ক্ষুদার্থ মানব

“এই ছেলে, এই! সমস্যা টা কি তোমার হ্যাঁ??”

বাজখাই গলায় চেঁচিয়ে উঠলেন মোতাহের সাহেব, তাঁর হাতে সদ্য কেনা ইফতারের প্যাকেট। গুলিস্তানের ব্যস্ত ইফতারের বাজার, কোলাহলের তুঙ্গে থাকা পরিবেশে এত জোরে কথা বললেও পাশের মানুষটি শুনতে পায় না। সবাই ব্যস্ত নিজের সন্ধ্যার টেবিলের ভূরি ভোজনের যোগানের ব্যবস্থা করার জন্য… “এই নিয়া যান, চাপ ৫০/১০০/২০০। ও ভাই, শেষ হইয়া গেলো গ্রিল… লইয়া যান লইয়া যান, আলুনি, পেঁয়াইজু, বেগুনি… আসেন আসেন”। বিক্রেতারাও কম যায় না চেঁচানোর পাল্লায় কম যায় না!

এত চেঁচামেচির মাঝে রাহাত অলস ভঙ্গিতে মোতাহের সাহেবের দিকে তাকায়,


“এই ছেলে, এই! সমস্যা টা কি তোমার হ্যাঁ??”

বাজখাই গলায় চেঁচিয়ে উঠলেন মোতাহের সাহেব, তাঁর হাতে সদ্য কেনা ইফতারের প্যাকেট। গুলিস্তানের ব্যস্ত ইফতারের বাজার, কোলাহলের তুঙ্গে থাকা পরিবেশে এত জোরে কথা বললেও পাশের মানুষটি শুনতে পায় না। সবাই ব্যস্ত নিজের সন্ধ্যার টেবিলের ভূরি ভোজনের যোগানের ব্যবস্থা করার জন্য… “এই নিয়া যান, চাপ ৫০/১০০/২০০। ও ভাই, শেষ হইয়া গেলো গ্রিল… লইয়া যান লইয়া যান, আলুনি, পেঁয়াইজু, বেগুনি… আসেন আসেন”। বিক্রেতারাও কম যায় না চেঁচানোর পাল্লায় কম যায় না!

এত চেঁচামেচির মাঝে রাহাত অলস ভঙ্গিতে মোতাহের সাহেবের দিকে তাকায়,

“আমাকে বলছেন?” আয়েশ করে খেতে থাকা কাবাব চিবুনোতে কিছুটা ছেদ পড়ে তার।

“হ্যাঁ তোমাকেই! রোজার মধ্যে এসব খাচ্ছো কেনো এত মানুষের সামনে অসভ্যের মতো? কি বিধর্মী নাকি!! মুসলমান হলে তো এমন করতে না!”

সামান্য ভ্রুক্ষেপ না করেও রাহাত হাতের কাবাবে আরেকখানা কামড় বসায়, ১০০ টাকা দিয়ে কেনা শাহী কাবাব। অদ্ভুত টেস্ট! দুটো কিনেছে সে, একটা ক্ষিদের ঠেলায় এখনই সাবাড় করছে, আরেকটা রাতের বেলা খাবে…

মোতাহের সাহেবের চোখ লাল হয়ে যাচ্ছে। রাহাতের দিকে আরেকবার ভালো মত তাকান তিনি, উশকো খুশকো চুল, ছেঁড়া ফাটা টি সার্ট আর হাফ প্যান্ট থেকে বের হয়ে আসা রোমশ পা দুটো যেন তাকে মূহুর্তে মূহুর্তে অপমান করছে…

“কথা কানে যায় না বেয়াদব?? এখানে সবাই ইফতারের জন্য খাবার কিনছে আর তুমি এখনই সবার সামনে দেখিয়ে দেখিয়ে খাচ্ছো? তোমার সাহস তো কম না!”

“আপনি তো আপনার ক্ষিদে মেটানোর জন্যই খাবার কিনছেন নাকি? আমার ক্ষুদা বেশি পেয়েছে তাই এখন খাচ্ছি! আপনি আপনার ক্ষুদা ধরে রেখে পরে খাবেন, এইতো আর কিছু না! আর আমি মুসলমান, রোজা রাখি না…”

মোতাহের সাহেব কাঁপছেন, রাগে তাঁর প্রেসার বাড়ছে। এতটা বেয়াদবি তাঁর সহ্য হচ্ছে না। মস্তিষ্কের নিউরন বার বার আলোড়িত হচ্ছে, এই ছেলেটাকে কিছু একটা করতে হবে!

সেই সময় এক টা রোগাপাতলা ছেলে এসে মোতাহের সাহেবের পাঞ্জাবী ধরে টান দেয়-

“স্যার, কিসু দিয়া যান। কিসু খাই নাই সক্কাল থিকা!” নিষ্পাপ চোখদুটোয় অসহায় আকুতি ফুটে উঠে!

আর পারেন না মোতাহের সাহেব, রাহাতের উপরের রাগ ঝেড়ে বসেন ছেলেটার উপরে। সশব্দে এক চড় মারেন ছেলেটার গালে। ছিঁটকে পড়ে যায় সে…

রাহাত এবার সরে এসে ছেলেটাকে উঠায়। কাঁদছে সে- ব্যাথার চোটে,ক্ষুদার জ্বালায়।

“এই নে, এটা নিয়ে যা। আর কাঁদবি না… যাহ খেয়ে নে।”

প্যাকেটে থাকা অন্য কাবাব টা দিয়ে ছেলেটাকে বিদেয় করে রাহাত… হাতের কাবাবটুকু তে শেষ কামড় বসায় সে। মোতাহের সাহেব হতভম্বের মতো দাঁড়িয়ে আছেন, হাতে তার ইফতারের প্যাকেট… প্যাকেটের মধ্যে বড় বাপের পোলায় খায়, কিমা পরটা আর গ্রিল।

“আপনার রোজা খোদা কবুল করুক, ভালো থাকবেন”।

সরে আসে রাহাত, আস্তে আস্তে মোতাহের সাহেব মুখটা দূরে সরে যেতে থাকে। দু’দিন উপোস থাকার পর আজই প্রথম পেটে কিছু জুটলো রাহাতের। বন্ধু ফাহাদের কাছে ২৫০ টাকা পেত, সেটা দুপুরে নিয়ে এসে গুলিস্তানে এসেছে খাবার কিনতে। বেতনের যা টাকা ছিল, মানিব্যাগ সুদ্ধু সে টাকা ছিনতাই হয়ে গেছে কিছুদিন আগে।

ভাত ডাল এসব ছাইপাস আর ভালো লাগে না তার, সামান্য শাহী খাবার টেস্ট না করলে কি ই বা বাকি থাকে জীবনের।

পকেট থেকে গোল্ডলিফ বের করে ধরায় সে, আর ভাবে- আধা খাওয়া কাবাব টুকু শেষ না করে মোতালেব সাহেব কে দিয়ে দিলেই অনেক ভালো হতো। অন্ততঃ তার ইফতারের টেবিল টা আরো সমৃদ্ধ হতো কিছুটা!!

১৭ thoughts on “ক্ষুদার্থ মানব

  1. আপনার উদ্যেশ্যটা কিঞ্চিত
    আপনার উদ্যেশ্যটা কিঞ্চিত অন্যায়ভাবে ফোকাস করেছেন।তবে লিখাটা বেশ ভাল।

    1. অন্যায়া কোথায় মনে হলো শহিদ
      অন্যায়া কোথায় মনে হলো শহিদ ভাই? আমাদের চারপাশে এরকম ঘটনা অহরহই ঘটে। অনেকের কাছেই রোজার উদ্দেশ্যের চেয়ে রোজার লোক দেখানো নিয়ম কানুনই বড়।

      1. আতিক ভাইয়ের কথার সাথে
        আতিক ভাইয়ের কথার সাথে সহমত……… অন্যায়ের কিছুই চোখে পড়েনি । বাস্তবতার সাথে যথেষ্ট মিল আছে ……

    1. তাড়াহুড়ায় লেখা, তাও অনেক দিন
      তাড়াহুড়ায় লেখা, তাও অনেক দিন পর! যা দাঁড়াইসে, তাতেই খুশি!!
      :ধইন্যাপাতা: আতিক ভাই!! 😀 😀

  2. ভাই কিহা করলেন!!!!!
    একদম

    ভাই কিহা করলেন!!!!!
    একদম ল্যাংটা করে ছেড়ে দিলেন!!!!
    :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া: :তালিয়া:
    bravo…

  3. হ্যাঁ তোমাকেই! রোজার মধ্যে

    হ্যাঁ তোমাকেই! রোজার মধ্যে এসব খাচ্ছো কেনো এত মানুষের সামনে অসভ্যের মতো? কি বিধর্মী নাকি!! মুসলমান হলে তো এমন করতে না!”

    এমন সমস্যায় পরতে হয় আমাদের। কোন দোষ করি আর না করি সংখ্যা লঘু ও বিধর্মির ট্যাগ…

    লিখা টা খুব ই ভাল লেগেছে। বাস্তবতা টা তুলে ধরেছেন।

    প্যাকেটের মধ্যে বড় বাপের পোলায় খায়, কিমা পরটা আর গ্রিল।

    বড় বাপের পোলায় খায় এটা কি জিনিস??

    1. উপরের অভিজ্ঞতাটা আমারই
      উপরের অভিজ্ঞতাটা আমারই ঘটেছে… বাকি টুকু তো আর বলার প্রয়োজন নেই!

      খুবই বিস্বাদ একটা খাবার, অন্ততঃ আমার কাছে মনে হয়েছে। খাসির মাংসের সাথে হরেক পদের ডাল মিশিয়ে বানায়। আকাশচুম্বী দাম!! :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি: :ক্ষেপছি:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *