ইশ, একটুর জন্য!

জিপিএ ৪.৯০ পাইছিলাম। যাকেই রেজাল্টটা বলছিলাম সবাই ভুরু দুইটা কুঁচকায়ে বলতো
”ইশ, একটুর জন্য”

হা, একটুর জন্যই জিপিএ ৫ মিস করছিলাম। দুঃখ ছিল নাহ। রেজাল্ট এর দিন দেখলাম অনেকের মুখেই হাসি আবার অনেকেই মুখ ভার করে আছে, মনটাকে সময়ের সাথে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছে। আমার ক্ষেত্রে দিনটা ছিল সাদামাটা অনেকটা ভাল-মন্দ মিলায়ে বলা যেতে পারে।
আমার এখনও মনে হয় এইচ.এস.সি কোর্সটা ৩ বছরের করা উচিৎ!!


জিপিএ ৪.৯০ পাইছিলাম। যাকেই রেজাল্টটা বলছিলাম সবাই ভুরু দুইটা কুঁচকায়ে বলতো
”ইশ, একটুর জন্য”

হা, একটুর জন্যই জিপিএ ৫ মিস করছিলাম। দুঃখ ছিল নাহ। রেজাল্ট এর দিন দেখলাম অনেকের মুখেই হাসি আবার অনেকেই মুখ ভার করে আছে, মনটাকে সময়ের সাথে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছে। আমার ক্ষেত্রে দিনটা ছিল সাদামাটা অনেকটা ভাল-মন্দ মিলায়ে বলা যেতে পারে।
আমার এখনও মনে হয় এইচ.এস.সি কোর্সটা ৩ বছরের করা উচিৎ!!

রেজাল্ট যাই হোক না ক্যান সময়টা পার করে আসাটাই সব থেকে বড় ব্যাপার। রেজাল্ট এর দিন আমার এক বন্ধু হাসি মুখে আমাকে বলছিল, ”দোস্ত টেনশন নিস নাহ। ভাল কোথাও ভর্তি হয়ে গেলে এই রেজাল্ট এর কোন দাম নাই !”

বলে রাখি, আমার বন্ধুটি জিপিএ ৫ পেয়েছিল। ওই দিনই সন্ধ্যায় কল করে ওর রীতিমত কান্দা কান্দা ভাব! কল করে বলে, ”মামা আমার তো গোল্ডেন মিস!”
আমি বললাম, ”তাতে কি?”
ও বলে, ”আরে আমি এত কষ্ট কইরা উদ্ভাসে কোচিং করলাম বুয়েটে পড়মু এই আশা নিয়ে! আমার তো ফিজিক্স-মাথ দুইটা তেই প্লাস মিস!”
আমিও একটা খোটা মেরে বললাম, ”মামা, তুইও টেনশন নিস নাহ। ভাল কোথাও ভর্তি হয়ে গেলে এই রেজাল্ট এর কোন দাম নাই!”

আমার সেই বন্ধু গত মাসের কোন এক তারিখে ভর্তির ব্যাপারে আমার সাথে ফেবুতে যোগাযোগ করছিল। জানতে পারলাম সে নাকি বিগত কয়েক মাস আগে ‘ড্যাফোডিল’ এ ভর্তি হইছিল ইলেকট্রিকালে। এখন নাকি আর পড়তে ভাল লাগতেছে নাহ। তাই দেশের বাইরে চলে যাওয়ার ইচ্ছা আছে।

আজ এটুকু বলার মানে হল, একটা তুচ্ছ রেজাল্ট কখনই মানুষের ভবিষ্যৎ বদলাতে করতে পারে নাহ। ভাল কোন একটা জায়গাতে ভর্তি হলেই রেজাল্ট এর মর্ম শেষ। কাজেই লোক দেখানো এই রেজাল্ট নিয়ে কষ্ট পাবার কোন কারণ নাই।
ভর্তি যুদ্ধে পৌঁছানোর শেষ ধাপ পার করার জন্য অপেক্ষমান ছাত্রদের আমার আগাম অভিনন্দন।

৮ thoughts on “ইশ, একটুর জন্য!

  1. রেজাল্টের সফলতায় কতো নাচানাচি
    রেজাল্টের সফলতায় কতো নাচানাচি হবে। কিন্তু কিছুদিন গেলেই বুঝে যাবে এসবের খুব বেশী মূল্য নেই।

  2. এইচ​এসসির রেজাল্টের মুল্য হল
    এইচ​এসসির রেজাল্টের মুল্য হল তিন মাস। কিন্তু তার মানে এইনা যে রেজাল্ট যাই হোক ভাল সাবজেক্ট এ চান্স না পাইলে লাইফ শেষ। ভাল জায়গায় সাধারন সাবজেক্ট এর ও অনেক মুল্য আছে। কারন এইটা বাংলাদেশ্।

  3. আমি মনে করি ভাল সাবজেক্ট বলে
    আমি মনে করি ভাল সাবজেক্ট বলে কিছু নাই ।সব বিষয়ই সমান গুরুত্বের ।

    HSC তে পাশ ফেল উভয় প্রকারের ছাত্র ছাত্রীদের জন্য অভিনন্দন ।

    1. যারা ফেল করছে ওদেরকে অভিনন্দন
      যারা ফেল করছে ওদেরকে অভিনন্দন দেন শহিদ ভাই :কনফিউজড: ওরা আপনারে পাইলে সাইদীর মত চান্দে পাঠায় দিবো………… 😀

      1. যারা ফেল করছে ওদেরকে অভিনন্দন

        যারা ফেল করছে ওদেরকে অভিনন্দন দেন শহিদ ভাই কনফিউজড ওরা আপনারে পাইলে সাইদীর মত চান্দে পাঠায় দিবো………… বত্রিশ পাটি দেখানো হাঁসি

        মন্তব্য পড়ে :হাহাপগে:

        শহিদ ভাই, সাবধান, একেলা পথের পথিক কিন্তু কথাটা খারাপ বলে নাই!!!

  4. যখন ছিলোনা গ্রে ডিঙ সিস্টেম ।
    যখন ছিলোনা গ্রে ডিঙ সিস্টেম । আমারা সেই আমলের ।
    সে যাই হোক । ছোটবেলায় বড়রা বলতো বড় হইয়া কি হবা ?
    আমি ফ্যাল ফ্যাল করে তাকিয়ে থাকতাম । উত্তর খুঁজে পেতাম না ।
    তখন সেই গুরুজনেরা বলতেন, বড় হইয়া ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, পাইলট হইয়ো ।
    — এইসব প্রথাগত চিন্তা এখনো বিরাজমান সমাজে । যেন এই রাষ্ট্রের কবি, শিল্পী ‘র দরকার নেই !!!

  5. এইচ.এস.সি কোর্সটা ৩ বছরের করা

    এইচ.এস.সি কোর্সটা ৩ বছরের করা উচিৎ!!

    :নৃত্য:

    যাই হোক একটা রেজাল্ট একজন মানুষ কেমন সেটা প্রমান করে না। কোন সাব্জেক্টে পড়ছি সেটাও না। এই বিভেদের খ্যাতারে পুড়ি। :মাথানষ্ট:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *