আমার পরী

আমার বউ এখন ঘুমাচ্ছে আর আমি অর মাথার
পাশে বসে বসে মাথায় হাত বুলাচ্ছি হটাত অ ঘুম থেকে জেগে বলল একি করছ ! তুমি ঘুমাও
না ?
-নাহ । ঘুম আসছে না ।
-দুর ও ঘুমাও ।
-অকে বাট তুমি ও আমার মাথায় হাত বুলিয়ে দাও
-আমি পারব না ঢং করতে !
-কি !! এটা ঢং !! পরী পাশে নিয়ে আমি ঘুমাব আর পরীর
হাত টা আমার মাথায় থাকবে না !!! এটা কেম্নে হয় ?



আমার বউ এখন ঘুমাচ্ছে আর আমি অর মাথার
পাশে বসে বসে মাথায় হাত বুলাচ্ছি হটাত অ ঘুম থেকে জেগে বলল একি করছ ! তুমি ঘুমাও
না ?
-নাহ । ঘুম আসছে না ।
-দুর ও ঘুমাও ।
-অকে বাট তুমি ও আমার মাথায় হাত বুলিয়ে দাও
-আমি পারব না ঢং করতে !
-কি !! এটা ঢং !! পরী পাশে নিয়ে আমি ঘুমাব আর পরীর
হাত টা আমার মাথায় থাকবে না !!! এটা কেম্নে হয় ?
-দেখো আমাকে পরী বলবা না কিন্তু ,
-কেনো ??
-আমার মুখ সুন্দর না । কত বিস্রি এই দেখো মুখে কত
কিছু গুটাগাটা !!!
এই বলে বউ তার মুখ টা আমার মুখের সামনে আনল
দেখাতে ।
তার টকটকে ঠুঠ দুটুর লোভ আমি আমি সামলাতে পারলাম না ।
চুমু খেলাম ১-৩ সেগেন্ডের ।
হচকচিয়ে পিছনে সরে গেলো সরে গেলো বউ ।
-একি করো ।
-বাহ রে আমার বউ আমি চুমু ও খেতে পারব না !!
-না পারবা না ।
-কেনো ?
-জানি না ।
-চুমু খেলে কি দোষ ?
-জানি না ।
-আচ্ছা চুল টা একটু ধরি ???
-জানি না
আমি চুল ধরলাম !!
ও চুখ দুটু বন্ধ করে ফেলল । আমি দেখছি বউয়ের
চোখের নিচে চিক চিক করছে দু ফোটা জল ।
আমি দেখেও খেয়াল করলাম না ।
বললাম তুমার আগের
বয়ফ্রেন্ডের কথা মনে পড়ছে ??
কথা বলল না ।
আমি ঘাড়ে হাত রাখলাম
– তুমার শরীর গরম কেনো ?
-জানি না !
দেখি জ্বর
-একি তুমার ত দেখি জ্বর !!!
-কি হল কথা বল ???
আমার জ্বর ঠিক না !! এম্নি তেই গরম ।
-অ । আচ্ছা আজকে ব্রিস্টিতে ভিজেছিলে ?
বউ কোনো কথা বলল না চুপ করে আছে ।
আমি জানি তার চুপ করে থাকা মানে সে ভিজেছে !
আর
এখন অনুতাপ করছে ।
আমি তাকে জড়িয়ে ধরতে চাইলাম কিন্তু সরিয়ে দিলো ।
বলল
-তুমার কি এসব ছাড়া আর কোনো কাজ নেই ??
-আছে ত !
-তাইলে করো গিয়ে । আমায় ডিস্টার্ব করো না ।
আমি বিছানা থেকে উঠে গেলাম । বউ বলল
-সত্যি সত্যি এত রাতে কাজ করতে যাচ্ছ ???
আমি ড্রেসিং টেবিলের উপর থেকে তৈলের ডিব্বা টা আর
চিরুনি নিয়ে বিছানায় আসলাম ।
-আচ্ছা তুমি এই কাজ গুলা কোথা থেকে শিখলে ?
আমি গম্ভির । কথা বলতে ইচ্ছে করতেছে না । তার
মাথার পাশে বসলাম । ও মিটিমিটি হাসছে ।
আমি তার মাথা টা আমার উরুর উপর শুয়ালাম । চুল
গুলো অনেক লম্বা । মাথার নিচ থেকে বের
করতে সে নিজে মাথা তুলে সাহায্য করল । চুলে তৈল
মাখিয়ে চিরুনি দিয়ে আচড়ানো শুরু করলাম । চুল
গুলো খুবই সফট তাই আচড়াতে ও ভাল লাগছে ।
সে এখন ও হাসছে । তবে চোখ বন্ধ
-জানো শাহান !! তুমার মত স্বামী সব
মেয়ে পেলে পার্লার বিজনেস বন্ধ হয়ে যাবে ।
-আমি একজন ই । তাই সব মেয়ের স্বামি হতে পারব না ।
-আচ্ছা হয়ও না । শুধু আমার স্বামি থেকো ! সারা জিবন

-না থাকব না ।
বলেই চুল টা বেঁধে দিলাম । খুব গোল গোল
লাগছে তাকে দেখতে ।
আমি এই পরিস্থিতিতে হটাত লজ্জা পেয়ে গেলাম । এত
সুন্দর বউ আমার বিশ্বাস ই যেন হচ্ছিলো না ।
আমি শুয়ে পড়লাম । আমার হাতে এখন ও তৈল
লাগানো আছে ওই হাত টা নিয়ে সে তার উপর রাখল ।
বলল
-কোনো দুস্টমি না । এই ভাবে ঘুমাও । হাত
নড়াবে ত সাহিনের কাছে চলে যাবো ।
আমি হাত নড়ানোর ভায়ে হোক আর তার এই সুন্দর
মুখের কারনেই হোক বা অই নারিকেল তৈলের গন্ধে হোক
আমি ঘুমাতে পারলাম না । হাত ও নড়াচ্ছি না ,
জানি কখনই যাবে না তার পর ও যদি চলে যায় ।
আমি এখন ও
চেয়ে আছি প্রিথিবির সবচেয়ে সুন্দর জিনিসের দিকে।

৯ thoughts on “আমার পরী

  1. চেয়ে আছি প্রিথিবির সবচেয়ে

    চেয়ে আছি প্রিথিবির সবচেয়ে সুন্দর জিনিসের দিকে।

    — এটি আপনার অনুগল্পের শেষ লাইন । জিনিস শব্দটা ব্যবহার করে সুন্দর কে বলাৎকার করে ফেললেন ।
    এরপর থেকে খিয়াল করে ব্রাদার । আর বানানের ব্যাপারে আতিক ভাই বলে দিয়েছেন ।

  2. ভালোয় লাগলো ভবিষ্যতে বউয়ের
    ভালোয় লাগলো ভবিষ্যতে বউয়ের সাথে আপনার রোমান্টিক অভিজ্ঞতা শেয়ার করব …………… 😀

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *