনীয় গোটা দেশে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে ছড়িয়ে দেয়া তাঁর মহান অর্জন ও চেতনা সমেত। কিন্তু কীভাবে? এইবার একটি অতি সাধারণ পর্যবেক্ষণের কথা বলি, আমাদের মুক্তির সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর পর কাদের আমরা সবচে বেশী মূল্যায়ন করি বা শ্রদ্ধাভরে সম্মান করি- করব যতদিন বাংলাদেশ থাকে? তাজ উদ্দিন আহমেদ, জাতীয় ৪ নেতা অতঃপর এমএজি ওসমানীকে? কিন্তু সম্মুখযুদ্ধে যারা সবচে বেশী অবদান রেখেছে বা যাদের আমরা সর্বোচ্চ উপাধি দিয়েছি সেই ৭ বীরশ্রেষ্ঠই আমাদের মুক্তির সংগ্রামের অন্যতম মূল গর্বের ব্যক্তি; তাইতো? একটু দেখে নিন ৭ বীর শ্রেষ্ঠের জন্মস্থানগুলোঃ
১. বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দীন জাহাঙ্গীর – জন্ম বরিশালের বাবুগঞ্জ থানার রহিমগঞ্জ গ্রামে
২. বীরশ্রেষ্ঠ ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মতিউর রহমান -পুরান ঢাকার , ১০৯ আগা সাদেক রোডের পৈত্রিক বাড়ি “মোবারক লজ”-এ জন্মগ্রহণ করেন
৩. বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ হামিদুর রহমান -জন্ম যশোর জেলার (বর্তমানে ঝিনাইদহ জেলা) মহেশপুর উপজেলার খোরদা খালিশপুর গ্রামে, তিনি মুক্তিযুদ্ধে ৪ নং সেক্টরে যুদ্ধ করেন এবং শহীদ হন সিলেটের শ্রীমঙ্গল থানায়।
৪. বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল -ভোলা জেলার দৌলতখান থানার পশ্চিম হাজীপুর গ্রামে জন্মগ্রহন করেন
৫.বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ল্যান্সনায়েক মুন্সি আব্দুর রউফ-জন্ম ঢাকার ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার (পূর্বে বোয়ালমারী উপজেলার অন্তর্গত) সালামতপুর গ্রামে
৬. বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ইঞ্জিনরুম আর্টিফিসার মোহাম্মদ রুহুল আমিনচট্টগ্রামের নোয়াখালী জেলার বাঘচাপড়া গ্রামে জন্মগ্রহন করেন
৭. বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ল্যান্সনায়েক নূর মোহাম্মদ শেখ – জন্ম খুলনার নড়াইল জেলার মহিষখোলা গ্রামে।

কিছু কি লক্ষ্য করেছেন? আমাদের ৫ বীর শ্রেষ্ঠের সাথে জরিয়ে আছে ৫ টি বিভাগ আর বাকি থাকে রাজশাহী ও নতুন বিভাগ রংপুর। এখন আমি এমন একটা বিষয়ের অবতারণা করতে যাচ্ছি যা একই সাথে সরকারকে বার্ষিক উন্নয়ন বাজেট করতে ও বাস্তবায়ন করতে আগামী ৪ বছরই (চলতি অর্থবছর সহ…) পর্যাপ্ত সাহায্য করবে এবং আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সারা দেশময় ছড়িয়ে দিবে; আর তা হল ৭ টি বিভাগের বিভাগীয় সদরের সন্নিকটে ৭ টি উপশহর গড়ে তোলা। এইসব উপশহরের (প্রতিটির) আয়তন হবে ২ কিমি গুণন ১ কিমি অর্থাৎ ২ বর্গকিলোমিটার, যার পরিমাণ প্রায় ৪৯৪ একর বা ১,৪৯৪ বিঘা অথবা ২৯,৮৮০ কাঠা।


৭ বীর শ্রেষ্ঠ

উপশহরগুলোর নামকরণঃ
বিভাগের নাম——– উপশহরগুলোর নাম
১) ঢাকা বিভাগ- বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ উপশহর
২) চট্টগ্রাম বিভাগ – বীরশ্রেষ্ঠ মোহাম্মদ রুহুল আমিন উপশহর
৩) রাজশাহী বিভাগ – বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান উপশহর
৪) খুলনা বিভাগ- বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখ উপশহর
৫) সিলেট বিভাগ – বীরশ্রেষ্ঠ মোহাম্মদ হামিদুর রহমান উপশহর
৬) বরিশাল বিভাগ – বীরশ্রেষ্ঠ মহিউদ্দীন জাহাঙ্গীর উপশহর
৭) রংপুর বিভাগ – বীরশ্রেষ্ঠ মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল উপশহর

বিশাল উপশহরে আমরা কি কি করব বা করতে পারব আমি একজন পুরকৌশল বিভাগের প্রকৌশলী হিসেবে বাংলাদেশের জাতীয় ভবন নির্মাণ কোড এবং নগর পরিকল্পনার নিয়ম মেনেই একটা তালিকা করেছি । তালিকাটি নিম্নরূপঃ

উপশহরগুলোতে বিভিন্ন স্থাপনার তালিকা

এখন এইসব উপশহরতো সরকারের নতুন খরচের পথ তাইতো মনে হচ্ছে? দেখুন এইখানে বিনোদনের জন্য থেকে শুরু করে চিকিৎসালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত সব ধরনের স্থাপনা থাকবে। প্রত্যেকটি উপশহরের মূল প্রবেশ পথে থাকবে বীরশ্রেষ্ঠদের বিশাল ভাস্কর্য এবং তার সচিত্র ইতিহাস আর নার্সারি থেকে উচ্চ মাধ্যমিক, মেডিক্যাল কলেজ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, খেলার মাঠ, লেক, পার্ক, উদ্যান, ধর্মীয় উপাসনালয়, কমার্শিয়াল কমপ্লেক্স, কমিউনিটি সুবিধাসহ সবকিছুই থাকবে এই শহরে সকল নিয়ম মেনেই। এখন এতকিছুর জন্যে সরকার অর্থায়ন করবে কোত্থেকে? যেইখানে প্রস্তাবনায় আমি পদ্মা সেতুর বিকল্প অর্থায়ন করার কথা বলেছি সেইখানে দেখা যাচ্ছে খরচের নতুন ফিরিস্তি নিয়ে এসেছি। এইবার অন্যভাবে একটু দেখুন; কিছুদিন আগে আর্মি হাউজিং স্কিম বা এএইচএস (AHS) হতে যাচ্ছিল যেখানে সরকার সকল আর্মি অফিসারকে কিছু প্লট বরাদ্ধ দিবে, বাইরে থেকে আমরা সবাই জানি এইসব সরকার অফিসারদের ফ্রি দেয়; ধারনাটি ভুল। অফিসারেরা বরাদ্দকৃত প্লটসমূহ কিস্তিতে নিজের উপার্জিত আয় থেকে কেনার কথা ছিল। পরবর্তীতে বিভিন্ন কারণে আপাতত প্রজেক্টটি বন্ধ আছে, যাহোক আমি এই বিষয়টির অবতারণা করেছি নিতান্তই উদাহরণ স্বরূপ।

এইবার আসা যাক আমার দ্বিতীয় পর্যবেক্ষণে; এইযে বাংলাদেশের সরকার ও জনগন সর্বদা আমাদের প্রবাসীদের পাঠানোর রেমিটেন্সের প্রশংসা করি আমরা কি তাদের এত বিশাল ত্যাগ ও তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের জন্যেও কোন প্রকার কোন স্বীকৃতি বা পুরস্কার দিয়েছি? বা রাষ্ট্র দিয়েছে? না দেয় নি। অথচ তাদের পাঠানো রেমিটেন্সই আমাদের বার্ষিক মোট প্রবৃদ্ধির ৩০%; অন্তত আজ পর্যন্ত তাদের জন্যে পরিকল্পিত কোন প্রকার পদক্ষেপ কোন সরকারই নেয় নি। সরকারি হিসেব মতে বাংলাদেশের প্রবাসী মানুষের সংখ্যা ৮০ লক্ষাধিক আর বেসরকারিভাবে এই সংখ্যাকে ১ কোটিরও বেশী বলা হয়। এইসব প্রবাসীর মধ্যে সরকার বা উপশহরগুলোর নির্মাণ কর্তৃপক্ষ লটারির মাধ্যমে বিভাগ অনুযায়ী প্লট বরাদ্দ দিবে, তালিকায় দেখা যাচ্ছে প্রতি বিভাগে আবাসিক প্লটের মোট সংখ্যা ২,৫৩৯ টি যেখানে ১৮১৪ টি ৫ কাঠার এবং বাকি ৭২৫ টি ১০ কাঠার (এমন বিভাজন সরকারের বিশেষজ্ঞদের নিয়ে অন্যভাবেও বণ্টন করা যেতে পারে…); এইটা খুব সহজেই অনুমেয় যে এমন একটি উপশহরে প্রবাসীরা প্লট নিতে হুমড়ি খেয়ে পরবে কেননা তাদেরকে জায়গা বা জমি অথবা প্লট কিনতে প্রচুর প্রতারনা ও ঝামেলার সম্মুখীন হতে হয়। তাই এমন প্রকল্প সফল হবে তাতে কোন সন্দেহ থাকার কথা না। ৭ বিভাগের ৭ টি উপশহরে ৫ কাঠার ১২,৬৯৮ টি এবং ১০ কাঠার ৫০৭৫ টি প্লট বরাদ্দ দেয়া যেতে পারে (চার্টে দেখুন) বাকি সবকিছু বাদ দিলেও যেইখান থেকে সরকারের আয় হবে ১,১৪,২৪০ কাঠা থেকে ২৫,০০০ কোটি টাকার মত। এইখানে আমি টাকার হিসেবটা করেছি শুধু ৫৪.৬৫ % জায়গার (আবাসিক প্লট সমূহ…) এ ছাড়াও কমার্শিয়াল এরিয়া, পার্ক, লেক থেকেও প্রচুর পরিমাণ অর্থের উন্নয়ন করতে পারবে সরকার যার পরিমাণ ১ টি নয় ২ টি পদ্মা সেতু নির্মাণের অর্থের সমান হবে। আর প্রতিটি বিভাগের উপশহরগুলোর অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও নির্মাণ ব্যায় হবে সর্বোচ্চ ২,০০০ কোটি টাকা অর্থাৎ সরকার শিক্ষাখাত, চিকিৎসা খাতের ব্যাপক উন্নয়ন করতে পারবে ৭ বিভাগ কেন্দ্রিক যার পরিমাণ চলতি অর্থ বছর সহ আগামী ৩ অর্থ বছরের পদ্মা সেতুর জন্যে বরাদ্দকৃত ক্ষতিগ্রস্ত বার্ষিক উন্নয়ন বাজেটের দ্বিগুণের কাছাকাছি। (এইখানে প্রকল্পের ব্যয় ও আয় সম্পর্কে অনেক তথ্য প্রাসঙ্গিক কারণেই গোপন রাখা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়ে এই রূপরেখা চূড়ান্ত করতে হবে…)

প্রকল্পসমূহের বাস্তবায়নের জন্যে করনীয়ঃ
দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে টানাপোড়েনে পদ্মা সেতু প্রকল্পের মূল অর্থায়নকারী সংস্থা বিশ্ব ব্যাংক বাদ পড়ার পর নিজস্ব অর্থায়নে প্রায় ৬ কিলোমিটার দীর্ঘ এই সেতু নির্মাণের ঘোষণা দেয় সরকার। এরপর এই বছরের শুরুতে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে বাস্তবায়িত হাতিরঝিল প্রকল্পের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী সেনাবাহিনীকে পদ্মা সেতু নির্মাণের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানান। আমরা কিছুদিন আগে দেখেছি সরকার প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের নামে মিরপুর-বনানি-এয়ারপোর্ট ফ্লাইওভার উদ্বোধনের সময় একটি কম্পোজিট আর্মি ব্রিগেড করার কথা বলেছিল। আমার প্রস্তাব থাকবে এই ‘কম্পোজিট ব্রিগেড’-টিই হবে এই প্রকল্প সমূহ বাস্তবায়নের মূল চালিকা শক্তি কেননা একমাত্র এই ব্যাপারটিই পারবে বাঙ্গালী প্রবাসীদের আস্থা অর্জন করতে এবং সময়মত প্রকল্প সমূহের হস্তান্তরের নিশ্চয়তা দিতে।

যোগাযোগ, প্রবাসী কল্যান ও মুক্তিযুদ্ধা মন্ত্রনালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়দের আমি অনুরোধ করব আমার এই ভাবনা যথাযথভাবে বিশ্লেষণ করে দেশ ও জাতির কল্যাণে একটা সুদূরপ্রসারী পদক্ষেপ নিন। যা আমাদের আগামী প্রজন্মের ভবিষ্যৎ যেমন সুসংহত করবে তেমনি পদ্মার ওপারের মানুষের বহুদিনের স্বপ্ন পূরণ করবে, জাতীয় অর্থনীতিকে বেগবান করবে একইসাথে পদ্মা সেতু নির্মাণের নিজস্ব অর্থায়নের জটিলতার একটা সমাধান করবে। অন্যদিকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সঠিক ইতিহাসকে নিয়ে যাবে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে।

৬৩ thoughts on “নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুঃ একটি নতুন ভাবনা ও জাতীয় ঐক্যের শ্রেষ্ঠ সুযোগ

  1. চমৎকার প্রস্তাবনা। এক ঢিলে
    চমৎকার প্রস্তাবনা। এক ঢিলে অনেক পাখি। সরকারের উচ্চমহলে প্রস্থাবনাটি তুলে ধরতে পারলে ভালো হতো। আপাতত সবাইকে লেখাটি শেয়ার করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

    1. আতিক ভাই আপনাকে আমার উদ্দেশ্য
      আতিক ভাই আপনাকে আমার উদ্দেশ্য বুঝতে পারার জন্যে.. :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ: :গোলাপ:
      আসলেই এক ঢিলেই অনেক পাখিই মারার ইচ্ছা ছিল!
      আর আপনার প্রেরনায় ধন্য :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

    2. আতিক ভাইয়ের সাথে পুরাপুরি
      আতিক ভাইয়ের সাথে পুরাপুরি একমত। সবাই শেয়ার দিন আর কারো হাতে সুযোগ থাকলে দৈনিক পত্রিকায় বিশেষ করে সমকাল বা সমমানের দৈনিকে এই প্রস্তাব আরেকটু গুছিয়ে দেয়া যেতে পারে। তাহলে গণজাগরণ মঞ্চ যেমন দেশ জুড়ে বাহবা পাবে তেমনি দেশের বিশাল একটা অর্থনৈতিক সংকট থেকে কিছুটা হলেও মুক্ত হবে। সবচে বড় কথা খুব খুব চমৎকার ভাবেও া মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সঠিক ও দেশব্যাপী লালন হবে।।
      পোস্টদাতাকে :salute: :salute: :salute: :salute: :salute:

  2. নিজস্ব অর্থায়নে করলেও মন্ত্রী
    নিজস্ব অর্থায়নে করলেও মন্ত্রী আমলাদের চুরি-বাটপারি কি বন্ধ হবে? দাতার টাকায় করতে পারে নাই কেন? চুরি ও ভাগাভাগিতে বনিবনা হয় নাই বলে।

    1. এমন অনেক সমালোচনা মুখোর একটা
      এমন অনেক সমালোচনা মুখোর একটা বাসে আমি প্রশ্ন রেখেছিলাম!
      আপনারা সবাইতো রাজনীতিবিদদের দুর্নীতিপরায়নতা নিয়ে কথা বলছেন, আমি একটা প্রশ্ন করি এইযে আমরা ৩৫-৪০ জন মানুষ এই বাসে আপনরা বুকে হাত দিয়ে বলেন তো আপনার উপার্জন বা যে কামায় দিয়ে নিজের মা-বাবা-বউ-সন্তানদের খাওয়াচ্ছেও তাতে কত % সৎ উপার্জন আছে? বলেন?
      নাটকীয়ভাবে সবাই চুপ কইরা গেল! কয়েকজন কিছু বলতে চাইল! আমি বললাম আগে আমাদের সবাইকে সৎ হতে হবে না হয় আরেকজনের অসততা নিয়ে কথা বলার অধিকার আমার নেই… আমাদের দেশের মানুষের আদর্শিক মূল্যবোধ এখনও সেই পর্যায়ে যায় নি সুযোগ পেলে দাড়ি-টুপির হুজুর থেকে শুরু করে চরম অহিংস বৌদ্ধটিও তার স্বার্থপরতায় নিম্মজ্জিত…

      আমার কথা অন্যভাবে নিবেন না। আমি জানি আমাদের রাজনীতিবিদেরা সম্ভব সর্বোচ্চ পরিমাণ করাপ্টেড। তো তারপরও আমাদের দেশের অগ্রগতি থেমে থাকে নি। সবকিছু মিলিয়েই একটি দেশ, এইসবই পরস্পর সম্পর্কযুক্ত! মানুষ সচেতন ও শিক্ষিত না হলে যেমন তাকে সৎ ও দায়িত্ববান করা যাবে না তেমনি মানুষ সৎ-ও দায়িত্ববান না হলে দেশকে এগিয়ে নেয়া সম্ভব না। তাই দুটুই আমাদের যুগপৎ করতে হবে… হতাশা বা বিদ্বেষ কোন সমাধান নয়! আমি একটা সমাধানের কথা বলেছি,আমি একটা প্রস্তাব রেখেছি এবং এই প্রস্তাবের শেষে কীভাবে তা সফল ও দুর্নীতিমুক্ত রেখে বাস্তবায়ন করা যাবে তার একটা উপায়ও আমি রেখেছি! আমার মনে হয় হয়ত আপনি আমার লিখার ভাব বা লক্ষ্য বুঝতে পারেন নি অথবা পুরাটা পড়েন নি!!
      প্রাসঙ্গিক আলোচনা করলে ভাল হত..

  3. পুরোটা পড়লাম। একটু তাড়াহুড়া
    পুরোটা পড়লাম। একটু তাড়াহুড়া করেই পড়লাম। সেজন্য চোখ এড়িয়ে কিছু চলে যেতে পারে। পরেরবার পড়বার সময় হয়তো বুঝতে পারব নতুন কিছু এড করা যায় কিনা, অথবা কিছু বাদ দেয়া দরকার কিনা। তবে আরেকটি বিষয় হল, গনিতের মাধ্যমে আমরা অনেক সমস্যা সমাধান করতে পারি, কিন্তু বাস্তব জীবনে সমাধানের ক্ষেত্রে বেশ কিছু সমস্যার সম্মুখীন হয়। খুব সুন্দর একটি ভাবনা এবং প্রস্তাবনার জন্য ধন্যবাদ, এটা আমাদের নতুন করে ভাবতে শেখাবে :bow: :bow: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:

  4. এইভাবে আগে আপনার মত ভেবে
    এইভাবে আগে আপনার মত ভেবে দেখেনি আর এইধরনের পরিকল্পনা মাথায়ও আসেনি.| অনেক সুন্দর পরিকল্পনা প্রস্তাব.| ঊর্ধ্বতন মহল যদি তাঁদের অভ্যন্তরীণ নিয়মনীতি ঠিক রেখে এই ধরনের প্রস্তাব বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয় তবে তা জনগণের জন্য হবে কল্যাণকর এবং সকলের পক্ষে মঙ্গল,এই জন্য আপনাকে ধন্যবাদ :বুখেআয়বাবুল:

    1. (No subject)
      :লইজ্জালাগে: :লইজ্জালাগে: :লইজ্জালাগে: :লইজ্জালাগে: :লইজ্জালাগে:
      :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:
      :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি:

  5. নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু
    নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতু করলে আমরা একটি মাইলফলক তৈরি করতে পারবো বটে কিন্তু সেটিকে বিবেচনায় রেখে তো মন্ত্রী এমপি রা চুরিচামারি বন্ধ করবে না। স​ৎ না হলে কিভাবে করবে? শুধু মন্ত্রী এমপি কেন দেশের মানুষও চোর। সবাই না কিন্তু অনেকে।

    1. আমার কথা অন্যভাবে নিবেন না।
      আমার কথা অন্যভাবে নিবেন না। আমি জানি আমাদের রাজনীতিবিদেরা সম্ভব সর্বোচ্চ পরিমাণ করাপ্টেড। তো তারপরও আমাদের দেশের অগ্রগতি থেমে থাকে নি। সবকিছু মিলিয়েই একটি দেশ, এইসবই পরস্পর সম্পর্কযুক্ত! মানুষ সচেতন ও শিক্ষিত না হলে যেমন তাকে সৎ ও দায়িত্ববান করা যাবে না তেমনি মানুষ সৎ-ও দায়িত্ববান না হলে দেশকে এগিয়ে নেয়া সম্ভব না। তাই দুটুই আমাদের যুগপৎ করতে হবে… হতাশা বা বিদ্বেষ কোন সমাধান নয়! আমি একটা সমাধানের কথা বলেছি,আমি একটা প্রস্তাব রেখেছি এবং এই প্রস্তাবের শেষে কীভাবে তা সফল ও দুর্নীতিমুক্ত রেখে বাস্তবায়ন করা যাবে তার একটা উপায়ও আমি রেখেছি! আমার মনে হয় হয়ত আপনি আমার লিখার ভাব বা লক্ষ্য বুঝতে পারেন নি অথবা পুরাটা পড়েন নি!!
      প্রাসঙ্গিক আলোচনা করলে ভাল হত..

  6. ফাটাফাটি আইডিয়া।এই আইডিয়াটা
    ফাটাফাটি আইডিয়া।এই আইডিয়াটা সরকারের উপর মহল পর্যন্ত পৌছলেও বাস্তবায়নে পদক্ষেপ নিবে বলে মনে হয় না ।কারন ৭টি বিভাগীয় শহরে ৪৯৪ একর জমি অধিগ্রহন করা যে কোন সরকারের পক্ষেই অসম্ভব হবে।তাছাড়া এই লীগ, সেই দল অর ঐ পার্টি তো আছেই।

    তবে আপনার প্রস্তাবটা ফখরুদ্দিন সরকার বা এই ক্যাটাগরির কোন সরকার ইচ্চা করলে বাস্তবায়ন করতে পারবে।

    1. শহীদ ভাই আপনাকে অসংখ্য
      শহীদ ভাই আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:
      মানুষের উপর বিশ্বাস হারানো উচিৎ না! দেখবেন জনগন কীভাবে কতবড় চোর-বাটপারদেরও একাধিকবার নির্বাচিত করে! আমাদেরও তাই করতে হবে…
      তারপর যথারীতি ১০০ টাকার ২০-২৫ টাকা তারা খাবে বাকিটা জনগন পাবে!! আগেতো ভাই অবস্থা আরও খারাপ ছিল, মিডিয়া আর সমাজ যত শক্তিশালী হবে ততই জবাবদিহিতা ও মানুষের সততা বৃদ্ধি পাবে… আশায় থাকব, একটা পরিবর্তন আসবে বলে… :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি:

  7. দুর্দান্ত প্রস্তাব যা
    দুর্দান্ত প্রস্তাব যা বাস্তবায়ন যোগ্য। সরকার পর্যন্ত পৌছান গেলে ভালো হইত। যারা মন্ত্রীদের জন্য ভয়ে থাকেন তাদেরকে কিছু বলার নাই।
    পদ্মা সেতুর অর্থায়নের জনককে অগ্রিম ধন্যবাদ

    1. (No subject)
      :লইজ্জালাগে: :লইজ্জালাগে: :লইজ্জালাগে: :লইজ্জালাগে: :লইজ্জালাগে:
      :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  8. আইডিয়া চমৎকার।কাজে লাগিয়ে
    আইডিয়া চমৎকার।কাজে লাগিয়ে সার্থক হওয়া যায়। এখন কথা হল উপরমহল কি আসলেই পদ্মা সেতু চায়!!তাদের সহযোগিতা পেলে এই উদ্যোগ সফলতার মুখ দেখবে।

    1. ধন্যবাদ…
      আশায় থাকব

      ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:
      আশায় থাকব যেন আমার এই উদ্যোগটা কেউ আমলে নিবে… :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি:

  9. লেখায় একটা তথ্যগত ভুল
    লেখায় একটা তথ্যগত ভুল আছে।
    বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ল্যান্সনায়েক মুন্সি আব্দুর রউফ-জন্ম রাজশাহী বিভাগের ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার (পূর্বে বোয়ালমারী উপজেলার অন্তর্গত) সালামতপুর গ্রামে নয়।

    ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার (পূর্বে বোয়ালমারী উপজেলার অন্তর্গত) সালামতপুর গ্রাম ঢাকা বিভাগে
    ঠিক করে দিয়েন।

  10. আমি জানি না সবাই বুঝে পড়েছে
    আমি জানি না সবাই বুঝে পড়েছে কিনা। অধ্যাপক ডঃ আবুল বারাকাত স্যার এর লেখাটা পড়তে গিয়ে মনে হল পদ্মা সেতুতে ইনভেস্টমেন্টে দেশের ইনফ্লেশনে কি প্রভাব পড়বে সেই ব্যাপারে কিছু লেখা নাই। বিষয়টা ছোট মনে হলেও জনজীবনে এর প্রভাব বিশাল। সাধারন মানুষের জীবন যাত্রায় সামান্যতম ছেদ পরলেও কিন্তু তোর ঐ জাতীয় ঐক্য তাসের ঘরের মতো ভেঙ্গে পড়বে। কেউ তখন বুঝতে চাইবে না পদ্মা সেতু দিয়ে কি হবে।
    আচ্ছা, আরেকটা কথা বলি। “পদ্মা সেতুতে ইনভেস্টমেন্ট” ব্যাপারটা কিন্তু বিশাল গবেষণার ব্যাপার। বারাকাত স্যার যা লিখেছেন সেটা বুঝতে হলে আগে সেটা নিয়ে নিজস্ব একটা পেপার দাঁড় করাতে হবে।আমি এমবিএ তে কাছাকাছি একটা পেপার লিখেছিলাম বলেই বলছি। এখানে অনেক প্যারামিটার আছে যেগুলো কোন ভাবেই ইগনোর করা যাবে না। মাঠে নামতে হলে আটঘাট বেধেই নামতে হবে।
    সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে কম্পোজিট আর্মি ব্রিগেড কর্তৃক পদ্মা সেতু নির্মান এর স্বপ্ন দেখতে ভালোই লাগছে। কর্নেল তাহেরের কথা মনে পড়ে গেল। একটা ভালো লোক ছিল। দেশটাকে ভালোবাসতো।
    আর, একটা সাবজেক্ট ফিক্সড থাক। একেবার একেক সাবজেক্ট নিয়ে মাতামাতি করলে কোনটাই তো আগাবে না। নাকি অন্যদের মতো তোরও সেলিব্রেটি হওয়ার ইচ্ছা?
    :ভেংচি:

    1. তোর প্রাসঙ্গিক ও গঠনমূলক
      তোর প্রাসঙ্গিক ও গঠনমূলক মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ…
      :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :চোখমারা: :চোখমারা: :চোখমারা: :চোখমারা: :চোখমারা: :চোখমারা:

    1. অবশ্যই হবে… আশায় একমাত্র
      অবশ্যই হবে… আশায় একমাত্র ভরসা…
      অনেক সুচকেও আমরা সময়ের আগে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছে! চমকে দেয়ার মতই অর্জন বাঙ্গালীর আছে…

      ২০৫০ সালে আমরা কোথায় যাব তা বিশ্বব্যাংকই বলেছে…
      আমরা যারা স্বপ্ন দেখতে পছন্দ করি তাদেরকে সমালোচনা না করে উদ্যোগ নিতে হবে!
      সমালোচনা এরশাদও করতে পারে, কাজ করতে ওবাইদুল কাদেরের মত লোক চাই!!
      ভাল থাকবেন…
      আপনাকেও ধন্যবাদ :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  11. প্রথমেই
    কিন্তু

    প্রথমেই :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

    কিন্তু পরমুহূর্তেই হতাশা :দীর্ঘশ্বাস: :দীর্ঘশ্বাস: :দীর্ঘশ্বাস: :দীর্ঘশ্বাস:
    এই পরিকল্পনা সরকারের চোখে পড়বে না। আর সরকার যদি এমন কিছু করেও বা বাস্তবায়ন কি সম্ভব???
    দুর্নীতি কি হবে না?

    আপনি অনেক ভেবে এমন একটি পরিকল্পনার বেড় করেছেন জেনে ভালো লাগলো।

  12. আপনাকেও ধন্যবাদ স্বপ্নচারী
    আপনাকেও ধন্যবাদ স্বপ্নচারী ভাই… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:
    লিখাটি উপরের মহলের কারো দৃষ্টিতে আসলেই ভাল হত!
    আমি ভাই একজন চরম আশাবাদী মানুষ।।
    একদিন এই বাংলা মাথা তোলে দাঁড়াবেই বিশ্ব দরবারে…

  13. গঠন্মূলক সমালোচনা কিভাবে করব?
    গঠন্মূলক সমালোচনা কিভাবে করব? এসম্পর্কে তেমন কোন জ্ঞানই তো নেই… আইডিয়া ভাল লাগল

    1. ধন্যবাদ…
      এই

      ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:
      এই সম্পর্কে জ্ঞান নাই? এইটা ঠিক না! আমি একদম সকল জনসাধারণের জন্যেই লিখেছি!
      ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয় ততটুকুই এনেছি যতটুকু বেচে থাকার জন্যে সবাই জানে।আরেকবার মনোযোগ দিয়ে পড়ুন!! ভাল থাকবেন…

        1. আমার উপস্থাপনা কি এতই রুক্ষ
          :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:
          আমার উপস্থাপনা কি এতই রুক্ষ ছিল?

          1. (No subject)
            :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:
            :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি: :চিন্তায়আছি:

  14. চমৎকার প্রস্তাবনা লিঙ্কন ভাই
    চমৎকার প্রস্তাবনা লিঙ্কন ভাই । একটু দেরিতে পড়লাম লেখাটা । আপনার বিশ্লেষণ অসাধারন হয়েছে । আতিক ভাই এর সাথে সহমত যে সরকার এর উচ্চ পর্যায়ে বিষয় টি উত্থাপিত হউয়ার প্রয়োজন । লেখার উপর গঠনমূলক কিছু বলার কি আছে ? পুরাটায় সহমত । :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া:

    1. দেরী হলে কোন সমস্যা নাই!
      দেরী হলে কোন সমস্যা নাই! Later better then never… 😉
      প্রেরণা দেয়ার জন্যে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :গোলাপ: :গোলাপ:

  15. আইডিয়াতো ফাটাফাটি। আসলে নতুন
    আইডিয়াতো ফাটাফাটি। আসলে নতুন প্রজন্মের এমন সব ভাবনা থেকে দেশকে নিয়ে স্বপ্ন দেখতে সাহস পাই। তবে বাস্তবতা অনেক কঠিন। নিজস্ব দীর্ঘ মেয়াদী হোক সল্প মেয়াদী এমন বিগ প্রজেক্ট রান করানো উন্নয়নশীল দেশ কেন অনেক উন্নত দেশের পক্ষে সম্ভন না। আর নিজস্ব অর্থায়নে আমরা হয়তো ভিত্তিপ্রস্তর পর্যন্ত স্থাপন করতে পারবো।
    ধন্যবাদ এমন অসাধারন বিশ্লেষনের জন্য।

    1. সবই ঠিক আছে, কিন্তু এই কথা
      সবই ঠিক আছে, কিন্তু এই কথা মানতে পারলাম না! যেঃ

      নিজস্ব দীর্ঘ মেয়াদী হোক সল্প মেয়াদী এমন বিগ প্রজেক্ট রান করানো উন্নয়নশীল দেশ কেন অনেক উন্নত দেশের পক্ষে সম্ভব না।

      ইচ্ছা করলেই উপায় হয়! স্বদিচ্ছা থাকলে আমাদের দেশের জনবল এবং প্রকৌশলীদের দিয়েই এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সম্ভব…
      হাতিরঝিল প্রকল্প যেমন বাংলাদেশ আর্মি নির্ধারিত সময়ের আগেই উদ্বোধন করতে পেরেছে তেমনি সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে হলে এই কাজ করা সম্ভব অতি সফলতার সাথে নির্ধারিত সময়ে…
      ধন্যবাদ শামীমা মিতু… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

    2. আপনি লিখাটি সমকালে ছাপাতে
      আপনি লিখাটি সমকালে ছাপাতে পারেন না? সারওয়ার ভাইকে দেখান;
      তেঁতুলবীদদের হাত থেকে রক্ষা হওয়ার ভাল উপায় আর ব্লগের প্রতি মানুষের আস্থা ও ভক্তি আসবে। যে ব্লগে দেশের কথাও লিখা হয় :অপেক্ষায়আছি:

    1. ধন্যবাদ উপলব্ধির জন্যে
      ধন্যবাদ উপলব্ধির জন্যে :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:
      আমি ভাবলাম আবার মিস্টারদা লিংকন বানায় দিলেন কিনা!! 😉 ভাল থাকবেন…

  16. খুবই সুন্দর প্রস্তাব। এই
    খুবই সুন্দর প্রস্তাব। এই প্রস্তাবটি বাস্তবায়নযোগ্য। সরকার সামরিকবাহিনীর সহযোগীতায় এই প্রকল্পটি হাতে নিতে পারেন। কিন্তু, এই প্রস্তাবটি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে শুধু একটি গুরুতর সমস্যা আছে। সেটা হচ্ছে জমির প্রাপ্যতা। সরকার যাদের জমি অধিগ্রহন করবে তাদের জমি কৃষিকাজ তথা তাদের জীবন ধারনের হয়তো একমাত্র সহায়। সেই ক্ষেত্রে যদি জনগনের সহযোগীতার ক্ষেত্রটি সুষ্ঠু সমাধান করে একটা ন্যায্য সমঝোতায় পৌঁছা যায় তাহলেই এটা বাস্তবায়ন সম্ভব হতে পারে।

    1. আপনাকে ধন্যবাদ…
      আপনাকে ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:
      আর জমির প্রাপ্যতা নিয়ে সমস্যার সম্ভাবনা একেবারে অমূলক নয়। তাই আমি নিজেই এই ব্যাপারেও খবর নিয়েছি। এমনকি কেউ যদি চাই বেসরকারিভাবেই ৭৫০ বিঘা জমি,সাভারে একটা ১২০ ফুট রোডের পাশে তাও কিনে নিতে পারবে , মাত্র ২৫০ কোটি টাকায় (!!!); আর সরকারিভাবে অধিগ্রহণ তাই ততটা কস্তসাধ্য হবে না অন্তত আমি মনে করি। আর বাদ বাকি বিভাগীয় সদরের ক্ষেত্রে কাজটি আরও সহজ হবে আশা করি…

  17. আইডিয়াটা খুবই ভালো লাগলো ।
    আইডিয়াটা খুবই ভালো লাগলো । কিন্তু সমস্যা হচ্ছে দেশতো চালায় গাড়ল রাজনীতিবিদরা…

    সে যাই হোক প্রস্তাবনাটাতো ভালো….বিড়ালের গলায় ঘন্টা বাধার দায়িত্ব কেউ না নিলেও এটা শুধু আইডিয়া হিসেবেও চমৎকার।

    1. গাড়লদের যদি আমরা সাধারনেরা
      গাড়লদের যদি আমরা সাধারনেরা সরল মনে বার বার সুযোগ করে দেই তবে পরিবর্তন কীভাবে হবে? আমাদেরকে আসতে হবে আশা করি একদিন ভালরাই আবার জনকল্যাণেই রাজনীতিতে আসবে ব্লগে-টকশোতে-পত্রিকায় সুশীল সাজার জন্যে বেঁচে না থেকে… কেননা দেশের প্রতি দায়বদ্ধতা শুধু সমালোচনায় না; জনকল্যানে এগিয়ে আসাই… ভাল থাকবেন!
      আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:

  18. নিঃসন্দেহে ভালো পরিকল্পনা।
    নিঃসন্দেহে ভালো পরিকল্পনা। কিন্তু যে দেশে উঠতে বসতে দূর্নীতি ,যে দেশে সরকার মানুষের ভাতের সমস্যাই মিটাতে পারেনা ,যে দেশে সরকারের নীতি নির্ধারনের আসনে বসে আছেন জ্ঞানীমূর্খ , সে দেশের জন্য এই প্রজেক্ট সম্ভব কিনা জানিনা। তাও নিঃসন্দেহে ভালো চিন্তা করেছেন।

    কথা হল বাস্তবায়নের সম্ভাবনা নাকি বাস্তবায়ন সম্ভব না??

    1. এতটা হতাশ আমি না… বিশ্ব
      এতটা হতাশ আমি না… বিশ্ব ব্যাংক না দুনিয়ার তাবৎ অর্থনৈতিক সমীক্ষায় বাংলাদেশকে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের দিকে বাহবা দিয়েছে! এমন কি আমরা ২০৫০ সালে যেইখানে যাব ধারনা করত পশ্চিমা বিশ্ব অগ্রগতি তার থেকেও ভাল!! মানুষ এতই দুর্নীতিবাজ যে আমি যদি বিশ্ব-ব্যাংক বা ইউএন এর বার্ষিক বিশ্ব উন্নয়নের বাজেটের দুর্নীতির ফিরিস্থি দেয় তবে আমার লাশই খুঁজে পাওয়া যাবে না… দুর্নীতি আমাদের বিবেকে! আরেকজনেরটার দিকে তাকানোর আগে আমাকে নিজেকে সৎ হতে হবে!
      এই প্রকল্প বাস্তবায়ন যোগ্য সম্ভব্য সকল জটিলতার সমাধান আমি ভেবে রেখেছি।
      সরকার উদ্যোগী হলেই করা সম্ভব।। এইটা ৭টা বনানি-মিরপুর-এয়ারপোর্ট জিল্লুর রাহমান ফ্লাইওভার বানানোর মত বড় একটা প্রকল্প তেমন আহামরি কিছু না…

      1. আইডিয়াটা অবশ্যই চমৎকারকার।
        আইডিয়াটা অবশ্যই চমৎকারকার। প্রশংসা না করে পারছিনা। বাস্তবায়ন হলে তো কথাই নেই। শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

  19. এরকম একটা লেখা দেরী করে পড়ায়
    এরকম একটা লেখা দেরী করে পড়ায় :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি: :মাথাঠুকি:
    খুবই ভালো লাগলো।। এই পরিকল্পনাটাকে সরকারের অতি দ্রুত সিরিয়াসলি নেয়া উচিত।।
    আপনাকে অনেক ধন্যবাদ এমন একটা :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ: আইডিয়া শেয়ার করার জন্য।।

    1. মহামান্য মান্যবর ভাই, দেরী
      মহামান্য মান্যবর ভাই, দেরী হলে কোন সমস্যা নাই! Later better then never…… ধন্যবাদ :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা:
      “পরিকল্পনাটাকে সরকারের অতি দ্রুত সিরিয়াসলি নেয়া উচিত।।”-সহমত… 😉
      :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি:

    1. চাচা ধন্যবাদ… শুভ
      চাচা ধন্যবাদ… :ধইন্যাপাতা: :ধইন্যাপাতা: শুভ কামনা রাইখেন…
      দেশটাকে গড়তে হলে আমাদের লড়তে হবে!! :অপেক্ষায়আছি: :অপেক্ষায়আছি:

    1. দামের জন্যে না দেশটার জন্যে
      দামের জন্যে না দেশটার জন্যে কিছু করতে মঞ্চায়!!
      এই হায়েনাদের দেশ থেকে বিতাড়িত করতে আমাদের সবচে বড় শক্তি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা…
      আমি চাই এই চেতনায় দেশকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে আর সামনে এগিয়ে নিতে হবে…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *