আবার নিষিদ্ধ জামায়াত

বাংলাদেশের হাই কোর্ট এ জামাতে ইসলাম নিষিদ্ধ হয়েছে। বিষয়টি কতদূর গড়াবে তা কে জানে। ঈদের পর দেশের অবস্থা কি হবে তা কল্পনাতীত । হয়ত আমাদের পড়ালেখার বয়স বাড়বে আরো কিছুদিন এই সব রাজনীতির জন্য।!!


বাংলাদেশের হাই কোর্ট এ জামাতে ইসলাম নিষিদ্ধ হয়েছে। বিষয়টি কতদূর গড়াবে তা কে জানে। ঈদের পর দেশের অবস্থা কি হবে তা কল্পনাতীত । হয়ত আমাদের পড়ালেখার বয়স বাড়বে আরো কিছুদিন এই সব রাজনীতির জন্য।!!

আজকের খবর পরে অনেক মজা পেলাম। জামাত নিষিদ্ধ হওয়াতে কোন দেশের মাথা ব্যাথা নায় কিন্তু হঠাৎ করে পাকিস্তান জামায়াতের আমির সৈয়দ মুনাওয়ার হাসান বাংলাদেশের হাই কোর্টের রায়ের বিপক্ষে চলে গিয়ে বিবৃতি দিয়েছে এবং বাংলাদেশের সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছে। যে কথা গুলো আমরা বিএনপি-জামায়াত এর মুখে শুনতে পাই সে কথাগুলো তার মুখ দিয়েই সরাসরি পাওয়া গেছে। এই বিষয়টাই তো প্রমান করতে যথেষ্ঠ যে জামায়াতের সাথে পাকিস্থান জামায়াতের বড় যোগ-সাদৃশ্য আছে।

বাংলাদেশের জামায়াত কি আসলেই বাংলাদেশের জামায়াত নাকি পাকিস্থানী জামায়াত?? এটার উত্তর পানির মত সোজা হয়ে গেছে। তাহলে কিভাবে ১৯৭৯ সালে মেজর জিয়া জামায়াত কে এদেশে রাজনীতি করার অনুমোদন দিল?? কেন দিল?? তিনি তো জানতেনই……।। উত্তর গুলো খুজতে গেলে অনেক কিছুতেই সন্দেহ হবে। সোজা ভাবে এখানে বলতেগেলে, কট্টর বিএনপিরা বলবে আমি একজন আওয়ামিলীগার!!! আবার নাস্তিক বানাতেও টাইম লাগবেনা।!!!

জামায়াতের ইতিহাস ঘাটতে গেলে দেখা যাবে পাকিস্থানী আমলে (১৯৭১ এর আগে) ২ বার নিষিদ্ধ হয়েছে ১৯৫৯ ও ১৯৬৪ সালে। কেন হয়েছে তা আমাদের জানাই আছে। এরপর ১৯৭১ সালের পর ১৯৭২ সালে আবার নিষিদ্ধ এবং অস্তিত্ব ছিলনা এই দেশে। জামায়াতে আমীর গোলাম আজম মেজর জিয়ার আমলে এদেশে ফেরত আসল তো বটেই এবং দল গঠন করে আবার রাজনীতি করার অনুমোদনও পাইলো। একটু ভালো করে খেয়াল করলে দেখা যাবে ব্যপার গুলো সব বংগবন্ধু নিহত হবার পরপর ঘটেছে। তার মানে কি তারা বংবন্ধুর মৃত্যুর জন্য কি অপেক্ষা করছিল ? এদেশে আবার প্রবেশকরে খুটি তৈরী করার? কিছুদিন আগে তাহের হত্যার রায়ের বিশ্লেষন করলে অনেক কিছুই উঠে আসবে।!! যা আসলে ভাবনাতীত। এরপর বিএনির আমলে এইদেশের মন্ত্রিত্ব পদও দখল করেছে। এবং এখনো তাদের সঙ্গেই রাজনীতি করছে বিএনপি। এবং বিএনপিও কিন্ত জামায়াতের পক্ষ নিয়ে উচ্চ আদালতের বিপক্ষে বলেছে।

সব কিছু যেন একই সূত্রে গাঁথা। ভালো তো, ভালো না !!

৫ thoughts on “আবার নিষিদ্ধ জামায়াত

  1. জামাতের শেকড় যে পাকিস্থানে
    জামাতের শেকড় যে পাকিস্থানে এটা বুঝতে কি আইনস্টাইন হওয়া লাগে? তবুও যারা বুঝতে চায় না তাদের জন্য স্পেশাল কোর্সের ব্যবস্থা নিয়েছে পাকিস্থানি জামাত। ভালোই তো। বিএনপির ভূমিকা দেখে এখন বোঝা যায়, স্বাধীনতার পর জামাতের রাজনীতির পথ আবার পরিষ্কার করার জন্য বিএনপির গোঁড়া পত্তন হয়েছিলো। এখন তা ধীরে ধীরে স্পষ্ট হচ্ছে।

  2. কবে এদের পাকিস্তানে রপ্তানি
    কবে এদের পাকিস্তানে রপ্তানি করা সেটার অপেক্ষায় আছি|
    এখন তো শুধু নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে,সম্পূর্ণ রাজনীতি নিষিদ্ধ করে জামায়াতের আগে “নিষিদ্ধ ঘোষিত রাজাকার জঙ্গি সংগঠন” ট্যাগ লাগানো উচিৎ :জলদিকর:

  3. এইটা কোন টপিক হল নাকি জামায়াত
    এইটা কোন টপিক হল নাকি জামায়াত নিষিদ্ধ হয়ছে আবার আসবে ওরা নতুন কিছু না ……… 😀

  4. হাইকোর্টের রায় বর্তমানে
    হাইকোর্টের রায় বর্তমানে হাসাহাসিতে রুপান্তরিত হতে চলেছে ।আজকে জনাব আশরাফুলের বক্তব্য থেকে বুঝা যায়, নিষিদ্ধ হলে তার দল লীগই হওয়া উচিৎ ছিল!
    খামোখা জামাত নিষিদ্ধ করে কোর্ট ভুল করেছে!

  5. জামাতে ইসলাম নিষিদ্ধ
    জামাতে ইসলাম নিষিদ্ধ হয়নি…
    নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে…
    হেড লাইন ভুল হওয়া উচিত না…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *