অবকাঠামো খাত আঞ্চলিক মানেও নেই বাংলাদেশ

শুধু ১৫ আগস্ট পালন করে কাঙ্গালি ভোজের আয়োজন করলেই চলবে নাকি দেশের স্বার্থে দশের স্বার্থে আপনারাও কিছু করে দেখাবেন ? অন্তত বিদ্যুৎ বিভাগের এই অনিয়ম আর দুর্নীতি নিয়ে দুইটা কথা বলেলেও আজ আমাদের মতো দেশের সাধারণ জনগনদের মনে শান্তি আসতো। বাংলাদেশের বিদ্যুৎ খাতে যে অনিয়ম আর দুর্নীতি চলমান রয়েছে তা মনে হচ্ছে স্বাস্থ খাতের অনিয়ম আর দুর্নীতির চাপেই চাপা পড়ে যাবে। দেশের সাধারণ জনগনের কষ্টে অর্জিত টাকা মিটারের রিডিং এর দ্বিগুন এমনকি তিনগুন রিডিং বিলের কাগজে তুলে হাতিয়ে নেওয়া এই বিদ্যুৎ বিভাগ হয়তো আড়ালেই থেকে যাচ্ছে চিন্তার কোন কারণ নেই।

এইতো কয়েকদিন আগে কোথাও হয়তো একটা প্রতিবেদনে দেখেছিলাম, এরকম ভূতুড়ে বিল করার কারণে বিভিন্ন গ্রাহকদের করা অভিযোগের ভিত্তিতে বিদ্যুৎ বিভাগের হর্তা কর্তারা একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছিলো আর সেই তদন্ত কমিটির তদন্ত শেষে প্রচার করা প্রতিবেদনে দেখানো হলো উপর মহলের নির্দেশেই এমন ভুতুড়ে বিল তৈরি করে জনগনের টাকা লুট করার কৌশল অবলম্বন করেছিলেন এই বিদ্যুৎ বিভাগ। আর তারা সেটা করেছিলেন ঈদের আগে যাতে করে বোনাস পেতে পারেন তাই। জানিনা বিদ্যুৎ বিভাগের যারা সাধারণ জনগনের কষ্টে অর্জিত টাকা অতিরিক্ত রিডিং দেখিয়ে তুলেছেন তারা ঈদের বোনাস পেয়েছেন কিনা।

পরবর্তিতে তাদের কি হয়েছে সেসব খবর আর কোথাও প্রকাশ পায়নি তবে আমার ধারনা যে উপরের মহল থেকে তাদেরকে এমন নির্দেশ দেওয়া হয়েছিলো তারা নিশ্চয় সহী সালামতেই তাদের চেয়ারে বসে আছেন। প্রশ্ন হচ্ছে বিদ্যুৎ খাতে কি এই একটাই অনিয়ম আর দুর্নীতি নাকি আরো আছে ? তাহলে আরেকটি প্রতিবেদনের কথা উল্লেখ করি এখানে। অবকাঠামো নিয়ে সম্প্রতি বিশ্বব্যাংকের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ খাতের দুরবস্থা বর্তমানে চরমে। এছাড়াও সেখানে পানির সংযোগ এবং সড়ক ব্যাস্থাপনার মানের উপর ভিত্তি করে বাংলাদেশের বর্তমান অবস্থা দেখানো হয়েছে “আঞ্চলিক মানেও নেই বাংলাদেশ”।

অর্থ্যাৎ প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে গড়ে ১২৫ দিন বা ৪ মাস ৫ দিন অথবা তারও বেশি সময় লাগে। কথাটি কিন্তু একদম সত্য কথা, যারা এখানে ব্যবসায়িক বিদ্যুৎ সংযোগ নিতে গিয়ে দরজায় দরজায় ঘুরেছেন তারা হয়তো আমার থেকেও বিষয়টি ভালো জানবেন। এখানে এসেই খটকা লেগে যাবার কথা দেশ নাকি এখন সিঙ্গাপুরের থেকেও উন্নত হয়েছে কথাটি শুনে। দুঃখের বিষয় হচ্ছে দেশে এতো এতো নেতা, মন্ত্রী, মিনিস্টার এবং সেই সাথে তাদের চেলাবেলারাও তো কম নেই তারা আসলে কি করে ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *