সিমপ্যাথির প্রকাশ নাকি প্রতিভার বিকাশ ……???

বর্তমান সময়ে টিভি প্রোগ্রাম সমুহের মধ্যে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে রিয়েলটি শো সমুহ যা আগেও ছিলো এখনো আছে আর বরাবরের মতো বিভিন্ন প্রতিভা অন্বেষণের প্রোগ্রাম সমূহ সবসময় দর্শকদের দৃষ্টি কেড়ে নিতে সক্ষম ।। তার মধ্যে আবার গানের জন্য পরিচালিত রিয়েলিটি শো সমূহ সবসময় মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে ।। বর্তমান বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদের বাংলাদেশ ও পিছিয়ে নেয় ২০০২ সালে শুরু হওয়া আমেরিকান আইডল এর সাথে মিল রেখে ২০০৫ সালে আমাদের দেশে সর্বপ্রথম সঙ্গীত প্রতিভার অনুষ্টান আয়োজন করা হয় যার নাম “ক্লোজ আপ ওয়ান- তোমাকেই খুজছে বাংলাদেশ”।। অনেক সারাজাগানো একটা রিয়েলিটি শো আয়োজনের মাধ্যামে আমাদের আমাদের দেশের প্রতিভা অনুসন্ধানের নতুন দ্বার উন্মোচিত হয় ।। অনেকটা দাপটের সাথে এই অনুষ্টান সফলতার সাথে এগিয়ে যায় ফাইনাল পর্যন্ত ।। আমি মুটামুটি একজন নিয়মিত দর্শক ছিলাম এই অনুষ্টানের প্রায় প্রতিটি পর্ব দেখতাম খুব মনযোগ সহকারে ।। অধীর আগ্রহ নিয়ে ফাইনাল পর্ব দেখতে বসলাম অনেক প্রতিযোগীর মধ্যে থেকে ৩ জন ফাইনালে এসে মুখোমুখি নোলক বাবু, রাজিব এবং বিউটি ।। মুটামুটি অনেকটা নিশ্চিত ছিলাম রাজিবের জয়ের ব্যাপারে আর ছিলাম সম্পূর্ণ আশাবাদী ।। কিন্তু ভয় ছিলো মানুষের সিমপ্যাথির কাছে যদি প্রতিভা হেরে যায় তাই নিয়ে এবং হল ও তাই রাজিবকে পেছনে ফেলে নোলক বাবু ১ম হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করে দর্শকদের ভোটে নির্বাচিত হয় !! সেদিন অবাক হয়ে গিয়েছিলাম আক্ষেপ করেছিলাম নিজের প্রিয় শিল্পীর মাথানত দেখে ।। দর্শকদের ভোটে নোলক বাবু প্রথম স্থান অধিকার করলেও বিচারকদের ভোটে কিন্তু এগিয়ে ছিলো রাজিব ।। নোলক বাবুর প্রথম হওয়ার পিছনের রহস্য হল নোলক বাবু ছিলেন গরীব ঘরের ছেলে গান খুব একটা শেখার সাধ্য হয়ে উঠেনি তার কিন্তু তার গানের কন্ঠ ভালো আমিও স্বীকার করছি কিন্তু সিমপ্যাথি দিয়ে কি আর প্রতিভা যাচাই করা যায় ?? তখনকার বিচারকগন কিন্তু প্রতিভা যাচাই করতে ভুল করেননি ।। যাই হোক সিমপ্যাথির কাছে প্রতিভার পরাজয় দেখে দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে আপত্তিজনকভাবে মেনে নিতে হল নোলক বাবুকে ।। এর পরের বছর মানে ২০০৬ সালে “ক্লোজ আপ ওয়ান- তোমাকেই খুজছে বাংলাদেশ” এর দ্বিতীয় অধ্যায়ের সূচনালগ্ন থেকে আবারো সিমপ্যাথির আবির্ভাব দেখেও মনে করেছিলাম মানুষ হয়তোবা এইবার সেরা প্রতিভা যাচাই করতে ভুল করবেনা কিন্তু আমার আশঙ্কা আবারো ভুল প্রমাণিত করে সেই সিমপ্যাথির জয়জয়কার !! আবারো হতাশার চাদরে মুখ লুকালাম আমি এবং আবারো সিমপ্যাথির কাছে প্রতিভা হার মানলো !! আমার এত্ত কথার একটায় কারন এখন দেখলাম বাংলাদেশী আইডল শুরু হয়েছে ।। অনেক প্রতিযোগীকে দেখলাম কান্নাকাটি করে বিচারকদের কাছ থেকে সিমপ্যাথি আদায় করছে ।। আর কিছু কিছু প্রতিযোগীকে দেখলাম বিভিন্ন প্রকার খাবারের আইটেম নিয়ে হাজির হতে !! মাঝে মাঝে মনে কুইশ্চেন আসে ইনারা কি আসলেই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে আসছে নাকি নাটক করতে আসছে ?? উনাদের প্রতি আমার উদাত্ত আহবান যদি সিমপ্যাথি নিতে চাও তাহলে এখানে আসছো কেন কোন মাজার অথবা মন্দিরের সামনে বসে গেলেই তো হয় অনেক সিমপ্যাথি পাবা ।। গত একটা পর্বে দেখেছিলাম একটা মেয়ে আমাদের সবার পরিচিত একটা জনপ্রিয় গানকে নিজের মত করে সম্পূর্ণ অরিজিনাল সুর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে সবার সামনে উপস্থাপন করে এবং একজন বিচারক তার প্রশংসায় সপ্তমুখ !! আমার কুইশ্চেন হল যদি আসল গান থেকে সরে গিয়ে সেই গানকে নিজের ভাষায় কেউ উপস্থাপন করে তাহলে কি যিনি আসল গানখানা করেছিলেন উনার কি ইজ্জতে হাত পরেনা আর যদি ইজ্জতে হাত পরে তাহলে মহামান্য বিচারকগণ কিভাবে সেই প্রতিযোগীর প্রসংশায় সপ্তমুখ হয় ?? আমি গানের গ বুঝিনা কিন্তু আমি প্রতিদিন ৩/৪ ঘন্টা গান শুনি তাই বলে আমি সঙ্গীত বিশারদ নয় কিন্তু আমাদের দেশে যারা সঙ্গীত বিশারদ এর খাতায় নাম লিখিয়েছেন উনাদের সঙ্গীত জ্ঞান নিয়ে মাঝে মাঝে সংশয় হয় আর নিজের মনে মনে বলে উঠি “অল্প বিদ্যা ভয়ংকর সেটা রবী ঠাকুরের নোবেল এর প্রথম এবং শেষ পাতা হোক অথবা অক্সফোর্ড ডিকশনারির মাঝের এক পাতা হোক” !!

১৫ thoughts on “সিমপ্যাথির প্রকাশ নাকি প্রতিভার বিকাশ ……???

  1. লিখার বিষয় অভিনব ও চমৎকার…
    লিখার বিষয় অভিনব ও চমৎকার… আপনি লিখেছেনও ভাল! :তালিয়া: :তালিয়া:
    বিশ্লেষণও জটিল; তবে শিরোনামেই সব প্রকাশ পাচ্ছে।।
    এইটা লিখকের একটা জটিল গুন আপনার শিরোনাম অর্থবহ আর চমৎকার… :থাম্বসআপ: :থাম্বসআপ:
    ‘সিমপ্যাথির প্রকাশ নাকি প্রতিভার বিকাশ ……’
    আসলেই আমার কাছেও এই প্রশ্নটা খুব গুরুত্বপূর্ণ মনেহয়!!

    1. ধন্যবাদ আপনাকে সুন্দর
      ধন্যবাদ আপনাকে সুন্দর মন্তব্যর জন্য প্রশ্নটা আমি করলাম সমাধানটা সবাই মিলে চিন্তা করলে মন্দ হয়না ……কি বলেন ……? :জলদিকর:

  2. শিরোনামটা দেখে ভাবছিলাম
    শিরোনামটা দেখে ভাবছিলাম বিষয়বস্তু হবে অনকিছু, কিন্তু না! আপনার বিষয়বস্তু দেখে অবাকই হলাম ।

    যাই হোক, আপনি ভাল লিখেছেন ।যতি চিহ্নের ব্যবহার আরেকটু ভাল করার অনুরোধ থাকল ।
    ধন্যবাদ

    1. অন্যকিছু কি মনে করছিলেন আর
      অন্যকিছু কি মনে করছিলেন আর বিষয়বস্তু দেখে অবাক কেনো হয়লেন মাথায় আসিলনা :মাথানষ্ট: ……আর উপদেশের জন্য ধন্যবাদ মাথায় থাকবে ……… :নৃত্য:

  3. সিমপ্যাথির কারণে প্রতিভাবানরা
    সিমপ্যাথির কারণে প্রতিভাবানরা যাতে হারিয়ে না যায়, সে জন্য প্রতিযোগীদের পারিবারিক পরিচয় অনুষ্ঠানে না আনাটাই ভালো।

    1. গেদু চাচা আপনি এইটা কিন্তু
      গেদু চাচা আপনি এইটা কিন্তু আপনি লাখ কথার এক কথা বলেছেন কিন্তু পারিবারিক পরিচয় ছাড়া কিভাবে সম্ভব ?? একটা মানুষ জন্মের পর থেকে বেরে উঠে তার পারিবারিক পরিচয় নিয়ে আর সবাই চায় তার পরিবারের নাম সুনাম বৃদ্ধি করতে ।। সুতরাং এক্ষেত্রে ইহা সম্ভব নয় বলে মনে হয় …… ধন্যবাদ মন্তব্যর জন্য ।।

  4. ভালো লিখেছেন। তবে সিম্প্যাথির
    ভালো লিখেছেন। তবে সিম্প্যাথির প্রকাশটাতেই বিরক্ত লাগে যে শুধু টা না, কিছু আবেগ অনুভূতি আসলেই সত্য। কিন্ত এই আবেগটা নিয়ে খেলা করাটাই রিয়েলিটি শো হিট করানোর আসল উপায়। এদের দেখে মানুষ আনন্দিত হয়, দুঃখ পায়। মানুষ নিজের আবেগকেও আজ বিকিয়ে দেয়। দুঃখজনক আসলেই।

    1. হম আপনার কথায় যুক্তি আছে
      হম আপনার কথায় যুক্তি আছে কিন্তু আবেগ অথবা বিবেক দিয়ে প্রতিভা যাচাই করা যায় বলে মনে হয়না ।। প্রতিভা যাচাই করার জন্য আবেগ এবং বিবেক কে উপরে স্থান না দিয়ে প্রতিযোগীর গুণ এবং মেধাকে উপরে রাখা উচিত কিন্তু আফসুস এর সাথে বলতে হয় বর্তমান সময়ে মেধার গুরুত্ব থেকে অনুষ্টান হিট করানোর গুরুত্ব অনেক বেশি আর আপনার কথা সাথে একমত পোষণ করে বলতে হচ্ছে বিবেক নিয়ে মানুষ খেলতে গিয়ে আজ নিজের আবেগকেও বিকিয়ে দেয় …… ধন্যবাদ আপনাকে সুন্দর মন্তব্যর জন্য :ফুল:

  5. খাবার রান্না করে নিয়ে আসা
    খাবার রান্না করে নিয়ে আসা টাইপ ভড়ং গুলা ভারতীয় চ্যানেল দেখে দেখে শিখছে আমাদের চ্যানেলগুলাও। অসহ্য লাগে এইসব ভড়ং দেখলে। অবশ্য পাবলিক এইগুলা খায় ভালো। দেখেন না ভারতীয় চ্যানেলের রিয়েলিটি শো গুলো কেমন হিট? প্রতিভা অন্বেষণের চেয়ে এখানে চ্যানেলের TRP বাড়ানো বড় উদ্দেশ্য। তাই পাবলিক যেভাবে খাবে সেভাবেই তারা অনুষ্ঠান তৈরি করবে। তবে ভারতীয়রা ব্যবসা আমাদের চেয়েও ভালো বোঝে। তাই ওরা ভড়ং করে ঠিকই, তবে সময়মত প্রকৃত মেধাবীদের বেঁছে নিতে ভুল করে না। এইজন্যই রিয়্যালিটি শো থেকেই সনু নিগম, শ্রেয়া ঘোষালের মতো শিল্পী উঠে আসে। আর আমাদের রাজীবেরা হারিয়ে যায় কালের অতলে।

    1. সুপার এগ্রি আপনার কথার সাথে
      সুপার এগ্রি আপনার কথার সাথে আমি কিছুটা বলতে চায় এখানে ।। আমাদের দেশের ২০০৫ সালের প্রথম ক্লোজ আপ ওয়ান তারকা নোলক বাবু মদ খেয়ে মাতাল অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে বেশ কিছু টাকা জরিমানা দিয়েছেন আর ২০০৬ সালের তারকা সালমা বিয়ে করেছেন ২০১১ সালে কিন্তু ২০০৬ সালে সে ছিলো ক্লাস ৮ এর ছাত্রী ।। এখানে আর একজনের কথা উল্লেখ করতে চায় ইত্যাদি অনুষ্টান খ্যাত আকবর ও কিন্তু তার উত্তরসূরিদের অনুসরণ করতে ভুল করেননি তায়তো বউ বাচ্চা থাকার পর ও চিত্রনায়িকা পূর্ণিমাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে ভুল করেননি ………… :চোখমারা:

  6. সিমপ্যাথির বেড়াজালে আবদ্ধ
    সিমপ্যাথির বেড়াজালে আবদ্ধ পুরা বাঙ্গালী জাতি। জাতীয় নির্বাচনেও এর কোন ব্যতিক্রম নাই। আগামীতেও একই অবস্থা সামনে অপেক্ষা করছে….

    1. নির্বাচন মানেই হল সাধারণ
      নির্বাচন মানেই হল সাধারণ মানুষের নির্বাসন আর এখানে নির্বাচনের আগে সিমপ্যাথি না হলে কি খেলা জমবে ………… ?? :ভেংচি: মন্তব্যর জন্য :ধইন্যাপাতা:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *