বাংলাদেশের ভাস্কর্য- ছবি ব্লগ

ছবি ব্লগ বানাতে আমার বরাবরই ভাল লাগে আর তা যদি হয় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংবলিত তাহলেতো আগ্রহের সর্বচ্চটুকু কাজ করে। আমাদের দেশের ভাস্করযসমুহ স্বাধীনতা যুদ্ধের স্মৃতি বহন করে। আর তাই মুক্তিযুদ্ধের ওপর নির্মিত ভাস্কর্যসমূহের কিছু ছবি তুলে ধরা হোল। পরবর্তীতে এই নিয়ে আরও পোস্ট দেয়ার আশা আছে।


কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ গেইটের সামনে অবস্থিত ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি ভাষা আন্দলনের জন্যে নিহত শহীদদের উদ্দেশ্যে নির্মিত। স্থপতি হামিদুর রহমান।


জাতীয় স্মৃতি সৌধ


ছবি ব্লগ বানাতে আমার বরাবরই ভাল লাগে আর তা যদি হয় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংবলিত তাহলেতো আগ্রহের সর্বচ্চটুকু কাজ করে। আমাদের দেশের ভাস্করযসমুহ স্বাধীনতা যুদ্ধের স্মৃতি বহন করে। আর তাই মুক্তিযুদ্ধের ওপর নির্মিত ভাস্কর্যসমূহের কিছু ছবি তুলে ধরা হোল। পরবর্তীতে এই নিয়ে আরও পোস্ট দেয়ার আশা আছে।


কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ গেইটের সামনে অবস্থিত ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি ভাষা আন্দলনের জন্যে নিহত শহীদদের উদ্দেশ্যে নির্মিত। স্থপতি হামিদুর রহমান।


জাতীয় স্মৃতি সৌধ

জাতীয় স্মৃতিসৌধ বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে নিবেদিত একটি স্মারক স্থাপনা। এটি সাভারে অবস্থিত। এর নকশা প্রণয়ন করেছেন স্থপতি সৈয়দ মাইনুল হোসেন।


মুজিবনগর স্মৃতিসৌধ

১৯৭১ সালের ১৭ই এপ্রিল মেহেরপুর জেলার মেহেরপুর সদর থানার( বর্তমান মুজিবনগর উপজেলা) বৈদ্যনাথতলার অম্রকাননে বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকারের শপথ গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। ঐতিহাসিক শপথগ্রহনের স্থানে মুজিবনগর স্মৃতিসৌধ নির্মিত হয়েছে।


বঙ্গবন্ধু স্কোয়ার মন্যুমেন্ট – উত্তর-পশ্চিম কোণ থেকে

বঙ্গবন্ধু স্কোয়ার মন্যুমেন্ট ঢাকার বঙ্গবন্ধু এভিন্যিঊতে অবস্থিত, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি শেখ মুজিবর রহমান-এর একটি স্মারক ভাস্কর্য। মার্চ ৪, ২০০০ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর ফলক উন্মোচন করেন। স্থানটি গুলিস্তানের মোড় হিসেবে পরিচিত।


স্বোপার্জিত স্বাধীনতা

বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সড়কদ্বীপে রয়েছে স্বোপার্জিত স্বাধীনতা ভাস্কর্যটি। ১৯৮৮ সালের ২৫ মার্চ এ ভাস্কর্যটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। এ ভাস্কর্যের নির্মাতা চারুকলা ইনস্টিটিউটের শিক্ষক অধ্যাপক শামীম সিকদার।


জাগ্রত চৌরঙ্গী

মুক্তিযুদ্ধের মহান শহীদদের অসামান্য আত্মত্যাগের স্মরণে নির্মিত ভাস্কর্য। ভাস্কর আবদুর রাজ্জাক জাগ্রত চৌরঙ্গীর ভাস্কর। এটি ১৯৭৩ সালে নির্মাণ করা হয়। মুক্তিযুদ্ধের প্রেরণায় নির্মিত এটিই প্রথম ভাস্কর্য।১৯৭১ সালের ১৯ মার্চের আন্দোলন ছিল মুক্তিযুদ্ধের সূচনাপর্বে প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধযুদ্ধ। আর এই প্রতিরোধযুদ্ধে শহীদ হুরমত উল্যা ও অন্য শহীদদের অবদান এবং আত্মত্যাগকে জাতির চেতনায় সমুন্নত রাখতে জয়দেবপুর চৌরাস্তার সড়কদ্বীপে স্থাপন করা হয় দৃষ্টিনন্দন স্থাপত্যকর্ম জাগ্রত চৌরঙ্গী।


সংশপ্তক

সাভারের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৯০ সালের ২৬ মার্চ নির্মিত হয়েছিল স্মারক ভাস্কর্য সংশপ্তক। এ ভাস্কর্যটির মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে যুদ্ধে শত্রুর আঘাতে এক হাত, এক পা হারিয়েও রাইফেল হাতে লড়ে যাচ্ছেন দেশমাতৃকার বীর সন্তান। যুদ্ধে নিশ্চিত পরাজয় জেনেও লড়ে যান যে অকুতোভয় বীর সেই সংশপ্তক। কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এক পায়ে ভর করে দাঁড়িয়ে আছে ভাস্কর্যটি। এর ভাস্কর হামিদুজ্জামান খান।


অপরাজেয় বাংলা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের সামনে বন্দুক কাঁধে দাঁড়িয়ে থাকা তিন নারী-পুরুষের ভাস্কর্য যেটি সর্বসত্মরের মানুষের স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে সেটি ‘অপরাজেয় বাংলা’।স্বাধীনতার এ প্রতীক তিলে তিলে গড়ে তুলেছেন গুণী শিল্পী ভাস্কর সৈয়দ আব্দুলস্নাহ খালিদ।


সাবাস বাংলাদেশ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক দিয়ে ঢুকে নিতুন কুণ্ডুর তৈরি ‘সাবাস বাংলাদেশ’ নামের ভাস্কর্য দেখা যায়। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় অনেক শিক্ষক-ছাত্র শহীদ হওয়ায় এর স্মৃতিকে চির অমস্নান করে রাখার জন্য এটি নির্মাণ করা হয়।রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের উদ্যোগে শিল্পী নিতুন কুণ্ডুর উপস্থাপনায় নির্মাণ কাজ শুরম্ন হয়। নির্মাণ কাজ শেষে ফলক উন্মোচন করেন শহীদ জননী জাহানারা ইমাম।

১০
বিজয় ৭১

১৯৭১ সালের মহান মুক্তি সংগ্রামে বাংলার সর্বসত্মরের জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মূর্ত প্রতীক হয়ে আছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধের স্মরণে নির্মিত ভাস্কর্য ‘বিজয় ‘৭১’। বিখ্যাত ভাস্কর্য শিল্পী শ্যামল চৌধুরীর তত্ত্বাবধানে ‘বিজয় ‘৭১’ ভাস্কর্যটি নির্মিত হয়।

১১
বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ

শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে নির্মিত হয় বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ। এটি ঢাকার মীরপুরে অবস্থিত। স্মৃতিসৌধটির স্থপতি মোস্তফা হালি কুদ্দুস।

১২
মোদের গরব

ভাষা শহীদদের স্মরণে বাংলা একাডেমী প্রাঙ্গনে প্রতিষ্ঠিত “মোদের গরব” ভাস্কর্য। ভাস্কর অখিল পাল

১৩
ঐতিহাসিক মুজিবনগরের আরেকটি ভাস্কর্য

২১ thoughts on “বাংলাদেশের ভাস্কর্য- ছবি ব্লগ

  1. অনেক সুন্দর একটা পোষ্ট ভালো
    অনেক সুন্দর একটা পোষ্ট ভালো লাগলো আর আমি গর্বের সাথে বলতে পারি আমি বাঙালি ……… :salute:

  2. অনেক সুন্দর একটি পোস্ট
    অনেক সুন্দর একটি পোস্ট ।আপনাকে অজস্র ধন্যবাদ ।আগামী পোস্টে ঢাকার বাইরের প্রত্যন্ত এলাকার ভাস্কর্যগুলিরও ছবি এবং বর্ননা থাকবে আশা করি ।

  3. সৌ রভ,
    আপনাকে ধন্যবাদ

    সৌ রভ,
    আপনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এই চমৎকার পোস্ট টির জন্য !!!
    কিন্তু ” স্বোপার্জিত স্বাধীনতা ” ভাস্কর্য ও এর স্থান নিয়ে আমার
    কনফিউশন তৈরি হয়েছে । আমার ইন্দ্রিয় বলছে কোথাও একটা ভুল হচ্ছে !!!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *